বাহরাইনে জাতীয় শোক দিবস পালিত



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
বাহরাইনে জাতীয় শোক দিবস পালিত

বাহরাইনে জাতীয় শোক দিবস পালিত

  • Font increase
  • Font Decrease

যথাযথ মর্যাদা ও বিনম্র শ্রদ্ধায় বাহরাইনে বাংলাদেশ দূতাবাসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে।

সোমবার (১৫ আগস্ট) সকালে দূতাবাস প্রাঙ্গণে দূতাবাসের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতাদের সঙ্গে নিয়ে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স এ. কে. এম. মহিউদ্দিন কায়েস।

দিবসটি উপলক্ষে দূতাবাস প্রাঙ্গণে এক আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। শুরুতেই বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের শহীদ সদস্যদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত বাণীসমূহ পাঠ করা হয়। এসময় বঙ্গবন্ধুর ওপর নির্মিত একটি তথ্যচিত্র প্রর্দশন করা হয় এবং জাতির পিতার জীবন ও কর্মের ওপর উন্মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

চার্জ দ্যা অ্যাফেয়ার্স মহিউদ্দিন কায়েস বক্তব্যের শুরুতেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সকল শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু তার ব্যক্তি সত্তাকে বাঙালি জাতিসত্তায় রূপান্তরিত করেছিলেন। নিজের স্বার্থকে জলাঞ্জলি দিয়ে জাতীয় স্বার্থের তরে নিজেকে উৎসর্গ করেছিলেন। তাই তিনি বাংলার সব বর্ণের, সব ধর্মের, সব মানুষের এক অবিসংবাদিত নেতায় পরিণত হয়েছিলেন। স্বাধীনতার পর মাত্র সাড়ে তিন বছরেই দেশ পরিচালনার এমন কোন ক্ষেত্র নেই যেখানে বঙ্গবন্ধুর মানবিক হাতের স্পর্শ লাগেনি।

তিনি আরও বলেন, যে নীতি ও আদর্শের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, ১৫ আগস্টের নারকীয় হত্যাকাণ্ডের মধ্য দিয়ে ঘাতকেরা সেই নীতি ও আদর্শকেও হত্যা করতে চেয়েছিল। কিন্তু, ঘাতকের উদ্দেশ্য সফল হয়নি। বঙ্গবন্ধু মিশে আছেন মানুষের হৃদয় জুড়ে। প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে বঙ্গবন্ধুর অবিনাশী চেতনা ও আদর্শ চির প্রবহমান থাকবে।

এছাড়া, তিনি বাহরাইনে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদেরকে জাতির পিতার মহান আদর্শ অনুসরণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’ গড়ে তুলতে সকলকে তাদের প্রয়াস অব্যাহত রাখার আহবান জানান এবং দেশের অর্থনীতির চাকাকে সচল রাখতে বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণের অনুরোধ করেন।

পরিশেষে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের শহীদ সদস্যবৃন্দের আত্মার মাগফেরাত কামনা এবং দেশের অব্যাহত শান্তি ও সমৃদ্ধির জন্য বিশেষ দোয়া করা হয়। বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ এবং প্রবাসী বাংলাদেশিরা এসকল অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

২ ডিসেম্বর জাতীয় দিবস উপলক্ষে বর্ণিল সাজে আরব আমিরাত



তোফায়েল পাপ্পু, দুবাই থেকে
২ ডিসেম্বর জাতীয় দিবস উপলক্ষে বর্ণিল সাজে সজ্জিত আরব আমিরাত

২ ডিসেম্বর জাতীয় দিবস উপলক্ষে বর্ণিল সাজে সজ্জিত আরব আমিরাত

  • Font increase
  • Font Decrease

সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে বর্ণিল সাজে সজ্জিত হয়েছে দেশটির প্রতিটি শহর।

এ বছর ৫১তম স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস আগামীকাল (০২ ডিসেম্বর) শুক্রবার পালন করবে। এ উপলক্ষে আমিরাতের সাতটি শহরকে অপরূপ সাজে সাজানো হয়েছে।

আমিরাতের আবুধাবি, দুবাই, শারজাহ, আজমান, ফুজাইরাহ, রাস আল খাইমাহ, উম্ম আল কোয়াইন-সহ আমিরাতের প্রধান প্রধান সড়কসহ শহরের সড়কগুলো জাতীয় পতাকার পাশাপাশি আলোকিত ফরটি সেভেন শোভা বাড়াচ্ছে এখন থেকেই।

