জিবুতিতে নৌকাডুবি, ৩৫ অভিবাসীর মৃত্যু



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: বিবিসি

ছবি: বিবিসি

  • Font increase
  • Font Decrease

লোহিত সাগরের জিবুতি উপকূলে অভিবাসী বহনকারী একটি নৌকা ডুবে অন্তত ৩৫ অভিবাসনপ্রত্যাশীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। মৃত এসব অভিবাসীর মধ্যে শিশুও রয়েছে।

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশিত হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, উত্তর আফ্রিকার দেশ তিউনিশিয়ায় ১৯ অভিসানপ্রত্যাশীর মৃত্যু হয়েছে। অন্যদিকে জিবুতি উপকূলে একটি নৌকাডুবে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং নিখোঁজ রয়েছেন আরও ২৮ জন।

তিউনিসিয়ার কোস্টগার্ড জানিয়েছে, এরই মধ্যে ১৯ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তারা ইউরোপের দেশ ইতালি যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

উদ্ধারের পর জিবুতির উপকূলে গডোরিয়া শহরে নিয়ে আসা জীবিতদের চেহারায় বিপর্যয় এবং ভয় স্পষ্ট ছিল। পরে সেখানে চিকিৎসার জন্য তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে জাতিসংঘের অভিবাসন বিষয়ক সংস্থা আইওএম তাদের ইথিওপিয়ায় প্রত্যাবাসন করে।

জিবুতি কোস্টগার্ডের সিনিয়র কর্মকর্তা ইস ইইয়াহ বলেছেন, যারা ডুবে যাওয়া নৌকায় ছিলেন তারা ইয়েমেন ছেড়ে চলে যেতে চেয়েছিলেন। কারণ তাদের নিজের দেশের তুলনায় সেখানে জীবন আরও বেশি সংগ্রামের ছিল।

এ ঘটনায় জিবুতিতে নিযুক্ত ইথিওপিয়ার রাষ্ট্রদূত বারহানু সেগায়ে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এক্সে অভিবাসীদের মৃত্যুর জন্য শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘জিবুতি থেকে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে অবৈধপন্থায় ভ্রমণ অত্যন্ত বিপজ্জনক এবং এতে করে ক্রমাগত আমাদের নাগরিকরা তাদের জীবন হারাচ্ছেন।’

প্রসঙ্গত, যুদ্ধ, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও উন্নত জীবনের আশায় প্রতি বছর হাজার হাজার আফ্রিকান অভিবাসনপ্রাত্যাশী লোহিত সাগরের ওপারে সৌদি আরবে যাওয়ার চেষ্টা করেন। নৌকাডুবে মারা যান অনেকে।

   

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে ‘যান্ত্রিক ত্রুটি’, নিহত ১



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

লন্ডন থেকে সিঙ্গাপুরগামী সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট ‘যান্ত্রিক ত্রুটি’র কারণে জরুরি অবতরণ করতে গিয়ে এক যাত্রী নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আরও ৩০ জনেরও বেশি আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (২১ মে) সংবাদমাধ্যম বিবিসি ও আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

বিস্তারিত আসছে...

;

পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি হামলায় ৭ ফিলিস্তিনি নিহত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরের জেনিন শহরের একটি শরণার্থীশিবিরে ইসরায়েলি হামলায় অন্তত সাতজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে্ন আরও অন্তত ১২ জন।

মঙ্গলবার (২১ মে) আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশিত হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, পশ্চিম তীরের জেনিন শহরে ইসরায়েলি অভিযানে এক শিক্ষক ও ডাক্তারসহ অন্তত সাতজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও অন্তত ১২ জন। এ ছাড়া আহতদের মধ্যেও বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী আছে। ইসরায়েলি অভিযানের কারণে শরণার্থীশিবিরটির একটি বিদ্যালয় থেকে সব শিক্ষক-শিক্ষার্থীকে বের করে দেওয়া হয়।

এদিকে ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনী বা আইডিএফের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, জেনিন শহরটি ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর দুর্ভেদ্য ঘাঁটি হয়ে উঠেছিল। আর সেখান থেকে তাদের সরানোর লক্ষ্যেই মঙ্গলবার সকালে এই অভিযান শুরু করা হয়েছে বলে দাবি করেছে ইসরায়েলি দখলদার বাহিনী।

;

‘৩৫০ আসন প্রাপ্তির দিকে এগোচ্ছে ইন্ডিয়া জোট’



