সিরাজগঞ্জে অযত্নে পড়ে আছে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের নৌ-অ্যাম্বুলেন্স 



সুজন সরকার, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, সিরাজগঞ্জ
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

সিরাজগঞ্জের কাজীপুর উপজেলার যমুনা নদীর চরাঞ্চলের ৬টি ইউনিয়নের জনসাধারণনের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে ২ টি নৌ-অ্যাম্বুলেন্স উপহার দেন প্রধানমন্ত্রী। উপহার পাওয়া অ্যাম্বুলেন্সের ভেতরে ময়লা-আবর্জনা জমে দুটি অ্যাম্বুলেন্স নষ্ট হওয়ার পথে। দুটি অ্যাম্বুলেন্সের একটি ইতোমধ্যে পুরোপুরি অকেজো হয়ে পড়েছে।

এদিকে, ময়লা ও আবর্জনায় ভাঙ্গাচোরা অবস্থায় বেহাল পরে আছে উপজেলার মেঘাই নৌ-ঘাটে। চরাঞ্চলের কেউ জানেনা নৌ-অ্যাম্বুলেন্স আছে। স্থানীয়দের দাবি এ সব নৌ-অ্যাম্বুলেন্স কখনও জনসাধারণের সেবায় আসেনি। তেল বরাদ্দ না থাকায় এমন পরিস্থিতি বলছেন দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষ।

জানা যায়, কাজিপুর উপজেলার ১২ টি ইউনিয়নের মধ্যে ৬ টি যমুনা নদীর চরাঞ্চলে অবস্থিত। লোক সংখ্যা বিবেচনায় অর্ধেক মানুষ চরে বসবাস করে। চরাঞ্চলে দুটি ১০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল ও প্রতি ইউনিয়নে একটি করে কমিউনিটি ক্লিনিক থাকলেও অপ্রতুল লোকবল এবং আধুনিক সুযোগ-সুবিধা না থাকায় জেলা সদরসহ বিভিন্ন স্থানে স্বাস্থ্য সেবা প্রত্যাশীরা যাতায়াত করে থাকেন।

প্রথম অ্যাম্বুলেন্স কবে কাজিপুরে আনা হয়েছিল তার কোনো তথ্য না থাকলেও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, ২য় টি প্রায় ৭ বছর আগে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে পাওয়া। নৌ-অ্যাম্বুলেন্সের জন্য আউটসোর্সিং থেকে একজন চালকও রয়েছেন যার কাজ না থাকলেও সকল সুবিধা তিনি পেয়ে থাকেন।

কাজীপুর সদর ইউনিয়নের খুদবান্ধি গ্রামের জহুরুল ইসলাম বলেন, দুর্গম চরাঞ্চলের বসবাসরত মানুষের স্বাস্থ্যসেবার জন্য প্রধানমন্ত্রী দুইটি নৌ অ্যাম্বুলেন্স উপহার দিয়েছেন। সেটি আমাদের জানা নেই। তবে দিলেও সেটি জরুরি স্বাস্থ্যসেবার কাজে কখনও ব্যবহার করতে দেখিনি।


উপজেলার রেহাইশুড়িবেড় গ্রামের মাসুদ রানা বলেন, চরাঞ্চলের বসবাসরত মানুষের জরুরি স্বাস্থ্য সেবার জন্য প্রয়োজনে ভাড়া নৌকা একমাত্র ভরসা, সেক্ষেত্রে শিশু, বয়স্ক ও প্রসূতিদের ব্যাপক বিড়ম্বনায় পড়তে হয়।

তিনি আরও জানান, সরকারি এমন সুবিধা থাকলেও আমরা কেউ জানি না। জরুরি প্রয়োজন হলে ভাড়া নৌকা দিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে।

চরগিরিশ ইউনিয়নের ভেটুয়া গ্রামের সাইদুল ইসলাম বলেন, চরাঞ্চলের মানুষের স্বাস্থ্যসেবার জন্য জেলা সদরে যেতে অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হয়। দ্রুত গতি সম্পন্ন আধুনিক নৌ অ্যাম্বুলেন্স এ অঞ্চলের জন্য খুবই প্রয়োজন।

নিশ্চিন্তপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খাইরুল কবির বলেন, রোদ-বৃষ্টির মধ্যে নৌকায় পারাপারে সময় সুস্থ্য মানুষ অনেক সময় অসুস্থ্য হয়ে পড়েন। রোগীদের দুর্ভোগের শেষ নেই। একটি ভালো মানের নৌ অ্যাম্বুলেন্স থাকলে সঠিক সময়ে উন্নত স্বাস্থ্য সেবার পাশাপাশি অর্থ সাশ্রয় হতো।

কাজীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোমেনা পারভিন পারুল বলেন, প্রথম নৌ-অ্যাম্বুলেন্সটি অকেজো হয়ে পড়েছে। তবে ২য় অ্যাম্বুলেন্সটি সচল আছে। গত ৭/৮ মাস আগে সংস্কার করা হয়েছে। সরবরাহকৃত নৌ-অ্যাম্বুলেন্সটি ধীরগতি সম্পন্ন হওয়ায় জনপ্রিয়তা পায়নি।

এছাড়াও নৌ-অ্যাম্বুলেন্সের জন্য তেল অথবা সমপরিমাণ অর্থ সরকারিভাবে বরাদ্দ না থাকায় সেবা দিতে পারছে না। বিষয়টি লিখিতভাবে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

   

প্রধানমন্ত্রীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন মো‌দি



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জা‌নি‌য়ে‌ছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

রোববার (১৬ জুন) এক বার্তায় এ তথ্য জানায় ঢাকায় ভারতীয় হাইক‌মিশন।

হাইক‌মিশন জানায়, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে উষ্ণ শুভেচ্ছা জানিয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন।

চিঠিতে প্রধানমন্ত্রী মোদি উল্লেখ করেছেন, এই উৎসবটি আমাদের ত্যাগ, সহানুভূতি ও ভ্রাতৃত্বের মূল্যবোধের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়। যা একটি শান্তিপূর্ণ ও অন্তর্ভুক্তিমূলক বিশ্ব গড়তে অপরিহার্য। তিনি ঈদুল আজহাকে বহু-সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবেও বর্ণনা করেছেন।

চি‌ঠি‌তে ভার‌তের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও মঙ্গল কামনা করেছেন।

;

শঙ্কা কাটিয়ে স্বস্তি ফিরেছে উত্তরবঙ্গের ঈদযাত্রায়



সেরাজুল ইসলাম সিরাজ, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

কল্যাণপুর থেকে: শঙ্কা কাটিয়ে কিছুটা স্বস্তি ফিরেছে পরিবহন শ্রমিকদের মধ্যে। রোববার (১৬ জুন) সকালের দিকে শিডিউলে ফিরেছে উত্তরবঙ্গগামী যানবাহনগুলো। কাউন্টারে এলেই মিলছে গন্তব্যের টিকিট, ৯টার পর থেকে অনেক পরিবহন বাড়তি গাড়ি ছাড়ার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন।

ঈদ যাত্রায় শনিবার (১৫ জুন) রাতে সূচিতে ছেদ পড়ে, কোনো কোনো পরিবহন ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা পর্যন্ত বিলম্বে গাড়ি ছেড়েছে। তবে রোববার (১৬ জুন) সকালের দিকে সূচিতে ফিরেছে গাড়িগুলো। নির্ধারিত সময়েই গন্তব্যের উদ্দেশে ছেড়ে যাচ্ছে গাড়ি। এসআর ট্রাভেলসের সকাল ৮ টার এসি বাস, হানিফ পরিবহনের শান্তাহারগামী কোচ, আগমনী এক্সপ্রেসের রংপুরগামী কোচ, শামলী পরিবহনের গাইবান্ধাগামী কোচ নির্ধারিত সময়ে ছাড়তে দেখা গেছে।

শ্যামলী পরিবহনের কাউন্টার মাস্টার মোঃ এরশাদ বার্তা২৪.কমকে বলেছেন, আমাদের শঙ্কা কেটে গেছে, সকাল ৯টার দিক থেকে বাড়তি গাড়ি ছাড়ার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। যাত্রী পেলে গাড়িগুলোর টিকিট ছাড়া শুরু করতে করব। রাস্তায় গাড়ি আটকা পড়লে যাত্রীরা মানতে চান না। যে কারণে আমাদের মধ্যে টেনশন কাজ করছিল।


এসআর ট্রাভেলসের ড্রাইভার মাসুদ রানা বার্তা২৪.কমকে বলেন, এবারের পরিস্থিতি তুলনামূলক ভালোই বলতে হয়। আমার রংপুরের পথে সর্বোচ্চ ১২ ঘণ্টা পর্যন্ত সময় লেগেছে। স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে ৪ ঘণ্টার মতো বেশি লেগেছে। কোনো কোনো বার ২০ থেকে ২৫ ঘণ্টায় রংপুর যাওয়ার রেকর্ড রয়েছে আমার। আজকে রাস্তার অবস্থা উন্নতি হয়েছে, আরামেই যেতে পারবো বলে আশা করছি।

