আসরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মুস্তাফিজকে মিস করেছে চেন্নাই 



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আগের আসরের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সুপার কিংস এবার বিদায় নিল প্লে-অফের আগেই। গতকালের প্লে-অফ নির্ধারণী ম্যাচে রয়্যাল চ্যালেজার্স বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে জয়ের জন্য ২১৯ রানের বিশাল লক্ষ্য পায় চেন্নাই। তবে শেষ চারে পৌঁছাতে হলে ম্যাচটিতে ২০১ রান তুললেই হতো। তবে চেন্নাই শেষ পর্যন্ত থামল আরও ১০ রান আগে, ১৯১ রানে। এতে ২৭ রানের জয়ে শেষ চারে উঠে যায় বেঙ্গালুরু। 

গতকালের ম্যাচটিতে চেন্নাইয়ের পেসাররা ছিলেন বেশ খরুচে। পেসারদের মধ্যে এদিন সবচেয়ে কম ইকোনমি ছিল তুষার দেশপান্ডের, সেটিও ১২ দশমিক ২৫। এতেই আসরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মুস্তাফিজুর রহমানকে মিস করেছেন চেন্নাই অধিনায়ক রুতুরাজ গায়কোয়াড়। আসরের শুরু থেকেই চোটের কারণে একাধিক ক্রিকেটারকে পায়নি। যার প্রভাব সবচেয়ে বেশি পড়েছে পেস বিভাগে। এতে এর আগেও নিজেদের পেস আক্রমণে মুস্তাফিজের অভাবের কথা জানিয়েছিলেন চেন্নাই অধিনায়ক। 

ম্যাচ শেষের পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে রুতুরাজ বলেন, ‘চোটের কারণে কনওয়ে নেই, পাশাপাশি - পাথিরানাও ইনজুরিতে পড়েছিল। তবে আমরা ফিজকে বেশি মিস করেছি। কেননা, স্কোয়াডের ভারসাম্য রক্ষা করা কঠিন হয়ে পড়েছিল। তবে এই জিনিসগুলো স্বাভাবিক। আমার কাছে ব্যক্তিগত মাইলফলকগুলো খুব বেশি গুরুত্বপূর্ণ নয়। আমরা এখানে জিততে পারিনি, তাই আমি কিছুটা হতাশ।’ 

এদিন পেসারদের মধ্যে সবচেয়ে খরুচে ছিলেন শার্দুল ঠাকুর। ৪ ওভারে দিয়েছেন ৬১ রান। এদিকে সিমারজিত সিং ১ ওভার করেই দিয়েছেন ১৯ রান। তবে স্পিনাররা ছিলেন দারুণ ছন্দে। মিচেল সান্টনার ৪ ওভারে ২৩ রান দিয়ে নিয়েছেন এক উইকেট। এদিকে মাহিশ থিকশানা কোনো উইকেট না পেলেও ৪ ওভার বল করে দিয়েছেন ২৫ রান। এতে স্পিনারদের প্রশংসা করে রুতুরাজ আরও বলেন, ‘এটি একটি ভালো উইকেট ছিল। বিশেষ করে স্পিনারদের জন্য। মৌসুমে ১৪ ম্যাচের সাতটিতে জয় পাওয়ায় আমি বেশ খুশি।’ 

চেন্নাইয়ের হয়ে সবশেষ ১মে পাঞ্জাব কিংসের বিপক্ষে খেলে জাতীয় দলের দায়িত্বে দেশে ফেরেন মুস্তাফিজ। আইপিএলের এবারের আসরে ৯ ম্যাচ খেলে ১৪ উইকেট নেন এই বাঁহাতি পেসার। যা এক আসরে তার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। এর আগে নিজের আইপিএল অভিষেক মৌসুমে ২০১৬ সালে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে ১৬ ম্যাচে ১৭টি উইকেট নিয়েছিলেন মুস্তাফিজ।  

   

