চট্টগ্রামে ডাম্পার-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষে চালক-সহকারী নিহত



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চট্টগ্রাম
ছবি: বার্তা ২৪.কম

ছবি: বার্তা ২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির নাজিরহাটে ডাম্পার-ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুইজন নিহত হয়েছে। এতে আরও একজন শুরুতর আহত হয়েছেন।

সোমবার (৪ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত ৩টার দিকে নাজিরহাট নতুনরাস্তা মাথা এলাকায় চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- ট্রাকের চালক ভূজপুর থানার ঝিলতলী এলাকার মো. মোসলেম উদ্দিনের ছেলে মো. রুবেল (২৬) এবং তার সহকারী ও একই এলাকার আব্দুর রশীদের ছেলে মো. আলমগীর (২৮)। এই ঘটনায় আহত হন ডাম্পারে চালক নূর মিয়া। তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিষয়টি বার্তা২৪.কম-কে নিশ্চিত করেছেন নাজিরহাট হাইওয়ের থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আদিল মাহমুদ।

তিনি বলেন, ‘রাতে নাজিরহাট নতুন রাস্তার মাথা এলাকায় ডাম্পার-ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এরমধ্যে ডাম্পারটি খাগড়াছড়িমুখী ও অন্যটি চট্টগ্রাম শহরমুখী ছিল। দুর্ঘটনায় শহরমুখী ট্রাকের চালক ও তার সহকারীর মৃত্যু হয়েছে। ডাম্পার চালক গুরুতর আহত হয়েছেন। তাকে তৎক্ষনাৎ স্থানীয়রা উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে নিয়ে গেছেন। ডাম্পার ও ট্রাক জব্দ করা হয়েছে। এই ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।'

   

গণমাধ্যমকে শক্তিশালী ভিতের ওপর প্রতিষ্ঠা করতে প্রস্তুত সরকার: তথ্য প্রতিমন্ত্রী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গণমাধ্যমকে আরও শক্তিশালী ও মজবুত ভিতের ওপর প্রতিষ্ঠা করতে সরকার প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত।

শুক্রবার (১ মার্চ) বিকেলে চাঁদপুর প্রেসক্লাব চত্বরে প্রেসক্লাবের ২০২৪ সালের কার্যনির্বাহী পরিষদের অভিষেক অনুষ্ঠানে উদ্বোধকের বক্তব্য প্রদানকালে প্রতিমন্ত্রী এ কথা জানান।

চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহাদাত হোসেন শান্তর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি ও টিভি টুডে-এর প্রধান সম্পাদক মনজুরুল আহসান বুলবুল, চাঁদপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ওচমান গণি পাটোয়ারী, চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায়, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক বশির আহমেদ, দৈনিক যুগান্তরের যুগ্ম সম্পাদক ও ঢাকা পোস্টের সম্পাদক মহিউদ্দিন সরকার, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র মো. জিল্লুর রহমান জুয়েল প্রমুখ।

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন অণুজীববিজ্ঞানী ড. সেঁজুতি সাহা, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো. দেলোয়ার হোসেন মজুমদার এবং জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত গীতিকার কবির বকুলকে অনুষ্ঠানে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।

এ সময় প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, গণমাধ্যম এখন শিল্প। গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও বিকাশ ছাড়া গণতন্ত্র পূর্ণতা পাবে না। এরকম বাস্তবতায় সরকার গণমাধ্যমকে পূর্ণাঙ্গভাবে সকল সহায়তা দিতে প্রস্তুত আছে। গণমাধ্যমকে আরও শক্তিশালী অবস্থায় মজবুতভাবে প্রতিষ্ঠা করতে সরকার প্রস্তুত। সে ক্ষেত্রে সরকার সাংবাদিকদের কাছ থেকে একই ধরণের সহযোগিতা চায়।

তিনি আরও বলেন, গণমাধ্যম ও সরকারের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে গণমাধ্যমের পূর্ণাঙ্গ স্বাধীনতা সুনিশ্চিত করা এবং গণমাধ্যম শিল্পকে আরও শক্ত ভিত্তির উপর দাঁড় করানোর জন্য আমরা চেষ্টা করতে পারি। গণমাধ্যম কীভাবে সরকার বা কর্তৃপক্ষের জন্য সঠিক তথ্যের ভিত্তিতে জবাবদিহি আনতে পারে, এমনকি সমালোচনা করতে পারে, সে কাজগুলোও আমরা করতে পারি।

