যুক্তরাজ্যে ৪০ লাখ শিশু খাদ্য সঙ্কটে



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যুক্তরাজ্যে খাদ্য সঙ্কটে থাকা শিশুর সংখ্যা দ্বিগুণ বেড়ে প্রায় ৪০ লাখে পৌঁছেছে। দেশটিতে ২০২২ সালের জানুয়ারিতে এমন শিশুর সংখ্যা ছিল ১২%। এ বছরের জানুয়ারিতে তা বেড়ে হয়েছে ২২%। এছাড়া প্রতি পাঁচজনে একজন ব্রিটিশ নাগরিক খাবার কমিয়ে দিয়েছেন।

ফুড ফাউন্ডেশন থিঙ্কট্যাঙ্কের এক পরিসংখ্যানে এমন তথ্য উঠে এসেছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম দা গার্ডিয়ান।

এই পরিস্থিতিতে খাদ্য নিরাপত্তাহীনতায় থাকা শিশুগুলোর পরিবার দেশটির সরকারের কাছে বিনামূল্যে স্কুলের খাবারের দাবি জানিয়েছে। প্রায় ৮০% পরিবার বলছে, এই পদক্ষেপ দ্রুত গ্রহণ করতে হবে।

ফুড ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী অ্যানা টেলর বলেছেন, “সরকার খাদ্য নিরাপত্তার যে দাবি করেছে, তাতে তথ্যগত ঘাটতি রয়েছে। শিশুদের বিনামূল্যে স্কুলের খাবার কার্যক্রমকে প্রসারিত করতে হবে। আগামী বাজেটে এ বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত নিতে হবে সরকারকে।”

নিম্নআয়ের পরিবারগুলোর জীবনযাত্রার সঙ্কট কমানোর উপায় হিসেবে যুক্তরাজ্যে বিনামূল্যে স্কুলের খাবার কার্যক্রম বাড়ানো এখন রাজনৈতিকভাবেই গুরুত্বপূর্ণ। গত মাসে লন্ডনের মেয়র সাদিক খান বলেছিলেন, আগামী সেপ্টেম্বর থেকে লন্ডনের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার্থীদের জন্য এক বছরের বিনামূল্যে মধ্যাহ্নভোজ কর্মসূচি শুরু করা হবে।

দেশটির লন্ডন ব্যুরো অব ইসলিংটন, নিউহ্যাম, সাউথওয়ার্ক, টাওয়ার হ্যামলেটস এবং ওয়েস্টমিনস্টারে এরমধ্যেই প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিনামূল্যে স্কুলের খাবার সরবরাহ কার্যক্রম চলছে। ওয়েলস ২০২৪ সালের মধ্যে এই কর্মসূচি গ্রহণ করবে।

গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে যুক্তরাজ্যে নিম্নআয়ের পরিবারগুলো হিমশিম খাচ্ছে। শিশুদের স্কুলে খাদ্য কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হলে এই পরিবারগুলো ৪০০ পাউন্ড সাশ্রয় করতে পারবে।

যুক্তরাজ্যের শিক্ষা বিভাগের একজন মুখপাত্র গার্ডিয়ানকে বলেছেন, “২০১০ সাল থেকে স্কুলে বিনামূল্যে খাবার গ্রহণকারী শিশুদের সংখ্যা বর্তমানে ২০ লাখেরও বেশি দাঁড়িয়েছে।”

   

নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও ইসরায়েলে যাচ্ছে তুরস্কের পণ্য



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইসরায়েলের সঙ্গে সবধরনের বাণিজ্যের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে তুরস্ক। ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ‘মানবিক পরিস্থিতির আরও অবনতি’র কথা উল্লেখ করে গত মে মাসে দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এই ঘোষণা দিয়েছে। তবে চলতি মাসেই নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও তৃতীয় দেশের মাধ্যমে ইসরায়েলে যাচ্ছে তুরস্কের পণ্য।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) মিডেল ইস্ট আই'র এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশিত হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বাণিজ্যিক নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও মে মাসের শুরু থেকে তুরস্কের পণ্যগুলো গ্রীস এবং অন্যান্য নিকটবর্তী দেশগুলোর মাধ্যমে ইসরায়েলে পৌঁছানোর হচ্ছে।

