বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল, মিলান কর্তৃক বিজয় দিবস উদযাপিত



ইতালি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল, মিলান কর্তৃক মহান বিজয় দিবস উদযাপিত

বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল, মিলান কর্তৃক মহান বিজয় দিবস উদযাপিত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইতালির মিলানে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল, মিলান কর্তৃক বিপুল সংখ্যক প্রবাসীদের উপস্থিতিতে আনন্দঘন পরিবেশে বাংলাদেশের ৫১তম মহান বিজয় দিবস যথাযথ মর্যাদায় উদযাপন করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে কনস্যুলেটের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর উপস্থিতিতে সম্মিলিতভাবে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন কনসাল জেনারেল এম জে এইচ জাবেদ। মিলানস্থ প্রবাসী বাংলাদেশিদের উপস্থিতিতে কনসাল জেনারেল এম জে এইচ জাবেদ-এর নেতৃত্বে কনস্যুলেটের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ কর্তৃক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে মাধ্যমে অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বের সূচনা হয়। এরপর উপস্থিত সকলেই মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী সকল বীরের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে ১ মিনিট নীরবতা পালন করেন। এ পর্বে কনস্যুলেটের কর্মকর্তাবৃন্দ মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে প্রেরিত মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন। এছাড়াও বিজয়দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে একটি ভিডিও ডকুমেন্টারি প্রদর্শন ও উন্মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় বক্তাগণ সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবার এবং মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে অংশগ্রহণকারী বীর মুক্তিযোদ্ধাদের অবদানকে গভীরভাবে স্মরণ করেন। তারা জানান যে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী যেকোন ষড়যন্ত্র ও অপতৎপরতা প্রতিহত করতে বাংলাদেশের মুক্তিকামী মানুষ সর্বদাই সজাগ থাকবে।

এসময় কনসাল জেনারেল এম জে এইচ জাবেদ তাঁর বক্তব্যে বর্তমান সরকারের দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশের বিস্ময়করী অর্থনৈতিক বিকাশ ও সম্ভাবনার নতুন যুগের কথা সকলকে স্মরণ করিয়ে দেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দিগন্তজয়ী নেতৃত্বে ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি উন্নত রাষ্ট্রের কাতারে নিয়ে যেতে সরকারের গৃহীত প্রবাসীবান্ধব নানামুখী পদক্ষেপের বিষয়ে তিনি আলোকপাত করেন।


তিনি আরো তুলে ধরেন, আন্তর্জাতিকভাবে স্বনামধন্য বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠান যেমন বোস্টন কনসাল্টিং গ্রুপ এর সাম্প্রতিক রিপোর্ট অনুযায়ী ২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ ১ ট্রিলিয়ন ডলার জিডিপির অর্থনীতি হবে এবং সে অগ্রযাত্রায় দেশের অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি হবেন পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে নিয়োজিত প্রবাসী জনশক্তি। এর সুফল হিসেবে ইতালি প্রবাসীগণ একটি উন্নত দেশের নাগরিক হিসেবে আরেকটি উন্নত দেশে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করবেন বলে তিনি দৃঢ় অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন। এছাড়াও কনসাল জেনারেল ইতালির সরকারি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের সাথে সাম্প্রতিক সময়ে তাঁর বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে বাংলাদেশি প্রবাসীদের সুনাম ও তাদের বিষয়ে ইতালি সরকারের ইতিবাচক মনোভাব সম্পর্কে অবহিত হয়েছেন বলে জানান। নানামুখী সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও তিনি প্রবাসীবান্ধব কনস্যুলেট তৈরিতে তাঁর সময়ে গৃহিত নানামুখী পদক্ষেপ বিশেষ করে দূরবর্তী অঞ্চলে পাসপোর্ট ডেলিভারি, সরাসরি সাক্ষাৎকার সেবা ও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দিবস উপলক্ষ্যে কমিশন-ফ্রি রেমিট্যান্স প্রেরণে কনস্যুলেটের গৃহীত বিভিন্ন কর্মসূচির বিষয়ে প্রবাসীদের অবহিত করেন। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন ইতালি প্রবাসী বাংলাদেশিগণ তাদের মেধা ও পরিশ্রম দ্বারা যে সুনাম অর্জন করেছেন তারই ধারাবাহিকতায় ইতালির মূলধারার রাজনীতিতে আরো বেশি সম্পৃক্ত হবেন এবং সরকারের শীর্ষ পর্যায়ে বিভিন্ন পদে কাজ করবেন।