;

বইমেলা শেষ হয়েও হলো না, বই বিক্রিতে মিশ্র অভিজ্ঞতা

  ‘এসো মিলি প্রাণের মেলায়’



কানজুল কারাম কৌষিক, ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা ২৪.কম

ছবি: বার্তা ২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

চলছে অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০২৪। সাধারণত বাংলা ও বাঙালীর প্রাণের এ মেলা চলে ফেব্রুয়ারি মাস জুড়েই। এবারও পূর্ব নির্ধারিত সময় অনুযায়ী পর্দা নামার কথা ছিলো প্রাণের বইমেলার। বইমেলার আয়োজক প্রতিষ্ঠান বাংলা একাডেমি থেকে সমাপনি অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্র প্রস্তুত করা হয়েছিল তবুও ছোট গল্প নিয়ে লেখা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা বিখ্যাত সেই চরণের মতোই অবস্থা বইমেলার। বইমেলার অবস্থাও তুলে ধরছে সেই চরণ ‘অন্তরে অতৃপ্তি রবে, সাঙ্গ করি মনে হবে, শেষ হইয়াও হইল না শেষ’। সব সময়ের মতো আজ এবং কালও পর্দা উঠছে না বইমেলার। তবে এই বর্ধিত সময়ে প্রকাশক-বিপণন ব্যাবস্থাপকসহ সংশ্লিষ্টদের মাঝে তৈরি হয়েছে মিশ্র অভিজ্ঞতা।

শুক্রবার (১ মার্চ ) অমর একুশে বইমেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যান প্রাঙ্গণ ও বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে সরেজমিনে এ চিত্র লক্ষ্য করা যায়।

প্রতিবারের মতো এবারও বেশ তোড়জোড়ের মাধ্যমে বইমেলায় অংশগ্রহণ করেছে 'কথা প্রকাশ' প্রকাশনী। এবারের বইমেলা উপলক্ষে তারা বিগত বছরগুলোর চেয়েও বেশি বই ছাপিয়ে মেলার প্রস্তুতি নেন। তবে বই বিক্রি ছাপিয়ে গেছে তাদের প্রত্যাশাকেও।

কথা প্রকাশের কর্ণধার জসীমউদ্দিন বার্তা ২৪.কমকে বলেন, আমাদের এবারের বই মেলায় খুব ভালো বিক্রি হয়েছে। আমাদের একবারে বই ছাপিয়ে বিক্রির প্রস্তুতি ছিলো। কিন্তু এতোই বেশি বিক্রি হয়েছে যে কিছু বই ৩য় এবং ৪র্থ সংস্করণে বের করতে হয়েছে। আশানুর রহমান এর লেনিন বইটি প্রথম প্রকাশ হয়েছে এটিও ৩য় বার বের করেছি। আর সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর একটি বই আমরা ৪র্থ বার ছাপিয়েছি এবার।

বর্ধিত ২ দিনে ভালো বিক্রি হচ্ছে দাবি করে তিনি বলেন, এখন আসল পাঠকরা বই কিনতে আসছেন। এর আগে ভিড় ছিলো। এখন শুধু পাঠক ও ক্রেতা মেলায় আসছে এবং শান্তিতে বই কিনতে পারছে।

বহু বছর যাবৎ বইমেলার আয়োজনে নিয়মিত অংশগ্রহণ করছেন 'মাওলা ব্রাদার্স' প্রকাশনী। এবারও এ বইমেলায় তারা শতাধিক নতুন বইসহ হাজারো বই নিয়ে উপস্থিত হন বইমেলায়। 'মাওলা ব্রাদার্স' এর আইটি বিভাগের প্রধান নিহাল মাহমুদ বার্তা ২৪.কমকে বলেন, এমনিতে আমরা এ বছরের মেলায় সব মিলিয়ে সন্তুষ্ট। তবে এই বর্ধিত সময়ে এসে শুক্রবার সন্ধার আগে অবধি যা দেখলাম তা থেকে বলা যায় আশানুরূপ কোন সাড়াই পাই নি। এখনো সময় বাকি আছে। রাত ৯ টা অবধি দেখি এবং আগামীকাল শেষ দিনটা দেখে বিস্তারিত বুঝতে পারবো বেচা-কেনার অবস্থা।

