ফ্রান্সে 'প্যারি-টেক' মোবাইল রিপারেশন ও ট্রেনিং সেন্টার উদ্বোধন



প্রবাস ডেস্ক
ফ্রান্সে 'প্যারি-টেক' মোবাইল রিপারেশন ও ট্রেনিং সেন্টার উদ্বোধন

ফ্রান্সে 'প্যারি-টেক' মোবাইল রিপারেশন ও ট্রেনিং সেন্টার উদ্বোধন

  • Font increase
  • Font Decrease

ফ্রান্সে প্রবাসী বাংলাদেশিদের দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তোলা ও কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে আধুনিক প্রযুক্তি সমৃদ্ধ 'প্যারি-টেক' মোবাইল রিপারেশন ও ট্রেনিং সেন্টার যাত্রা শুরু করেছে। গতকাল রোববার (২৪ জুলাই) ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের 22 boulevard Ornano 75018-এ সেন্টারের উদ্বোধন করা হয়।

প্যারিসের সুপরিচিত বাংলাদেশ ফার্ণিচারের স্বত্ত্বাধিকারী মিয়া মাসুদ, দেশ জিএসএম'র সিইও মো. আবদুর রব এবং বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন ফ্রান্সের (বিসিএফ) এমডি নূর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন 'প্যারি-টেক'র স্বত্ত্বাধিকারী মীর সাজ্জাদ আহমেদ জয় ও আপেল মাহমুদ।

পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সুচনার পর দোয়া ও মোনাজাতের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের সফলতা কামনা করা হয়।

প্যারি-টেকের স্বত্ত্বাধিকারী মীর সাজ্জাদ আহমেদ জয় বলেন, প্রবাসী যারা ফ্রান্সে আছেন তাদের অনেকের যথাযথ দক্ষতার ঘাটতি রয়েছে। দক্ষতা না থাকায় তাদের অনেককে কম আয়ের কাজ বেছে নিতে হয়। মোবাইল রিপারেশন একটি সম্মানজনক পেশা এবং প্রশিক্ষণ নিয়ে অনায়াসে ভাল রেমিট্যান্স উপার্জনের সুযোগ আছে। দক্ষ জনশক্তি তৈরি করতে 'প্যারি-টেক' আধুনিক ও সুসজ্জিত প্রশিক্ষণ সেন্টার চালু করেছে। এখান থেকে প্রশিক্ষণ শেষে যে কেউ যার যার মতো কর্মসংস্থান করে নিতে সক্ষম হবেন।

জাপানি ব্যবসার ওয়ান-স্টপ সলিউশন সেন্টার-প্রাইম ব্যাংক জাপান ডেস্ক



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
জাপানি ব্যবসার ওয়ান-স্টপ সলিউশন সেন্টার-প্রাইম ব্যাংক জাপান ডেস্ক

জাপানি ব্যবসার ওয়ান-স্টপ সলিউশন সেন্টার-প্রাইম ব্যাংক জাপান ডেস্ক

  • Font increase
  • Font Decrease

জাপান ও বাংলাদেশের মধ্যে ক্রস-বর্ডার ব্যবসায়িক উদ্যোগ ও বিনিয়োগ সহজতর করার লক্ষ্যে সম্প্রতি প্রাইম ব্যাংক আনুষ্ঠানিকভাবে ‘জাপান ডেস্ক’ চালু করেছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত হিজ এক্সিলেন্সি নাওকি ইতো। এসময় প্রাইম ব্যাংকের চেয়ারম্যান তানজিল চৌধুরী এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও হাসান ও. রশীদ সহ জাপান ও বাংলাদেশ উভয় দেশের কূটনৈতিক কোর এবং ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের বিশিষ্ট ব্যক্তিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত হিজ এক্সিলেন্সি নাওকি ইতো বলেন “বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় বাণিজ্যিক ব্যাংক প্রাইম ব্যাংক জাপান ডেস্ক চালু করে পারস্পরিক সহযোগিতা ও সুবিধা বৃদ্ধিতে উদ্যোগ নিয়েছে। যেহেতু বহু জাপানি কোম্পানি বাংলাদেশে ব্যবসা করতে আগ্রহী, সেহেতু প্রাইম ব্যাংক জাপান ডেস্ক সুবিধা দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বৃদ্ধিতে সহায়তা করবে’।

