‘জায়গাটিকে খুবই নিজের বলে মনে হয়’



বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

সম্প্রতি ঢাকা সফর করে গেছেন ভারতের বাংলাদেশ লাগোয়া মেঘালয় প্রদেশের উপ-মুখ্যমন্ত্রী স্নিয়াভলং ধরের নেতৃত্বে ৬৬ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল। ঢাকায় মেঘালয় তথা পূর্ব ভারতের অধিবাসীদের কাছে পরম শ্রদ্ধেয় স্বাধীনতা সংগ্রামী খাসিয়া বীর ইউ তিরৎ সিংয়ের ভাস্কর্য উন্মোচনের কর্মসূচিতে যোগ দিতে আসা প্রতিনিধি দলটি পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের জেলখানা পরিদর্শন করেন, যেখানে একসময় কারাবন্দী ছিলেন তিরৎ সিং।

পরে প্রতিনিধি দল ঢাকার আহসান মঞ্জিল জাদুঘরও পরিদর্শন করেন। আহসান মঞ্জিল চত্বরে বার্তা২৪.কম-কে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে প্রতিনিধি দলের প্রধান মেঘালয়ের উপ-মুখ্যমন্ত্রী স্নিয়াভলং ধর পর্যটন, ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণসহ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নের নানা প্রসঙ্গে কথা বলেন। সাক্ষাৎকারে তিনি ‘জায়গাটিকে খুবই নিজের বলে মনে হয়’ উল্লেখ করে বাংলাদেশের সঙ্গে মেঘালয়ের নাগরিক যোগাযোগ বৃদ্ধির জন্য তাঁর প্রাদেশিক সরকারের আগ্রহের কথাও তুলে ধরেন।

রিপন রেজার ক্যামেরায় স্নিয়াভলং ধরের এই সাক্ষাৎকারটি গ্রহণ করেছেন পরিকল্পনা সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম ও স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট ইশতিয়াক হুসাইন।

বার্তা২৪.কম: এবার মেঘালয় সরকারের এই প্রতিনিধি দলের বাংলাদেশ সফরের সম্পর্কে জানতে চাই… 

স্নিয়াভলং ধর: বাংলাদেশে আমাদের এবারের সফর মেঘালয়ের জনগণের জন্য নানা কারণেই বিশেষ গুরুত্ব বহন করছে। আমরা অত্যন্ত আনন্দিত ও গর্বিত এজন্য যে, ঔপনিবেশিক ব্রিটিশ শাসনামলে আমাদের মহান স্বাধীনতা সংগ্রামী ‘খাসিয়া বীর’ ইউ তিরৎ সিং ঢাকাতে বন্দি অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন, তাঁর প্রতি আমরা শ্রদ্ধা জানাতে পেরেছি। এই সফর আমাদের জনগণের আবেগকে স্পর্শ করেছে। বাংলাদেশের সরকার ও ঢাকাস্থ ভারতীয় হাই কমিশনকে আমরা মেঘালয় ও ভারতের জনগণের পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি আমাদের উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানোর জন্য।


বার্তা২৪.কম: মেঘালয়ের সঙ্গে বাংলাদেশের স্থলসীমা রয়েছে। রাজধানীর ঢাকার সবচেয়ে কাছের ভারতীয় রাজ্য মেঘালয়। ব্যবসা ও পর্যটনে ক্ষেত্রে এ সুযোগকে কিভাবে কাজে লাগাতে পারি আমরা?

