সমুদ্রপথে শস্য রফতানিতে রাশিয়া-ইউক্রেন চুক্তি

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জাতিসংঘ ও তুরস্কের মধ্যস্থতায় রাশিয়া-ইউক্রেন শস্য রফতানির জন্য কৃষ্ণ সাগরের বন্দরগুলো পুনরায় চালু করতে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। এই চুক্তির ফলে বর্তমানে ইউক্রেনে যুদ্ধের কারণে আটকে থাকা লক্ষাধিক টন শস্য রফতানি করা যাবে। এতে করে বিশ্বজুড়ে সৃষ্ট খাদ্য সংকট কমতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।

শুক্রবার (২২ জুলাই) ওই চুক্তি স্বাক্ষর হয় বলে রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। তুরস্কের ইস্তাম্বুলে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস ও তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ানের উপস্থিতিতে এ চুক্তি সই হয়।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়া ইউক্রেনে আক্রমণের পর থেকে বিশ্বব্যাপী শস্যের ঘাটতিতে লাখ লাখ মানুষকে ক্ষুধার ঝুঁকিতে ফেলেছে।

রয়টার্স বলছে, জাতিসংঘ ও তুরস্কের মধ্যস্থতায় দুই মাসের আলোচনার পর চুক্তির আয়োজন করা হয়। তুরস্ক ন্যাটোর একটি সদস্য এবং তাদের সঙ্গে রাশিয়া ও ইউক্রেন উভয় দেশের সুসম্পর্ক আছে। এছাড়া তুরস্ক কৃষ্ণ সাগরের দিকে যাওয়া প্রণালীগুলো নিয়ন্ত্রণ করে।

ইস্তাম্বুলে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস বলেন, এই চুক্তির মাধ্যমে ইউক্রেনের ৩টি গুরুত্বপূর্ণ বন্দর ওডেসা, চেরনোমোর্স্ক ও ইজুনি থেকে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ বাণিজ্যিক খাদ্য রফতানির পথ উন্মুক্ত হলো।

রয়টার্স বলছে, তবে কিয়েভ মস্কোর সঙ্গে সরাসরি চুক্তি স্বাক্ষর করতে অস্বীকার করেছিল। উভয় দেশের প্রতিনিধিরা একই টেবিলে বসতে অস্বীকৃতি জানায় এবং অনুষ্ঠানে হাত মেলানো থেকে বিরত থাকে।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী সের্গেই শোইগু প্রথমে মস্কোর পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। এরপর ইউক্রেনের অবকাঠামো মন্ত্রী ওলেক্সান্ডার কুব্রাকভ কিয়েভের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত

মিয়ানমারে ৫.৬ মাত্রার ভূমিকম্প



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

মিয়ানমারে ৫ দশমিক ৬ মাত্রার ভূমিকম্প অনুভত হয়েছে। স্থানীয় সময় শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) ভোর ৪টা ৫২ মিনিট ভূমিকম্পটি আঘাত হানে।

ইউরোপীয় ভূমধ্যসাগরীয় সিসমোলজিক্যাল সেন্টার (ইএমএসসি) এতথ্য জানিয়েছে। খবর রয়টার্সের।

ইএমএসসি জানায়, ভূমিকম্পটি মিয়ানমারের মনিওয়া থেকে প্রায় ১১২ কিলোমিটার (৬৯.৫৯ মাইল) উত্তর-পশ্চিমে আঘাত হানে। উৎপত্তিস্থলে এর গভীরতা ছিল ১৪৪ কিলোমিটার (৮৯.৪৮ মাইল) ।

এদিকে পার্শবর্তী বাংলাদেশসহ বিভিন্ন স্থানে ভূকম্পনটি অনুভূত হয়েছে।

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত

;

ফ্লোরিডায় দানবীয় ঝড় ইয়ানের আঘাত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ফ্লোরিডায় দানবীয় ঝড় ইয়ানের আঘাত

