আসরের দ্রুততম ফিফটি ফ্রেজার-ম্যাগার্কের, তবুও বড় হার দিল্লির 



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে ১২৫ রান! রেকর্ড বই এলোমেলো করে স্বীকৃত যেকোনো টি-টোয়েন্টিতে পাওয়ার প্লের সর্বোচ্চ সংগ্রহের বিশ্বরেকর্ড গড়ে এদিন যেন দলীয় সংগ্রহ ৩০০-এর পথেই ছুটছিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। তবে ইনিংস মাঝে দিল্লি ক্যাপিটালসের স্পিনারদের নৈপুণ্যে শুরুর রান ঝড়ে কিছুটা হলেও কমে। তবুও শেষ পর্যন্তও স্কোরবোর্ডে ২৬৬ রানের বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করায় 'অরেঞ্জ আর্মি' খ্যাত দলটি। 

জবাব দিতে নেমে দিল্লির শুরুটাও ছিল বিধ্বংসী। ২২ বছর বয়সী তরুণ অজি ব্যাটার জ্যাক ফ্রেজার-ম্যাগার্কের বিধ্বংসী ইনিংসে চড়ে ৮ ওভারেই ১৩১ রান তুলে ফেলে তারা। অর্থাৎ, প্রায় অর্ধেক রান। সেখানে স্রেফ ১৫ বলে ফিফটি হাঁকান ফ্রেজার-ম্যাগার্ক। যা চলমান আসরে সবচেয়ে দ্রুততম। ১৮ বলেই এই ডানহাতি ব্যাটার করেন ৬৫ রান। তবে তার ফেরার পর দিল্লিও যেন ফিরে গেল জয়ের পথ থেকে। ৩ উইকেটে ১৩১ থেকে ১৯৯ রানেই অলআউট! শুরুতে অবিশ্বাস্য কিছু করার ইঙ্গিত দিলেও শেষ পর্যন্ত ৬৭ রানের বড় হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় দিল্লিকে। 

২৭৭ রানের পর ২৮৭। নিজেদের রেকর্ড চলতি আসরেই ভাঙে হায়দরাবাদ। এবারও চলেছিল আরও একবার সেই রেকর্ড ভাঙার পথেই। ৬ ওভার ১ বলে ১৩১ রান! সেখানে স্রেফ ২৬ বলে ৮৪ রান ব্যাট করছিলেন ট্রাভিস হেড এবং আরেক ওপেনার অভিষেক শর্মা তো আরও বিধ্বংসী রুপে। ১১ বলে ৪৬ রানে! তবে পরের বলেই ফেরেন অভিষেক। রান ঝড়ের গতি কমার শুরু সেখানেই। সেখান থেকে ১৯ বলের মধ্যে দলীয় সংগ্রহ ১৫৪ রানে পৌঁছাতেই সাজঘরে আরও তিন ব্যাটার। 

অবশ্য রানের ছন্দ হারিয়ে যায়নি পুরোটাই। শেষ দিকে শাহবাজ আহমেদের ৫৯ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংসে চড়ে ৭ উইকেটে ২৬৬ রানের সংগ্রহ পায় হায়দরাবাদ। 

এদিকে ঘরের মাঠে বিশাল এই রান তাড়ায় জিততে হলে রেকর্ডই করতে হতো দিল্লিকে। সর্বোচ্চ রান তাড়ায় রেকর্ড ২২৪ রানের। এবং দ্বিতীয় ইনিংসে সর্বোচ্চ ২৬২ রানের সংগ্রহ বেঙ্গালুরুর, এই হায়দরাবাদের বিপক্ষেই। সে ম্যাচেও ২৫ রানে হারতে হয় বেঙ্গালুরুকে। সব ছাপিয়ে জিততে হতো দিল্লিকে। সেখানে শুরুতেই দুই ওভারে দুই ওপেনার পৃথ্বী শ ও ডেভিড ওয়ার্নার ফিরলেও ফ্রেজার-ম্যাগার্কের তাণ্ডবে জয়ের স্বপ্ন বুনছিল স্বাগতিকরা। তবে সপ্তম ওভারের শেষ বলে দলীয় ১০৯ রানের মাথায় ফেরেন এই অজি ব্যাটার। ১৭ বলে ৬৫ রানের এই বিধ্বংসী ইনিংসে তিনি মারেন ৫টি চার ও ৭টি ছক্কা। 