প্রাইম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও হাসান ও. রশীদ বলেন, “বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নে সরকারি ও বেসরকারি খাতে জাপানি বিনিয়োগ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। জাপান ডেস্ক চালুর ফলে জাপানের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ও বিনিয়োগের সুযোগ আরও জোরদার হবে।

;

কাতার বিশ্বকাপে রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর থাকছেন চট্রগ্রামের শিয়াকত



তাইফুর রহমান, বার্তা২৪.কম, কাতার
কাতার বিশ্বকাপে রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর থাকছেন চট্রগ্রামের শিয়াকত

কাতার বিশ্বকাপে রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর থাকছেন চট্রগ্রামের শিয়াকত

  • Font increase
  • Font Decrease

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতার বিশ্বকাপে ম্যাচ পরিচালনায় নিযুক্ত রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর হিসেবে কাজ করবেন কাতার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনে সহকারী রেফারি হিসেবে কাজ করা বাংলাদেশের শিয়াকত আলী। বিগত ৯ বছর ধরে কাতারে সহকারী রেফারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন বাংলাদেশের চট্টগ্রামের ছেলে শিয়াকত।

প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পেয়ে গর্বিত এই রেফারি। নিজের মেধা ও শ্রম দিয়ে বিশ্বকাপে সেরাটা দিয়ে বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল করতে চান শিয়াকত।

কাতার বিশ্বকাপে ম্যাচ পরিচালনায় নিয়োজিত থাকবেন সারা বিশ্বের ৩৬ জন রেফারি, ৬৯ জন সহকারী রেফারি ও ২৪ জন ভিডিও ম্যাচ অফিসিয়াল। সেই সুবাদে আগামী ২০ নভেম্বর থেকে মরুর বুকের এই ফুটবল বিশ্বকাপে মাঠের খেলায় না থেকেও যেন জড়িয়ে আছে বাংলাদেশের নাম।

২০১৩ সালে কাজের সূত্রে কাতারে পাড়ি জমান চট্টগ্রামের ছেলে শিয়াকত আলী। সেখানে বার্সেলোনার একটি রেফারি অন্বেষণ কার্যক্রমে অংশ নিয়েই কপাল খুলে যায় তার। এরপর কাতার ফুটবলে ১৬ দিনের রেফারি প্রশিক্ষণ শেষ করেন। পরে কাতারের স্পায়ার একাডেমি থেকে রেফারিং অ্যান্ড স্পোর্টস সাইকোলজিতে স্নাতক সম্পন্ন করেন। এরইমধ্যে রেফারিংয়ের ওপর সি ও ডি ডিপ্লোমা কোর্স শেষ করেছেন। কাতার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনে কাজ করছেন সহকারী রেফারি হিসেবে।

কাতার বিশ্বকাপের মঞ্চে দক্ষিণ এশিয়া থেকে একমাত্র রেফারি কো-অর্ডিনেটর হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ পেয়ে তিনি উচ্ছ্বাসিত।

বার্তা২৪.কমের মুখোমুখি হয়ে শিয়াকত আলী বলেন, কাতার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন এবং ফিফা কর্তৃপক্ষ রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর হিসেবে ১০ জনকে নিয়োগ দিয়েছে। এর মধ্যে দক্ষিণ এশিয়া থেকে আমি যোগ হয়েছি। বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পেয়ে আমি গর্বিত। সকলের কাছে দোয়া চাই। কঠোর পরিশ্রম দিয়ে নিজেকে আরও এগিয়ে নিতে চান শিয়াকত।

;

কাতার বিশ্বকাপ: দর্শকদের জন্য চালু থাকবে ফ্রি যানবাহনের ব্যবস্থা!