স্নিয়াভলং ধর: নি:সন্দেহে বাংলাদেশ ও মেঘালয়ের মধ্যে একটি শক্তিশালী বন্ধন রয়েছে। বিশেষ করে ব্যবসার ক্ষেত্রে। আমাদের মধ্যে অনেক কিছু আমদানি-রপ্তানি হচ্ছে। আপনারা জানেন, বহু বাাংলাদেশি মেঘালয়ে ঘুরতে যান। আমরা সব সময় এদেশের মানুষকে মেঘালয়ে স্বাগত জানাই। আবার আমাদের মানুষেরা এখানে আসেন। আমরা এই আসা-যাওয়া আরও সহজ করতে পর্যটন নীতিমালা করতে চাই; যাতে দু’দেশের মানুষেরই উপকৃত হয়। এরই অংশ হিসেবে এখন মেঘালয় ও বাংলাদেশের মধ্যে অনেক বিষয়ে আলোচনা করছি। কারণ বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা মেঘালয়ে তাদের ব্যবসা বিস্তৃত করছে। আমরা চাইছি, এই ব্যবসায়িক সম্পর্ক কিভাবে আরো জোরদার করা যায়।

বার্তা২৪.কম: সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও মুক্তিসংগ্রামের চেতনা এই সম্পর্ক উন্নত করতে কি প্রভাব ফেলতে পারে…

স্নিয়াভলং ধর: আমাদের অনেক ক্ষেত্রেই অভিন্ন ঐতিহ্য রয়েছে। সেটা সংস্কৃতিগত ও স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসের আলোকে একটি গভীর সংযোগ রয়েছে বাংলাদেশ আর মেঘালয়ের মধ্যে। আমরা এই পরম্পরাকে কাজে লাগাতে চাই। খাসিয়া বীর তিরৎ সিংয়ের ঢাকার স্মৃতি দেখতে আমাদের এই সফর তারই অংশ। সেই সঙ্গে আমরা সাংস্কৃতিক কর্মসূচি বিনিময়ের পরিকল্পনা করছি।

বার্তা২৪.কম: বাংলাদেশ-মেঘালয়ের জনগণের সম্প্রীতি বাড়াতে গণমাধ্যমকর্মীদের ভূমিকা কিভাবে দেখেন…

স্নিয়াভলং ধর: প্রতিবেশী দেশের জনগণের পারস্পারিক যোগাযোগ বাড়াতে গণমাধ্যমের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। লক্ষ্য করে দেখবেন, ঢাকায় তিরৎ সিংয়ের এই মেমোরিয়াল উম্মোচনের সংবাদটি গণমাধ্যমের মাধ্যমেই গণমানুষ জানতে পারছে। আমি নিজেও মনে করি, দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নয়নে; বিশেষ করে নাগরিক সম্পর্ক গভীর করতে গণমাধ্যমের ভূমিকা অব্যাহত থাকা জরুরি।

বার্তা২৪.কম: বর্তমান বাংলাদেশ ঘুরে দেখার পর এখন আপনার অনুভূতি কেমন?

স্নিয়াভলং ধর: যখনই আমি বাংলাদেশে আসি এই জায়গাটিকে খুবই নিজের বলে মনে হয়। বাংলাদেশের ক্রমাগত এগিয়ে যাওয়া আমাদের দারুণভাবে আনন্দিত করে। এখানে যতগুলো কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছি সব জায়গাতে আমাকে ও আমার প্রতিনিধি দলকে উঞ্চ সবংর্ধনা দেওয়া হয়েছে। আমরা অত্যন্ত সৌভাগ্যবান। এর জন্য এদেশের মানুষ ও সংশ্লিষ্ট সবাই অনেক ধন্যবাদ জানাই। 

   

ধান কাটতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে কৃষকের মৃত্যু



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রংপুর 
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

কাউনিয়ায় জমিতে ধান কাটতে গিয়ে সেচ পাম্পের তারে জড়িয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে রফিকুল ইসলাম (৫৫) নামের এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। 

শনিবার (২৫ মে) সকাল ৯ টার দিকে উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের চাঁনঘাট গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। রফিকুল ইসলাম উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের চাঁনঘাট গ্রামের মৃত্যু উলি মাহমুদের ছেলে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে কৃষক রফিকুল ইসলাম (৫৫) তার নিজের জমিতে বোরোধান কাটতে যান। আব্দুল গফুর নামের এক ব্যক্তির অবৈধভাবে বিদ্যুতের খুঁটি থেকে সংযোগ নেওয়া সেচ পাম্পের তার ঝড়ে ধান খেতে পড়ে যায়। অসাবধানতাবশত সে তারে হাত লেগে গেলে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি। এ ঘটনায় পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। 

