ওড়িশায় দুই ট্রেনের সংঘর্ষে নিহত ৩০, আহত ১৭৯



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ভারতের ওড়িশায় একটি মালবাহী ট্রেনের সঙ্গে যাত্রীবাহী ট্রেনের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় অন্তত ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছেন।

শনিবার (২ জুন) সন্ধ্যায় ওড়িশার বালাসোরে এই দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত ১৭৯ জনকে বালেশ্বরের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ভারতীয় গণমাধ্যম জানায়, শনিবার দুপুর ৩টা ১৫ মিনিটের দিকে শালিমার স্টেশন থেকে ছাড়ে ১২৮৪১ আপ করমণ্ডল এক্সপ্রেস। পশ্চিম মেদিনীপুরের খড়্গপুর স্টেশন ছাড়ে বিকেল সোয়া ৫টায়। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা নাগাদ ট্রেনটি পৌঁছায় বালেশ্বরে। কাছেই বাহানগা বাজারের কাছে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে ২৩ কামরার ট্রেনটি।

ভারতীয় রেল মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অমিতাভ শর্মা এনডিটিভিকে বলেন, করমণ্ডল এক্সপ্রেস ট্রেনটি বাহানগা বাজারে বেঙ্গালুরু থেকে কলকাতাগামী একটি ট্রেনের লাইনচ্যুত বগিতে ধাক্কা দেয়।

ওড়িশা ফায়ার সার্ভিসের প্রধান সুধাংশু সারঙ্গি উদ্ধারকাজ তদারকি করছেন। বালেশ্বর ও আশপাশের মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালকে সতর্ক করা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় ও রাজ্যের দুর্যোগ বাহিনী এনডিআরএফ শতাধিক কর্মী আটকে পড়া যাত্রীদের উদ্ধারে কাজ করছেন।

   

কানাডার উচিত নাৎসি সদস্যকে বিচারের মুখোমুখি করা : ক্রেমলিন



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ইয়ারোস্লাভ হুঙ্কা। ছবি : সংগৃহীত

ইয়ারোস্লাভ হুঙ্কা। ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গত সপ্তাহে কানাডার পার্লামেন্টের স্পিকার কর্তৃক প্রশংসা করা নাৎসি বাহিনীর প্রবীণ সদস্যকে বিচারের আওতায় আনা উচিত এবং তাকে প্রত্যর্পণ করা উচিত বলে বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) মন্তব্য করেছে ক্রেমলিন।

এনডিটিভি জানিয়েছে, কানাডার পার্লামেন্টের স্পিকার ওই ঘটনার পর পদত্যাগ করেছেন, যেখানে আইনপ্রণেতারা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় নাৎসিদের পক্ষে লড়াই করা ৯৮ বছর বয়সি ইউক্রেনের নাগরিক ইয়ারোস্লাভ হুঙ্কার প্রকাশ্যে প্রশংসা করেছেন।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘কানাডিয়ান কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব হলো এই অপরাধীকে বিচারের আওতায় আনা অথবা যারা বিচার করতে চায় তাদের হাতে তুলে দেওয়া।’

পোল্যান্ড গত মঙ্গলবার বলেছে, তারা ইয়ারোস্লাভ হুঙ্কাকে প্রত্যর্পণ করার দিকে নজর দিচ্ছে। এ ছাড়াও এসএস ইউনিটের জন্য লড়াই করা হুঙ্কা পোলিশ ইহুদিদের বিরুদ্ধে অপরাধের জন্য ওয়ান্টেড কিনা তা-ও তদন্ত করছে তারা।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি ইহুদি হওয়া সত্ত্বেও এবং হলোকাস্টে পরিবারের সদস্যদের হারানো সত্ত্বেও ইউক্রেনের নেতৃত্বের বিরুদ্ধে নাৎসিদের আশ্রয় দেওয়ার অভিযোগ করেছে রাশিয়া।

পেসকভ বলেন, ‘এটি দ্ব্যর্থহীন যে, আমরা একজন নাৎসি সম্পর্কে কথা বলছি। ’

উল্লেখ্য, কানাডা হলো ইউক্রেনীয় সম্প্রদায়ের জন্য বিশ্বে দ্বিতীয় বৃহত্তম আবাসস্থল।

জেলেনস্কি, যিনি গত সপ্তাহে কানাডার পার্লামেন্টে বক্তৃতা করেছিলেন, তিনি গত বছর ইউক্রেনের বিরুদ্ধে মস্কো পূর্ণ মাত্রায় যুদ্ধ শুরুর পর থেকে অটোয়ার সমর্থনের জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

;

হাই সিকিউরিটি কারাগারে কারাগারে স্থানান্তরিত ইমরান খান



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ইমরান খান। ছবি : সংগৃহীত

ইমরান খান। ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দুর্নীতির মামলায় গ্রেফতার হওয়া পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে অ্যাটক কারাগার থেকে রাওয়ালপিন্ডির হাই সিকিউরিটি আদিয়ালা কারাগারে স্থানান্তর করা হয়েছে।