ফ্লোরিডায় দানবীয় ঝড় ইয়ানের আঘাত

  • Font increase
  • Font Decrease

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের দক্ষিণ-পশ্চিমে দানবীয় ঝড় ‘ইয়ান’ আঘাত হেনেছে। ঝড়ের কারণে ওই এলাকা অন্ধকারে নিমজ্জিত হয়ে পড়ে।
বুধবার আঘাত হানা ভয়াবহ এই ঝড়ের কারণে প্রবল বাতাস, মুষলধারে বৃষ্টি ও ওই এলাকায় বন্যা দেখা দিয়েছে। এছাড়া রয়েছে সমুদ্রে বিধ্বংসী প্রবল ঢেউ। কর্মকর্তরা জরুরি ভিত্তিতে পরিস্থিতি মোকাবিলার চেষ্টা করছেন্।

‘দ্য ইউএস বর্ডার প্যাট্রোল’ বলছে, নৌকাডুবিতে ২০ অভিবাসন প্রত্যাশী নিখোঁজ হয়েছে। এছাড়া চার কিউবান সাঁতরে ফ্লোরিডা উপকূলে পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছে। আরো তিনজনকে উপকূলরক্ষীরা উদ্ধার করেছে।

‘দ্য ন্যশনাল হারিকেন সেন্টার’ (এনএইচকে) বলছে, ভয়ংকর বিপদজনক ঝড়টি স্থানীয় সময় বিকেল তিনটায় ফোর্ট মায়ার্স শহরের পশ্চিমে কায়ো কস্তায় আঘাত হানে। ঘন্টায় তখন এর বাতাসের গতিবেগ ছিল ২৪০ কিলোমিটার। ঝড়ের কারণে উপকূলীয় ন্যাপলস শহর বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। ফোর্ট মায়ার্স এর আশেপাশের এলাকাকে মনে হচ্ছে হ্রদ।

এদিকে ঝড়ের কারণে ফ্লোরিডার ২০ লাখ লোককে বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় থাকতে হচ্ছে।

ফ্লোরিডার গভর্ণর রন ডিসান্টিস সতর্ক করে বলেন, ফ্লোরিডাবাসীর খুব ভয়ঙ্কর দিনের অভিজ্ঞতা হতে যাচ্ছে। ঝড়ের কারণে আগাম সতর্কতা হিসেবে ফ্লোরিডার বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রায় ২৫ লাখ লোককে অন্যত্র সরে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। কর্তৃপক্ষ বেশ কিছু আশ্রয় কেন্দ্র নির্মাণ করে।

এদিকে টাম্পা ও অরল্যান্ডো সকল বাণিজ্যিক ফ্লাইট বন্ধ করে দেয় এবং জাহাজ কোম্পানীগুলো জাহাজ ছাড়তে হয় বিলম্ব না হয় বাতিল করছে।

উল্লেখ্য, ইয়ান কিউবায় তান্ডব চালিয়ে ফ্লোরিডায় এসে আঘাত হানে। যুক্তরাষ্ট্রে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে আঘাত হানা শক্তিশালী ঝড়ের মধ্যে ইয়ান অন্যতম।

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত

;

সুচির আরও ৩ বছরের কারাদণ্ড



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সুচির আরও ৩ বছরের কারাদণ্ড

সুচির আরও ৩ বছরের কারাদণ্ড

  • Font increase
  • Font Decrease

মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত গণতন্ত্রপন্থি নেতা অং সান সু চিকে তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। তার সাবেক অর্থনৈতিক উপদেষ্টা অস্ট্রেলিয়ান শন টারনেলকেও ৩ বছরের কারাদণ্ড দেন দেশটির আদালত।

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়, তাদের বিরুদ্ধে একটি সরকারি গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা হয়েছিল, যার সর্বোচ্চ সাজা ১৪ বছরের কারাদণ্ড। তবে তারা নির্দোষ বলে আদালতে স্বীকার করেছিলেন।

গত বছরের শুরুর দিকে সামরিক অভ্যুত্থানের পর সুচি, টারনেল, রাজনীতিবিদ, আইনজীবী, আমলা, ছাত্র এবং সাংবাদিকসহ বেশ কয়েকজন সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়।

