পানি আনতে গিয়ে ইসরায়েলের হামলায় শিশুসহ ৮ ফিলিস্তিনি নিহত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গাজার জাবালিয়া ক্যাম্পের পশ্চিমে আল-ফালুজা এলাকায় পানি আনতে গিয়ে ইসরায়েলের গোলাবর্ষণে ৮ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে বলেও কাতার ভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে জানানো হয়।

শনিবার (১৮ মে) গনমাধ্যমটি জানায়, ফিলিস্তিনের জাবালিয়া শরণার্থী ক্যাম্পের পশ্চিমাঞ্চলে ইসরায়েলি হামলায় আট ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এছাড়াও ১০ জন আহত হয়েছেন।

এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, 'আমরা ফালুজা এলাকাকে নিরাপদ মনে করে এখানে বাস্তুচ্যুত হয়েছিলাম। হঠাৎ করেই এই জায়গাটিতে ইসরায়েলিরা গোলাবর্ষণ শুরু করে। এ অবস্থায় আমরা এখন কোথায় যাবো তার নিশ্চয়তাও নেই।'

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ হামলার একটি ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে। ভিডিওটির সত্যতা যাচাই করেছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, হামলার পর পর সেখানে রক্তের স্রোত তৈরি হয়েছে। এছাড়া যে জায়গাটিতে গোলা ছোড়া হয়েছে সেখানকার আশপাশের দোকানে শার্পনেলের চিহ্ন রয়েছে।

উল্লেখ্য, ৭ অক্টোবর থেকে চলা হামাস-ইসরায়েল যুদ্ধে এখন পর্যন্ত ফিলিস্তিনের ৩৫ হাজার ৩০০ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন, যাদের অধিকাংশই নারী ও শিশু।

যুক্তরাষ্ট্রে এ ধরনের সহিংসতার কোনো স্থান নেই: বাইডেন



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ছবি: সংগৃহীত

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

নির্বাচনী প্রচারণায় সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ওপর হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। যুক্তরাষ্ট্রে এমন কোন সহিসংতার স্থান নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

রোববার (১৪ জুলাই) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

হামলার পর ডেলাওয়্যারের রেহোবোথ বিচে তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় বাইডেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে এ ধরনের সহিংসতার কোনো স্থান নেই। এমনকি এই ধরনের হামলায় ক্ষমা করা করা যায় না। এর নিন্দা জানাতে এক জাতি হিসেবে আমাদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

তিনি বলেন, আমি নিশ্চিত করতে চাই, আমাদের কাছে সমস্ত তথ্য আছে। যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল এজেন্সিগুলো গুলিবর্ষণের এই ঘটনায় তদন্তে কাজ করছে।

ঘটনার পর যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা (সিক্রেট সার্ভিস) এক বিবৃতিতে জানায়, হামলার ঘটনায় বড় ক্ষতি হয়নি, নিরাপদ আছেন ট্রাম্প।

এদিকে, নির্বাচনী সমাবেশে হামলার পর প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গুলিতে তার ডান কানের উপরের অংশে ফুটো হয়ে গেছে বলে সামাজিক মাধ্যম ট্রুথ সোশ্যালে দেয়া এক পোস্টে জানিয়েছেন তিনি।

হামলার পর দেয়া প্রথম প্রতিক্রিয়ায় আমেরিকার গোয়েন্দা সংস্থা সিক্রেট সার্ভিস ও অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ট্রাম্প।

;

ট্রাম্পের ওপর হামলা, প্রত্যক্ষদর্শীর বর্ণনায় ওঠে এলো ঘটনা



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রিপাবলিকান পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণায় হামলার বর্ণনা দিয়েছেন ওই সমাবেশে থাকা এক প্রত্যক্ষদর্শী।