ফ্রেজার-ম্যাগার্কের ফেরার পর আর কেউই ধরতে পারেননি ম্যাচের হাল। ১৯ ওভার ১ বলে দুইশ পেরোনোর আগেই (১৯৯ রানে) গুটিয়ে যায় রিশাভ পান্তের দল। সেখানে দিল্লির হয়ে নটরজন নেন সর্বোচ্চ ৪ উইকেট। 

এই জয়ে কলকাতা-চেন্নাইকে পেছেন ফেলে তালিকার দুইয়ে উঠে এলো হায়দরাবাদ। ৭ ম্যাচের পাঁচটিতেই জয় পেয়েছে তারা। এদিকে ৮ ম্যাচের ৫টিতেই হেরে তালিকার সাতে নেমে গেছে দিল্লি। 

   

শান্তর অধিনায়কত্ব ভাল লাগে লিটনের



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

নাজমুল হোসেন শান্তর অধিনায়কত্ব নিয়ে ভিন্নধর্মী মতামত শোনা গেলেও লিটনের কাছে বেশ ভাল লাগে শান্তর নেতৃত্ব। শুরু থেকে তার মধ্যে নেতৃত্বের গুণাবলি ছিল বলে মনে করেন টাইগার ওপেনার। দায়িত্ব পাবার পর থেকেই নিজের সেরাটাই দেখিয়ে যাচ্ছেন শান্ত। বিসিবি থেকে সদ্য প্রকাশিত সাক্ষাৎকারে এমনটাই বলেছেন বাংলাদেশ দলের ওপেনার লিটন কুমার দাস।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরুর আগে বাংলাদেশ দলের লক্ষ্য নিয়ে ধারাবাহিক সাক্ষাৎকার প্রকাশ করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এবার সেখানে নিজেদের বিশ্বকাপ মিশন এবং দলের সার্বিক অবস্থা নিয়ে কথা বলেছেন লিটন।

সতীর্থ এবং দলের অধিনায়ক শান্তকে নিয়ে লিটন বলেছেন, ‘লাস্ট কয়েকটা সিরিজ ধরে শান্ত যে ক্যাপ্টেন্সি করছে তা আমার খুব ভাল লাগছে। যেহেতু সে একজন নিউকামার, তার হাতে তিন ফরম্যাটেরই দায়িত্ব আছে। ওভারল যা দেখছি হি ইজ ইম্প্রুভিং। স্বাভাবিকভাবে যেকোনো মানুষেরই ইনপ্রুভমেন্টের কোনো শেষ নেই। সে খুব ভাল করছে।‘

এছাড়াও বিগত সময়ে ব্যাট হাতে আশানুরূপ পারফরম্যান্স করতে পারছেন না এমনটাও বলেছেন টাইগার ওপেনার। তার এবং দলের সব ব্যাটারদেরই উন্নতি করার জায়গা আছে বলে মনে করেন তিনি। 

বর্তমানে বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি দলটা যথেষ্ট ভারসাম্যপূর্ণ, এমনটা মনে করেন লিটন। তার মতে ২০২২ সালের পর থেকেই দল বেশ ব্যালেন্সড, ‘ভাল ক্রিকেট খেলেই আমরা বিগত সময়ে ভাল টিমগুলার সঙ্গে জিতেছি। অবশ্যই ওয়ার্ল্ড কাপে আলাদা একটা প্রেশার থাকবে। নো ডাউট সেটা সব টিমেরই থাকে। আমরা যদি নিজেদের সর্বোচ্চটা দিয়ে খেলতে পারি, তাহলে মনে হয় আমাদের খুব ভাল একটা চান্স আছে।‘