রংপুর পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি কাউনিয়া জোনাল অফিসের এজিএম আলমগীর হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। 

কাউনিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহফুজার রহমান বিদ্যুৎস্পৃটে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, নিহতের স্ত্রীর কোন অভিযোগ না থাকায় পরিবারের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে।

;

দেশে কেউ হতদরিদ্র ও গৃহহীন থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশে কেউ হতদরিদ্র এবং গৃহহীন থাকবে না। দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ করতে মূল হাতিয়ার হচ্ছে শিক্ষা। সেই লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার।

তিনি বলেন, ধর্ম বর্ণ বলে কোন কথা নেই। আমরা মানুষের জন্য কাজ করি। জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করাই আমাদের লক্ষ্য।

শনিবার (২৫ মে) দুপুরে গণভবনে বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের ধর্মীয় গুরু ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশকে অসাম্প্রদায়িক দেশ হিসেবে গড়ে তুলেছে বর্তমান সরকার জানিয়ে সরকার প্রধান বলেন, অসাম্প্রদায়িক দেশ হিসেবে বিশ্বের দরবারে দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছে বাংলাদেশ।

শেখ হাসিনা বলেন, ধর্মীয় উন্মাদনা সৃষ্টি করে বাংলাদেশকে বিপথে নেওয়ার চেষ্টা করেছিল ৭৫ এর খুনিরা। ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরে সাম্প্রদায়িকতা দেখেছি। বর্তমান সরকার বাংলাদেশকে অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়ে তুলেছে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে নেপালে একটি বৌদ্ধ মন্দির করে দেওয়া হবে। পার্বত্য চট্টগ্রামে উৎপাদন বাড়ানোসহ কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য কাজ করছে সরকার।

;

বন্দরে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কসংকেত



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে ও তৎসংলগ্ন পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থান করা গভীর নিম্নচাপটি আজ রাত ৯টার দিকে ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। এর প্রভাবে বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্রবন্দরসমূহের ওপর দিয়ে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এ কারণে দেশের চার বন্দরে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কসংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অফিস।

শনিবার (২৫ মে) বেলা ২টার দিকে আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক আজীজুর রহমান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, এরই মধ্যে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রাবন্দর সমূহে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত নামিয়ে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

তিনি বলেন, সাগরের মধ্যভাগ দিয়ে যাওয়ায় আরও শক্তিশালী হতে পারে ঘূর্ণিঝড়টি। ঘূর্ণিঝড়টি রোববার সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৯টার খেপুপাড়া দিয়ে অতিক্রম করতে পারে। অগ্রভাগের প্রভাব দুপুরের পর থেকেই উপকূলে থাকতে পারে। জোয়ারের সময় ৭ থেকে ১০ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাস হতে পারে। আর ভাটার সময় হতে পারে ৫ থেকে ৭ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাস।

তিনি আরও বলেন, সারা দেশেই ভারী থেকে অতিভারী বর্ষণ হতে পারে। ঘূর্ণিঝড়ের কারণে জলোচ্ছ্বাস, ভারীবর্ষণ ও ভূমিধ্বস হতে পারে। তাই সকলকে সতর্ক থাকতে হবে। এই সময় সারা দেশে ৩ থেকে ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা কমতে পারে। আর উপকূলে ৭ ডিগ্রি পর্যন্ত কমতে পারে বলেও জানিয়েছেন আজীজুর রহমান।

;

এমপি আনার হত্যা তদন্তে ভারত যাচ্ছে ডিবি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা ২৪

ছবি: বার্তা ২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

ঝিনাইদহ ৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার হত্যার ঘটনা তদন্তে ভারতের কলকাতায় যাচ্ছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি)'র একটি দল। 