বইমেলায় অন্যতম আলোচিত প্রকাশনীদের মধ্যে একটি 'ঐতিহ্য'। 'ঐতিহ্য' প্রকাশনীর বিপণন ব্যাবস্থাপক আমজাদ হোসেন বার্তা ২৪.কমকে বলেন, এবার বইমেলায় ঐতিহ্য থেকে ভালো বই বিক্রি হয়েছে। আমরা সন্তুষ্ট। তবে এই যে দুই দিন বাড়ানো হলো সময়, এই শুক্রবার এর বেচাকেনা আমরা আরো ভালো হবে বলে আশা করেছিলাম। সে অনুযায়ী সাড়া পাচ্ছি না ক্রেতাদের।

প্রসঙ্গত, প্রকাশকদের আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ নির্দেশনায় বইমেলার সময় বেড়েছে দুই দিন। এই দুই দিনই সকাল ১১টা থেকে রাত ৯টা অবধি চলবে বইমেলা। তবে অন্যান্য ছুটির দিনের মতো থাকছে না শিশু প্রহর।

;

এত কবর একসাথে আগে কখনো দেখিনি!



আল মামুন, ডিষ্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

এতগুলো কবর একসাথে খুঁড়ছে তাও আগে কখনো দেখিনি। ৫ জনের মৃত্যুর ঘটনায় এত কবর একসাথে খুড়তে দেখে এলাকাবাসী অবাক হচ্ছে। যারা কবর খুঁড়তে এসেছেন তারাও এর আগে কখনো এত কবর একসাথে খুঁড়েনি। কথাগুলো বলছিলেন ৭০ বছরের বৃদ্ধ সৈয়দ আতাউর রহমান শাহীন।

তিনি শুক্রবার (১ মার্চ) বিকালে আসর নামাজের আগে জেলার সরাইল উপজেলার শাহবাজপুর খন্দকার পাড়া পারিবারিক কবরস্থানে কবর খোঁড়ার সময় তিনি এই কথাগুলো বলেন।

রাজধানির বেইলী রোডে কাচ্চি ভাই রেস্টুরেন্টে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় নিহত কাউসারের পরিবারের ৫ জনের জন্যে এই কবরগুলি খোঁড়া হচ্ছিলো। এসময় তিনি অবাক চোখে কবরের দিকে তাকিয়ে থাকেন।

এরপরে বাদ আসর শাহবাজপুর খন্দকার পাড়া জামে মসজিদের সামনের মাঠে নিহতদের নামাজের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। পরে খন্দকার পাড়া পারিবারিক কবরস্থানে তাদের দাফন সম্পন্ন হয়।

নিহতরা হলেন, জেলার সরাইল উপজেলার শাহবাজপুর গ্রামের আবুল কাসেমের ছেলে সৈয়দ মোবারক হোসেন কাউসার (৫০), তার স্ত্রী স্বপ্না (৩৫), মেয়ে সৈয়দা ফাতেমা কাশফিয়া (১৮), সৈয়দা উম্মে নূর (১৩) ছেলে সৈয়দ আব্দুল্লা (৭)। তারা রাজধানীর মধুবাগ এলাকায় বসবাস করতেন।

কবর খুঁড়তে আসা শাহবাজপুর গ্রামের মনির মিয়া বলেন, অনেক কবর খুঁড়েছি। কিন্তু একসাথে ৫টি কবর কখনো খুঁড়িনি।

নিহত কাউসারের ভাই সৈয়দ আমির হামজা বলেন, ছেলে আব্দুল্লাহ এর অনুরোধে কাউসার বৃহস্পতিবার রাতে পরিবারের চার সদস্যসহ কাচ্চি ভাই রেস্টুরেন্টে খাবার খেতে যান। সেখানে অগ্নদগ্ধ হয়ে সৈয়দ কাউসার, তার স্ত্রী স্বপ্না, মেয়ে কাশফিয়া, মেয়ে নূর, ছেলে আব্দুল্লাহ নিহত হন।

;

ফেনী এসে স্টেডিয়াম সংস্কারের অনুরোধ জানালেন ব্যারিস্টার সুমন



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা-২৪.কম, ফেনী
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ফেনীতে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ খেলতে এসেছেন দেশীয় ফুটবলে আলোচিত ক্রীড়া সংগঠক, আইনজীবী ও হবিগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। ফেনী এসে তৃণমূলে ফুটবলের উন্নয়নের জন্য ফেনী জেলা স্টেডিয়াম হিসেবে খ্যাত ভাষা শহীদ সালাম স্টেডিয়াম সংস্কারের জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

