ফেসবুক-গুগল থেকে অর্থ আদায়ের আইন পাস অস্ট্রেলিয়ায়



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ফেসবুক ও গুগলকে তাদের প্ল্যাটফর্মে সংবাদ প্রকাশের জন্য গণমাধ্যমকে অর্থ প্রদান করতে অস্ট্রেলিয়ায় একটি আইন পাস হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে আইনটি পাস করেছে অস্ট্রেলিয়া।

মার্কিন প্রযুক্তিবিদদের বিরোধিতার মুখে কিছু সংশোধনী নিয়ে পাস হয়েছে দ্য নিউজ কোড আইন। এর অধীনে অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যমগুলোকে বেশ আকর্ষণীয় পরিমাণ অর্থ পরিশোধ করতে হবে গুগল ও ফেসবুককে। অস্ট্রেলিয়ার এই আইন অনুসরণ করে বিশ্বের অন্যান্য দেশও একই ধরনের আইন করতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

এর আগে, সংবাদ প্রকাশকদের সঙ্গে আয় ভাগাভাগির এক আইন নিয়ে বিরোধের জেরে গত বৃহস্পতিবার ফেসবুকে অস্ট্রেলিয়াদের খবর দেখা বন্ধ দেয়। পরে দেশটির সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে আইনটিতে সংশোধনী আনা হয়।

নতুন পাস হওয়া আইনটিতে বলা হয়েছে, অর্থ ভাগাভাগি নিয়ে সংবাদমাধ্যম ও প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে নেবে। এই ধরনের আলোচনা ব্যর্থ হলে এসব প্লাটফর্মকে সালিসের আওতায় আনা যাবে। অস্ট্রেলিয়ার সরকার বলছে এই আইনের ফলে সব পক্ষের মধ্যে ন্যায্য দরকষাকষি করা যাবে। আর এতে সংবাদ প্রতিষ্ঠানগুলো আরও বেশি লাভ পাবে।

অস্ট্রেলিয়ার নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান এসিসিসি জানিয়েছে, আইন প্রণয়নের আগ পর্যন্ত গুগল ও ফেসবুকের মতো টেক জায়ান্টদের ওপর এক চেটিয়া নির্ভরতার কারণে সংবাদমাধ্যমগুলোর দর কষাকষির সুযোগ ছিলো না। সংবাদের দাম নিয়ে কোনও বিরোধ তৈরি হলে তার সমাধান দিতে পারবে সালিসকারীরা। বিশ্লেষকরা বলছেন এতে লাভবান হবে সংবাদমাধ্যম।

যাইহোক, উভয় সংস্থাই এখন কোডের বাইরে অস্ট্রেলিয়ান কিছু বড় প্রকাশকদের লোভনীয় অর্থ প্রদানের প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এই চুক্তিগুলি প্রযুক্তিবিদদের দ্বারা আপোষ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

নিউজের জন্য ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম থেকে অর্থ গ্রহণের জন্য অন্যান্য দেশের অনুরূপ নিয়ন্ত্রণের জন্য অস্ট্রেলিয়ার আইনকে সম্ভাব্য পরীক্ষার কেস হিসেবে দেখা গেছে।

এর আগে সিনেটের মধ্য দিয়ে যাওয়ার পরে সংশোধিত আইনটি বৃহস্পতিবার হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে পাস হয়।

   

পাপুয়া নিউগিনিতে ভূমিধসে ৬৭০ জনের প্রাণহানি



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পাপুয়া নিউগিনির একটি গ্রামে ভয়াবহ ভূমিধসের ঘটনায় ৬৭০ জনের বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে। ভূমিধসে প্রায় নিশ্চিহ্ন হয়ে যাওয়া গ্রামের আরও অনেক মানুষ নিখোঁজ রয়েছেন।

রোববার (২৬ মে) ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা বিবিসিকে হতাহতের এই পরিসংখ্যান জানিয়েছেনআন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার একজন কর্মকর্তা।

দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপরাষ্ট্রে সংস্থাটির মিশন প্রধান সেরহান আক্তোপ্রাক বলেছেন, নতুন আনুমানিক নিহতের সংখ্যা নির্ধারণ করা হয়েছে ইয়াম্বালি গ্রাম ও এনগা প্রদেশের কর্মকর্তাদের তথ্য বিবেচনায় নিয়ে।

বলা হয়েছে, গত শুক্রবারের ভূমিধসের ঘটনায় ১৫০টির বেশি বাড়ি মাটির নিচে চাপা পড়েছে।

এর আগে বলা হয়েছিল ভূমিধসে ৬০টি বাড়ি মাটির নিচে চাপা পড়েছে। কিন্তু বর্তমানের হিসাব অনুযায়ী দেখা যাচ্ছে, ৬৭০ জনের বেশি মানুষ এখনো মাটির নিচে রয়েছেন।

আক্তোপ্রাক বলেছেন, এখনো ভূমিধস হচ্ছে। প্রবাহিত হচ্ছে পানি। এতে সেখানে ঝুঁকি ক্রমেই বাড়ছে।

জানা গেছে, রাজধানী পোর্ট মোর্সবি থেকে প্রায় ৬০০ কিলোমিটার উত্তরের এনগা প্রদেশে মধ্যরাতে যখন ভূমিধসের ঘটনা ঘটে তখন গ্রামের বেশিরভাগ মানুষই ঘুমিয়ে ছিলেন।

;