মোটর র‍্যালি, বিমান মহড়া, ড্যান্সিং ঝরনা, আলোকসজ্জা, আতশবাজি, উঁচু ভবনে রং বেরঙের সাজ আর আলোর ঝলকানি। আমিরাতজুড়ে সাজানো হয়েছে নানা রঙের ব্যানার ফেস্টুন আর আলোর ঝলকানিতে দালানগুলো অপূর্ব সাজে সজ্জিত। স্কুল কলেজ, অফিস আদালত, সুপার ও হাইপার মার্কেট সেজেছে নানা সাজে।


দিবসটি উদযাপনের লক্ষ্যে আরবের অধিবাসীরা আমিরাতের শেখদের ছবি ও পতাকা দ্বারা নিজেদের গাড়ি সাজানো হয়েছে।

আমিরাতের বিভাগীয় শহরের কর্ণেস পাড়ে আজ (বৃহস্পতিবার রাত ১২টার পর) দিবাগত রাতে সেসব গাড়ির প্রদর্শনী দেখানো হয়। আনন্দ ভাগাভাগি করার লক্ষ্যে ও আরব অধিবাসীদের উৎসাহ প্রদানের জন্য শহরের বিভিন্ন মহাসড়কে সেরাতে আমিরাতে অবস্থিত বিভিন্ন দেশের প্রবাসী-সহ আরবে অভিবাসী পর্যটকের ভিড় জমাবে। এ ছাড়াও বড় বড় শপিং মলগুলোতে দিবসটি উপলক্ষে উৎসবের আমেজ লক্ষণীয়। ভিন্ন তালিকায় ন্যাশনাল ডে ফ্যাশন শো-সহ আরব সংস্কৃতি ঐতিহ্যের নানা রকম আয়োজনসহ পণ্য বিশেষ ছাড় রেখেছে এসব শপিং মল।


এদিকে আবুধাবি-শেখ খলিফা বিন যায়েদ আল-নাহিয়ান, দুবাই-শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল-মাকতুম, শারজাহ-শেখ সুলতান বিন মোহাম্মদ আল-কাশিমি, আজমান-শেখ হুমাইদ বিন রশিদ আল-নুয়াইমি, ফুজাইরাহ-শেখ মোহাম্মদ বিন হামাদ বিন মোহাম্মদ আশ-শারকি, রাস আল খাইমাহ-শেখ সৌদ বিন শাকর আল-কাশিমি ও উম্ম আল কোয়াইন-শেখ সৌদ বিন রশিদ আল-মু'আল্লা ৫১তম স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে স্থানীয় ও আমিরাতে অবস্থানরত সকল অভিবাসীদের অভিনন্দন এ উষ্ণ শুভেচ্ছা জানিয়েছে।

এ বছর সাপ্তাহিক ছুটিসহ চারদিন সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। তবে বেসরকারি সেক্টরের জন্য ছুটি থাকছে সাপ্তাহিক ছুটির দিন সহ ৩দিন বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার পর্যন্ত।

উল্লেখ্য মধ্যপ্রাচ্য অঞ্চলে আরব উপদ্বীপের দক্ষিণ-পূর্ব কোনায় অবস্থিত সংযুক্ত আরব আমিরাত। ১৯৭১ সালের (২ ডিসেম্বর) ব্রিটিশদের থেকে দেশটি স্বাধীনতা লাভ করে।

;

ই-পাসপোর্ট জটিলতায় স্পেনে ৬০০ প্রবাসীর বৈধ হওয়া অনিশ্চিত!



কবির আল মাহমুদ, স্পেন
ই-পাসপোর্ট জটিলতায় স্পেনে ৬০০ প্রবাসীর বৈধ হওয়া অনিশ্চিত!

ই-পাসপোর্ট জটিলতায় স্পেনে ৬০০ প্রবাসীর বৈধ হওয়া অনিশ্চিত!

  • Font increase
  • Font Decrease

 

স্পেনে মাদ্রিদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম চালু না হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন ৬ শতাধিক প্রবাসী বাংলাদেশি। ই-পাসপোর্ট নবায়ন না হওয়ায় বৈধ হওয়ার সুযোগ অনিশ্চিত হয়ে পরা ৬শত প্রবাসীদের সমস্যা সমাধানে স্পেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সারওয়ার মাহমুদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা করছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

স্পেনসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ই-পাসপোর্ট নবায়ন জটিলতা এবং বয়স সংশোধনকে কেন্দ্র করে ঘনীভূত হতে থাকা সমস্যার প্রেক্ষিতে বাংলাদেশী মানবাধিকার সংগঠন ভালিয়েন্তে বাংলার উদ্যোগে গত বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) বিকেলে দেশটির রাজধানী মাদ্রিদে বাংলাদেশ দূতাবাসের হলরুমে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় দূতালয় প্রধান এটিএম আব্দুর রউফ মণ্ডল,প্রথম কউন্সিলর(শ্রম) মুতাসিমুল ইসলাম,পলিটিক্যাল কউন্সিলর দীন মোহাম্মদ ইমাদুল হকসহ দূতাবাসের সকল কর্মকর্তার পাশাপাশি স্পেনের বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বাংলাদেশিদের পাসপোর্ট সমস্যা, দূতাবাসে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম চালু, বয়সের গড়মিল, রি-ইস্যু পাসপোর্ট প্রবাসীরা দ্রুত পায় এবং যাদের বয়সের গড়মিল রয়েছে সকলকে সংশোধনের সুযোগ দেওয়ার দাবি জানান।