শ্রম কনসাল সাব্বির আহমেদ এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মহান বিজয় দিবসের এ অনুষ্ঠানে মিলান লোম্বার্দিয়া আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল মান্নান মালিথা ও অন্যান্য অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মিলান সিটি কর্পোরেশনে নির্বাচিত কাউন্সিলর বিবাস চন্দ্র কর, মিলান বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম কাওসছার, মিলানস্থ জনতা এক্সচেঞ্জ কোম্পানি এসআরএল-এর ব্যবস্থাপক এমডি শাহাদাত হোসেন, উত্তর ইতালির বিভিন্ন পেশার বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশীগণ।

রিপামন্তি ইসলামিক সেন্টারের ইমাম মাওলানা কবির আহমেদের পরিচালনায় বাংলাদেশকে নিয়ে বিশেষ দোয়ার মাধ্যমে অনুষ্ঠানের পরিসমাপ্তি ঘটে।

   

সংযুক্ত আরব আমিরাতে ঈদুল আজহা উদযাপিত



সংযুক্ত আরব আমিরাত করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হয়েছে।

রোববার (১৬ জুন) আমিরাতজুড়ে ঈদগাহ ও মসজিদগুলোতে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। ঈদের নামাজে বিভিন্ন দেশের লাখ লাখ মুসল্লিদের সঙ্গে হাজার হাজার প্রবাসী বাংলাদেশিও ঈদের নামাজ আদায় করেন। নামাজে মুসলিম বিশ্বের সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করা হয়।

শুক্রবার (১৪ জুন) আমিরাতের সরকার কর্তৃক ঘোষণা অনুযায়ী আমিরাতে ৭টি রাজ্যে ভিন্ন ভিন্ন সময়ে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। আবুধাবিতে সকাল ৫টা ৫০ মিনিট, দুবাই ৫টা ৪৫ মিনিট, শারজাহ ৫টা ৪৪ মিনিট, আজমান ৫টা ৪৪ মিনিট, ফুজাইরাহ ৫টা ৪১ মিনিট, উম্মে আল কুইন ৫টা ৪৩ মিনিট, রাস আল খাইমা ৫টা ৪১ মিনিট ও আল-আইনে ৫টা ৪৪ মিনিটে ঈদ জামাত শুরু হয়।


নামাজ শেষে প্রবাসীরা সবাই একে-অপরের সঙ্গে কোলাকুলি ও কুশল বিনিময় করেন। পরে যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী প্রবাসীরা পশু কোরবানি করেন। অনেকে আবার কাজে ডিউটি থাকাতে নিজ নিজ কাজে যোগদান করেন।

উল্লেখ্য, আরাফাতের দিন এবং ঈদুল আজহা উদযাপন উপলক্ষে আগামী ১৫ থেকে ১৮ জুন পর্যন্ত আমিরাতে ছুটি ঘোষণা করেছে ফেডারেল অথরিটি অব হিউম্যান রিসোর্স। ঈদের ছুটিতে প্রবাসীরা নিজেদের পরিকল্পনা ও সুযোগমত ঈদের ছুটি নানাভাবে উদযাপন করেন।

;

দুবাইতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ঈদ উৎসব



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশের সীমানা পেরিয়ে এবার সুদূর আরব আমিরাতে জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে এক ঝাঁক তারকাদের মিলন মেলা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ঈদ পরবর্তী এই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ও ভারতের জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী এবং চিত্র তারকাদের নিয়ে ঈদ উৎসব করতে যাচ্ছে এসএন এন্টারটেইনমেন্টের স্বত্বাধিকারী সাচিনুর সাচি। আগামী ২১ জুন ২০২৪ তারিখে দেরা দুবাইয়ের পাঁচ তারকা হোটেল রেডিসন ব্লুতে অনুষ্ঠিত হবে "দুবাই কনসার্ট-২০২৪"। এ উপলক্ষে গতকাল ৩১ মে দুবাইয়ের আল কেসিসের একটি রেঁস্তোরায় সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে "দুবাই কনসার্টের" আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন উদযাপন কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আবু জাফর। এ সময় উপস্থিত ছিলেন এস এন এন্টারটেইনমেন্টের অর্গানাজার মোঃ ফখরুদ্দীন মুন্না, কো-অর্গানাজার সিরাজুল হক, উদযাপন কমিটির যুগ্ম আহবায়ক কাজী মোহাম্মদ আলী, সদস্য সচিব হাজী শফিক, যুগ্ম সদস্য সচিব কামাল হোসেন সুমন, নির্বাহী সদস্য (সাংস্কৃতিক) মোঃ জাহিদ পারভেজ, মোঃ সফিক, মাহাবুবা সিদ্দিকা শিপু, এস এন এন্টারটেইনমেন্ট স্থায়ী কমিটির সদস্য সামসুর রহমান সোহেল, সরোয়ার উদ্দিন রনি, সাগর দেব, মামুনুর রশিদ, শরীফ মাহমুদ, মোঃ আলম, মোঃ কামাল হোসেন, মোঃ ইফতেখার, আমিরাতে বসবাসরত ব্যবসায়ী শিল্পপতি ও গণমাধ্যম কর্মীরা।

সংবাদ সম্মেলনে ইঞ্জিনিয়ার আবু জাফর বলেন, এই প্রথম বাংলাদেশের অনেকগুলো সংগীত শিল্পী এবং চিত্রশিল্পী একসাথে দুবাইয়ের মাটিতে পা রাখছেন। এই অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশের দর্শক উপস্থিত থাকবেন।

তিনি জানান, বাংলাদেশ থেকে আগত ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ বেগম, অভিনয় শিল্পী পরিমণি, কণ্ঠশিল্পী ফকির শাহাবুদ্দিন, সুমি শবনম, তশিবা, সাচিনুর সাচি, উপস্থাপক শান্তা জাহান ও লাবিব সিনহা এবং ভারতের জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী অর্পিতা বিশ্বাস।

এ সময় এস এন এন্টারটেইনমেন্টের দুবাই অর্গানাইজার ফখরুদ্দীন মুন্না বলেন, বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় শিল্পীদের সমন্বয়ে ঈদ উৎসব পালন করবে আমিরাতের প্রবাসীরা। তিনি সকলের সহযোগিতা চেয়ে বলেন, বিদেশের মাটিতেও সংগীত চর্চার দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে আমরা বদ্ধপরিকর। এতে করে বাংলাদেশের ঐতিহ্য ও কৃষ্টি-কালচার গানের মাধ্যমে বিশ্ব দরবারে সোনার বাংলাকে তুলে ধরব ইনশাআল্লাহ।

সংবাদ সম্মেলনের সমাপনী বক্তব্যে প্রকৌশলী আবু জাফর দুবাই কনসার্টের ১৫ সদস্যের উদযাপন কমিটি ঘোষণা করেন।

;

দুবাইয়ে ৫১ বাংলাদেশিকে রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড প্রদান



করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, সংযুক্ত আরব আমিরাত
ছবি: বার্তা২৪

ছবি: বার্তা২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে দ্বিতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হয়েছে রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড-২০২৩।

পৃথিবীর অন্য দেশকে পেছনে ফেলে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্সধারী হিসেবে সংযুক্ত আরব আমিরাতের ৫১ জন প্রবাসী বাংলাদেশিকে এই অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়েছে।

শনিবার (২৫ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় দুবাইয়ে বাংলাদেশ কনস্যুলেট প্রাঙ্গণে জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড ও সিআইপি সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী, এমপি।

বিশেষ হিসেবে উপস্থিত অতিথি ছিলেন আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. আবু জাফর, দুবাই ও উত্তর আমিরাতের কনসাল জেনারেল বিএম জাসাল হেসেন, আল হারামাইন গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাহতাবুর রহমান নাসির।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমাদের প্রবাসী বাংলাদেশিদের মান-সম্মান বৃদ্ধি পেয়েছে। আমরা আজকে ওয়াদাবদ্ধ হতে হবে যে, আমরা বৈধপথে দেশে টাকা পাঠাবো ও সেইসঙ্গে মান-সম্মান গ্রহণ করবো। সেইসঙ্গে সম্মানের অধিকারী হবো। বৈধপথে টাকা পাঠালে প্রত্যেক স্তরে সম্মানিত হবো।

এ সময় তিনি প্রবাসীদের বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠানোর জোরালো আহ্বান জানান।

