সেনেগালকে উড়িয়ে দিয়ে কোয়ার্টারে হ্যারি কেনের দল

  ‘মরুর বুকে বিশ্ব কাঁপে’


স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রত্যাশিত মতোই সেনেগালকে হারিয়ে শেষ বিশ্বকাপের আটে উঠে গেল ইংল্যান্ড। হ্যারি কেনের দল রোববার রাতে জিতল ৩-০ গোলে। অধিনায়ক হ্যারি কেন ছাড়াও ইংল্যান্ডের হয়ে গোল করলেন জর্ডান হেন্ডারসন এবং বুকায়ো সাকা।

বিশ্বকাপে এর আগে সাত বার আফ্রিকার দেশের বিরুদ্ধে খেলেছে ইংল্যান্ড। তবে এই প্রথমবার সেনেগালের বিরুদ্ধে খেলল তারা। শুরুর দিকে সেনেগাল একটু তেড়েফুঁড়ে খেললেও গোল খেতেই গুটিয়ে গেল তারা। প্রথমার্ধেই দু’গোল করে ম্যাচ কার্যত শেষ করে দিয়েছিল ইংল্যান্ড। দ্বিতীয়ার্ধে তারা আরও একটি গোল করল। অ্যালিউ সিসের দলের পক্ষে সেই পরিস্থিতি থেকে ম্যাচে ফেরা সম্ভব ছিল না।

চার মিনিটের মাথায় ম্যাচের প্রথম উল্লেখযোগ্য আক্রমণ অবশ্য সেনেগালেরই। মিডফিল্ড থেকে বল পেয়ে ইংল্যান্ডের গোলের কাছে পৌঁছে গিয়েছিলেন বৌলায়ে দিয়া। কিন্তু হ্যারি ম্যাগুয়ের এসে বল ক্লিয়ার করে দেন। ইংল্যান্ড বল রাখছিল নিজেদের পায়ে। সেই সঙ্গে দুই দিকের উইং ধরে আক্রমণ করছিলেন বুকায়ো সাকা এবং জুড বেলিংহ্যাম। রাহিম স্টার্লিংকে এ দিনের ম্যাচে রাখা হয়নি। প্রথম ২০ মিনিট ইংল্যান্ডের ফুটবলারদের পায়ে ৭০ শতাংশ বল ছিল।

ম্যাচের ৩৮ মিনিটে এগিয়ে যায় ইংল্যান্ড। হ্যারি কেন মিডফিল্ড থেকে বল পেয়ে বাঁ দিকে বাড়িয়ে দেন বেলিংহ্যামকে। তিনি বেশ কিছুটা সামনে এগিয়ে পাস দেন হেন্ডারসনকে। বাঁ পায়ে চলতি বলেই শট নিয়ে গোল করেন হেন্ডারসন। ৩২ বছর ১৭০ দিন বয়সে হেন্ডারসন বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় প্রবীণতম গোলদাতা হলেন।

গোল পেয়েই আগ্রাসী হয়ে ওঠে ইংল্যান্ড। দু’মিনিট পরে সাকার শট বারের উপর দিয়ে উড়ে যায়। ৪৩ মিনিটে এগিয়ে যেতে পারত ইংল্যান্ড। বাঁ দিকে লুক শ একটু বেশি বলটি এগিয়ে নিয়ে গিয়েছিলেন। ফলে ঠিকঠাক ক্রস রাখতে পারেননি। তবে বিরতির আগেই দ্বিতীয় গোল হয়ে যায় ইংল্যান্ডের। প্রতি আক্রমণের আদর্শ উদাহরণ হয়ে থাকতে পারে এই গোল।