বাটলারের ব্যাটে ঝড়, ইংল্যান্ড সেমিতে

  ক্রিকেট কার্নিভাল



স্পোর্টস ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ম্যাচের আগে ইংল্যান্ডের সামনে সম্ভাবনা ছিল বড় ব্যবধানে জিতে নেট রান রেট অন্তত দক্ষিণ আফ্রিকার থেকে বেশি রাখার। তবে জশ বাটলারের ব্যাটিং ঝড়ে ইংলিশরা এতটাই দাপটে জিতল যে নেট রান রেটে তারা ছাড়িয়ে গেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজকেও। এতেই ১০ উইকেটের বিশাল ব্যবধানের এই জয়ে আসরের প্রথম দল হিসেবে সেমির টিকিট কাটল আগের আসরের চ্যাম্পিয়নরা। 

কেনসিংটন ওভালে টসে জিতে নেট রান রেট বাড়ানোর উদ্দেশ্যেই আগে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ইংলিশ অধিনায়ক জশ বাটলার। সেই সিদ্ধান্তে শেষ পর্যন্ত পুরোপুরি সফল তিনি। আগে ব্যাট করতে নেমে সবকটি উইকেট হারিয়ে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ১১৫ রান। সেমিতে পৌঁছাতে হলে সেই লক্ষ্যে ১৮ ওভার ৪ বলে পৌঁছাতে হতো ইংল্যান্ডকে। তবে বাটলারের ব্যাটিং তাণ্ডবে সহজ এই লক্ষ্যে ৯ ওভার ৪ বলেই পৌঁছে যায় তারা। 

শুরুটা অবশ্য ধীরেই করেছিল ইংল্যান্ড। ২ ওভার স্কোরবোর্ডে রান ছিল ৬। তবে এরপর থেকেই শুরু হয় বাটলারের বাউন্ডারির ঝড়। এতে পরের ১১১ রান তারা তুলেছে স্রেফ ৪৬ বলে। ৩৮ বলে ৬ চার ও ৭ ছক্কায় ৮৩ রানে অপরাজিত ছিলেন বাটলার। এদিকে সল্ট করেন ২৫ রান। 

এদিকে এর আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুর ওভারে উইকেট হারালেও টেইলর-নিতিশের জুটিতে চাপ সামলেই এগোচ্ছিল তারা। তবে ইনিংস মাঝে আসতে না আসতেই কারানের পেস ও আদিল রশিদের স্পিন ঘূর্ণিতে আরও তিনটি উইকেট হারানো ছাড়াও রানের গতি কমে যায় অ্যারন জোনসের দলটির। স্কোরবোর্ডে ৬৭ রান উঠতেই নেই ৪ উইকেট। পরে কোরি অ্যান্ডারসন ও মিলিন্দ কুমারে চড়ে লড়াকু পুঁজির দিকে এগোচ্ছিল তারা। 

৫ উইকেটে সংগ্রহ ছিল ১১৫ রান। সেখানে ১৮তম ওভারের শেষ বলে ষষ্ঠ উইকেট তোলেন স্যাম কারান। পরের ১৮ ওভার ৫ বলে অলআউট যুক্তরাষ্ট্র! সংগ্রহ সেই ১১৫ রানই। অর্থাৎ, শেষ ৫ বলে কোনো রান নিয়ে ৪টি উইকেট হারিয়েছে তারা। যার নেপথ্যে ডানহাতি পেসার ক্রিস জর্ডান। ওভারের প্রথম বলে উইকেট নেওয়ার পর দ্বিতীয় বল ডট, এরপরই হ্যাটট্রিক পান তিনি। পাঁচ বলে চার উইকেট নিয়ে যান রেকর্ড বনেও। দ্বিতীয় বোলার হিসেবে এম্ন কীর্তি গড়লেন জর্ডান। 



;