রিপোর্ট অনুসারে, পুলিশের ১৮টি গাড়ির একটি কনভয় সাবেক এই ক্রিকেটার ও রাজনীতিবিদকে অ্যাটক থেকে ১০০ কিলোমিটার দূরে রাওয়ালপিন্ডি কারাগারে নিয়ে যায়।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদ থেকে এই আদিয়ালা কারাগার মাত্র ৩০ কিলোমিটার দূরে।

রাতের বেলা ইমরানকে বহনকারী গাড়িবহর স্থানীয়দের ক্যামেরায় ধরা পড়ে। এ সময় যেকোনও অপ্রীতিকর ঘটনা মোকাবিলায় কনভয়ের পুলিশ সদস্যরা শরীরে বর্ম পরা অবস্থায় গাড়িতে বসেছিল জানিয়েছে এনডিটিভি।

এ সময় একটি অ্যাম্বুলেন্সও ইমরান খানকে বহনকারী জেল ভ্যানটিকে অনুসরণ করছিল।

ইসলামাবাদ হাইকোর্ট সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীকে অ্যাটক কারাগার থেকে একটি হাই সিকিউরিটি কারাগারে স্থানান্তর করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়ার একদিন পরে এই পদক্ষেপটি আসলো।

ইমরানকে তোশাখানা মামলায় গত ৫ আগস্ট গ্রেপ্তারের পর অ্যাটক কারাগারে নেওয়া হয়েছিল। তার সাজা গত ২৯ আগস্ট স্থগিত করা হলেও সাইফার মামলায় তিনি এখনও কারাগারেই আছেন।

আদিয়ালা জেল সুপার আসাদ ওয়ারাইচ ডনকে জানিয়েছেন, নতুন কারাগারে ইমরান খান জেল ম্যানুয়াল অনুযায়ী সুযোগ-সুবিধা প্রাপ্ত হবেন।

এর আগে ইমরানকে যে অ্যাটক কারাগারে রাখা হয়েছিল, সেটি একটি ঔপনিবেশিক যুগের কারাগার। সেখানে সংযুক্ত বাথরুম এবং টেলিভিশনের মতো সুবিধার অভাব ছিল।

শুধু তাই নয়, পরিবার এবং বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করা বা সংবাদপত্র, বই, খাবার ইত্যাদি পাঠানো কঠিন করে তুলেছিল।

;

আইনস্টাইনের বিরল পাণ্ডুলিপি নিলামে, বিক্রি হলো ১৪ কোটি টাকায় 



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
আলবার্ট আইনস্টাইন ও তাঁর বিরল পাণ্ডুলিপি। ছবি: সংগৃহীত

আলবার্ট আইনস্টাইন ও তাঁর বিরল পাণ্ডুলিপি। ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বিখ্যাত পদার্থবিদ আলবার্ট আইনস্টাইনের একটি বিরল অটোগ্রাফকৃত পাণ্ডুলিপি নিলামে ভারতীয় মুদ্রায় ১০ কোটি ৭০ লাখ রূপিতে বিক্রি হয়েছে, বাংলাদশি মুদ্রায় যা ১৪ কোটির উপরে। তবে যে ক্রেতা পাণ্ডুলিপিটি কিনেছেন, তার নাম-পরিচয় গোপন রাখা হয়েছে। খবর এনডিটিভি।

গত ২৩ সেপ্টেম্বর চীনের বৃহত্তম শহর ও বাণিজ্যিক কেন্দ্র সাংহাইয়ে এক নিলামে বিক্রি হয়েছে পাণ্ডুলিপিটি। ‘বিংশ/একবিংশ শতাব্দির শিল্প বিক্রয় সন্ধ্যা’ নামের সেই নিলামের আয়োজক ছিল সাংহাইভিত্তিক নিলাম সংস্থা ওয়ালডর্ফ অ্যাস্টোরিয়া সাংহাই। 

বিক্রি হওয়া পাণ্ডুলিপিটি আইনস্টাইনের বিখ্যাত আপেক্ষিকতাতত্ত্ব (থিওরি অব রিলেটিভিটি) সম্পর্কিত দু’টি প্রবন্ধ থিওরি অব স্পেশাল রিলেটিভিটি এবং থিওরি অব জেনারেল রিলেটিভিটির হাতে লেখা অনুলিপি। ‘থিওরি অব স্পেশাল রিলেটিভিটি’ তিনি লিখেছিলেন ১৯০৫ সালে এবং এর জন্য ১৯২১ সালে পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। আর ‘থিওরি অভ জেনারেল রিলেটিভিটি’ লেখা হয়েছিল তার ১০ বছর পর অর্থাৎ ১৯১৫ সালে।

পাণ্ডুলিপিটি প্রথম প্রকাশিত হয় ১৯২৯ সালে জার্মান ভাষায়। এর ৮ বছর পর এ দু’টি প্রবন্ধ প্রকাশ করেছিল মার্কিন সংবাদমাধ্যম দ্য নিউইয়র্ক টাইমস।