এ বারের বিশ্বকাপে প্রথমার্ধে যেখানে বেশির ভাগ দলই গোল দিতে পারছে না, সেখানে ব্যতিক্রম একমাত্র ইংল্যান্ড। গত চারটি ম্যাচে পাঁচটি গোল করেছে তারা প্রথমার্ধে। ৫৬ মিনিটে হ্যারি কেন ৩০ গজ দূর থেকে শট মেরেছিলেন। কিন্তু তা লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। পরের মিনিটেই তৃতীয় গোল করে ইংল্যান্ড। হ্যারি কেন বল হারালেও তা পেয়ে যান ফোডেন। বাঁ দিক ধরে দৌড়তে থাকেন। বক্সে ক্রস ভাসানোর পর প্রথম পোস্ট দাঁড়িয়ে থাকা সাকা অনায়াসে সেনেগাল গোলকিপার এডুয়ার্ড মেন্ডির মাথার উপর দিয়ে বল জালে জড়ান।

তিনটি গোল খেয়ে যাওয়ার পরে সেনেগালের খেলাতেও পাল্টা লড়াই দেওয়ার কোনও মনোভাব দেখা যায়নি।

   

তানজিম সাকিবকে শাস্তি দিল আইসিসি

  ক্রিকেট কার্নিভাল



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রেকর্ড গড়ে দলের জয়ে অবদান রেখেছেন। তবে সেই তানজিম হাসান সাকিব আজ পেলেন একটা দুঃসংবাদ। ম্যাচে ‘অশোভন আচরণ’ করে আইসিসির শাস্তির মুখে পড়েছেন তিনি।
নেপালের বিপক্ষে ম্যাচে প্রতিপক্ষ অধিনায়ক রোহিত পোড়েলের সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে পড়েছিলেন তিনি। সাকিব তার জবাব তো দিয়েছেনই, সঙ্গে রোহিতকে আলতো ধাক্কা দিয়েছেন। পরে আম্পায়ারদের হস্তক্ষেপে বিষয়টা সমাধান হয়।
সে ঘটনার জেরে আজ তানজিম শাস্তি পেয়েছেন। আইসিসি জানিয়েছে, আচরণবিধির ২.১২ ধারা ভেঙেছেন তিনি। যে ধারা মূলত একজন খেলোয়াড়, একজন সাপোর্ট পার্সোনেল, আম্পায়ার, ম্যাচ রেফারি বা অন্য কোনো ব্যক্তির সঙ্গে (আন্তর্জাতিক ম্যাচে একজন দর্শকসহ) অনুপযুক্ত শারীরিক যোগাযোগের সাথে সম্পর্কিত।
তার বিরুদ্ধে আইসিসিতে নালিশটা দিয়েছেন আম্পায়ার আহসান রাজা, স্যাম নোগাজস্কি, সঙ্গে তৃতীয় আম্পায়ার জয়রামন মদনগোপাল এবং চতুর্থ আম্পায়ার কুমারা ধর্মসেনা।
তানজিম সাকিব তার অপরাধ স্বীকার করে নিয়েছেন। যার ফলে প্রয়োজন পড়েনি কোনো আনুষ্ঠানিক শুনানির।

  ‘মরুর বুকে বিশ্ব কাঁপে’

;

তুরস্ককে জেতালেন গুলের



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইউরোয় প্রথমবারের মতো খেলতে এসেছে জর্জিয়া। তাদের পারফর্ম্যান্স দেখে কে তা বলবে? দারুণ ফুটবলের পসরা সাজিয়ে তারা তটস্থ রেখেছিল তুরস্ককে। যদিও শেষমেশ ম্যাচটা জেতা হয়নি তাদের, কারণ তাদের দলে যে আর্দা গুলের নেই! দুই দলের দারুণ পারফর্ম্যান্সের মাঝে পার্থক্যটাই যেন গড়ে দিলেন ১৯ বছর বয়সী তরুণ গুলের। তার গোলেই তুরস্ক ৩-১ ব্যবধানে হারিয়েছে জর্জিয়াকে।
দুই দল শুরু থেকেই উপহার দিয়েছে দুর্দান্ত ফুটবল। ২৫ মিনিটে বক্সের ভেতর থেকে মের্ত মুলদুরের আগুনে এক শটে এগিয়ে গিয়েছিল তুরস্ক।
তবে তার জবাবটা দিতে বেশিক্ষণ সময় নেয়নি জর্জিয়া। জর্জে মিকাওতাজের গোলে ম্যাচের ৩২ মিনিটেই সমতা ফেরায় ইউরোয় অভিষিক্ত দলটা। প্রথমার্ধের গোল ওই দুটোই।
গুলের ম্যাচের পার্থক্যটা গড়ে দেন ৬৫ মিনিটে। বক্সের বাইরে থেকে তার আগুনে এক শট তুরস্ককে এগিয়ে দেয় ২-১ ব্যবধানে।
সেই গোলে পিছিয়ে পড়া জর্জিয়া একটা পয়েন্টের জন্য শেষ পর্যন্ত হন্যে হয়ে ঘুরেছে। তবে শেষমেশ তাদের হজম করতে হয়েছে আরও এক গোল। শেষ মুহূর্তে গোলবার ফাঁকা রেখে গোলরক্ষক গিওর্গি মামার্দাশভিলি বেরিয়ে গিয়েছিলেন, যদি একটা গোল করা বা তাতে সহায়তা করা যায়! উল্টো তিনি খেসারত দিলেন আরও এক গোল খেয়ে। পাল্টা আক্রমণে ফাঁকা বারে গোলটা করেন কারিম আকতুর্কলু। তুরস্ক ম্যাচটা জেতে ৩-১ ব্যবধানে।