ইসরায়েলের কেন্দ্রীয় পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, গত মে মাসে তুরস্ক থেকে ১১৬ মিলিয়ন ডলারের পণ্য আমদানি করেছে ইসরায়েল। যা গত বছরের মে মাসের তুলনায় ৬৯ শতাংশ কম। কিন্তু তুরস্কের রপ্তানিকারক সংস্থা দাবি করেছে মে মাসে ইসরায়েলে গেছে মাত্র ৪ মিলিয়ন ডলারের পণ্য। যা গত মে মাসের তুলনায় ৯৯ শতাংশ কম।

যদিও গাজায় এখনো স্থায়ী যুদ্ধবিরতি প্রতিষ্ঠিত হয়নি। এরই মধ্যে ইসরায়েলের ওপর সম্পূর্ণ বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দেয়ার পরও ইসরায়েলে পণ্য পাঠাচ্ছে তুরস্ক।

তবে বাণিজ্য সংশ্লিষ্ট এক ব্যক্তি দাবি করেছেন, তুরস্ক বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার আগে ইসরায়েল যেসব পণ্য অর্ডার করেছিল সেসব পণ্যই বেশি এখন গ্রিস হয়ে ইসরায়েলে যাচ্ছে।

;

হজে প্রচণ্ড গরমে সহস্রাধিক হাজীর মৃত্যু



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

এ বছরের হজের সময় প্রচণ্ড গরমে হাজীদের মৃতের সংখ্যা সহস্রাধিক বলে বৃহস্পতিবার (২০ জুন) জানিয়েছে রয়টার্স।

এএফপি পরিবেশিত এক খবরে বলা হয়েছে, এদের অর্ধেকেরও বেশি অনিবন্ধিত।

বৃহস্পতিবারের প্রতিবেদনে নতুন করে মৃতদের মধ্যে মিশর থেকে আসা ৫৮ জন অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে বলে জানানো হয়।

তবে একজন আরব কূটনীতিকের মতে, মোট নিহত ৬৫৮ জনের মধ্যে ৬৩০ জন অনিবন্ধিত ছিলেন।

এএপি’র খবরে হজে এবার প্রায় ১০টি দেশের ১.০৮১ জন মারা যাওয়ার কথা বলা হয়েছে।

সৌদি আরবের সরকারি বিবৃতি বা বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের উদ্ধৃতি দিয়ে এএফপি ওই পরিসংখ্যান জানিয়েছে।

এদিকে, এ বছর সৌদি আরবে প্রচণ্ড গরম পড়েছে। জাতীয় আবহাওয়া কেন্দ্র এই সপ্তাহের শুরুতে মক্কার গ্র্যান্ড মসজিদে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৫১.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস রিপোর্ট করেছে।

;

ইমরান খানের রাজনৈতিক উপদেষ্টাকে অপহরণ



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের রাজনৈতিক উপদেষ্টাকে পাঞ্জাব প্রদেশের রাজধানী লাহোর থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা অপহরণ করেছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

গুলাম শাব্বির নামের এই উপদেষ্টা পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) নেতা শাহবাজ গিলের বড় ভাই বলে জানা গেছে।

লাহোরের কাহনা থানায় নথিভুক্ত এফআইআর অনুসারে পাকিস্তানের এক্সপ্রেস ট্রিবিউন পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দুই দিন আগে ইসলামাবাদে যাওয়ার সময় অজ্ঞাত ব্যক্তিরা তাকে অপহরণ করে।

