কলেজের হিসাবরক্ষকের অ্যাকাউন্টে ২৪ কোটি টাকা, দুদকের মামলা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবিঃ সংগৃহীত

ছবিঃ সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ব্যক্তিগত ব্যাংক হিসাবে থাকা ২৪ কোটি ২৯ লাখ ৮৯ হাজার ৫২৪ টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও স্থানান্তরের অভিযোগে ডেমরার ড. মাহবুবুর রহমান মোল্লা কলেজের প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মো. আকরাম মিয়ার নামে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সোমবার (২০ নভেম্বর) দুদকের উপপরিচালক শারিকা ইসলাম বাদী হয়ে সংস্থাটির সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১ এ মামলাটি দায়ের করেন। আসামির বিরুদ্ধে দুদক আইন ২০০৪ এর ২৭ (১) এবং মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২ এর ৪ (২) ও ৪ (৩) ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

মামলার এজহারে বলা হয়, মো. আকরাম মিয়া ২০১০ সালের ১ জুন ড. মাহবুবুর রহমান মোল্লা কলেজে হিসাবরক্ষক পদে মাসিক ৩০০০ টাকা বেতনে যোগদান করেন। ২০২২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত কলেজ থেকে চাকুরী বাবদ সর্বসাকুল্যে আয় করেন ৪২ লাখ ৭৩ হাজার ৩৪৩ টাকা। কিন্তু দুদকের অনুসন্ধানে তার ব্যাংক একাউন্টে ২৪ কোটি ২৯ লাখ টাকা পাওয়া যায়।

মামলার এজহারে আরও বলা হয়, মো. আকরাম মিয়া প্রথমে ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে আইএফআইসির কোনাপাড়া শাখায় একটি স্থায়ী আমানত হিসাব খোলেন। যাতে ১৪ কোটি টাকা জমা রাখেন এবং ২০১৮ সালের জুনে একই ব্যাংকের একই শাখায় অপর দুইটি স্থায়ী আমানত হিসাব খুলে যথাক্রমে চার কোটি আশি লাখ টাকা এবং ৩৩ লাখ ৩০ হাজার ৫৩০ টাকা জমা রাখেন। পরবর্তীতে এর ২০১৮ সালের জুলাই ও সেপ্টেম্বর মাসে দুটো পে-অর্ডারের মাধ্যমে আইএফআইসি ব্যাংকের কোনাপাড়া শাখা থেকে মোট ১৯ কোটি ৪৮ লাখ ৯৩ হাজার স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের মাতুয়াইল শাখায় স্থানান্তর করেন। তা দিয়ে স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকে নিজের নামে দুইটি স্থায়ী আমানত খুলেন।

যাতে যথাক্রমে ১৪ কোটি ২৩ লাখ ৫০ হাজার ও ৫ কোটি ২৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা জমা রাখেন। পরবর্তীতে ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসে স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের মাতুয়াইল শাখা থেকে ৫ টি পে-অর্ডারের মাধ্যমে মোট ২৪ কোটি ২৩ লাখ ৩২ হাজার ৫৪৭ টাকা বেসিক ব্যাংকের মাতুয়াইল শাখায় স্থানান্তর করেন। তিনি নিজের নামে বেসিক ব্যাংক লিঃ এর মাতুয়াইল শাখায় ৫টি স্থায়ী আমানত হিসেব খুলে উক্ত অর্থ জমা রাখেন এবং মেয়াদপূর্তিতে বর্ণিত পাঁচটি হিসাবের অর্থ ২০২২ সালের মার্চ মাসের একই ব্যাংকের একই শাখায় নতুন ৫টি স্থায়ী আমানত হিসাব খুলে জমা রাখেন। বর্তমানে  মো. আকরাম মিয়া নামে বেসিক ব্যাংক লিঃ এর মাতুয়াইল শাখায় উল্লিখিত ৫টি স্থায়ী আমানত হিসাবে মোট ২৪ কোটি ২৯ লাখ ৮৯ হাজার ৫২৪ টাকা গচ্ছিত রয়েছে।

