আ.লীগের মনোনয়নপত্র কেনায় এগিয়ে ঢাকা, পিছিয়ে সিলেট



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র বিক্রিতে এগিয়ে আছে ঢাকা বিভাগ। অন্যদিকে সবচেয়ে কম বিক্রি হয়েছে সিলেট বিভাগের মনোনয়নপত্র।

সোমবার (২০ নভেম্বর) বিকেলে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের মনোনয়নপত্র বিক্রির তালিকা বিশ্লেষণ করে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

ফলাফল বিশ্লেষণে দেখা যায়, ঢাকা বিভাগে এখন পর্যন্ত ৬২৪টি মনোনয়নপত্র বিক্রি করা হয়েছে। যা একক বিভাগ হিসেবে সবচেয়ে বেশি মনোনয়নপত্র বিক্রি করে। আর সিলেট বিভাগে সবচেয়ে কম ১৫০টি মনোনয়নপত্র বিক্রি হয়েছে।

এছাড়াও ছাড়া চট্টগ্রাম বিভাগে ৫৭১টি, খুলনা বিভাগে ৩৭৪টি, বরিশাল বিভাগে ২৩০টি, রংপুর বিভাগে ২৭৩টি, রাজশাহী বিভাগে ৩৬৪টি ও ময়মনসিংহ বিভাগে ২৬৮টি মনোনয়নপত্র বিক্রি করা হয়েছে।

এবার আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরমের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৫০ হাজার টাকা।

গত ১৮ নভেম্বর থেকে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য দলীয় মনোনয়নপত্র বিক্রি শুরু করছে আওয়ামী লীগ। বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ের আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আটটি বিভাগের জন্য ১০টি বুথে সকাল ১০টা থেকে ৪টা পর্যন্ত এ বিক্রয় চালাচ্ছে দলটি। মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) শেষ হবে এবারের মত আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র বিক্রি।

 

   

ইসির সঙ্গে বৈঠকে ইইউ প্রতিনিধি দল



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়ালের নেতৃত্বাধীন কমিশনের সঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) প্রতিনিধি দলের বৈঠক শুরু হয়েছে। বৈঠকে ইইউ সংস্থার ১০ সদস্যের প্রতিনিধিদল যোগ দিয়েছেন।

বুধবার (২৯ নভেম্বর) বিকেল ৩টায় আগারগাঁও নির্বাচন ভবনের সভাকক্ষে সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়াল ও চার নির্বাচন কমিশনারসহ ইসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বৈঠকে যোগ দিয়েছে।

বৈঠকে ইইউ রাষ্ট্রদূত চার্লস হোয়াইটলির নেতৃত্বে দশ সদস্যের প্রতিনিধিদলে রয়েছেন- ইউরোপীয় ইউনিয়ন দূতাবাসের উপপ্রধান ড. বার্নড স্প্যানিয়ার, রাজনৈতিক কর্মকর্তা সেবাস্তিয়ান রেগার ব্রাউন, সুইডেনের রাষ্ট্রদূত মিসেস আলেক্সান্দ্রা বার্গ ভন লিন্ডে, স্পেনের রাষ্ট্রদূত ফ্রান্সিসকো ডে এসিস বেনিটেজ সেলাস, ইতালির রাষ্ট্রদূত অ্যান্তোনিও আলেসান্দ্রো, নেদারল্যান্ডসের রাষ্ট্রদূত মিসেস ইরমা ভ্যান ডুরেন, ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত ক্রিস্টিয়ান ব্রিকস মোলার, ফ্রান্স দূতাবাসের উপপ্রধান গিলাউম অড্রিন কারড্রিল, জার্মান দূতাবাসের উপরাষ্ট্রদূত জ্যান জ্যানোভস্কি।

এর আগে গত ১৮ এপ্রিল আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে সিইসির সঙ্গে বৈঠক করেন ইইউ রাষ্ট্রদূত চার্লস হোয়াইটলি।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন ইতোমধ্যে জানিয়েছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পাঁচ সদস্যের একটি পর্যবেক্ষক টিম পাঠাবে, এতে দুইজন টেকনিক্যাল এক্সপার্ট থাকবে।

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় আগামীকাল ৩০ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাই ১ থেকে ৪ ডিসেম্বর, রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কমিশনে আপিল দায়ের ও নিষ্পত্তি ৫ থেকে ১৫ ডিসেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ১৭ ডিসেম্বর। রিটার্নিং কর্মকর্তারা প্রতীক বরাদ্দ করবেন ১৮ ডিসেম্বর। নির্বাচনি প্রচার চলবে ৫ জানুয়ারি সকাল ৮টা পর্যন্ত। আর ভোটগ্রহণ হবে ৭ জানুয়ারি (রোববার)।