তবে নিজেদের পারফরম্যান্সটা ধরে রেখেই বিশ্বকাপ মিশনে নামতে হবে বাংলাদেশে দলকে, ‘খারাপ সময়ে যত কাম এন্ড কুল থাকা যায়, যত কম চিন্তা করে নিজেদের ক্রিকেটের দিকে ফোকাস করা যায় তাই ভাল। আশা করি ভাল কিছুই হবে।‘

;

কলম্বো স্ট্রাইকার্সে ডাক পেলেন তাসকিন



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জুলাইয়ের ১ তারিখ থেকে পর্দা উঠছে লঙ্কান প্রিমিয়ার লিগের (এলপিএল) পঞ্চম আসরের। টুর্নামেন্টটি কেন্দ্র করে চলছে খেলোয়াড় নিলাম, একের অধিক বাংলাদেশের তারকা ক্রিকেটারও সেখানে নাম লিখিয়েছিলেন। টাইগার পেসার তাসকিন আহমেদ দল পেয়েছেন। তবে অবিক্রিত রয়ে গেছেন লিটন দাস ও মুশফিকুর রহিম।

সাম্প্রতিক সময়ে দুর্দান্ত ফর্মে আছেন তাসকিন। বাংলাদেশের হয়ে সবশেষ জিম্বাবুয়ে সিরিজেও বল হাতে দেখিয়েছেন নিজের ঝলক। সেই সুবাদে পেস বোলারদের ক্যাটাগরিতে নাম উঠেছে তার। ৫০ হাজার ডলার ভিত্তিমূল্যে তাকে দলে টেনেছে কলম্বো স্ট্রাইকার্স।

অপরদিকে উইকেটরক্ষক ক্যাটাগরিতে নাম উঠেছিল লিটন ও মুশফিকের। তবে দিনশেষে কিছুটা হতাশই হতে হয়েছে তাদের, কারণ কোনো দলই তাদের নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেনি। ফলস্বরূপ অবিক্রিতই থেকে গেছেন তারা।

;

আমি যে লেভেলের প্লেয়ার, সেভাবে পারফর্ম করতে পারিনি: লিটন



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশ্বকাপের আগে নিজেদের লক্ষ্য নিয়ে ‘গ্রিন রেড স্টোরি’ শিরোনামে ধারাবাহিক বিশেষ সাক্ষাৎকার প্রকাশ করছে বিসিবি। সেখানে নিজের বিগত পারফরম্যান্স এবং দলের সার্বিক অবস্থা নিয়ে এবার কথা বলেছেন টাইগার ওপেনার লিটন কুমার দাস।

সাম্প্রতিক সময়ের সিরিজগুলোতে এবং আগের বিশ্বকাপে আশানুরূপ পারফর্ম করে দেখাতে পারেননি লিটন, এটি নিজেই স্বীকার করেছেন তিনি। শুধু তিনি একাই নন, পুরো দলের খেলাই আশানুরূপ ছিল না বলে মনে করেন তিনি। তাদের আরও ভাল কিছু করার সামর্থ্য আছে, যেটা তারা এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে করে দেখাতে চান।

সাক্ষাৎকারে লিটন বলেছেন, ‘টিম হিসেবে আমরা যেটা আশা করেছিলাম, সেটা করতে পারিনাই। ২০২১ ও ২০২২ সালের বিশ্বকাপ, কোনোটাতেই আমরা সেভাবে খেলতে পারিনাই। ২২-এ আমরা বড় কোনো টিমের সাথে জিততে পারিনাই।‘