রোববার (১৪ জুলাই) বিবিসির এক প্রতিবেদনে সেই তথ্য তুলে ধরা হয়।

ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারে থাকা ওই প্রত্যক্ষদর্শী বিবিসিকে জানান, ট্রাম্পের বক্তব্যে শুরু হওয়ার ৫ থেকে ৭ মিনিট পর একজন ব্যক্তিকে একতলা বাড়ির ছাদের ওপর হামাগুড়ি দিতে দেখি। তখন তার সাথে একটি রাইফেলও ছিল। এ বিষয়টি তিনি ও তাঁর বন্ধুরা নিরাপত্তা বাহিনীকে সতর্ক করার আগেই ট্রাম্পকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে থাকেন ওই হামলাকারী। তবে কয়েক মিনিটের মধ্যেই হামলার ঘটনা ঘটে যায়।

তবে বিবিসির পক্ষ থেকে প্রত্যক্ষদর্শীদের এসব কথা নিরপেক্ষভাবে যাচাই করা সম্ভব হয়নি বলেও প্রতিবেদনে জানানো হয়।

এ ঘটনার পর তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনসহ অন্যান্য নেতারা। 

হামলার পরে সিক্রেট সার্ভিস এক বিবৃতিতে জানায়, পেনসিলভানিয়ার বাটলারে স্থানীয় সময় শনিবার (১৩ জুলাই) সন্ধ্যা সোয়া ছয়টার দিকে ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারের মঞ্চ লক্ষ্য করে সন্দেহভাজন হামলাকারী একাধিক গুলি ছুড়েছেন। তিনি সমাবেশস্থলের বাইরে থেকেই হামলা চালান। এতে মঞ্চের সামনে দর্শকসারিতে থাকা একজন নিহত হন। গুরুতর আহত হয়েছেন আরও দুজন। গুলিতে ট্রাম্পের ডান কানের ওপরের অংশে ফুটো হয়ে গেছে। সিক্রেট সার্ভিসের সদস্যদের গুলিতে সন্দেহভাজন হামলাকারী ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছেন।

এদিকে হামলার এ ঘটনায় তদন্ত শুরু হয়েছে। সিক্রেট সার্ভিসের সদস্যরা যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে (এফবিআই) ঘটনাটি অবহিত করেছেন বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে। 

;

ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলেছেন বাইডেন



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

চলতি বছরের নভেম্বরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এর অংশ হিসেবে পেনসিলভানিয়ায় এক নির্বাচনী প্রচারে হামলার শিকার হন আসন্ন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ট্রাম্প।

ট্রাম্প জানান, এতে তার ডান কানের ওপরের অংশ ফুটো হয়ে গেছে। চিকিৎসা নেওয়ার পর হাসপাতাল ছেড়েছেন।

এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। কথা বলেছেন গুলিবিদ্ধ ট্রাম্পের সাথে।

রোববার (১৪ জুলাই) হোয়াইট হাউজের বরাত দিয়ে বিবিসি এ তথ্য জানায়।

হোয়াইট হাউসের একজন কর্মকর্তা বলেছেন, এ ঘটনা শোনার পরই প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাথে কথা বলেছেন।

তবে তাদের মধ্যে কি নিয়ে কথা হয়েছে তা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি ওই কর্মকর্তা।

এছাড়াও তিনি পেনসিলভানিয়ার গভর্নর জোশ শাপিরো এবং বাটলারের মেয়র বব ড্যান্ডয়ের সাথেও কথা বলেছেন। 

;

হাসপাতাল ছেড়েছেন ট্রাম্প



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও আগামী নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। পেনিসেলভেনিয়ার বাটলার শহরে হওয়া এই হামলায় অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন তিনি। ঘটনার পরই স্থানীয় একটি হাসপাতালে তাকে ভর্তি করানো হয়।

চিকিৎসা শেষে ট্রাম্প হাসপাতাল ছেড়েছেন বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

রোববার (১৪ জুলাই) বিবিসি জানায়, চিকিৎসা শেষে ট্রাম্প হাসপাতাল ছেড়েছেন। তবে তিনি এখন কোথায় যাচ্ছেন তা স্পষ্ট নয়। পেনিসেলভেনিয়ার বাটলার শহরের সমাবেশ শেষে আজ নিউ জার্সির বেডমিনস্টারে তার যোগ দেওয়ার কথা ছিল। 

এই সমাবেশের পর উইসকনসিনের মিলওয়াকিতে নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর কথা রয়েছে।

;