শনিবার (২৫ মে) দুপুরে মিন্টো রোডের ডিবি কনফারেন্স হলে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ।

তিনি বলেন, সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার হত্যা মামলায় বাংলাদেশে একটি মামলা হয়েছে। পাশাপাশি কলকাতায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। এই ঘটনা তদন্তে কলকাতা পুলিশের চার সদস্যের একটি টিম বাংলাদেশে তদন্ত করছে। তাদের কাজ এখনো শেষ হয় নি। আজকেও তারা আসামিদের সঙ্গে কথা বলতে আসবে।

হারুন আরও বলেন, এই ঘটনা তদন্তে ডিবির পক্ষ থেকে একটি টিম কলকাতায় যাওয়ার বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। তাদের অনুমতি পেয়েছি। আমিসহ আরও কয়েকজন কর্মকর্তা আজ রাতে অথবা আগামীকাল সকালে রওনা দেবো। 

উল্লেখ্য, গত ১১ মে সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার চিকিৎসার জন্য ভারতে যান। এরপর তিন দিন পার হলেও পরিবারের সদস্যরা তার সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করতে পারেননি। ভারতে গিয়ে তিনি পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বরানগর থানার ১৭/৩ মণ্ডল পাড়া লেনের বাসিন্দা ও তার দীর্ঘদিনের পরিচিত গোপাল বিশ্বাসের বাড়িতে ওঠেন।

মূলত ডাক্তার দেখানোর উদ্দেশ্যেই বাংলাদেশ থেকে ভারতে যান তিনি। পরে ১৩ মে দুপুরে ডাক্তার দেখানোর উদ্দেশ্যে বের হন। ওইদিন সন্ধ্যায় ফেরার কথা থাকলেও তিনি আর ফিরে আসেননি। পরবর্তীতে গত ১৮ মে বারানগর থানায় একটি নিখোঁজের অভিযোগ করেন গোপাল বিশ্বাস।

এদিকে, আনোয়ারুল আজীম আনারকে খুনের উদ্দেশ্য অপহরণের মামলায় ৪ জুলাইয়ের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (২৩ মে) মামলার এজাহার আদালতে আসে। ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মহবুবুল হকের আদালত তা গ্রহণ করে আগামী ৪ জুলাইয়ের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।

এর আগে বুধবার (২২ মে) রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানায় খুন করার উদ্দেশ্যে অপহরণের অভিযোগে মামলাটি দায়ের করেন এমপি আনারের মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন।

মামলায় তিনি উল্লেখ করেছেন, ‘মানিক মিয়া এভিনিউয়ের বাসায় আমরা সপরিবারে বসবাস করি। ৯ মে রাত ৮টার দিকে আমার বাবা আনোয়ারুল আজীম আনার গ্রামের বাড়ি ঝিনাইদহ যাওয়ার উদ্দেশে যাত্রা করেন। ১১ মে বিকেল পৌনে ৫টার দিকে বাবার সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বললে বাবার কথাবার্তায় কিছুটা অসংলগ্ন মনে হয়। এরপর বাবার মোবাইল নম্বরে একাধিকবার কল দিলেও বন্ধ পাই।’

মামলায় তিনি আরও উল্লেখ করেন, ১৩ মে বাবার ভারতীয় নম্বর থেকে উজির মামার হোয়াটসঅ্যাপে একটি ক্ষুদেবার্তা আসে। এতে লিখা ছিল, ‘আমি হঠাৎ করে দিল্লি যাচ্ছি, আমার সঙ্গে ভিআইপি রয়েছে। আমি অমিত সাহার কাজে নিউটাউন যাচ্ছি। আমাকে ফোন দেয়ার দরকার নাই। আমি পরে ফোন দেবো। এছাড়া আরও কয়েকটি বার্তা আসে। ক্ষুদে বার্তাগুলো আমার বাবার মোবাইল ফোন ব্যবহার করে অপহরণকারীরা করে থাকতে পারে।’

;