ইউক্রেনে রেলস্টেশনে রকেট হামলায় নিহত ২২

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত


আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইউক্রেনের একটি রেলস্টেশনে রাশিয়ার রকেট হামলায় ২২ জন নিহত হয়েছে। ইউক্রেন বলছে, মস্কোর হামলার ছয় মাস পূর্তির দিনে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়, দেশটির পূর্বাঞ্চলের চ্যাপলিন শহরে একটি গাড়িতে পাঁচজন দগ্ধ হয়ে মারা গেছেন। তাদের মধ্যে ১১ বছরের এক শিশুও রয়েছে।

দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেন, জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকের মাঝখানে এই হামলা চালিয়েছে রাশিয়া। এতে প্রায় ৫০ জন আহত হয়েছেন বলে জানান তিনি।

তবে, এই হামলার বিষয়ে রাশিয়া এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি। ক্রেমলিনের পক্ষ থেকে বারবার কোনো বেসামরিক স্থাপনাকে লক্ষ্যবস্তু বানানোর বিষয়টি অস্বীকার করা হয়েছে।

জেলেনস্কি বলেন, তিনি নিরাপত্তা পরিষদে কথা বলার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এমন সময় পূর্বাঞ্চলের দানিপ্রো ও দোনেৎস্কের মাঝে চ্যাপলিনে হামলার বিষয়টি জানতে পেরেছেন তিনি। তিনি বলেন, এভাবেই জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকের প্রস্তুতি নিল রাশিয়া।

জেলেনস্কি আরও বলেন, ট্রেনের চারটি বগিতে আগুন লেগে যায়। হতাহতের সংখ্যা বাড়তে পারে।

এর আগে গত এপ্রিলে রেলস্টেশনে আরেকটি হামলার ঘটনা ঘটেছিল। ওই ঘটনায় ৫০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়।

বুধবার (২৪ আগস্ট) ইউক্রেন তাদের স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করে। স্বাধীনতা দিবসের আগে থেকেই জেলেনস্কি সতর্ক করে বলেছিলেন, রাশিয়া স্বাধীনতা দিবসের উদযাপন ব্যাহত করতে নিষ্ঠুর কিছু করতে পারে।

এর আগে জেলেনস্কি মস্কোর বাহিনীকে জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রকে একটি যুদ্ধক্ষেত্রে পরিণত করার জন্য অভিযুক্ত করেছিলেন। তিনি বলেন, ইউরোপের জনগণকে বিপন্ন করে এবং বিশ্বকে বিকিরণ বিপর্যয়ের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছে রুশ সেনারা।

জাতিসংঘের মহাসচিব বলেন, সংবেদনহীন এ যুদ্ধ ইউক্রেন এবং এর বাইরেও লাখ লাখ মানুষকে চরম দারিদ্র্যের দিকে ঠেলে দিতে পারে।

   

ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের জন্য অর্থায়ন ফের শুরু করবে ইতালি



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের জন্য জাতিসংঘ সংস্থায় ইতালি অর্থায়ন ফের শুরু করবে বলে শনিবার (২৫ মে) জানিয়েছেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আন্তোনিও তাজানি।

রয়টার্স জানিয়েছে, ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ মুস্তাফার সঙ্গে সাক্ষাতের সময় তাজানি এ কথা বলেন।

ইতালির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে তাজানি বলেন, ‘আমি মুস্তাফাকে জানিয়েছি যে, ইতালি সরকার ফিলিস্তিনের জনগণের জন্য মোট সাড়ে তিন কোটি ইউরোর একটি নতুন তহবিলের ব্যবস্থা করেছে। এর মধ্যে ৫০ লাখ ইউরো ইউএনআরডব্লিউএ-তে বরাদ্দ করা হবে।’

এদিকে, গত বছরের ৭ অক্টোবর থেকে চলমান হামাস-ইসরায়েল যুদ্ধে ফিলিস্তিনের রাফাতে দখলদার ইসরায়েলের চলমান হামলা বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন আন্তর্জাতিক বিচার আদালত (আইসিজে)। শুধু তাই নয়, ইসরায়েলি সেনাদের ওই এলাকা ছেড়ে দেওয়ার জন্যও বলা হয়েছে।

শুক্রবার (২৪ মে) হেগ ভিত্তিক জাতিসংঘের সর্বোচ্চ আদালত ইসরায়েলকে এ নির্দেশ দেন। কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

রায়ে আইসিজের প্রধান বিচারপতি নওয়াফ সালাম বলেন, ‘রাফাতে তাৎক্ষণিকভাবে ইসরায়েলের হামলা বন্ধ করতে হবে। ওই এলাকায় ঘিরে এমন কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া যাবে না যাতে অঞ্চলের বাসিন্দারা ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।’

তিনি জানান, রাফায় মানবিক পরিস্থিতি বিপর্যয়কর। তাই যত দ্রুত সম্ভব সেখানে ইসরায়েলি সেনাদের হামলা বন্ধ করতে হবে।

