নেতা-কর্মীদের দাবির মুখে আমি জাপার চেয়ারম্যান: রওশন এরশাদ



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রওশন এরশাদ বলেছেন, দলের অগনিত নেতা-কর্মীদের একান্ত দাবির মুখে আমি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব গ্রহণ করতে বাধ্য হয়েছি। আজ আপনারা আমার দায়িত্ব গ্রহণকে অনুমোদন দিয়েছেন। 

শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) আইডিইবি মিলনায়তনে জাপার একাংশের ডাকা বর্ধিত সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। এর আগে ২৮ জানুয়ারি রওশন এরশাদ জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের ও মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নুকে তাদের পদ থেকে অব্যাহতি দেন। একই সঙ্গে নিজেকে জাপার চেয়ারম্যান ঘোষণা করেন। এরপর ৯ মার্চ জাতীয় পার্টির কাউন্সিল ঘোষণা করেন রওশন এরশাদ। সেই কাউন্সিলকে সামনে রেখে সিরিজ কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে বর্ধিত সভা ডাকেন রওশন এরশাদ। 


তিনি আরও বলেন, আপনারাই জাতীয় পার্টির সকল ক্ষমতার উৎস। আপনারা যেভাবে চাইবেন, পার্টি সেভাবেই পরিচালিত হবে। জাতীয় পার্টিতে পূর্ণাঙ্গ গণতান্ত্রিক চর্চা হবে। আগামী ৯ মার্চ জাতীয় পার্টির দশম জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এই সম্মেলনের বিরুদ্ধে অনেক ষড়যন্ত্র হতে পারে। কোনো ষড়যন্ত্র, কোনো বিভ্রান্তিতে আপনারা কান দেবেন না।

তিনি বলেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নীতি-আদর্শ, তার চেতনা-প্রেরণা হচ্ছে জাতীয় পার্টির অস্তিত্ব। সেই অস্তিত্বকে যারা মূছে দিতে চায়-তারা জাতীয় পার্টির পরিচয় দেয়ার অধিকার রাখে না। এবারের নির্বাচনী ইশতেহারের মলাট থেকে এরশাদের ছবি মুছে ফেলা হয়েছে। জাতীয় পার্টি প্রতিষ্ঠার পর এবার নির্বাচনে পার্টির প্রার্থীদের পোস্টারে ছবি ব্যবহার করতে দেয়া হয়নি। আওয়ামী লীগ সভানেত্রী তাঁর নির্বাচনী পোস্টারে বঙ্গবন্ধুর ছবি রেখেছেন। অথচ জাতীয় পার্টির সাবেক চেয়ারম্যানের পোস্টারে এরশাদের ছবি জায়গা পায়নি। এটা জাতীয় পার্টির অগনিত নেতা-কর্মীর মনে আঘাত দিয়েছে, হৃদয়ে রক্তক্ষরণ করেছে। তারা ভোট কেন্দ্রে যাবার আগ্রহ হারিয়ে ফেলেন। 

রওশন এরশাদ বলেন, আপনাদের ভোটে জয়লাভের সম্ভাবনা ছিল-এমন সব প্রার্থীদের যদি মনোনয়ন দেয়া হয়নি। এসব জনপ্রিয় ও যোগ্য নেতা এবং অভিভাবকহীন অসংখ্য নেতাকর্মী ও প্রার্থীদের বিপদে রেখে আমি নির্বাচনে যেতে পারি না। আমার ছেলের আসন যদি কেড়ে নেয়া হয়, তাহলে আমি কি নির্বাচনে যেতে পারি? নিশ্চয় না। তারপরও আমি সব কিছু মেনে নিতে পারতাম- যদি নির্বাচনে জাতীয় পার্টির ভরাডুবি না হতো। জাতীয় পার্টিকে ধ্বংসের শেষ সীমানায় পৌঁছে দেয়া হয়েছে। এটা আমি কীভাবে মেনে নেবো?

তিনি বলেন, ৯ মার্চের সম্মেলন সফল করতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। সম্মেলনের জন্য রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বরাদ্দ নেয়া হয়েছে। পুলিশ প্রশাসনের অনুমতি পাওয়া গেছে। আপনারা সকাল দশটার মধ্যে প্রত্যেক কাউন্সিলর এবং ডেলিগেটদের নিয়ে সম্মেলন স্থানে উপস্থিত হবেন। ওই দিন আপনারাই জাতীয় পার্টির নেতৃত্ব নির্বাচিত করবেন।

তিনি বলেন, আজ আমার হৃদয় কানায় কানায় ভরে গেছে। আপনারা আমার ডাকে সাড়া দিয়ে সকল জেলা থেকে অল্প সময়ের মধ্যে এই বর্ধিত সভায় এসে যোগ দিয়েছেন। আপনারা প্রমাণ করেছেন এরশাদের জাতীয় পার্টি হারিয়ে যায়নি, হারিয়ে যাবে না। আপনারা পার্টিকে আবার সুসংগঠিত করে এরশাদের স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করবেন। 