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ভারতের লোকসভা নির্বাচনে পঞ্চম দফার ভোটের পরে গতবারের জেতা আসনগুলো দল ধরে রাখতে পারবে বলে আশাবাদী বিজেপি নেতৃত্ব। জবাবে দিনের শেষে কংগ্রেসের দাবি, পরিবর্তনের হাওয়ায় ভর করে অনায়াসে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে ফেলবে বিরোধী মঞ্চ ‘ইন্ডিয়া।’

কংগ্রেসের পক্ষে মঙ্গলবার (২১ মে) জয়রাম রমেশ বলেন, ‘সংখ্যাগরিষ্ঠতার পর ৩৫০-এর বেশি আসন জেতার লক্ষ্যে অগ্রসর হচ্ছে ইন্ডিয়া জোট।’

প্রসঙ্গত, ছয়টি রাজ্য ও দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের ৪৯টি লোকসভা আসনে ভোট হয়েছে। রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত দেশে ভোট পড়েছে ৬০.০৯ শতাংশ, যা পাঁচ বছর আগের পঞ্চম দফা লোকসভা নির্বাচনের চেয়ে প্রায় ৩ শতাংশ কম।

যদিও নির্বাচন কমিশন দাবি করেছে, চূড়ান্ত ফলাফলে ভোটের হার কিছুটা বাড়বে।

মঙ্গলবার জম্মু ও কাশ্মীরের বারামুলা কেন্দ্রে ৫৬ শতাংশের বেশি ভোট পড়েছে। উপত্যকাটিতে এতো মানুষের ভোট দিতে পথে নামা তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে নির্বাচন কমিশন।

সর্বশেষ ১৯৮৪ সালে ৬১ শতাংশ ভোট পড়েছিল এই কেন্দ্রে। মঙ্গলবার পঞ্চম দফা নির্বাচনের পরে ভারতের ৪২৮টি কেন্দ্রের নির্বাচন শেষ হয়েছে। শেষ দুটি পর্বে ১১৫টি আসনের ভোটগ্রহণ বাকি রয়েছে।

ষষ্ঠ দফার ভোট হবে আগামী ২৫ মে। মঙ্গলবারের ভোট নিয়ে ঝাড়গ্রামের সভায় দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘পঞ্চম দফার ভোটগ্রহণ শেষ হতে চলেছে। ইন্ডিয়া পাঁচ দফাতেই পরাস্ত হয়েছে। আগামী ৪ জুন আমাদের সরকার হবে। বিরোধীরা ধুয়েমুছে যাবে। বিরোধী জোটের হেরে যাওয়ার কাউন্টডাউন চলছে।’

মঙ্গলবার যে রাজ্যগুলোতে ভোটগ্রহণ হয়েছে, তার মধ্যে সব থেকে কম ভোট পড়েছে মহারাষ্ট্রে ৫৪.২৯ শতাংশ। ওই রাজ্যের ১৩টি লোকসভা কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ ছিল। যার মধ্যে ছিল মুম্বাইয়ের ছয়টি লোকসভা কেন্দ্র।

এদিকে, মহারাষ্ট্রে কম ভোট পড়ার জন্য বিজেপি ও নির্বাচন কমিশনকে দায়ী করেছেন শিবসেনা নেতা উদ্ধব ঠাকরে। তিনি বলেছেন, ‘যেখানে আমাদের ভাল ফল করার কথা, সেই কেন্দ্রগুলোতেই মেশিন খারাপ হয়ে গেছে। দেরি করে ভোটগ্রহণ হয়েছে।’

বিজেপির বিরুদ্ধে বুথ জ্যাম করার অভিযোগও তুলেছে উদ্ধব শিবির। তাদের বক্তব্য, বুথের ভিতরে ইচ্ছে করে দেরি করানো হচ্ছিল। এতে বহু ভোটার গরমের কারণে লাইনে দাঁড়িয়েও ভোট না দিয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

উদ্ধবের অভিযোগ, ‘ওই কাজে নির্বাচন কমিশনও গেরুয়া শিবিরকে পূর্ণ মদত দিয়েছে। বিশেষ করে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ভোটারদের কাছে একাধিকবার পরিচয় পত্র দেখতে চাওয়া হয়েছে। হারের ভয়ে মোদি সরকার নির্বাচন কমিশনকে পাপোষের মতো ব্যবহার করছেন।’

উদ্ধবের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বিজেপি নেতা দেবেন্দ্র ফডণবীস বলেন, ‘হারার ভয় থেকেই এসব কথা বলছেন উদ্ধব। ভোট দিতে যে সময় লাগছে, সেই অভিযোগ আমরাই প্রথম কমিশনকে জানিয়েছিলাম।’