তাইফুর রহমান, বার্তা২৪.কম, কাতার
কাতার বিশ্বকাপ:

কাতার বিশ্বকাপ:

  • Font increase
  • Font Decrease

কাতারে ফুটবল বিশ্বকাপ চলাকালীন বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে আগত দর্শকদের জন্য কাতারের বিভিন্ন রাস্তায় চলবে বিশেষ যানবাহন।

প্রায় চার হাজার বাস ও ৭০০ ইলেকট্রিক বাসের ব্যবস্থা করা হচ্ছে হায়া কার্ডধারী দর্শকদের জন্য। টুর্নামেন্ট চলাকালীন ম্যাচ উপভোগ করতে ও কাতারে ভ্রমণের জন্য প্রয়োজন হবে হায়া কার্ড।

মরুভূমির এই দেশে ২০ নভেম্বর বসতে যাচ্ছে ফুটবলের এই মহোৎসব। দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ ফুটবল বিশ্বকাপে বুঁদ হওয়ার অধির অপেক্ষায় এখন ফুটবলপ্রেমীরা। আর তাই বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে আগত লাখো দর্শকদের অন্যান্য সুবিধার সঙ্গে যাতায়াতের জন্যও ফ্রি সুব্যবস্থা করেছে আয়োজক দেশ কাতার।

ইতিমধ্যেই কাতার বিশ্বকাপে আগত দর্শকদের যাতায়াতের জন্য শহরেরে বিভিন্ন রুটে চালু করা হয়েছে বাস, ট্রাম, শাটল ট্রেনসহ, শিডিউলভিত্তিক ফ্লাইট।

এছাড়া এলাকাভিত্তিক তৈরি করা হচ্ছে ট্রান্সপোর্ট হাব। কাতারের মবিলিটি ডিরেক্টর থানি আল জাররা বলেন, গত সপ্তাহে একদিনে শহরের বিভিন্ন রুটে এক হাজার ৮০০ বাসের পরীক্ষামূলকভাবে রাস্তায় নামিয়েছি। শুধুমাত্র কাতারের বিশ্বকাপের পাশকার্ড তথা হায়া কার্ড থাকলেই ফ্রি-তে এই যাতায়াত সুবিধা পাওয়া যাবে। তবে এখানকার সাধারণ মানুষের জন্য স্টেডিয়ামে যাতায়াতে এই ট্রান্সপোর্ট ব্যবহারের ব্যবস্থা থাকছে না।

শুধু বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে কাতারে আসা হায়া কার্ডধারীদের জন্য মেট্রো সার্ভিসসহ অন্যান্য যাতায়াত ব্যবস্থা চালু করা হচ্ছে।

;

কুয়েতে নির্বাসিত হচ্ছেন ৬০ প্রবাসী!



জিসান মাহমুদ, কুয়েত থেকে
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

কুয়েতে ৬০ প্রবাসীকে তাদের নিজস্ব গাড়ি ব্যবহার করে অবৈধ ট্যাক্সি পরিষেবা পরিচালনা করার জন্য নির্বাসিত করা হবে ৷ তারা কুয়েত বিমানবন্দর থেকে যাত্রী পরিবহনের সময় ধরা পড়ে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম আরব টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, বিমানবন্দরের প্রবেশ ও প্রস্থান থেকে অবৈধ ট্যাক্সি পরিষেবা দেওয়ার জন্য ট্র্যাফিক টহলদারদের দ্বারা তাদের পর্যবেক্ষণ করা হয়েছিল। এই নির্দেশনা সরাসরি এসেছে জেনারেল ট্রাফিক বিভাগের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল ইউসেফ আল-খাদ্দার কাছ থেকে।

গ্রেফতারকৃতদের অধিকাংশই ভারতীয়, বাংলাদেশি এবং মিশরীয় প্রবাসী। তাদের নির্বাসন কেন্দ্রে রেফার করা হয়েছে এবং নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে।

অন্যদিকে ট্যাক্সি চালকের লাইসেন্স নেই এমন যানবাহন চালকদের কাছ থেকে প্রতারণা ও চাঁদাবাজির বিষয়ে যাত্রীদের কাছ থেকে অনেক অভিযোগ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।

;