১৪ পৃষ্ঠার এই পাণ্ডুলিপিটিতে, কীভাবে তিনি আপেক্ষিকতাতত্ত্বের উদ্ভাবন করলেন, কীভাবে এই তত্ত্বটি কাজ করে এবং আরও কিছু তথ্য রয়েছে। এটিতে দুটি সমীকরণ এবং বৈজ্ঞানিক সূত্রের দুটি পৃষ্ঠা সহ স্থান-কাল ধারাবাহিকতার গঠন চিত্রিত একটি চিত্র অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

প্রাচীন পণ্য ক্রয়বিক্রয়ের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট এই কোম্পানির মুখপাত্র রেবেকা ইয়াং জানিয়েছেন, আইনস্টাইনের এই বিরল পাণ্ডুলিপিটি, চীনের মূল ভূখণ্ডের ‘ক্লাসিক আর্ট’ ক্যাটাগরির অন্তর্ভুক্ত ছিল । 

;

ফের উত্তপ্ত মণিপুর, সংঘর্ষে আহত ৫০



ziaulziaa
মণিপুরে সংঘর্ষের চিত্র। ছবি : সংগৃহীত

মণিপুরে সংঘর্ষের চিত্র। ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দুই ছাত্রের হত্যাকাণ্ড ঘিরে নতুন করে ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে সংঘর্ষ কবলিত ভারতের রাজ্য মণিপুর। এদিকে, দুই পড়ুয়াকে অপহরণ করে খুনের ঘটনার তদন্তে বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) মণিপুর যাচ্ছে সিবিআই।

কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার স্পেশাল ডিরেক্টর অজয় ভাটনগরের নেতৃত্বাধীন দল বিশেষ বিমানে করে বুধবার ইম্ফল পৌঁছবে বলে জানা গেছে। এই ঘটনার তদন্তভার আগেই সিবিআইয়ের হাতে তুলে দিয়েছে রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী এন বীরেন সিংয়ের সরকার।

কুকি এবং মেইতেই সম্প্রদায়ের মধ্যে সংঘর্ষে গত কয়েক মাস ধরেই অশান্তির চাদরে ঢাকা পড়েছে ভারতের উত্তর-পূর্বের এই রাজ্য। এ পর্যন্ত বহু মানুষের মৃত্যু হয়েছে সেখানে।

গত সোমবার নিহত দুই ছাত্রের মৃতদেহের ছবি ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। তারপর থেকেই নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে মণিপুরে।

সূত্রের খবর, গত ৬ জুলাই থেকে ওই দুই পড়ুয়া নিখোঁজ ছিল। ছবিতে দেখা গেছে, দুই সশস্ত্র আততায়ীর সঙ্গে বসে রয়েছে দুই পড়ুয়া। অন্য একটি ছবিতে দেখা গেছে, তাদের মৃতদেহ পড়ে রয়েছে।

এনডিটিভি জানিয়েছে, ওই দুই পড়ুয়ার মৃতদেহ এখনও উদ্ধার করা হয়নি। ওই দুই পড়ুয়াকে শেষবার দেখা গিয়েছিল বিষ্ণুপুর জেলায়। অভিযোগ, ওই দুই পড়ুয়াকে অপহরণ করে খুন করা হয়েছে।

এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পরেই নড়েচড়ে বসেছে মণিপুর সরকার। এক্স হ্যান্ডলে (টুইটার) মণিপুরের মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, ‘রাজ্যবাসীকে আশ্বস্ত করতে চাই যে, অপরাধীদের ধরতে রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় সরকার দ্রুত পদক্ষেপ নিচ্ছে।’

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে তিনি নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন বলেও জানান বীরেন সিং।

অন্যদিকে, দুই পড়ুয়াকে খুনের ঘটনায় বিক্ষোভ প্রদর্শন করছেন শিক্ষার্থীরা। বিক্ষোভের সময় সংঘর্ষের ঘটনায় ইম্ফলে প্রায় ৫০ জন শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন।

এর আগে মণিপুরে দুই নারীকে বিবস্ত্র করে ঘোরানো এবং গণধর্ষণের অভিযোগ ঘিরে ভারতজুড়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছিল। গত ৪ মে ইম্ফল থেকে ৩৫ কিলোমিটার দূরে কঙ্গপোকপি জেলায় দুই নারীকে বিবস্ত্র করে হাঁটানো হয়।

ওই ঘটনার পরে ৭৮ দিন চুপ থাকার পর মণিপুর নিয়ে মুখ খোলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেন, ‘এই ঘটনা যেকোনও সভ্য সমাজের জন্য লজ্জার।’

সে সময় মণিপুরের ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর বিবৃতির দাবিতে সরব হয়ে ওঠেন বিরোধীরা। এই নিয়ে মুলতবি হয় সংসদের বর্ষা অধিবেশন। মোদী সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনে বিরোধী জোট ‘ইন্ডিয়া।’

;