বক্তব্যের শেষ পর্যায়ে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বেগম রওশন আজ আপনাদের পেয়ে আমার মনোবল দ্বিগুণ বেড়ে গেছে। যতদিন বেঁচে আছি আপনাদের মাঝেই বেঁচে থাকতে চাই। এরশাদের স্বপ্ন বাস্তবায়নের সংগ্রামই হবে আমাদের সকলের পথ ও পাথেয়। ৯ মার্চ জাতীয় সম্মেলন সফল করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করবেন।

তিনি বলেন,  সাংবিধানিকভাবে দেশে একটি সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে উল্লেখ করে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ বলেছেন, নতুন সরকার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এই সরকারের সামনে অনেক চ্যালেঞ্জ রয়েছে। অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অশনি সংকেত শোনা যাচ্ছে। সরকার যদি তা মোকাবেলা করতে না পারে- তাহলে দেশে বড় বিপর্যয় নেমে আসতে পারে। 

রওশন এরশাদ বলেন, দ্রব্যমূল্য এখনই সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে। আর রমজানকে সামনে রেখে অসাধু ব্যবসায়ীরা ওঁৎ পেতে বসে আছে। এক্ষেত্রে সরকারের প্রধান কাজ হবে- দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখতে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া। খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ভেজাল বিরোধী অভিযান জোরদার করতে হবে। দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থাকে উন্নত করতে হবে। বেকার সমস্যা সমাধানের দিকে প্রাধান্য দিতে হবে। যুবকরা কাজের সন্ধানে অবৈধ পথে বিদেশে পাড়ি দিতে গিয়ে মর্মান্তিকভাবে প্রাণ হারাচ্ছে-এটা কোনোভাবে মেনে নেয়া যায় না।

   

বিএনপি সন্ত্রাসের পক্ষে অবস্থান নিয়েছে: হানিফ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুষ্টিয়া
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপি সন্ত্রাসের পক্ষে অবস্থান নিয়েছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ।

তিনি বলেন, যারা নাশকতা কর্মকাণ্ডে অভিযুক্ত তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আর বিএনপি সন্ত্রাসের পক্ষে অবস্থান নিয়েছে বলে বলতে পারছে পুলিশী রাষ্ট্রের কথা।

শনিবার (১৩ এপ্রিল) দুপুরে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হরিনারায়নপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মহাসম্মেলন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকায় তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে, নির্দোষ প্রমাণে ব্যর্থ হওয়ায় আদালত তাকে দণ্ড দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর উদারতায় তাকে বাসায় থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। কিন্তু বিএনপি নেতারা বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে রাজনীতি করে জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে।

মাহবুব উল আলম হানিফ আরও বলেন, ভারতীয় পণ্য বর্জনের ডাক বিএনপি নেতাদের সস্তা রাজনীতি ছাড়া আর কিছুই না, এতে কোনো সুফল আসে না বরং রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়াত্বের বহিঃপ্রকাশ ঘটে।

এসময় কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ হাসান মেহেদী, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

;

ইসরায়েলের ফ্লাইট ঢাকায় অবতরণ রহস্যজনক: রিজভী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ইসরায়েলের ফ্লাইট ঢাকায় অবতরণ রহস্যজনক: রিজভী

ইসরায়েলের ফ্লাইট ঢাকায় অবতরণ রহস্যজনক: রিজভী

  • Font increase
  • Font Decrease

ইসরায়েলের সঙ্গে বাংলাদেশের কোনো কূটনীতিক সম্পর্ক নেই। তারপরও সেখান থেকে সরাসরি বাংলাদেশে ফ্লাইট অবতরণ করার বিষয়টি ‘রহস্যজনক’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

শনিবার (১৩ এপ্রিল) নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রিজভী বলেন, ইসরায়েলের একটি ফ্লাইট বাংলাদেশে অবতরণ করার কথা শুনেছি। তবে বিস্তারিত এখনো জানি না। এখন পর্যন্ত যতটুকু শুনেছি তাতে বিষয়টিকে খুবই রহস্যজনক মনে হচ্ছে।

বিশ্বের শীর্ষ দুর্নীতিগ্রস্ত তালিকায় এখন বাংলাদেশের নাম রয়েছে বলেও মন্তব্য করেছেন রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এখন ব্যাপকভাবে দুর্নীতি চাষের উর্বর ভূমি। বাংলাদেশ দুর্নীতির এমন একটি পাহাড় রচিত হয়েছে, সেই পাহাড়ের চূড়ায় এখন ক্ষমতাসীন শাসক গোষ্ঠীর লোকেরা অবস্থান করছে।

বিএনপির মুখপাত্র বলেন, আন্তর্জাতিক গবেষণা সংস্থার মতে, বর্তমানে দুর্নীতির শীর্ষ দশের মাঝামাঝি অবস্থায় বাংলাদেশ অবস্থান করেছে। এমনকি দুর্নীতির মাধ্যমে, লুটপাট করে টাকা পাচার করে বিশ্বের উন্নত দেশের শীর্ষ ধনীদের মাঝেও নাম লেখাতে সক্ষম হয়েছেন ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী এবং তাদের আত্মীয়স্বজনরা।

দেশবাসীকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি আরও বলেন, সমস্ত জরাজীর্ণতা ও সমস্ত গ্লানি মুছে নতুনভাবে দেশটাকে গড়ে তুলা, আমাদের যে লক্ষ্য গণতন্ত্রকে ফেরানো, সে আন্দোলনকে আরও বেশি তরান্বিত করবো, মানুষের হারানো অধিকার ফিরিয়ে আনবো সেটাই হোক আমাদের প্রত্যাশা।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম।

উল্লেখ্য, গত ১১ এপ্রিল ইসরায়েলের তেল আবিব থেকে স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১০টায় রওনা হয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ঢাকায় অবতরণ করে ফ্লাইটটি। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের এনসিআর-৮০৬ নম্বর ফ্লাইটটি বোয়িং ৭৪৭-৪০০ মডেলের এয়ারক্রাফট দিয়ে পরিচালিত হচ্ছিল।

;

পহেলা বৈশাখে আলোচনা সভা ও র‍্যালী করবে আওয়ামী লীগ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের উদ্যোগে পুরান ঢাকা বাহাদুর শাহ পার্কের সামনে থেকে আলোচনা সভা ও বর্ণাঢ্য র‍্যালি অনুষ্ঠিত হবে।

শনিবার (১৩ এপ্রিল) ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মোঃ রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়েছে। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আগামী ১৪ এপ্রিল রোজ রোববার সকাল ৭টায় পুরান ঢাকা বাহাদুর শাহ পার্কের সামনে (সদরঘাট) শুভ নববর্ষ ১৪৩১ উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভা ও বর্ণাঢ্য র‍্যালি অনুষ্ঠিত হবে।

র‍্যালিটি বাহাদুর শাহ পার্ক থেকে শুরু হয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউ গুলিস্তান এসে সমাপ্ত হবে।

আলোচনা সভা ও র‍্যালি উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সভায় সভাপতিত্ব করবেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু আহমেদ মন্নাফী ও সভা সঞ্চালনা করবেন সাধারণ সম্পাদক মোঃ হুমায়ুন কবির।

;

দেশে এখন আ.লীগ নাই, সব পুলিশ লীগ: মির্জা ফখরুল



Sajid Sumon
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

আওয়ামী লীগ সরকার কোনদিন জনগনের ভোটে নির্বাচিত হতে পারেনি অভিযোগ করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, তারা ভয় দেখিয়ে, প্রতারণা করে, ভুল বুঝিয়ে জোর করে ক্ষমতা দখল করে থাকতে চায়৷ এই রাষ্ট্রকে তারা সত্যিকার অর্থে গভীর পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত করেছে৷ দেশে এখন আওয়ামীলীগ নাই সব পুলিশ লীগ।

শুক্রবার (১২ এপ্রিল) বিকালে জেলার হরিপুর উপজেলার পুলিশ হেফাজতে মৃত্যুবরণকারী উপজেলা যুবদলের সদস্য সচিব আকরাম হোসেন এর কবর জিয়ারত ও পরিবারের সাথে সৌজন্যে সাক্ষাৎ শেষ এসব কথা বলেন৷

তিনি বলেন, শুধু আকরামের ঘটনা নতুন নয়। আমাদের আন্দোলন চলাকালে ৩০ জন নেতাকর্মীকে হত্যা করা হয়েছে। আমাদের বিরুদ্ধে প্রায় ৬০ লাখ মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে। ৭০০ থেকে ৮০০ জন নেতা-কর্মীকে গুম করা হয়েছে৷ গত কয়েকদিনের মধ্যে তারা ২৭ হাজার নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে৷ তারা সারা দেশকে নির্যাতনের কারখানায় পরিণত করেছ।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এবারে আপনাদের ঈদ আনন্দের হয় নাই। এই দানবীয় সরকারের আপনার সন্তানকে পুলিশ বাহিনী দিয়ে হত্যা করেছে। আমাদের ছেলে-মেয়েরা অধিকার সংগ্রামের জন্য লড়াই করছে। ভোটের অধিকার, ভাতের অধিকার আর বেঁচে থাকার অধিকারের জন্য৷ অথচ এই দানবীয় সরকার জোরদখল করে আছে৷

তিনি বলেন, আমরা নির্বাচন চাই। সবাই যেন অবাধে, বিনা ভয়ে ভোট দিতে পারে এমন একটা নির্বাচন চাই। গোটা দেশকে তারা ভয়ের রাজত্বে পরিণত করেছে। তারা কাউকে সম্মান করেনা। দেশের আলেম-ওলামা, অধ্যাপক, বিখ্যাত কাউকে তারা সম্মান করেনা। পৃথিবী যাকে চিনে নোবেল বিজয়ী তাকেও তারা শাস্তি দিয়েছে।

এসময় জেলা-উপজেলার বিএনপির নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে মৃত্যুবরণকারী উপজেলা যুবদল নেতার কবর জিয়ারত ও তার পরিবারের সদস্যদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন তিনি।

;