নিজেকে নিয়ে আলাদা করে কথা বলেছেন এই ওপেনার, ‘আমি আপ টু দা মার্ক ছিলাম না। আমি যে লেভেলের প্লেয়ার বা যে পারফর্ম আমার করা উচিত, আমি সেটা করতে পারিনাই। চেষ্টা করব এবার ভাল কিছু করার।‘

বাংলাদেশের ব্যাটাররা ভাল কিছু করে দেখানোর সামর্থ্য রাখেন, তবে কাজটা খুব সহজ নয়। এ প্রসঙ্গে লিটন বলেন, ‘আমার মনে হয় শুধু আমি না, বাংলাদেশের টপ অর্ডারের সব ব্যাটারই চিন্তা করে যে আমি একশো মারব। কিন্তু এটা এত সহজ না যে মাঠে নামব আর একশো মেরে দিব। তবে আমাদের চান্স আছে, টপ অর্ডারের ব্যাটাররা খুবই ভাল। চেষ্টাটা সবার ভেতরেই থাকবে।‘

;

আইপিএলে নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে সিদ্ধান্ত নিবেন ধোনি



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

চলতি আইপিএলে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর সঙ্গে হেরে প্লে-অফে জায়গা করে নিতে ব্যর্থ হয় মহেন্দ্র সিং ধোনির দল চেন্নাই সুপার কিংস। পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন এই দলে কত ক্রিকেটারই এসেছেন এবং দলের হয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন, কিন্তু চেন্নাই সমর্থকদের জন্য ধোনি যেন ভিন্ন এক আবেগের নাম।

যার প্রমাণ এবারের আইপিএলেও মিলেছে। ধোনি ব্যাট হাতে মাঠে নামা মাত্রই দর্শকরা গগনবিদারী চিৎকারে পুরো স্টেডিয়াম ভাসিয়েছেন। ধোনির ব্যাট থেকে একটি ছক্কা দেখার অপেক্ষায় পুরো ম্যাচ অপেক্ষা করেছেন। সেই ধোনির ক্রিকেট ক্যারিয়ারটা এখনই শেষ হয়ে যাক এমনতা চান না তার ভক্তরা।

গত শনিবার আইপিএল থেকে চেন্নাই বিদায় নেওয়ার পর সবার মনে একটাই প্রশ্ন, ধোনিকে আর মাঠে ব্যাট হাতে দেখা যাবে? অনেকেই ধরে নিয়েছেন ৪২ বছর বয়সী ধোনি এবারের আইপিএলের পরই আনুষ্ঠানিকভাবে নিজের ব্যাট আর গ্লাভসজোড়া তুলে রাখবেন।

তবে ভারতের সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, আইপিএলে এটি ধোনির ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচ নাও হতে পারে। ধোনির বিদায়টা এই বছরই হবে কিনা তা এখনই নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

টাইমস অব ইন্ডিয়াকে তাদের সূত্র বলেছে, ‘ধোনি নিজে থেকে চেন্নাইয়ের কাউকেই বলেনি যে এটাই তার শেষ। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া আগে তিনি কয়েক মাস চিন্তাভাবনা করে দেখবেন এবং অপেক্ষা করবেন, এমনটাই ম্যানেজমেন্টকে তিনি জানিয়েছেন।‘

এই বয়সের যে ফিটনেস ধোনি ধরে রেখেছেন, চলতি আসরেও যেসব বড় ছক্কা তিনি হাঁকিয়েছেন, তা অতুলনীয়। চেন্নাই আশা করছে তাদের ঘরের মাঠ চিদাম্বরমেই নিজের ক্যারিয়ারের সর্বশেষ ম্যাচটা খেলবেন ধোনি। আইপিএলে আরও একটি মৌসুম ব্যাট হাতে নিজের ঝলক দেখাবেন বিশ্বকাপজয়ী এই উইকেটকিপার ব্যাটার, সেই অপেক্ষাতেই আছে তার ভক্তরা।

;