ফুটবলার নীলার বাড়িতে কুষ্টিয়ার ডিসি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুষ্টিয়া
ফুটবলার নীলার বাড়িতে কুষ্টিয়ার ডিসি

ফুটবলার নীলার বাড়িতে কুষ্টিয়ার ডিসি

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছে নারী ফুটবল দল। প্রথমবারের মতো জিতেছে সাফ ফুটবলের শিরোপা। তাদের সাফল্যে আনন্দে ভাসছে গোটা দেশ। কুষ্টিয়া জেলার বাসিন্দারা আজ গর্বিত ও আনন্দিত। এই জেলা থেকে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলে নিলুফার ইয়াসমিন নীলা খেলছেন।

নারী দলের ফুটবলার নিলুফার ইয়াসমিন নীলা কুষ্টিয়া শহরতলীর জুগিয়া পালপাড়া এলাকার বাসিন্দা।

বাংলাদেশ শিরোপা জয়ের পর শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম ফুটবলার নীলার বাড়িতে যান। তার মাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। এসময় নীলাকে সংবর্ধনা প্রদানসহ সার্বিক সহযোগিতা প্রদানের ঘোষণা দেন তিনি।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাধন কুমার বিশ্বাস, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) দবির উদ্দিন ও কুষ্টিয়া পৌরসভার প্যানেল মেয়র শাহিন উদ্দিনসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

নিলুফার ইয়াসমিন নীলার মা বাছিরন আক্তার বলেন, পড়াশোনার পাশাপাশি স্কুলে খেলাধুলায় নিয়মিত মুখ ছিলেন নিলুফা। শহরের চাঁদ সুলতানা মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করেন। দৌড়, লং জাম্পসহ বিভিন্ন খেলায় পুরস্কার নিয়ে বাড়িতে ফিরতেন।

খেলাধুলায় মেয়ের সাফল্য দেখে বাছিরনও খুশি হতেন। তাই কখনও খেলতে যেতে মানা করেননি। যদিও প্রতিবেশীরা টিপ্পনি কেটে বলতেন, ‘মা হয়ে মেয়েকে খেলায় পাঠায়!’ স্কুলে পড়ার পাশাপাশি সাভারে ফুটবল অ্যাকাডেমিতেও খেলতেন নিলুফা। ধকল সইতে না পেরে একবার কুষ্টিয়ায় ফিরতে চেয়েছিলেন নিলুফা। কিন্তু মায়ের বারণ। যত কষ্টই হোক না কেন, থাকতে হবে। হাল ছাড়া যাবে না।

বাছিরন বলেন, সংসারে অভাব-অনটন ছিল। কষ্টে মানুষ করেছি। নিলুফা যদি কোনোদিক থেকে ভালো করতে পারে করুক। বাধা দেবো না। মানুষ যত খারাপ বলে বলুক, শেষ দেখে ছাড়বো।

সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপাজয়ী দলের সদস্য কুষ্টিয়ার মেয়ে নিলুফা ইয়াসমিন নিলা এখন ঢাকায়। ছুটি পেলেই নিলুফা বাড়ি ফিরবেন। আর মেয়ের জন্য পথ চেয়ে আছেন মা বাছিরন আক্তার। নিলুফার ছোট বোন সুরভী আক্তারেরও যেন তর সইছে না।

চ্যাম্পিয়ন নিলুফার বাড়ি ফেরার আনন্দ ছুঁয়েছে এলাকাবাসীকেও। তাই মূল সড়ক থেকে নিলুফার বাড়ি পর্যন্ত যাওয়ার পথ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে। কুষ্টিয়া পৌরসভার স্থানীয় ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র শাহিন উদ্দীন তার ব্যক্তিগত খরচে শ্রমিক দিয়ে এ কাজ করাচ্ছেন।

নিলুফার ইয়াসমিন নীলা বলেন, জেলা প্রশাসক আমার বাড়িতে গিয়েছিল। আমার সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন, জেলা প্রশাসন তার পাশে সবসময় থাকবে বলে জানিয়েছেন।

   

পুলিশ সদস্যের প্রচেষ্টায় আগুন থেকে রক্ষা পেলো ওসমানী হাসপাতাল



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, সিলেট
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

সিলেট জেলা পুলিশের এক সদস্যের প্রচেষ্টায় অল্পের জন্য বড় ধরণের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা থেকে রক্ষা পেলো এমএজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতাল।

শনিবার (২ মার্চ) দুপুর দেড়টার দিকে এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ২নং গেইটের ১০ তলা ভবনের পাশে জেনারেটর রুমের পাশে ময়লার স্তূপে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

অগ্নিকাণ্ডের বিষয়টি বার্তা২৪.কম-কে নিশ্চিত করেছেন সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা.মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়া।

