Alexa

৭ মার্চ শপথ নেবেন মনসুর-মোকাব্বির, স্পিকারকে চিঠি

৭ মার্চ শপথ নেবেন মনসুর-মোকাব্বির, স্পিকারকে চিঠি

বাঁ থেকে সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ ও মোকাব্বির খান / ছবি: সংগৃহীত

একাদশ সংসদের সদস্য হিসেবে আগামী ৭ মার্চ শপথ নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক গণফোরামের দুই সদস্য সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ ও মোকাব্বির খান।

শনিবার (২ মার্চ) জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীকে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি পাঠিয়েছেন তারা। গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ সংসদ নির্বাচনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন গণফোরামের এ দুই সদস্য।

নির্বাচনে ঐক্যফ্রন্টের ভরাডুবি হলেও বিএনপিসহ তাদের জোট থেকে আটজন নির্বাচিত হন। তাদের মধ্যে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন গণফোরামের সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ ও মোকাব্বির খান। তবে এদের মধ্যে সুলতান মনসুর মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে বিএনপির ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেন। অন্যজন মোকাব্বির খান সিলেট-২ আসনে উদীয়মান সূর্য প্রতীকে নির্বাচন করে বিজয়ী হন।

এর আগে একাদশ সংসদের সদস্যরা ৩ জানুয়ারি শপথ গ্রহণ করেন। এরপর ৩০ জানুয়ারি একাদশ সংসদের প্রথম অধিবেশন শুরু হয়। সংসদ অধিবেশন শুরু হলেও ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচিত আট সদস্য এখনো পর্যন্ত শপথ নেননি।

কার্যপ্রণালী বিধি অনুযায়ী, সংসদ নির্বাচনের পর শপথ গ্রহণের পর পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে কেউ শপথ না নিলে তার আসন শূন্য হয়ে যায়। সেই হিসেবে আগামী ৩০ এপ্রিলের মধ্যে যারা শপথ না নেবেন তাদের আসন শূন্য হয়ে যাবে।

এদিকে নির্ধারিত সময়ের আগেই শপথ গ্রহণের আগ্রহ প্রকাশ করলেন গণফোরামের এ দুই সদস্য। সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ এবং মোকাব্বির খানের সঙ্গে কথা হয় বার্তা২৪.কম এর।

এ সময় সুলতান মনসুর বলেন, ‘আমি আর মোকাব্বির খান শপথ গ্রহণের আগ্রহ প্রকাশ করে স্পিকারকে আজ (শনিবার) দুপুরে চিঠি দিয়েছি। আমরা আগামী ৭ মার্চ শপথ গ্রহণের আগ্রহের কথা জানিয়েছি।’

মোকাব্বির খান বলেন, ‘আমরা চিঠি দিয়েছি শপথ নেওয়ার জন্য।’

দলের সিদ্ধান্তে শপথ নিচ্ছেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমাদের দলের বিভিন্ন ফোরামে বিভিন্ন সময় আলোচনা হয়েছে দুই-চারজন ছাড়া অধিকাংশ নেতাকর্মী চান আমরা শপথ গ্রহণ করি।’

দলের সভাপতির সম্মতি আছে কি না এবিষয়ে জানতে চাইলে মোকাব্বির বলেন, ‘সেটা তার কাছেই জিজ্ঞেস করুন। তবে ফোরামে যখন আলোচনা হয়েছে তার সামনেই আলোচনা হয়েছে।’

এদিকে চিঠি দিলেও শপথের দিনক্ষণ এখনো চূড়ান্ত করেননি স্পিকার। এ বিষয়ে সংসদ সচিবালয়ে যোগাযোগ করা হলে জানা যায় এখনো তাদের কাছে কোনো নির্দেশনা আসেনি।

আপনার মতামত লিখুন :