সাকিবের অবসর নিয়ে আবারও খোঁচা দিলেন শেবাগ 

  ক্রিকেট কার্নিভাল



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশ-ভারতের আবারও লড়াই শুরু। তবে সেটা কথার লড়াই। যেটা সাকিব আল হাসান বনাম বীরেন্দর শেবাগের লড়াই। আবারও সাকিবকে খোঁচা ভারতের লিজেন্ডারি এই ওপেনারের। সাকিবের এতো দ্রুত উইকেট বিলিয়ে দিয়ে আসা নিয়ে ক্রিকবাজে ম্যাচ পরবর্তী আলোচনায় চটেছেন ভারতের সাবেক এই ব্যাটার। আবারও সাকিবকে তার একই বার্তা। তরুণদের জন্য জায়গা ছেড়ে দাও। 

ক্রিকবাজে আলাপকালে সাকিবকে নিয়ে শেবাগ বলেন, ‘আপনার সঙ্গে যখন একজন ব্যাটার খেলছে, তখন তাকে সঙ্গ দিন। ম্যাচটা গড়ে তোলার চেষ্টা করুন। কিন্তু আপনি ১১ রান করে চলে গেলেন! এত অভিজ্ঞতা থাকার পরও সাকিব কেন যে সেটি ব্যবহার করে না আমি সেটাই বুঝতে পারি না। এমন নয় যে তাকে প্রতি বলে ছক্কা মারতে হবে। সে তার অভিজ্ঞতার ব্যবহার করে না। এজন্য আমি আগেরবার বলেছিলাম, সাকিব আল হাসানকে নতুন কোনো ক্রিকেটারের জন্য জায়গা ছেড়ে দেওয়া উচিত।’

সাকিবের অভিজ্ঞতা কাজে না লাগানো এবং অবসরে যাওয়া নিয়ে এর আগেও সরব হয়েছিলেন ভীরু। বলেছিলেন, সাকিবের লজ্জা পাওয়া উচিৎ এবং বলা উচিৎ অবসরে যাচ্ছি। গেলো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যাচ্ছেতাই পারফর্ম্যান্সের সময় থেকেই সাকিবকে বাংলাদেশের জার্সিতে টি-টোয়েন্টিতে দেখতে চাননি শেহওয়াগ। 

সাকিব কে নিয়ে কে এমন মন্তব্য করেছেন সেটা তিনি প্রেস কনফারেন্সে জিজ্ঞেস করেছিলেন। তবে কে বলেছেন সেটা জেনে রাখলেও, কে কী বললেন এসব নিয়ে একদমই ভাবেন না। এবারও দিলেন তেমন উত্তর। বললেন যদি খেলার আগ্রহটা হারিয়ে ফেলি, আমি আর খেলাটা উপভোগ না করি, তাহলে আর খেলব না।’

;

বাঁচা-মরার ম্যাচে আগে বোলিংয়ে ইংল্যান্ড 

  ক্রিকেট কার্নিভাল



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আসরের সহ-আয়োজক দল ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে সুপার এইটে যাত্রা শুরু করলেও পরের ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হেরে যায় বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। তবে গ্রুপপর্বে দাপুটে পারফর্ম করলেও সুপার এইটে এখন পর্যন্ত জয়ের দেখা পায়নি যুক্তরাষ্ট্র। দল দুটি এবার মুখোমুখি হচ্ছে গ্রুপ ‘টু’-এ নিজেদের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে। সেখানে টসে জিতে আগে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ইংলিশ অধিনায়ক জশ বাটলার। 

গ্রুপ ‘টু’ থেকে সেমিতে ওঠার লড়াই অনেকটা জয়ের চেয়েও নেট রান রেটের। সমান ২ পয়েন্ট নিয়ে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে আছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ইংল্যান্ড। সেখানে ক্যারিবীয়দের নেট রান রেট পাহাড়সমান, ১.৮১৪ এবং ইংল্যান্ডের ০.৪১২। যুক্তরাষ্ট্রকে অল্পেই থামিয়ে সেই লক্ষ্যে দ্রুত পৌঁছে নেট রান রেট বাড়িয়ে নেওয়ায় আপাতত লক্ষ্য বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের। 

ইংল্যান্ডের একাদশে এসেছে এক পরিবর্তন। মার্ক উডের পরিবর্তে একাদশে ফিরেছেন ক্রিস জর্ডান। এদিকে আগের ম্যাচের অপরিবর্তিত একাদশ নিয়েই কেনসিংটন ওভালে আগে ব্যাটিংয়ে নামবে যুক্তরাষ্ট্র। 