দুবাইয়ে বাংলাদেশের কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল বিএম জামাল হোসেন জানান, বিগত অর্থবছরে সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে বাংলাদেশে রেমিট্যান্স পাঠানো হয়েছে প্রায় তিন বিলিয়ন ডলারেরও বেশি। আগামী অর্থবছরে রেমিট্যান্সের পরিমাণ চার বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যাবে বলে প্রত্যাশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। এরই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে এ আয়োজন করা হয়েছে।

এবারের আয়োজনে বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠানো ৫১ জন প্রবাসী বাংলাদেশিকে রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়।
এদের মধ্যে রয়েছেন- নিম্ন বেতনধারী, উচ্চ বেতনধারী, প্রবাসী ব্যবসায়ী, পেশাজীবী, কর্মজীবী নারী, নারী উদ্যোক্তা ও প্রবাসী সাংবাদিক। এছাড়াও সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে নির্বাচিত ৭৫ জন সিআইপিকে সংবর্ধিত করা হয়।

উল্লেখ্য, ২০২২ সালে প্রথমবারের মতো বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠাতে উৎসাহিত করার জন্য দুবাই বাংলাদেশ কনস্যুলেট সাধারণ প্রবাসীদের রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড দেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়।

;

বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠানোর আহ্বান প্রতিমন্ত্রীর



করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, সংযুক্ত আরব আমিরাত
ছবি: বার্তা২৪

ছবি: বার্তা২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রবাসীদের প্রতি বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠানোর আহ্বান জানিয়ে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী, এমপি বলেছেন, আজকে আমাদের ওয়াদাবদ্ধ হতে হবে, আমরা বৈধপথে দেশে টাকা পাঠাবো; মান-সম্মান গ্রহণ করবো এবং সম্মানের অধিকারী হবো। বৈধপথে টাকা পাঠিয়ে প্রত্যেক স্তরে সম্মানিত হবো।

শনিবার (২৫ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে বাংলাদেশ কনস্যুলেট প্রাঙ্গণে দ্বিতীয়বারের মতো ‘রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড-২০২৩’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এ সব কথা বলেন।

রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড ও সিআইপি সংবর্ধনার জন্য এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বলেন, পৃথিবীর অন্য দেশকে পেছনে ফেলে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্সধারী হিসাবে সংযুক্ত আরব আমিরাতের ৫১ জন প্রবাসী বাংলাদেশিকে রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়েছে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. আবু জাফর, দুবাই ও উত্তর আমিরাতের কনসাল জেনারেল বিএম জাসাল হেসেন, আল হারামাইন গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাহতাবুর রহমান নাসির।

দুবাইয়ে বাংলাদেশের কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল বিএম জামাল হোসেন জানান, বিগত অর্থবছরে সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে বাংলাদেশে রেমিট্যান্স পাঠানো হয়েছে প্রায় তিন বিলিয়ন ডলারেরও বেশি। আগামী অর্থবছরে রেমিট্যান্সের পরিমাণ চার বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যাবে বলে প্রত্যাশা করেছেন সংশ্লিষ্টরা। এরই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে এ আয়োজন করা হয়েছে।

এবারের আয়োজনে বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠানো ৫১ জন প্রবাসী বাংলাদেশিকে রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়।

এদের মধ্যে রয়েছেন- নিম্ন বেতনধারী, উচ্চ বেতনধারী, প্রবাসী ব্যবসায়ী, পেশাজীবী, কর্মজীবী নারী, নারী উদ্যোক্তা ও প্রবাসী সাংবাদিক। এছাড়া সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে নির্বাচিত ৭৫ জন সিআইপিকে এই অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত করা হয়।

এ ধরনের অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রবাসীদের উৎসাহ দেওয়ায় আগের তুলনায় রেমিট্যান্স প্রবাহ বেড়েছে বলে মনে করেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। তবে রেমিট্যান্স পাঠানোর পদ্ধতি আরো সহজ করতে পারলে বৈধপথে টাকা পাঠাতে প্রবাসীরা আরো দ্বিগুণ উৎসাহিত হবেন বলে জানিয়েছেন তারা।

উল্লেখ্য, ২০২২ সালে প্রথমবারের মতো বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠাতে উৎসাহিত করার জন্য দুবাই বাংলাদেশ কনস্যুলেট সাধারণ প্রবাসীদের রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড দেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করে।

;