ইসরায়েলে রকেট হামলা চালাল হামাস



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাস রোববার (২৬ মে) ইসরায়েলে রকেট হামলা চালিয়েছে বলে দাবি করেছে। এরই মধ্যে হামলার শঙ্কায় তেল আবিবে সাইরেন বাজাতে শুরু করেছে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী। 

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, এ হামলার মধ্য দিয়ে চলতি মাসে এই প্রথম ইসরায়েলে কোনো হামলা চালাল হামাস।

সংবাদমাধ্যম এনবিসি নিউজ ও এবিসি নিউজের প্রতিবেদনেও এই তথ্য জানিয়েছে।

হামলার তথ্য জানাতে গিয়ে হামাসের সশস্ত্র শাখা আল কাসেম বিগ্রেড থেকে বলা হয়, নিরপরাধ মানুষের ওপর ইহুদিদের হামলার জবাবে ক্ষেপণাস্ত্রসহ হামলা করা হলো। 

এনবিসি নিউজের প্রতিবেদক বলছেন, তিনি একটি রকেট আসতে দেখেছেন। আয়রন ডোম দিয়ে তা ভূপাতিত করা হয়।

হামাস আল আকসা টিভিতে বলা হয়, গাজা থেকে এই হামলা করা হয়েছে। তবে, কতটি রকেট ও ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে হামলা হয়েছে তা এখন পর্যন্ত জানা যায়নি।

;

পুতিন হিংস্র ও অত্যাচারী শাসক: বাইডেন



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইউক্রেনে রাশিয়ার চলমান আগ্রাসনের প্রেক্ষাপটে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সমালোচনা করে বলেন, ‘পুতিন নিশ্চিত ছিলেন ন্যাটোতে ফাটল ধরাতে পারবেন। পুতিন এক হিংস্র ও অত্যাচারী শাসক। কিন্তু  আমরা ইউক্রেনকে ফেলে চলে যাচ্ছি না এবং চলে যাবও না।’

রোববার (২৬ মে) রুশ সংবাদমাধ্যম তাসের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে।

ওয়েস্ট পয়েন্টে মার্কিন সামরিক একাডেমিতে স্নাতকদের উদ্দেশে দেওয়া বক্তব্যে জো বাইডেন বলেন, 'ইউক্রেন যুদ্ধে কোনো মার্কিন সেনা অংশ নিচ্ছে না। আমি বিষয়টাকে এরকমই রাখতে অঙ্গীকারবদ্ধ। আমরা এমন একজন ব্যক্তির বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছি যাকে আমি বহু বছর ধরে চিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট দাবি করেন, তিনি ২০২১ সালে জেনেভায় এক বৈঠকে ইউক্রেনকে নিরপেক্ষ রাখতে বা ফিনল্যান্ডের মতো করতে চাইলে এর ফল হবে সমগ্র ইউরোপ ন্যাটোতে যোগ দেবে।

তিনি বলেন, বর্তমানে পৃথিবীর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রতিরক্ষা জোট (ন্যাটো) অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি শক্তিশালী।

পুতিনের এই বক্তব্যের জবাব দিয়েছেন ওয়াশিংটনে নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূত আনাতোলি আনতোনভ। তিনি জানান, রুশ প্রেসিডেন্টকে নিয়ে নেতিবাচক বক্তব্য দিয়ে বাইডেন সমগ্র রুশ জাতিকে অপমান করেছেন।

'আমি বিশ্বাস করি এ ধরনের ব্যবহার যেকোনো দায়িত্বশীল রাজনীতিবিদের ক্ষেত্রে অগ্রহণযোগ্য, বিশেষত সেই রাজনীতিবিদ যখন যুক্তরাষ্ট্রে মতো একটি দেশের নেতা', যোগ করেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, 'রুঢ় বাক্যের ব্যবহার ও আমাদের প্রেসিডেন্টের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে নিজের আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর প্রচেষ্টায় এটাই প্রমাণ হয়েছে যে রাশিয়ার ওপর রেগে আছে ওয়াশিংটন, কারণ দেশটি (যুক্তরাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত) তথাকথিত বৈশ্বিক নীতিমালার বিরুদ্ধাচারণ করেছে।'

রুশ কূটনীতিক আরও বলেন, 'মার্কিন প্রশাসনকে এটা অনুধাবন করতে হবে যে আমরা আমাদের জাতীয় স্বার্থ মেনে নিরপেক্ষ ও সার্বভৌম নীতি অবলম্বন করতে থাকব।'

;

পাকিস্তানে সড়ক দুর্ঘটনায় এক পরিবারের ১১ সদস্য নিহত 



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশে ট্রাক ও যাত্রীবাহী ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ হারিয়েছেন কমপক্ষে ১১ জন এবং আহত হয়েছেন অন্তত ১৫ জন।ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনায় আহত এবং নিহতরা সবাই একই পরিবারের সদস্য। 

সংবাদমাধ্যম  দ্য ডনের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শনিবার (২৬ মে) স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় রাজ্যের কোট আড্ডু জেলার হাইওয়েতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের ভেতর ৫ জন পুরুষ, ৩ নারী, ২ শিশু ও এক কিশোরী রয়েছেন।

সংবাদ সূত্রে জানা গেছে, মুলতান থেকে ভাক্কার যাচ্ছিল যাত্রীবাহী ভ্যানটি। এ সময় জেলার এমএম রোডে উল্টো দিক থেকে আসা ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান অনেকে।

আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান স্থানীয়রা। দুর্ঘটনার কারণ জানতে তদন্ত চলছে। এ ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সৈয়দ মোহসিন নাকভি।



;