দুদকের অনুসন্ধান বলছে, আকরাম ওই কলেজে যোগদানের পর থেকে অসাধু উপায়ে এই অর্থ অর্জন করেছেন এবং দখলে রেখেছেন যা তার জ্ঞাত আয়ের সাথে অসঙ্গতিপূর্ণ। তিনি ওই অর্থ কলেজের বলে দাবী করলেও এ সপক্ষে তিনি বা কলেজ কর্তৃপক্ষ কোন তথ্য/রেকর্ডপত্র প্রদান করেতে পারেনি। ২০১৭ সাল থেকে কলেজের অর্থ তার ব্যাংক একাউন্টে রাখার বিষয়ে ড. মাহবুবুর রহমান মোল্লা কলেজের গভর্নিং বডি কোন অনুমোদন বা রেকর্ডপত্র প্রদান করেতে পারে নি। এছাড়া কলেজের আয়-ব্যয় খাতওয়ারী হিসাবভুক্ত করে কলেজের নিজস্ব ব্যাংক একাউন্টে রাখার বিধান রয়েছে কিন্তু তা কোন কর্মচারীর ব্যক্তিগত হিসেবে রাখার সুযোগ নেই।

অর্থাৎ তার ব্যাংকে থাকা ২৪ কোটি ২৯ লাখ ৮৯ হাজার ৫২৪ টাকা জ্ঞাত আয়ের সাথে অসঙ্গতিপূর্ণ।

সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত শিথিল কারফিউ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

কোটা সংস্কার আন্দোলন ঘিরে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকায় ঢাকায় আজ বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত  শিথিল থাকবে কারফিউ। ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর ও নরসিংদী বাদে বাকি ৬০ জেলায় কারফিউ শিথিলের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে স্থানীয় প্রশাসনকে।

কারফিউ থাকায় রোববার থেকে সব ধরনের অফিস ও গার্মেন্টস বন্ধ ঘোষণা করে জারি করা হয় সাধারণ ছুটি। ছুটির পর বুধবার থেকে খুলছে সরকারি বেসরকারি সব অফিস। তবে, সকাল ৯ টার পরিবর্তে অফিস শুরু হবে সকাল ১১ টা থেকে এবং বিকেল ৫ টার পরিবর্তে অফিস চলবে বিকেল ৩ টা পর্যন্ত। 

কারফিউ শিথিলের সময় সারাদেশে দোকানপাট ও শপিংমল খোলা। চলবে তৈরি পোশাক শিল্প কারখানার কাজ।

এদিকে, কারফিউ শিথিল সময়ে মহাসড়কে চলবে দূরপাল্লার যানবাহন। সকাল থেকে রাজধানীতে আসা-যাওয়া করছে পণ্যবাহী ট্রাক, পিকআপ ও যাত্রীবাহী বাস। সড়কে নিরাপত্তা নিশ্চিতে সতর্ক অবস্থানে আছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনী।

;

ড. মাহবুবুল হক মারা গেছেন



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

একুশে পদক ও বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার প্রাপ্ত ভাষাবিদ, গবেষক ও প্রাবন্ধিক ড. মাহবুবুল হক মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ছিলেন।

প্রবন্ধে অবদানের জন্য তিনি ২০১৮ সালে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার লাভ করেন। গবেষণায় অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদকে ভূষিত করেন।

;

সন্ধান মিলেছে তিন সমন্বয়কের



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়ক আসিফ মাহমুদ, আবু বাকের মজুমদার ও রিফাত রশীদের খোঁজ পাওয়া গেছে। শুক্রবার (১৯ জুলাই) থেকে তারা নিখোঁজ ছিলেন। অবশেষে বুধবার (২৪ জুলাই) তিনজনই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাদের অবস্থান জানান দিয়েছেন।