তিনি বলেন, এ ঘটনায় তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হচ্ছে।

জানা যায়, শনিবার দুপুর ১টা থেকে দেড়টার ভেতরে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপতালের ১০ তলা ভবনের জেনারেটর রুমের পাশে হঠাৎ আগুন  লেগে যায়। এসময় লোকজন আগুন আগুন বলে চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করলে ছুটে আসেন ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের দায়িত্বরত ও সিলেট জেলা পুলিশের সদস্য মো.জনি চৌধুরী। পরে তিনি বালতি দিয়ে পানি ঢেলে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হঠাৎ করে আগুন দেখে লোকজন চিৎকার শুরু করলে পাশের একটি চায়ের দোকানে বসে থাকা পুলিশ সদস্য জনি চৌধুরী ছুটে আসেন এবং আগুন নেভান। তাৎক্ষণিক তিনি না এলে অনেক বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারতো। কারণ পাশেই ছিলো জেনারেটর রুম।

এ বিষয়ে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের দায়িত্বরত ও সিলেট জেলা পুলিশের সদস্য জনি চৌধুরী বলেন, পাশের একটি টংয়ের দোকানে বসে চা খাচ্ছিলাম। আগুন লেগেছে বলে লোকজন চিৎকার শুনে তাৎক্ষণিক বালতি দিয়ে পানি ঢেলে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসি।

এ ব্যাপারে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা.মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়া বলেন, ইতোমধ্যে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করার জন্য নির্দেশনা দিয়েছি। অগ্নিকাণ্ডের ভিডিওটি দেখে আমার কাছে সন্দেহজনক মনে হচ্ছে। ঘটনাস্থলে অনেকগুলো ঝাঁড়ু এক সঙ্গে ও কাগজপত্র রয়েছে। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে যদি পাওয়া যায় কেউ অগ্নিকাণ্ড ঘটিয়েছে তাহলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

;

ভোজ্যতেলের মজুদ ও বিপণন পর্যবেক্ষণ চলছে: ভোক্তার ডিজি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

১ মার্চ থেকে ভোজ্য তেল লিটারে ১০ টাকা কমিয়ে ১৬৩ টাকায় বিক্রি হওয়ার কথা থাকলেও সেই দামে বিক্রি হচ্ছে না। তাই রূপগঞ্জ, কেরানীগঞ্জ, চট্টগ্রামসহ ৭টি রিফাইনারিতে তেলের উৎপাদন ও মজুদ পর্যবেক্ষণের জন্য ভোক্তা অধিকারের টিম কাজ করছে বলে জানিয়েছেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালক এ. এইচ. এম সফিকুজ্জামান।

শনিবার (২ মার্চ) বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবসের প্রাক্কালে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি’র আয়োজনে এক বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরন।

ভোক্তার ডিজি বলেন, দাম কমানোর সিদ্ধান্ত সহজে কার্যকর হয় না, অথচ দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত দ্রুত কার্যকর হয়। চারটি পণ্যের ট্যাক্স কমালেও বাজারে তার প্রভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছে না।

তিনি আরও বলেন, সঠিক সময়ে আমদানির সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে না পারলে বাজার নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হয়ে যায়। ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণে আজ প্রয়োজন ভোক্তার সিন্ডিকেট। ভোক্তারা সমন্বিতভাবে কোন দ্রব্য কেনা কমিয়ে দিলে এক সপ্তাহ পরেই তার দাম কমে আসবে, যেমন গরুর মাংস।

এসময় এ. এইচ. এম সফিকুজ্জামান বলেন, বেইলি রোড ট্রাজেডিতে ভোক্তার অধিকার ক্ষুন্ন হয়েছে। একজন গ্রাহক রেস্টুরেন্টে যাবার আগে তার পক্ষে জানা সম্ভব হয় না উক্ত স্থাপনা বিল্ডিং কোড মেনে করা হয়েছে কি না। সেখানে অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা ও জরুরি নির্গমন সিড়িসহ অন্যান্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা সঠিক আছে কি না।

সভাপতির বক্তব্যে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ বলেন, দুষ্টচক্রের কারণে ন্যায্য দামে পণ্য কিনতে না পারায় ভোক্তারা কষ্টে আছে। সিন্ডিকেটের কবল থেকে বের হতে পারছে না ব্রয়লার মুরগি, গরুর মাংস, চিনি, ছোলা, পেঁয়াজ, খেজুরসহ অন্যান্য নিত্যপণ্য। আসন্ন রমজানে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকবে কিনা তা ভাবিয়ে তুলছে ভোক্তাদের। তবে ভ্যাট ট্যাক্স সহনীয় রেখে উন্মুক্ত আমদানি, ডলার সংকট মোকাবিলা, ব্যাংক গুলোকে বাড়তি দামে ডলার বিক্রি না করা, পরিবহনে চাঁদাবাজি বন্ধ করাসহ সর্বোপরি সিন্ডিকেটের কালো হাত ভেঙে দিতে পারলে ভোক্তারা সঠিক দামে পণ্য কিনতে পারবে।

;

ফেনীতে আয়োজিত হলো পুষ্টিভাত উৎসব 



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা-২৪.কম, ফেনী
ছবি: বার্তা ২৪

ছবি: বার্তা ২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

'বসা ভাতে পুষ্টি বেশি, খেলে রোগপ্রতিরোধ হয়; মাড় ফেলে রান্না হলে চাল, ১৫ ভাগ হয় অপচয়' এ প্রতিপাদ্য নিয়ে ফেনীতে পুষ্টিভাত উৎসব আয়োজিত হয়েছে। 