মহারাষ্ট্রের সঙ্গেই মঙ্গলবার উত্তরপ্রদেশে যে ১৪টি আসনে ভোট হয়েছে, তাতে দল গতবারের মতোই ভাল ফল করবে বলে আশা করছে গেরুয়া শিবির। পাঁচ বছর আগে ১৪টি আসনের মধ্যে রায়বরেলি ছাড়া বাকি ১৩টি আসনেই জিতেছিল বিজেপি। এবার সব কয়টি আসনেই দল জিতবে বলে আশা করছেন বিজেপি নেতৃত্ব।

মঙ্গলবার দুপুরে নিজের কেন্দ্র রায়বরেলির একাধিক বুথ ঘুরে দেখেন রাহুল গান্ধী। বহু জায়গায় বিজেপি কর্মীরা তাকে দেখে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি তুললেও, রাহুল কোনও প্ররোচনায় পা দেননি।

তবে কিছু কেন্দ্রে বিজেপি কর্মীরা সাধারণ ভোটারদের ভয় দেখাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন তিনি। পরে রাহুল বলেন, ‘প্রথম চার দফায় স্পষ্ট হয়ে গেছে মানুষ সংবিধান ও গণতন্ত্রের পক্ষে দাঁড়িয়ে বিজেপিকে হারানোর পণ করেছেন। ঘৃণার রাজনীতি ছেড়ে মানুষ এখন আসল সমস্যার ভিত্তিতে ভোট দিচ্ছেন। জনতা এখন ইন্ডিয়া জোটের সঙ্গে নির্বাচনে লড়ছে। এতে দেশজুড়ে পরিবর্তনের ঝড় উঠেছে।’

রাহুলের সুর ধরে কংগ্রেসের নেতা জয়রাম রমেশও বলেন, দেশজুড়ে পরিবর্তনের ঝড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। যে হাওয়ায় ভর করে ৩৫০ আসন প্রাপ্তির দিকে এগোচ্ছে ইন্ডিয়া জোট।’

জয়রামের ভাষ্যমতে, ‘মোদির গদি ছাড়তে আর পনেরো দিন বাকি। বেলাগাম মূল্যবৃদ্ধি, বেকারত্ব আর সংবিধান পরিবর্তনের হুমকি বিজেপির হারের কারণ হতে যাচ্ছে।’

জয়রামের ওই বক্তব্যের প্রেক্ষিতে বিজেপি নেতারা বলছেন, ‘কার পক্ষে যে আসলে ঝড় রয়েছে তা ওই পনেরো দিন পরেই বুঝতে পারবেন ইন্ডিয়া-র নেতারা। দেশবাসী যে তাদের জোটকে প্রত্যাখ্যান করেছেন, তা ভোটের ফল প্রকাশ হলেই স্পষ্ট হয়ে যাবে।’

;

ইসরায়েল-হামাস নেতাদের গ্রেফতার প্রসঙ্গে যা বলল চীন



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গাজায় যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) আইসিসির প্রধান কৌঁসুলি করিম খান ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু আর হামাসের নেতা ইয়াহিয়া সিনওয়ারের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আবেদন করেছেন। সোমবার তিনি এ ঘোষণা দেন।

এই ঘটনা নিয়ে চীন বলেছে, তাদের প্রত্যাশা ইসরায়েল ও হামাস নেতাদের বিরুদ্ধে পরোয়ানা চাওয়ার পর আইসিসি তার ‘বস্তুনিষ্ঠ’ অবস্থান বজায় রাখবে।

এদিকে আবেদনে বলা হয়, ইসরায়েলে হামাসের হামলা এবং এর ধারাবাহিকতায় গাজায় চলমান যুদ্ধে সংঘটিত যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে এ আবেদন করা হয়েছে।

ফিলিস্তিনি জনগণের সম্মিলিত শাস্তি বন্ধের আহ্বান জানিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন বলেন, আশা করা যায় আইসিসি তার উদ্দেশ্যমূলক ও নিরপেক্ষ অবস্থান সমুন্নত রাখবে এবং আইন অনুযায়ী তার ক্ষমতা প্রয়োগ করবে।

সোমবার আইসিসির প্রসিকিউটর করিম খান বলেন, ৭ অক্টোবরের হামলা ও গাজায় ইসরায়েলের যুদ্ধে সংঘটিত কথিত অপরাধের জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু, প্রতিরক্ষা প্রধান গ্যালান্ট এবং হামাস প্রধান সিনওয়ারসহ তিন নেতার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির অনুরোধ করেছেন।

আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আবেদনে  যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ইতালি নিন্দা জানিয়েছে। 

তবে ফ্রান্স তার পশ্চিমা মিত্রের সাথে দ্বিমত প্রকাশ করে বলেছে, আইসিসির ‘স্বাধীনতার’ প্রতি তাদের সমর্থন রয়েছে।

;