এই ম্যাচ দিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথমবারের মতো বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।  

ইংল্যান্ড একাদশ: ফিল সল্ট, জশ বাটলার (অধিনায়ক), জনি বেয়ারস্টো, হ্যারি ব্রুক, মঈন আলী, লিয়াম লিভিংস্টোন, স্যাম কারান, ক্রিস জর্ডান, জোফরা আর্চার, আদিল রশিদ, রিচ টপলি।

যুক্তরাষ্ট্র একাদশ: স্টিভেন টেইলর, আন্দ্রেস গাউস, নিতিশ কুমার, অ্যারন জোনস (অধিনায়ক), কোরি অ্যান্ডারসন, মিলিন্দ কুমার, হারমিত সিং, শ্যাডলি ভ্যান শালকউইক, নস্টুশ কেনজিগে, আলী খান, সৌরভ নেত্রভালকার।

;

নিজের অবসর প্রসঙ্গে যা বললেন সাকিব

  ক্রিকেট কার্নিভাল



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ভারত বিশ্বকাপের আগেই সাকিব জানিয়ে দিয়েছিলেন কখন ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়ে দিবেন সাকিব। সে হিসেবে সাকিবের ক্রিকেট ক্যারিয়ারের শেষ হওয়ার কথা ২০২৫ সালে পাকিস্তানের মাটিতে হতে যাওয়া আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। এর মধ্যে আর কোনো বিশ্বকাপ না থাকায় সমর্থকরা ধরে নিয়েছিলেন এটাই সাকিবের শেষ বিশ্বকাপ। ৩৭ বছর বয়সী সাকিব যদিও এখন বলছেন অন্য কথা। আগের কথা থেকে সরে এসে অবসর নিয়ে সাকিব এখন বলছেন নতুন পরিকল্পনার কথা।

সবশেষ ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে ৫০ রানের ব্যবধানে হারের পর বিশ্বকাপ থেকে একরকম বিদায় হয়ে গেছে বাংলাদেশের। যেই ম্যাচে প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে রেকর্ড ৫০টি উইকেট নেওয়ার মাইলফলক স্পর্শ করেছেন সাকিব। কীর্তি গড়ার পর সাকিবকে কথা বলেছেন নিজের অবসর নিয়েও।

এটাই শেষ বিশ্বকাপ কিনা এমন প্রশ্নে সাকিব বলেন, ‘শেষ কিনা জানি না। পৃথিবীতে যেকোনো কিছু হওয়া সম্ভব। সিদ্ধান্ত নেবে বোর্ড, আমারও কিছু সিদ্ধান্ত আছে।’

এর আগে সবশেষ ভারত বিশ্বকাপে নিজের অবসর পরিকল্পনা সম্পর্কে এক সাক্ষাৎকারে সাকিব জানিয়েছিলেন, ২০২৫ আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি দিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ারের ইতি টানবেন তিনি। সে হিসেবে এটাই তার শেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হওয়ার কথা। তখনকার সেই কথা নিয়ে সাকিব এখন বলছেন, ‘বলেছিলাম কারণ, ওটা তখন পর্যন্ত চিন্তা ছিল। চিন্তা পরিবর্তন হতেই পারে। এসব নিয়ে চিন্তিত নই আমি।’

অবসর নিয়ে তাহলে সাকিবের বর্তমান ভাবনা কি। এমন প্রশ্নে সাকিব বলেন, ‘সামনে অনেক বড় বিরতি আছে। দল যদি মনে করে আমার দরকার আছে, আমি যদি মনে করি আমার দরকার আছে, উপভোগ না করলে অবশ্যই খেলার বিষয় না। এটা সময়ের ব্যাপার। সামনে বড় বিরতি আছে। টেস্ট ম্যাচ আছে। এটা সময়ের ওপর ছেড়ে দিই। সময় হলেই সবাই জানতে পারবে।’

;