আগমনী এক্সপ্রেসের ম্যানেজার আনিসুল হক বার্তা২৪.কমকে বলেন, সকাল ৮টার কোচ নির্ধারিত সময়ে ছেড়ে, আমাদের শেষ কোচটি ছেড়ে যাবে আজ দুপুরে। ওই এসি বাসটির কিছু টিকিট এখনও অবিক্রিত রয়েছে। যাত্রী এলে কিনতে পারবেন।

একই অবস্থা হানিফ এন্টারপ্রাইজেও সুপারভাইজার পারভেজ মিয়া বার্তা২৪.কমকে বলেন, আমাদের কাউন্টারে এলে টিকিট পাওয়া যাবে। শান্তাহার রুটের পারভেজ মিয়া বলেন, গতরাত ১০টায় শান্তাহার থেকে ছেড়ে এসেছি, রাত ৩ টায় ঢাকায় পৌঁছার কথা ছিল, আমরা ৫টার দিকে পৌঁছেছি।


রোববার সকাল পৌঁনে ৮টায় সুপারভাইজারের সঙ্গে কথা হয়, তখন তিনি আবার যাত্রী তুলছিলেন শান্তাহার যাওয়ার জন্য। শান্তাহার যাত্রী নামিয়ে ঢাকায় ফিরে ঈদ করবেন তিনি।

শামলী এন আর পরিবহনের কাউন্টার মাস্টার জামাল হোসেন বার্তা২৪.কমকে বলেছেন, গতরাতে যমুনা সেতু ও আমিনবাজার এলাকায় যানজট হয়েছে। কোনো কোনো কোচের যমুনা সেতু পার হতে ৪ ঘণ্টার মতো লেগে গেছে।

;

দুপুরের মধ্যে ৫ জেলায় ৬০ কিমি বেগে ঝড়ের আভাস



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশের ৫ জেলার ওপর দিয়ে সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ের আভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। সেইসঙ্গে বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

রোববার (১৬ জুন) দুপুর ১টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোর জন্য দেয়া এক পূর্বাভাসে এ আশঙ্কার কথা জানানো হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ এ কে এম নাজমুল হক স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রংপুর, দিনাজপুর, বগুড়া, ময়মনসিংহ এবং সিলেট জেলার ওপর ওপর দিয়ে পশ্চিম অথবা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এ সময় বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে।

তাই এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এদিকে আবহাওয়া অফিসের অপর এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।

এ অবস্থায় দেশের সব বিভাগে অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। এর মধ্যে রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি থেকে ভারি বর্ষণ হতে পারে। ঝড়বৃষ্টির এ প্রবণতা সপ্তাহজুড়েই অব্যাহত থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

;

বোট ক্লাব থেকে পদত্যাগ করলেন বেনজীর আহমেদ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সাভারের বোট ক্লাবের সভাপতির পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ। গত ১৩ জুন ক্লাবের উপদেষ্টা রুবেল আজীজের কাছে চিঠি পাঠিয়ে তিনি এ পদ ছাড়েন।

বোট ক্লাবের নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যবসায়ী নাসির ইউ মাহমুদ বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

নাসির বলেন, বোট ক্লাবের সভাপতির দায়িত্বে থাকা বেনজীর আহমেদ ক্লাবের উপদেষ্টা রুবেল আজীজের কাছে চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন, জরুরি কাজে পরিবারের সঙ্গে তিনি দেশের বাইরে আছেন। যে কারণে তিনি ক্লাবের সভাপতির দায়িত্ব পালন করতে পারছেন না।

নাসির জানান, বেনজীর আহমেদের পদত্যাগের পর রুবেল আজীজকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদের ও তার পরিবারের সম্পদ অনুসন্ধান করছিল। তার মধ্যেই গত ৪ মে তিনি সপরিবার দেশ ছাড়েন। তিনি ২০২০ সালের এপ্রিল থেকে ২০২২ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আইজিপি এবং ২০১৫ সালের জানুয়ারি থেকে ২০২০ সালের এপ্রিল পর্যন্ত র‍্যাবের মহাপরিচালক ছিলেন বেনজীর। তিনি ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার হিসেবেও দীর্ঘ সময় দায়িত্ব পালন করেন।

;