আসিফ মাহমুদ বুধবার বিকেলে ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ‘গত ১৯ জুলাই রাত ১১টায় আমাকে হাতিরঝিলের মহানগর আবাসিক এলাকা থেকে তুলে নিয়ে যায়। আন্দোলন স্থগিত করার ঘোষণা দিতে চাপ দেওয়া হয়। না মানায় ইনজেকশন দিয়ে সেন্সলেস (অচেতন) করে রাখা হয়। এই চার-পাঁচ দিনে যতবার জ্ঞান ফিরেছে, ততবার ইনজেকশন দিয়ে সেন্সলেস করে রাখা হয়। আজ বুধবার বেলা ১১টায় আবার একই জায়গায় চোখ বাঁধা অবস্থায় ফেলে দিয়ে যায়। এখন আমি পরিবারের সঙ্গে হাসপাতালে চিকিৎসারত আছি। এই কয় দিনে যা ঘটেছে, তা জানার চেষ্টা করছি। কিছুটা সুস্থ হলেই সমন্বয়কদের সঙ্গে কথা বলে আন্দোলনের বিষয়ে বিস্তারিত বলব।’

অন্য ফেসবুক পোস্টে বাকের মজুমদার লিখেছেন, ‘আমাকে ১৯ জুলাই সন্ধ্যার পর ধানমন্ডি থেকে উঠিয়ে নিয়ে যায় এবং আন্দোলন বন্ধে স্টেটমেন্ট (বিবৃতি) দিতে বলায় আমি অস্বীকৃতি জানালে একটা অন্ধকার কক্ষে আটকে রাখে। যে এলাকা থেকে তুলে নেয়, তার পাশের এলাকায় আমাকে চোখ বেঁধে ফেলে যায়। আমি এখন আমার পরিবারের সাথে নিরাপদে আছি। প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে আপনাদের সামনে সবিস্তারে সব বলব।’

অন্যদিকে এক ফেসবুক পোস্টে আত্মগোপনে থাকার কথা জানিয়েছেন রিফাত রশীদ। তিনি লিখেছেন, ‘আমি বেঁচে আছি, মরি নাই। আমি গুম হতে হতে অল্পের জন্য বেঁচে গিয়েছিলাম। সমন্বয়কদের সিদ্ধান্ত মেনেই আমি নিরাপদ আশ্রয়ে গিয়েছিলাম। তারপর এই সাপ-লুডুর জীবন। আজ এর বাড়ি তো কাল ওর বাড়ি। এর মধ্যে যতবার ফোন কানেক্ট করার চেষ্টা করেছি, ততবারই ফোন ট্র্যাকিংয়ের শিকার হয়েছি। জানি না, কতক্ষণ নিরাপদে থাকব।’

আসিফ ও বাকেরের খোঁজ পাওয়ার বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়ক সারজিস আলম। একই সঙ্গে ছেলের সঙ্গে যোগাযোগ হয়েছে বলে জানান রিফাত রশীদের বাবা দেলোয়ার হোসেন।

;

জানা গেছে কবে শুরু হচ্ছে স্থগিত এইচএসসি পরীক্ষা



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

কোটা সংস্কার আন্দোলনকে কেন্দ্র করে চলমান এইচএসসি ও সমমানের চার দিনের পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। স্থগিত হওয়া পরীক্ষাগুলো আগামী ১১ আগস্টের পর অনুষ্ঠিত হবে।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার সরকার গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘স্থগিত হওয়া সব পরীক্ষা ১১ আগস্টের পর অনুষ্ঠিত হবে।’

আর কোনও পরীক্ষা স্থগিত হতে পারে কিনা জানতে চাইলে অধ্যাপক তপন কুমার সরকার বলেন, ‘এখনও নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। কোনও সিদ্ধান্ত নিলে জানানো হবে।’

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে সূচি অনুযায়ী আগামী ২৮ জুলাই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ৩০ জুন এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা সারা দেশে একযোগে শুরু হয়। সবকিছু ঠিক থাকলে ১১ আগস্ট এইচএসসির তত্ত্বীয় পরীক্ষা শেষ হওয়ার কথা ছিল।

;