খাদ্যের অপচয় রোধে বিজ্ঞানসম্মত বসাভাতের গুরুত্ব জাতীয় শিক্ষাক্রমের আওতায় মাধ্যমিক স্তরে পাঠ্যভুক্ত হওয়ায় জনসচেতনতা বাড়াতে গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে সংশ্লিষ্ট বিষয়ের গবেষক কবি ও বিজ্ঞানী গাজী রফিকের মতবিনিময় সভা ও পুষ্টিভাত উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

শনিবার (২ মার্চ) দুপুরে শহরের গ্র‍্যান্ড টেস্ট রেস্টুরেন্টে আয়োজিত এ সভায় বসাভাতের গুরুত্ব উল্লেখ করে বক্তব্য রাখেন বিজ্ঞানী গাজী রফিক।

এসময় তিনি পুষ্টিভাতের বিভিন্ন গুরুত্ব উল্লেখ করে সবাইকে এ বিষয়ে সচেতন হয়ে ভাতের অপচয় রোধে এবং পুষ্টিমান রক্ষায় বসাভাত খাওয়ার অভ্যাস গঠনের আহ্বান জানান।

গবেষক কবি ও বিজ্ঞানী গাজী রফিক বলেন, ভাতের মাড়ে পুষ্টিগুণ বেশি। ভাতের মাড় ফেলে দিলে তার পুষ্টিগুণ নষ্ট হয়। বসাভাত খেলে ১৫ শতাংশ চাল সাশ্রয় হয় আর মাড় ফেলে দিলে ১৫ শতাংশ অপচয় হয়। বাংলাদেশে এ অর্থবছরে ৩ কোটি ৯০ লাখ মেট্রিক টন চাল উৎপাদন হয়েছে যা আমরা ব্যবহার করব। এ চাল থেকে ১৫ শতাংশ অপচয় হলে প্রায় ৬০ মেট্রিক টন চাল অপচয় হবে। এবং এতে করে পুষ্টি, স্বাস্থ্যর দিকে মানুষ এবং অর্থনৈতিক ভাবে দেশ ক্ষতিগ্রস্ত হবে৷

তিনি বলেন, এখন যে মিনিকেট চাউল বলে বিক্রি করা হয় এ নামে কোন চাল নেই। চালকে কেটে মিনিকেট নাম দিয়ে বিক্রি করা হয়। এসব চালে কোন গুণাগুণ নেই। বসাভাতে পুষ্টি রয়েছে এতে স্বাস্থ্য ভালো থাকবে এবং দেশ অর্থনৈতিক ভাবে লাভবান হবে। স্বাস্থ্য সুরক্ষা এবং এ বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে এ পুষ্টিভাত উৎসব আয়োজন করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

আলোচনায় অংশ নিয়ে ফেনী সরকারি কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মোহাম্মদ মোক্তার হোসেইন বলেন, বসাভাতের বিষয়ে আমাদের জানার ঘাটতি রয়েছে। এর প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে মানুষ এখনও অবগত নয়। মানুষ সচেতন না হলে অদূর ভবিষ্যতে খাদ্য সংকটসহ নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। বসাভাত খেলে খাদ্য সঞ্চয় হবে এটি দেশের উন্নয়নের ধারক হবে। এ বিষয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে বহুল প্রচার প্রচারণা বাড়াতে পারলে মানুষ এ বিষয়ে সতর্ক থাকবে এবং দেশের উন্নয়ন হবে একই সাথে স্বাস্থ্যগত দিক থেকে মানুষ ভালো থাকবে।

এসময় আলোচনায় অংশ নিয়ে বক্তব্য রাখেন প্রথম আলো ফেনী প্রতিনিধি বীর মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক আবু তাহের, দৈনিক ফেনীর সময় সম্পাদক মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন, দৈনিক ফেনী সম্পাদক আরিফুল আমিন রিজভী, কবি ওবায়েদ মজুমদার।

পুষ্টিভাত উৎসব প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক সাংবাদিক আসাদুজ্জামান দারার সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় ফেনীর গণমাধ্যমকর্মী, শিক্ষক-শিক্ষিকা, আইনজীবী ও বিভিন্ন শ্রেণি প্রেশার মানুষ অংশ নেন। এতে বক্তারা পুষ্টিভাতের গুরুত্ব অনুধাবন করে এ বিষয়ে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা বাড়ানোর আহ্বান জানান। 

;

চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ, বেড়েছে ২.২৬ শতাংশ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশে মোট ভোটার সংখ্যা ১২ কোটি ১৮ লাখ ৫০ হাজার ১০০ জন। ফলে আগের তুলনায় ২ দশমিক ২৬ শতাংশ বেড়েছে।

শনিবার (২ মার্চ) মোট ভোটারের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন।

কমিশনের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, মোট ভোটারের ৫ কোটি ৯৭ লাখ ৪ হাজার ৬৪১ জন নারী আর ৬ কোটি ২১ লাখ ৪৪ হাজার ৫৮৭ জন পুরুষ ভোটার।

;