নোবেল বিজয়ী সুচিকে ইতোমধ্যেই দুর্নীতির অভিযোগে পৃথক মামলায় ১৭ বছরেরও বেশি কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তিনি তার বিরুদ্ধে সব অভিযোগ অস্বীকার করেন।

অস্ট্রেলিয়ার ম্যাকুয়ারি ইউনিভার্সিটির অর্থনীতির অধ্যাপক টারনেল অভ্যুত্থানের কয়েকদিন পরই আটক হন।

২০২০ সালের নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়ী হয় শান্তিতে নোবেলজয়ী সু চির দল। পরের বছরের পয়লা ফেব্রুয়ারি নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতা গ্রহণ করে সেনাবাহিনী।

অভ্যুত্থানের কারণ হিসেবে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়, ভোটে স্থুল কারচুপির অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ব্যবস্থা নিতে হয়েছে। যদিও স্বতন্ত্র নির্বাচন পর্যবেক্ষকরা ভোটে বড় কোনো কারচুপির প্রমাণ পাননি।

নির্বাচনে কারচুপির মামলায় সু চির পাশাপাশি আসামি করা হয় তার নেতৃত্বাধীন গণতান্ত্রিক সরকারের জ্যেষ্ঠ দুই সদস্যকে। তাদেরও তিন বছরের সাজা দেয়া হয়েছে।

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত

;

বিশ্বের প্রথম বিদ্যুৎচালিত যাত্রীবাহী প্লেন উড়ল



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

চিরাচরিত জ্বালানির পরিবর্তে পুরোপুরি বিদ্যুৎচালিত যাত্রিবাহী বিমান উড়ল আমেরিকার ওয়াশিংটনের আকাশে।

মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় সকালে ওয়াশিংটনের গ্র্যান্ট কাউন্টি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে আট মিনিটের সংক্ষিপ্ত যাত্রা করে অ্যালিস নামের এই বিমানটি। যদিও উদ্বোধনী উড়ানে কোনও যাত্রী ছিল না।

অ্যাভিয়েশন এয়ারক্রাফ্ট নামে ইজ়রায়েলের এক বিমান সংস্থার পরিশ্রমের ফসল এই বিমানটি। প্রথম উড়ানে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৩ হাজার ৫০০ ফুট উপরে ওঠেছিল এটি।

সংস্থার সিইও গ্রেগরি ডেভিস এই উড়ানকে ‘ঐতিহাসিক’ অ্যাখ্যা দিয়েছেন। আমেরিকার সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে তিনি বলেন, পঞ্চাশের দশকের পর এই প্রথম বিমানে পুরোপুরি নতুন প্রযুক্তি ব্যবহৃত হল।

ইজ়রায়েল জানিয়েছে, বিদ্যুৎচালিত গাড়ি বা মোবাইল ফোনের মতোই মাত্র আধ ঘণ্টায় চার্জ দেওয়া যাবে এই বিমানটিতে। ন’জন যাত্রীকে নিয়ে তা এক ঘণ্টা আকাশে উড়তে পারবে। গতি, ঘণ্টা প্রতি প্রায় ৪৪০ নটিক্যাল মাইল। প্রতি ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২৫০ নটস বা ২৮৭ মাইল গতিবেগে এগোতে পারে অ্যালিস।

মঙ্গলবারের প্রথম উড়ানের পর এ সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করে পর্যালোচনা করবে অ্যাভিয়েশন। ২০১৫ সালের এই সংস্থার আশা, আর মাত্র কয়েক বছরের মধ্যে তা যাত্রী পরিবহনে সক্ষম করে তুলতে পারবে তারা। সবকিছু পরিকল্পনামাফিক চললে ২০২৭ সালের মধ্যেই এই বিমানটি যাত্রীদের নিয়ে যাতায়াত করতে পারবে বলে মনে করছে অ্যাভিয়েশন।

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত

;