এবারের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সারা দেশে মোট ভোটার ১১ কোটি ৯৬ লাখ ৯১ হাজার ৬৩৩ জন। গত ২ নভেম্বর সংসদ নির্বাচনের চূড়ান্ত ভোটারসংখ্যা প্রকাশ করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ইসির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, মোট ভোটারের মধ্যে পুরুষ ভোটার ৬ কোটি ৭ লাখ ৭১ হাজার ৫৭৯ জন। নারী ভোটার ৫ কোটি ৮৯ লাখ ১৯ হাজার ২০২ জন। আর হিজড়া ভোটারের সংখ্যা ৮৫২।

;

সাবেক পু‌লিশ ও সেনা সদস্যের নেতৃত্বে ডাকাতি 



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা ২৪

ছবি: বার্তা ২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানীর শ‌্যামপুর এলাকায় গোয়েন্দা পু‌লিশ (ডি‌বি) প‌রিচয়ে এক স্বর্ণ ব‌্যবসা‌য়ি‌র কাছ থেকে প্রায় ৪০ ভ‌রি স্বর্ণ ও তিন লাখ ৪৬ হাজার টাকা ডাকা‌তির সময় এক‌টি চক্রের চারজনকে হাতেনাতে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএম‌পি)।

গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে বরখাস্ত হওয়া পু‌লিশ সদস‌্য ও সেনাবা‌হিনীর সাবেক সদস‌্য জড়িত বলে জানিয়েছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃরা হলেন, মো. আলম (৬২), মো. আলমগীর হোসেন (৩৯), মো. পলাশ শেখ (৩৫), মো. সাব্বির হোসেন (৩৪)। তাদের মধ্যে মো. আলম বরখাস্তকৃত পু‌লিশ সদস‌্য ও মো. আলমগীর হোসেন সেনাবা‌হিনীর সদস‌্য বলে প‌রিচয় দেন।

বুধবার (২৯ নভেম্বর) রাজধানীর মিন্টু রোডে ডিএম‌পি কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ‌্য জানা‌ন অ‌তি‌রিক্ত পু‌লিশ ক‌মিশনার (ক্রাইম এন্ড অপস) ড. খ. ম ম‌হিদ উ‌দ্দিন।


ম‌হিদ উ‌দ্দি্ন বলেন, ফরিদপুর জেলার আলফাডাঙ্গা বাজারের জ্যোতি জুয়েলার্সের মা‌লিক তপন কুমার সাহা (৪২)। তি‌নি ঢাকার তাঁতী বাজার তার মামা প্রাণতোষ কর্মকারের 'রাজকোট বুলিয়ন এন্ড জুয়েলার্স' প্রতিষ্ঠান থেকে স্বর্ণ ও মালামাল কিনে নিজের প্রতিষ্ঠান ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা নিয়ে যায়।

গতকাল ২৮ নভেম্বর মঙ্গলবার বিকালে তিনি ফরিদপুর থেকে ঢাকা তাতী বাজার আসেন এবং অর্ডারের ৩৮ দশ‌মিক ৯৭০ ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার এবং মামার কাছ থে‌কে ধার হিসেবে ৩ লাখ ৪৬ হাজার টাকা এক‌টি হাত ব্যাগে নিয়ে তার ফরিদপুর যাওয়ার জন্য পোস্তগোলার উদ্দেশ্যে সিএনজিতে রওনা হন। পথে শ্যামপুর থানার ঢাকা মাওয়া রোডে পোস্তগোলা ব্রীজের পূর্ব পাশের ঢালে পৌছালে কেরানীগঞ্জের দিক থেকে আসা একটি সাদা রংয়ের মাইক্রোবাস হঠাৎ সিএনজির গতিরোধ করে। তারপর আসামিরা মাইক্রোবাস থেকে নেমে নিজেদের ডিবি পুলিশ পরিচয় দেয় এবং সিএনজি থেকে তাকে টেনে হেচড়ে মাইক্রোতে উঠিয়ে নেয় এবং তার হাত পা ও চোখ বাধার চেষ্টা করে।

সে বাধা দিলে তাকে কিলঘুষি মেরে আহত করে। এক পর্যায়ে তাকে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে তার নিকট থেকে স্বর্ণালংকর ও নগদ টাকা ভর্তি ব্যাগ এবং ২টি মোবাইল কেড়ে নেয়।