 বিশেষ করে তথ্য সংশোধন জটিলতায় পাসপোর্ট না পাওয়ার বিষয়টি তারা রাষ্ট্রদূতের নিকট ব্যক্ত করেন এবং ই-পাসপোর্ট নবায়ন না হওয়ায় ৬শত প্রবাসীদের বৈধ হওয়ার সুযোগ অনিশ্চিতসহ পাসপোর্ট না পাওয়ায় সৃষ্ট অভিবাসন জটিলতা তুলে ধরেন। পাসপোর্ট প্রদানকে কেন্দ্র করে দেশে একটি সংঘবদ্ধ ও সক্রিয় দালালচক্রের প্রতারণার কথাও ভুক্তভোগী প্রবাসীগণ রাষ্ট্রদূতকে অবহিত করেন এবং তা প্রতিকারের লক্ষ্যে পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানান।

এসময় রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সারওয়ার মাহমুদ উপস্থিত প্রত্যেক ভুক্তভোগীসহ প্রবাসী নেতৃবৃন্দের কথা মনোযোগ সহকারে শোনেন এবং পাসপোর্ট প্রদান প্রক্রিয়ায় দূতাবাসের আইনী সীমাবদ্ধতা পূনর্ব্যক্ত করেন। রাষ্ট্রদূত আরও বলেন, প্রবাসীদের পাসপোর্ট সমস্যার কথা দূতাবাস নিয়মিতভাবে সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে অবহিত করে। রাষ্ট্রদূত তাদের ভোগান্তির কথা সরকারের যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট পুনরায় তুলে ধরবেন বলে আশ্বাস দেন। স্পেনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত অনিয়মের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স বাস্তবায়ন করে  প্রবাসবান্ধব সরকারের সুফল সাধারণ প্রবাসীদের মাঝে পৌঁছে দিতে প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলেও রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সারওয়ার মাহমুদ প্রবাসীদের আশ্বাস দেন।

ভালিয়েন্তে বাংলার সভাপতি মোঃ ফজলে এলাহীর উপস্থাপনায় মতবিনিময় সভায় কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি আলামীন মিয়া,সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান সুন্দর,গ্রেটার ঢাকা অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সাধারণ সম্পাদক মিল্টন ভূঁইয়া কচি, বিক্রমপুর মুন্সিগঞ্জ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সভাপতি মাহবুবুর রহমান ঝন্টু, নারায়ণগঞ্জ জেলা অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সভাপতি এক্রামুজ্জামান কিরণ, ঢাকা জেলা অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সাধারণ সম্পাদক এম এইচ মাসুদুর রহমান, গ্রেটার সিলেট অ্যাসোসিয়েশনের আব্দুল কায়ূম মাসুক, এইচ এম দবির তালুকদার, সাইফুল মুন্সী ইকবাল, কমিউনিটি নেতা আব্দুল মজিদ সুজনসহ স্পেনের বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সমাজকর্মী এবং প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক গণমাধ্যমের প্রতিনিধিবৃন্দ তাদের বক্তব্য উপস্থাপন করেন এবং পাসপোর্ট এর সমস্যা নিরসনে দূতাবাসের স্বতঃপ্রণোদিত প্রবাসীবান্ধব উদ্যোগে পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দেন।

অনুষ্ঠানে প্রবাসীরা দূতাবাসের নানান ইতিবাচক উদ্যোগের প্রশংসার পাশাপাশি কয়েকটি নীতিবাচক কর্মকান্ডের সমালোচনা ও করেন।

;

বাংলাদেশে আসতে পারে কাতারের ৯৭৪ স্টেডিয়াম!