আদালতের বিচারকরা বলেছেন, ইসরায়েল গাজার বাসিন্দাদের নিরাপত্তার ব্যাপারে যেসব প্রতিশ্রতি দিয়েছে এবং রাফা থেকে বাসিন্দাদের সরিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে যে প্রক্রিয়া ব্যবহার করছে সেটিতে তারা সন্তুষ্ট নন।

এর আগে রাফাতে ইসরায়েলের হামলা বন্ধের দাবি নিয়ে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের দারস্থ হয় দক্ষিণ আফ্রিকা। দেশটি দাবি করে, গাজায় ইসরায়েল গণহত্যা চালাচ্ছে ইসরায়েল। এ কারণে সেখানে হামলা বন্ধ করতে হবে।

দক্ষিণ আফ্রিকা আবেদনে বলেছে, রাফাহ শহরসহ গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলিদের সামরিক অভিযান বন্ধে জরুরি পদক্ষেপ নিতে হবে।

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত

;

পূর্ব ইউক্রেনের আরেকটি গ্রাম দখলের দাবি রাশিয়ার



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইউক্রেনের পূর্ব দোনেৎস্ক অঞ্চলের আরেকটি গ্রাম শনিবার (২৫ মে) দখলের দাবি করেছে রাশিয়া।

কিয়েভ জানিয়েছে, উত্তর-পূর্ব খারকিভ অঞ্চল থেকে আক্রমণ জোরদার করছে মস্কো।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, রাশিয়ার সেনারা দোনেস্ক শহরের উত্তরে অবস্থিত আরখানগেলস্কে গ্রামের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে।

রয়টার্স জানিয়েছে, আরখানগেলস্কে গ্রামটি ওচেরেটাইন শহরের ছোট ফ্রন্টলাইনের কাছেই অবস্থিত।

উল্লেখ্য, গত ১০ মে খারকিভ অঞ্চলে আক্রমণ শুরুর পরে সাম্প্রতিক সময়ে সাফল্যের মুখ দেখেছে রাশিয়া।

ইউক্রেনের জেনারেল স্টাফ শনিবার বলেছেন, রাশিয়া বাহিনী ডোনেটস্ক অঞ্চলের পোকরভস্ক শহরের কাছে হামলা জোরদার করেছে।

তিনি বলেন, আরখানগেলস্কে গ্রামের দক্ষিণে কালেনোভ, ইয়াসনোব্রোদিভকা এবং সোকিল গ্রামের কাছে রাশিয়ার গোলার আঘাতে ছয়টি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

ইউক্রেনের পুলিশ জানিয়েছে, ডোনেস্ক অঞ্চলে রাশিয়ার হামলায় তিন বেসামরিক লোক নিহত এবং দুজন আহত হয়েছে। সেখানে শুক্রবার ১,৮০০টিরও বেশি হামলা হয়েছে।

ইউক্রেন বলেছে, তার বাহিনী শনিবার খারকিভ অঞ্চলে দুটি আক্রমণ প্রতিহত করেছে এবং ভোভচানস্ক শহরের কাছে লড়াই অব্যাহত রয়েছে।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, তাদের সেনারা সীমান্তের কাছে দুটি পাল্টা আক্রমণ প্রতিহত করেছে।

খারকিভ অঞ্চলের গভর্নর ওলেগ সিনেগুবভ শনিবার বলেছেন, একটি গাইডেড বোমা দিয়ে কুপিয়ানস্ক-ভুজলোভিয়ের রেলওয়ে কেন্দ্রে হামলা করেছে রাশিয়া। এতে কমপক্ষে পাঁচজন আহত হয়েছে।

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত

;

তাইওয়ানের চারপাশে সামরিক মহড়া শেষ করলো চীন



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

তাইওয়ানের চারপাশে দুই দিনের সামরিক মহড়া শেষ করেছে চীন। এই সামরিক মহড়ায় চীনের যুদ্ধবিমান এবং যুদ্ধজাহাজগুলো স্ব-শাসিত দ্বীপরাষ্ট্রটিকে দখলে নেওয়ার সামরিক নকশা চুড়ান্ত করেছে বলেই বিশেষজ্ঞদের মত।

রয়টার্স জানিয়েছে, চীনের সামরিক বিশ্লেষকরা দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘মহড়াটিতে তাইওয়ানের নেতাদের পাশাপাশি দেশটির বন্দর ও বিমানবন্দরগুলোকে লক্ষ্য করে হামলার ছক কষা হয়েছে।’

উল্লেখ্য, বেইজিং গণতান্ত্রিক এই দ্বীপরাষ্ট্রটিকে তার ভূখণ্ডের অংশ হিসাবে দাবি করে এবং এটিকে নিয়ন্ত্রণে আনতে শক্তি প্রয়োগের বিষয়টি বরাবরই বলে এসেছে।

চীনের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন সিসিটিভি জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার (২৩ মে) সকালে বেইজিংয়ের এই যুদ্ধের মহড়া শুরু হয় এবং যুদ্ধবিমান এবং সামরিক নৌযানগুলো তাইওয়ানকে ঘিরে ফেলে।