ভুয়া ডি‌বি সদস‌্যদের আটক করার প্রক্রিয়া জা‌নি‌য়ে তি‌নি আরও ব‌লেন, আসামিরা গাড়িটি নিয়ে ঢাকার দিকে যেতে থাকে। কিছু দূরে যাওয়ার পরেই রাস্তায় যানজটে গাড়িটি ঘুরি‌য়ে উল্টাপথে আসার সময় কর্তব্যরত সার্জেন্ট গাড়িটি সিগন্যাল দিয়ে থামায় এবং গাড়ির কাগজপত্র দেখতে চায়।

তখন পলাতক আসামি মাসুদ সার্জেন্টের কাছে নিজেকে সেনাবাহিনীর অফিসার পরিচয় দেয়। অপহৃত ব‌্যক্তি তপন কুমার তখন পুলিশকে দে‌খে চিৎকার দিলে আসামিরা পালানোর চেষ্টা করে। এস ময় শ্যামপুর থানার পুলিশের টহল টিম ঘটনাস্থলে আসলে ডিউ‌টিরত সার্জেন্ট অন্যান্য সার্জেট, টিআই এবং পুলিশসহ শ্যামপুর থানা পুলিশ মিলে আসামিদের আটক করেন।

আটককৃতদের কাছ থে‌কে সর্বমোট ৩৮ দশ‌মিক ৯৭০ ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার এবং ৩ লাখ ৪৬ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।
আসামিদের আদালতে পাঠানো হয়েছে বলেও জানানো হয়।

;

স্বাদু পানির সংকট চরমে, কলস নিয়ে প্রতিবাদ



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট বার্তা২৪.কম, সাতক্ষীরা
ছবি: বার্তা ২৪.কম

ছবি: বার্তা ২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের জেলা সাতক্ষীরা ও এর আশেপাশের উপকূলীয় অঞ্চলে নিরাপদ স্বাদু পানির সংকট দীর্ঘ দিনের। সাম্প্রতিক সময়ে এসব অঞ্চলে নিরাপদ পানির প্রধান উৎস গভীর নলকূপ থেকেও চাহিদামত পানি পাচ্ছেন না স্থানীয়রা। সুপেয় পানির অন্য উৎসগুলোয় লবণাক্ততা ছড়িয়ে পড়ায় চরম বিপাকে পড়েছে উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষেরা।

বর্ষা মৌসুমে নানা উপায়ে বাড়িতে বাড়িতে বৃষ্টির পানি সংরক্ষণ করে তা ব্যবহার করা গেলেও সম্প্রতি শীতের আগমনে বৃষ্টিপাত কমে যাওয়ায় এসব রিজার্ভ ট্যাংকে সংগৃহীত পানিও ফুরিয়ে এসছে। এছাড়া পুকুরের পানিও তলানীতে ঠেকেছে। এমতাবস্থায় সুপেয় স্বাদু পানির অভাবে হাহাকার দেখা দিয়েছে সাতক্ষীরায়। পানির জন্য কলসি নিয়ে মাইলের পর মাইল হেটেও পাচ্ছেন না স্থানীয়রা। সাধারণত শীতের মৌসুম থেকে বর্ষা আসার আগ পর্যন্ত একটা লম্বা সময় এই দুর্ভোগের মধ্যে দিয়ে যেতে হয় উপকূলের সাধারণ মানুষকে।

সংকট নিরসনে দীর্ঘদিন ধরেই স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের কাছে দাবি করে আসছেন উপকূলবাসী। নিরাপদ পানির বিকল্প উৎস খোঁজতে কাজ করছে বিভিন্ন বেসরকারি ও আন্তর্জাতিক সংস্থা।

নিরাপদ ও সুপেয় পানির দাবিতে সাতক্ষীরা উপকূলীয় এলাকা হরিশখালিতে গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিকের সহযোগিতায় কলস নিয়ে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

বুধবার (২৯ নভেম্বর) সকালে শ্যামনগরের গাবুরা ইউনিয়নের হরিশখালিতে স্থানীয় জনগোষ্ঠী, স্থানীয় সরকার, যুব সংগঠন কোস্টাল ইয়ুথ নেটওয়ার্ক, সুন্দরবন স্টুডেন্ট সলিডারিটি টিম (এসএসএসটি) ও উপকূলীয় শিক্ষা বৈচিত্র্য উন্নয়ন সংস্থা (সিডিও) জলবায়ু সংকটে উপকূলীয় কলসবন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে শ্যামনগর এলাকাবাসী প্রতিনিয়ত প্রাকৃতিক দুর্যোগের সাথে মোকাবিলা করে টিকে থাকে। এর মধ্যে বর্ষা মৌসুমের পরবর্তীকালীন সময়ে শুরু হয়ে যায় স্বাদু পানির চরম সংকট। দ্বীপ ইউনিয়ন গাবুরার চারদিক লবণ পানি দ্বারা বেষ্টিত হওয়ায় পান করার উপযোগী না হলেও অনেকটা বাধ্য হয়ে এলাকার অনেকে মৃদু লবণ পানি পান করে থাকে। ভূ-পৃষ্ঠের সুপেয় পানির উৎসগুলো বাড়াতে সরকারি উদ্যোগে পুকুর খননসহ এ অঞ্চলের সমস্যা সমাধান করা জরুরি।