শুক্রবার (১ মার্চ) বিকালে ভাষা শহীদ সালাম স্টেডিয়ামে ব্যারিস্টার সুমন ফুটবল একাডেমি ও নিজে বলার মতো একটি গল্প ফাউন্ডেশন একাদশের খেলা অনুষ্ঠিত হয় খেলার শুরুতে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। অন্যদিকে খেলার নির্ধারিত সময়ে কোন গোল না হওয়ায় সমতায় শেষ হয় ম্যাচটি।

খেলা শুরুর আগে ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন বলেন, আমরা আপনাদের হারাতে আসিনি। যারা দেশের ফুটবলকে হারিয়ে দিয়েছে তাদের হারাতে এসেছি। আপনাদের নিয়েই দেশের ফুটবলের হারানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনব। ফুটবলের উন্নয়নে জেলা স্টেডিয়াম গুলো সংস্কার প্রয়োজন।

সুমন বলেন, ফেনী সম্পর্কে আগে আমার ধারণা ছিলোনা। প্রথমবার ফেনী এসে এখানের মানুষের আন্তরিকতায় আমি আবেগাপ্লুত। এখানের অবকাঠামো দেখে মনে হচ্ছে এটি জেলাশহর নয়, সিটি করপোরেশন হওয়ার যোগ্যতা রাখে।

সিলেটের বন্যাকালীন সময়ে ফেনীর সহযোগিতার কথা তুলে ধরে ব্যারিস্টার সুমন বলেন, সিলেটের বন্যার সময়ে ফেনীবাসী যে সহায়তার হাত বাড়িয়েছেন সেই কৃতজ্ঞতা জানানোর জন্য আজকে ফেনী এসেছি। আগামীতে ফেনীর যেকোন দুর্যোগকালীন সময়েও আমরা পাশে দাঁড়াব।

উদ্যোক্তা তৈরি ও মূল্যবোধ চর্চার অনলাইন প্লাটফর্ম 'নিজে বলার মতো একটি গল্প ফাউন্ডেশন' আয়োজিত এ খেলা দেখতে ভাষা শহীদ আব্দুস সালাম স্টেডিয়ামে জড়ো হয় হাজারো ফুটবলপ্রেমী।

সরেজমিনে দেখা যায়, খেলা শুরু হওয়ার আগেই ভাষা শহীদ আব্দুস সালাম স্টেডিয়াম কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। জুমার নামাজ শেষে দল বেধে জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে দর্শকরা খেলা দেখতে মাঠে এসেছে। ব্যারিস্টার সুমন মাঠে প্রবেশের সাথেসাথেই গ্যালারি থেকে হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানান ভক্তরা।

খেলা দেখতে আসা মোহাম্মদ সাহাবউদ্দিন নামে এক দর্শক বলেন, এতোদিন ধরে ব্যারিস্টার সুমনকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখেছি। প্রথমবার নিজ জেলায় সরাসরি তার খেলা দেখতে মাঠে এসেছি।

হামিম মাহতাব নামে আরেকজন বলেন, অনেকদিন পর ভাষা শহীদ আব্দুস সালাম স্টেডিয়ামে এতো দর্শক একত্রিত হয়েছ। এমন আয়োজনে ফুটবলের হারানো ঐতিহ্য ফিরে আনা সম্ভব। তরুণদের মধ্যে ফুটবলের উন্মাদনা দেখা যাচ্ছে অনেক বেশি।

প্রীতি ম্যাচের আয়োজক নিজে বলার মতো একটি গল্প ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট ইকবাল বাহার জাহিদ বলেন, উদ্যোক্তাদের শুধু ব্যবসায়িক কার্যক্রমে সীমাবদ্ধ না থেকে ক্রীড়া ক্ষেত্রে বিচরণের লক্ষ্যে এ আয়োজন করা হয়েছে। খেলায় সারাদেশ থেকে নিজের বলার মতো একটা গল্প ফাউন্ডেশনের উদ্যোক্তারা অংশ নিয়েছে। এখান থেকে আমরা একটি ফুটবল দল গঠন করব।

অন্যদিকে মাঠে নামার পর বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় শোক প্রকাশ জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

এর আগে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে খেলার উদ্বোধন করেন ফেনী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম, ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী। এ সময় জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খায়রুল বশর মজুমদার তপন, ফেনী পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) অভিষেক দাশ, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন বাহারসহ জেলা ক্রীড়া সংস্থার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

;