তাইওয়ানের নতুন প্রেসিডেন্ট লাই চিং-তে দেশটির দায়িত্ব নেওয়ার তিন দিন পরে বক্তৃতা দেওয়ার পরই ‘জয়েন্ট সোর্ড-২০২৪এ’নামের চীনের এই মহড়া শুরু হয়। লাই চিং-তে’র বক্তৃতাকে ‘স্বাধীনতার ডাক’ বলে নিন্দা জানিয়েছে চীন।

বেইজিংয়ের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র উ কিয়ান শুক্রবার (২৪ মে) বলেছেন, ‘তাইওয়ানকে যুদ্ধ ও বিপজ্জনক পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিচ্ছেন লাই।’

উ কিয়ান বলেন, ‘তাইওয়ানের স্বাধীনতার দাবি আমাদের যতোবার উস্কে দেবে, আমরা ততোবারই আমাদের পাল্টা ব্যবস্থা আরও এক ধাপ এগিয়ে নেব, যতক্ষণ না মাতৃভূমির সম্পূর্ণ পুনর্মিলন অর্জিত হয়।’

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন সাংবাদিকদের বলেন, ‘চীনের সম্পূর্ণ একীকরণের ইচ্ছায় বাধা দিলে তাইওয়ানের স্বাধীনতা বাহিনীকে নাস্তানাবুদ করে ছেড়ে দেওয়া হবে।’

এদিকে তাইওয়ানের প্রেসিডেন্সি শনিবার বলেছে, জনসাধারণকে আশ্বস্ত করা হচ্ছে যে, জাতীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট কার্যালয়ের মুখপাত্র কারেন কুও বলেছেন, ‘চীনের সাম্প্রতিক একতরফা উস্কানি শুধুমাত্র তাইওয়ান প্রণালীতে শান্তি ও স্থিতিশীলতার স্থিতাবস্থাকেই ক্ষুণ্ন করে না, বরং এটি আন্তর্জাতিক শৃঙ্খলার বিপরীতেও নির্লজ্জ উস্কানি।’

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত

;

ইসরায়েলের ড্রোন হামলায় সিরিয়ায় ২ হিজবুল্লাহ যোদ্ধা নিহত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইসরায়েলের ড্রোন হামলায় মধ্য সিরিয়ায় শনিবার (২৫ মে) লেবাননের ইরান-সমর্থিত হিজবুল্লাহ’র দুই যোদ্ধা নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

যুদ্ধ পর্যবেক্ষক সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি জানিয়েছে, ইসরায়েলের একটি ড্রোন হোমস প্রদেশের কুসাইর শহরের কাছে হিজবুল্লাহ’র একটি গাড়ি এবং ট্রাকে দুটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে। এতে কমপক্ষে দুই হিজবুল্লাহ যোদ্ধা নিহত এবং অন্যরা আহত হয়েছে।

হিজবুল্লাহ’র ওই গাড়ি এবং ট্রাক আল-দাবা সামরিক বিমানবন্দরে দিকে যাচ্ছিল বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, গত এক সপ্তাহের মধ্যে সিরিয়ায় হিজবুল্লাহ’র লক্ষ্যবস্তুতে এটি ইসরায়েলের তৃতীয় হামলা।

সিরিয়ান সূত্রের নেটওয়ার্কের বরাতে ব্রিটেনভিত্তিক মনিটর অবজারভেটরি জানিয়েছে, গত সোমবার লেবাননের সীমান্তের কাছে অবস্থিত কুসাইর এলাকায় ইসরায়েলের হামলায় আট ইরানপন্থী যোদ্ধা নিহত হয়েছে।

হিজবুল্লাহর একটি সূত্র সে সময় এএফপিকে জানিয়েছে, কুসাইর এলাকায় ইসরায়েলের হামলায় নিহতদের মধ্যে অন্তত একজন হিজবুল্লাহ যোদ্ধা রয়েছেন।

অবজারভেটরি জানিয়েছে, এর আগে গত ১৮ মে এক হিজবুল্লাহ কমান্ডার এবং তার সঙ্গীকে লক্ষ্য করে আরেকটি হামলা চালায় ইসরায়েল। তকে, এতে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

ইসরায়েল খুব কমই সিরিয়ায় ব্যক্তিগত হামলার বিষয়ে মন্তব্য করে থাকে। তবে, তারা বারবার বলেছে যে, চিরশত্রু ইরানকে সেখানে উপস্থিতি বাড়াতে দেবে না তারা।

প্রসঙ্গত, গৃহযুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে সিরিয়ার সেনা অবস্থান এবং হিজবুল্লাহসহ ইরান সমর্থিত যোদ্ধাদের লক্ষ্য করে শত শত হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল।

২০১১ সালে শুরু হওয়া সিরিয়ার যুদ্ধে অর্ধ মিলিয়নেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে এবং লাখ লাখ মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত

;