তার ছেলে বিলালের দ্বারা নথিভুক্ত এফআইআরে বলা হয়েছে যে, শাব্বির গভীর রাতে লাহোরের খায়াবান-ই-আমিনের বাসা ছেড়ে ইসলামাবাদের দিকে রওনা হন। এরপর তার আর কোনো হদিস মেলেনি।

এদিকে, ২০২২ সালের এপ্রিলে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকে প্রায় ২০০টি মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পরে গত বছরের আগস্ট থেকে কারাগারে আছেন ইমরান খান।

অনাস্থা ভোটের পরে প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পরে ২০২২ সালের মে মাসে সাবেক এই ক্রিকেটার শেহবাজ শরীফের জোট সরকারকে পতনের জন্য লাহোর থেকে ইসলামাবাদের দিকে একটি পদযাত্রা শুরু করেছিলেন।

;

হুতিদের দুটি সামরিক স্থাপনা ধ্বংস করলো যুক্তরাষ্ট্র



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইয়েমেনে হুতি বিদ্রোহীদের দুটি স্থাপনা ধ্বংস করেছে যুক্তরাষ্ট্র। সাম্প্রতিক দিনগুলোতে গ্রুপটির ধারাবাহিক জাহাজ হামলার পর মার্কিন সেনাবাহিনী বুধবার (১৯ জুন) এ তথ্য জানিয়েছে।

রয়টার্স জানিয়েছে, হুতিরা গাজা উপত্যকায় ইসরায়েল-হামাস যুদ্ধের সময় ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে ২০২৩ সালের নভেম্বর থেকে লোহিত সাগর ও এডেন উপসাগরে জাহাজগুলোকে লক্ষ্যবস্তু করে হামলা চালিয়ে আসছে।

ইরান-সমর্থিত হুতি বিদ্রোহীদের হামলা চালানোর ক্ষমতা হ্রাস করার লক্ষ্য নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেন ইয়েমেনে হামলা চালিয়েছে বলে জানা গেছে।

ইঙ্গ-মার্কিন জোট দাবি করেছে, তাদের ওই হামলা জাহাজ লক্ষ্য করে হুতিদের ছোড়া ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্রকে বাধা দেওয়ার একটি আন্তর্জাতিক সামরিক প্রচেষ্টা।

মার্কিন সামরিক কমান্ড এক্স-এ এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘ইয়েমেনের হুথি নিয়ন্ত্রিত এলাকায় ইউএসসেন্টকম বাহিনী সফলভাবে একটি গ্রাউন্ড কন্ট্রোল স্টেশন এবং একটি কমান্ড ও কন্ট্রোল নোড ধ্বংস করেছে।’

ওই বিবৃতিতে আরও বলা হয়, গত ২৪ ঘন্টায় সেন্টকম বাহিনী লোহিত সাগরে দুটি ইরান-সমর্থিত হুথিদের মনুষ্যবিহীন নৌযান (ইউএসভি) ধ্বংস করেছে।

এদিতে ইউনাইটেড কিংডম মেরিটাইম ট্রেড অপারেশনস (ইউকেএমটিও) গত মঙ্গলবার রাতে জানিয়েছে, গত সপ্তাহে হুতিদের হামলার পর পরিত্যক্ত হয়ে পড়ে থাকা বণিক জাহাজ এমভি টিউটর শেষ পর্যন্ত ডুবে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

লাইবেরিয়ার পতাকাযুক্ত গ্রীক-মালিকানাধীন ও পরিচালিত বাল্ক ক্যারিয়ারটিতে গত ১২ জুন একটি রিমোট-কন্ট্রোলড সমুদ্র ড্রোন ও একটি বায়বীয় প্রজেক্টাইল দ্বারা আঘাত করা হলে এতে থাকা একজন ফিলিপিনো ক্রু সদস্য নিহত হন।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে সানার সরকারকে উৎখাত করার পর সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের সঙ্গে যুদ্ধরত হুতিরা গত বছরের নভেম্বর থেকে লোহিত সাগর ও এডেন উপসাগরে শিপিং জাহাজে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে আসছে।

;