  ‘মরুর বুকে বিশ্ব কাঁপে’

;

শ্রীলঙ্কাকে একাই ধসিয়ে দিলেন অর্পিতা



স্পোর্টস ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সিঙ্গাপুরে চলছে অনূর্ধ্ব-২১ এশিয়ান হকি। যেখানে ৭ দলের লিগভিত্তিক টুর্নামেন্টে শীর্ষ চার দল উঠবে অনূর্ধ্ব-২১ এশিয়া কাপের মূল পর্বে। সেই লক্ষ্যে অনেকটাই এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ। লিগপর্বে টানা তৃতীয় জয় তুলেছে বাংলাদেশ। সবশেষ ম্যাচে আজ শ্রীলঙ্কান মেয়েদের ৭-২ ব্যবধানে উড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। যেই ম্যাচে চার গোল করে লঙ্কানদের একাই ধসিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশের নাম্বার টেন অর্পিতা পাল।

প্রথম দুই ম্যাচের মতো এদিনও শুরুতে পিছিয়ে পড়েছিল বাংলাদেশ। তবে গল্পটা ঠিক রাখতে ভুল করেনি লাল-সবুজের মেয়েরা। দ্বিতীয় মিনিটে এগিয়ে যাওয়ার পর ৪ মিনিটের ব্যবধানে ২-১ ব্যবধানে পিছিয়ে পড়া বাংলাদেশ যেন এরপরই নড়েচড়ে বসে।

এরপর ১০ মিনিটে নাদিরা ইমার গোলে সমতায় ফেরার পর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি বাংলাদেশকে। টানা তিন মিনিটে তিন তিন বার লঙ্কানদের জালে বল জড়ায় বাংলাদেশ। ২৯ মিনিটে সোনিয়া ও ৩২ মিনিটে নিজের চতুর্থ ও দলের সপ্তম গোলটি করেন অর্পিতা। বাংলাদেশকে জিতিয়ে হন ম্যাচসেরা।

এর আগে লিগপর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে থাইল্যান্ডকে ৫-৪ গোলে হারিয়েছিলেন বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচে হংকং চায়নার বিপক্ষে জয় পায় ২-১ গোলে। এবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ জয় পেল ৭-২ ব্যবধানে। বাংলাদেশের পরের প্রতিপক্ষ অবশ্য আসরের অন্যতম শক্তিশালী দল চায়নিজ তাইপে। যাদের বিপক্ষে আগামীকাল বুধবার মাঠে নামতে হবে বাংলাদেশকে।

  ‘মরুর বুকে বিশ্ব কাঁপে’

;

দ্বিতীয় ইউরো-জয়ের মিশন রোনালদোর



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বয়সকে স্রেফ একটা সংখ্যা হিসেবে প্রমাণ করে এখনো খেলে যাচ্ছেন পর্তুগিজ মহাতারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। আঠারোর তরুণের মতো এখনো তিনি গোলমুখে অদম্য। চলমান ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে (ইউরো) আজ মাঠে নামছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল।