স্থানীয় নারীরা জানান, অনেক দূর থেকে পানি সংগ্রহ করতে হয়। দস্তার কলসে দূর থেকে এই পানি সংগ্রহ করার ফলে আমরা কোমরে ব্যথা, মাজার হাড় ক্ষয়ে যাওয়া, কিডনির সমস্যাসহ অনেক রকম শারীরিক সমস্যায় ভুগে থাকি। বাধ্য হয়ে লবণাক্ত পানি পান করায় আমাদের আমাদের নানা ধরনের সমস্যা হচ্ছে। অতি লবণাক্ত পানির ব্যবহারের ফলে শিশু ও নারীদের চর্মরোগ, স্ক্রীন কালো হওয়া, গর্ভপাত, অপরিপক্ক সন্তান জন্ম, প্রতিবন্ধী সন্তান জন্ম, জরায়ু সংক্রান্ত সমস্যাসহ ক্যান্সারেরমত নানাবিধ রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।

তারা বলেন, পানি কোন পণ্য নয় এটি আমাদের ন্যায্য অধিকার। নারীদের গোসল থেকে শুরু করে সকল ক্ষেত্রেচরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। নিরাপদ পানি আমাদের প্রত্যেকের মৌলিক অধিকার। তবে আমরা কেন এই অধিকার থেকে বঞ্চিত হই। আমরা এই দূর্ভোগ থেকে মুক্তি চাই।

মানববন্ধনে মনন্ঞ্জয় মণ্ডলের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন মহিলা ইউপি সদস্য ফরিদা খাতুন, আজমুননাহার বেগম, উপকূলীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হুদা মালি, কোস্টাল ইয়ুথ নেটওয়ার্কের রাইসুল ইসলাম, সিডিও ইয়থ টিমের সদস্য শাহিন হোসেন, এসএসএসটি যুব টিমের মো. সাইদুল ইসলাম, বারসিক এর বরষা গাইন, লিপিকা গাইন, মুকুন্দ ঘোষ প্রমুখ।

;

প্রার্থীদের ভিড় নেই ডিসি কার্যালয়ে



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে শুরু হয়েছে মনোনয়ন ফরম বিক্রির কার্যক্রম। ঢাকা জেলার ৫টি আসনের মনোনয়ন ফরম ও দাখিলের জন্য রয়েছে রিটার্নিং কর্মকর্তা ঢাকা জেলার প্রশাসক।

বুধবার (২৯ নভেম্বর) সকাল থেকে ঢাকা জেলা প্রশাসন কার্যালয়ে নেই প্রার্থীদের দেখা। দুপুর পর্যন্ত মাত্র একজন প্রার্থী মনোনয়ন ফরম নিয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) পর্যন্ত ঢাকা জেলার ৫টি আসনে ৩৯জন প্রার্থী মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। 

ঢাকা অতিরিক্ত জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফরিদ আহমেদ বলেন, সকাল থেকে মাত্র ১জন প্রার্থী এসে মনোনয়ন ফরম নিয়েছেন। বাংলাদেশ কংগ্রেস দল থেকে ঢাকা-১৯ আসনে অ্যাডডভোকেট মিলন কুমার ভঞ্জ মনোনয়ন নিয়েছেন।

তিনি বলেন, প্রার্থীরা তাদের অনুসারীদের নিয়ে উপজেলা নির্বাচন অফিসে বেশি জমা দিচ্ছেন। পুরান ঢাকার জ্যামের কারণে অনেকে আসতে চান না। অনেক প্রার্থী এখান থেকে মনোনয়ন নিয়েছেন কিন্ত জমা দিয়েছেন তাদের উপজেলা রিটার্নিং অফিসারের কাছে। কাল যেহেতু শেষ দিন আজ বিকেলে বা আগামীকাল প্রার্থীরা আসবেন।

জানা যায়, ঢাকা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে পাঁচটি আসনের মনোনয়ন জমা দেওয়া যাবে। এর মধ্যে— ঢাকা ১, ঢাকা ২, ঢাকা ৩, ঢাকা ১৯ ও ঢাকা ২০ নির্বাচনী আসন রয়েছে। যা ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২৩, ২৪, ২৫, ২৬ এবং ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্যে রয়েছে।

;