তাইফুর রহমান তুষার, বার্তা২৪.কম, কাতার
কাতারের ৯৭৪ স্টেডিয়াম

কাতারের ৯৭৪ স্টেডিয়াম

  • Font increase
  • Font Decrease

মধ্যপ্রাচ্যের দেশে প্রথমবারের মতো আয়োজন হচ্ছে ফুটবল বিশ্বকাপের মহোৎসব। আয়োজক দেশ কাতার ইতিমধ্যে সাড়া ফেলেছে বিশ্বব্যাপী।

কাতারে বিশ্বকাপ ফুটবলের খেলা হচ্ছে আটটি স্টেডিয়ামে। এর মধ্যে একটি স্টেডিয়ামের নাম সবার নজর কেড়েছে। স্টেডিয়ামের নাম নাইন সেভেন ফোর। কিন্তু কেন এমন নাম দেওয়া হলো? এই স্টেডিয়াম নিয়ে ফুটবল দর্শকের যেন কৌতূহলের শেষ নেই।

কেন স্টেডিয়ামের নাম করা হলো নাইন সেভেন ফোর? কারণ ব্যতিক্রমী এই স্টেডিয়াম তৈরি হয়েছে কন্টেইনার দিয়ে। ৯৭৪টা কন্টেইনার দিয়ে তৈরি করা হয়েছে স্টেডিয়ামটি। যেগুলো খেলা শেষে অনায়াসে খুলে ফেলা যাবে। তুলে নেওয়া যাবে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে। কাতারের আয়োজক কমিটি ঘোষণা করেছে খেলা শেষে স্টেডিয়ামটি ফুটবল খেলায় অনুন্নত দেশকে উপহার হিসেবে দেয়া হবে।

এরইমধ্যে বিশ্বকাপের স্মৃতিবিজড়িত এই স্টেডিয়াম বাংলাদেশে আনার পরিকল্পনার কথা শোনা যাচ্ছে। যা নিয়ে অনেক আলোচনাও হয়েছে বলে সংবাদমাধ্যমে এসেছে। কাতারে অবস্থান করছেন বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ এবং বাফুফের সহসভাপতি আতাউর রহমান মানিক।

তারা সেখানে একটি সভায় এটি নিয়ে আলোচনা তুলেছেন। স্টেডিয়াম খুলে ফেলা হলে সেটি কোথায় নিয়ে যাওয়া হবে, কী কাজে লাগানো হবে? বাংলাদেশ বলছে, তারা নাইন সেভেন ফোর স্টেডিয়ামটি বাংলাদেশে আনতে চায়।

কাতারে সংবাদমাধ্যমকে বাফুফের সম্পাদক সোহাগ জানিয়েছেন, ঢাকায় ফিরে কাতার দূতাবাসের সঙ্গে তারা কথা বলবেন, স্টেডিয়ামটি বাংলাদেশে নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করছে।

;

আরব আমিরাতের জাতীয় দিবস উপলক্ষে ৪ দিনের ছুটি ঘোষণা



তোফায়েল আহমেদ (পাপ্পু),  দুবাই করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সংযুক্ত আরব আমিরাতের ৫১তম জাতীয় দিবস উপলক্ষে ৪ দিনের সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছে দেশটির সরকার। স্মৃতি দিবসের জন্য আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে ৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত সকল অফিস-আদালত বন্ধ থাকবে। ৫ ডিসেম্বর সোমবার থেকে আবার কার্যক্রম শুরু হবে। আরব আমিরাতের স্থানীয় গণমাধ্যম খালিজ টাইমস এ এ-তথ্য জানানো হয়।

জানা যায় সংযুক্ত আরব আমিরাত আনুষ্ঠানিকভাবে ৩০ নভেম্বর দেশের শহীদদের উদযাপন এবং তাদের দান ও ত্যাগ স্বীকার করার জন্য বার্ষিক স্মরণ দিবস পালন করে। দিনটি সালেম সুহাইল বিন খামিসের শাহাদাতের তারিখের সাথে মিলে যায়, যিনি তার জাতীয় দায়িত্ব পালনের সময় ৩০ নভেম্বর, ১৯৭১ সালে মারা যান।

এদিকে ৫১ তম জাতীয় দিবসের আয়োজক কমিটি দ্বারা একটি "মহাকাব্য" অফিসিয়াল শো একত্রিত করা হচ্ছে, এবং যারা সংযুক্ত আরব আমিরাতকে বাড়িতে ডাকে তারা ৩ থেকে ১১ ডিসেম্বর আবুধাবি জাতীয় প্রদর্শনী কেন্দ্রে (অফহবপ) উতসবের অংশ হতে পারে।

অনুষ্ঠানটি ২ ডিসেম্বর সংযুক্ত আরব আমিরাতের জাতীয় দিবসের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এবং সমস্থ স্থানীয় টিভি চ্যানেলে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে। “নয় দিন ধরে উদযাপনের ফলে আরও বেশি লোক শো’তে অংশ নিতে পারবে। ৫১তম জাতীয় দিবস উদযাপনের আয়োজক কমিটির যোগাযোগ টিমের মারিয়াম আলমেরাইখি বলেছেন, লোকেরা আমাদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এবং সমস্ত স্থানীয় টেলিভিশন চ্যানেলে ২  ডিসেম্বর সরাসরি সম্প্রচার দেখতে পারে।

;