২০০৪ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত অনুষ্ঠিত সব ইউরো খেলেছেন রোনালদো। এটা তার ষষ্ঠ টুর্নামেন্ট। এরমধ্যে একবার জিতেছেন এই শিরোপা, ২০১৬ সালে। ৩৯ বছর বয়েসি রোনালদো এবার চাইছেন শেষটা রাঙাতে, ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ইউরো জিততে।

আজকের ম্যাচ দিয়ে ইতিহাসের প্রথম ফুটবলার হিসেবে ছয় ইউরো খেলার রেকর্ড গড়তে যাচ্ছেন রোনালদো। টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ ম্যাচ কিংবা সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ডও তার।

ইউরোপ সেরা প্রতিযোগিতায় সর্বোচ্চ ১৪ গোল করেছেন তিনি। জাতীয় দলের হয়ে তিনি ২০৭ ম্যাচে করেছেন ১৩০ গোল, এটাও বিশ্বরেকর্ড।

এবারের ইউরোর বাছাইপর্বে গ্রুপ ‘জি’ থেকে শীর্ষ দল হিসেবে মূল পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে পর্তুগাল। গ্রুপের অন্য দলগুলো ছিল স্লোভাকিয়া, লুক্সেমবার্গ, আইসল্যান্ড, বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা এবং লিচেনস্টাইন। গ্রুপ পর্বের ১০টি ম্যাচেই জয় পেয়েছিল পর্তুগাল। ম্যাচগুলোতে ৩৬ গোল দেওয়ার বিপরীতে গোল খেয়েছিল মাত্র ২টি। বাছাইপর্বে রোনালদো করেছিলেন ১০ গোল।

ইউরোপের ফুটবল ছেড়ে সৌদি আরবের প্রো লিগে নাম লেখানো রোনালদো সদ্য সমাপ্ত মৌসুমে আল নাসরের হয়ে ৩১ লিগ ম্যাচে ৩৫ এবং সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে করেছেন ৪৪ গোল।

রোনালদোর এই ফর্ম তাই তাকে কোচ রবের্ত মার্তিনেজের ভরসা হয়ে ওঠেছে। দল নির্বাচনের সময়ে কোচ তাই উপেক্ষা করতে পারেননি ৩৯ বছর বয়েসি এই সুপারস্টারকে।

কাতার বিশ্বকাপের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে রোনালদোকে বেঞ্চে বসিয়ে রেখেছিলেন তৎকালীন কোচ ফার্নান্দো সান্তোস। এনিয়ে অনেক আলোচনাও হয়েছিল। সান্তোস-অধ্যায় পেছনে ফেলে পর্তুগাল এখন রবের্ত মার্তিনেজে ভরসা খুঁজছে। মার্তিনেজ ভরসা খুঁজছেন তার দলের ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, ব্রুনো ফার্নান্দেজ, বার্নার্দো সিলভা, ভিতিনিয়া, জোতাদের নিয়ে।

কাতার বিশ্বকাপে ব্যর্থ হয়েছিল পর্তুগাল। সেই বিশ্বকাপের স্কোয়াডের বেশিরভাগই আছেন ইউরোর দলে। চল্লিশোর্ধ পেপেকেও দলে রেখেছন মার্তিনেজ। ২০১৬ সালের ইউরো বিজয়ী দলের রোনালদো-পেপে ছাড়াও আছেন আরেকজন, রুই পাত্রিসিও।

ইউরোয় ‘এফ’ গ্রুপে পর্তুগালের প্রতিপক্ষ তুরস্ক, জর্জিয়া ও চেক প্রজাতন্ত্র। ১৮ জুন বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় লাইপজিগে চেক প্রজাতন্ত্রের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে ইউরো অভিযান শুরু করবে ২০১৬ সালে শিরোপাজয়ী পর্তুগাল।

২২ জুন তুরস্ক এবং ২৭ জুন জর্জিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শেষ হবে পর্তুগালের গ্রুপ পর্যায়ের খেলা।

  ‘মরুর বুকে বিশ্ব কাঁপে’

;