শিল্পীদের স্বার্থে কাজ করাই আমার লক্ষ্য:  ডিপজল



বিনোদন ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আগামী এপ্রিলের মাঝামাঝি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দ্বিবার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে এখন পর্যন্ত একটি প্যানেল চূড়ান্ত হয়েছে। এটি হচ্ছে, মিশা সওদাগর ও চলচ্চিত্রের মুভিলর্ডখ্যাত মনোয়ার হোসেন ডিপজলের নেতৃত্বে প্যানেল।

প্যানেলটি ইতোমধ্যে চলচ্চিত্রাঙ্গণে বেশ সাড়া জাগিয়েছে। এ প্যানেল নিয়ে সমিতির সদস্যদের মধ্যে বেশ উৎসাহ ও উদ্দীপনা পরিলক্ষিত হচ্ছে। অনেক সদস্য মনে করছেন, শিল্পী সমিতিকে একটি গুরুত্বপূর্ণ সংগঠনে পরিণত করতে মিশা-ডিপজলের নেতৃত্ব এ মুহূর্তে বেশি প্রয়োজন। সমিতির মধ্যকার দ্বিধা-দ্বন্দ্ব দূর করে সমিতির সদস্যদের মধ্যে ঐক্য সৃষ্টি করতে সক্ষম হবে। শুধু তাই নয়, সদস্যদের কল্যাণে তারা সবচেয়ে বেশি ভূমিকা পালন করতে পারবে।

অনেক সদস্যর সাথে আলাপকালে তারা বলেছেন, ডিপজল সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হওয়ায় আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। আমরা উনাকে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দেখতে চাই। কারণ, তিনিই পারবেন সমিতিকে একটি মর্যাদার আসনে নিয়ে যেতে। তাছাড়া, তিনি নেতৃত্বে থাকুন বা না থাকুন, সারা বছরই তিনি সদস্যদের পাশে দাঁড়ান। সদস্যদের যেকোনো সমস্যায় সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। এমন কোনো সাধারণ সদস্য নেই, যারা তার সহযোগিতা পাননি কিংবা পাচ্ছেন না। তিনি কাউকে খালি হাতে ফিরিয়ে দেন না। তিনি সমিতির সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলে, সমিতিরই লাভ হবে। সমিতির মর্যাদা বৃদ্ধি পাবে। সদস্যরা উপকৃত হবে।


এদিকে, ডিপজলের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমার লক্ষ্য হচ্ছে, সমিতিকে চলচ্চিত্রের সবচেয়ে মর্যাদার আসনে নিয়ে যাওয়া। এর মাধ্যমে সদস্যদের স্বার্থ রক্ষা ও কল্যাণ করা। শিল্পীরা যাতে মর্যাদা নিয়ে ভাল থাকে, এ ব্যবস্থা করা। এখন সিনেমার সংখ্যা কমে যাওয়ায় অনেক শিল্পী বেকার হয়ে গেছে। তাদের হাতে কাজ নেই। আমি চেষ্টা করব, চলচ্চিত্রের অন্যান্য সংগঠনের সাথে সমন্বয় করে কিভাবে সিনেমার সংখ্যা বাড়ানো যায়, এ উদ্যোগ নিতে। যারা একসময় নিয়মিত সিনেমা বানাতেন অথচ এখন বানাচ্ছেন না, তাদের প্রযোজনায় ফিরিয়ে আনব। অনেক প্রযোজক সমিতিরও সদস্য। তাদের সিনেমা বানাতে উৎসাহিত করব। এতে যদি বছরে দশটি সিনেমাও হয়, তাতে শিল্পীদের অনেকে কাজ পাবে। আমি নিজেও একের পর এক সিনেমা বানাচ্ছি। এটা চলমান থাকবে।

তিনি আরও বলেন, গত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সমিতির কিছু বদনাম হয়েছে। সে সময় আমি বারবার বলেছি, নিজেদের মধ্যকার সমস্যা প্রকাশ্যে না এনে মিলেমিশে সমিতির সুনাম ধরে রাখতে। সেই কমিটি থেকে কোনো কোনো সিনিয়র নেতৃবৃন্দ বিরক্ত হয়ে পদত্যাগও করেছিলেন। এতে সমিতির সুনাম ক্ষুণ্ণ হয়েছে। এটা ভাল দেখায়নি। এবার আমি সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হলে সকল সিনিয়রদের সাথে নিয়ে সমিতির সুনাম, শৃঙ্খলা ও মর্যাদা ফিরিয়ে আনব। শিল্পীরা যাতে অসহায় বোধ না করে, সম্মানের সাথে চলাফেরা করতে পারে এ ব্যবস্থা নেব।


ডিপজল বলেন, আমি চাই, কোনো ধরনের কোন্দল ছাড়া নির্বাচনটি আনন্দমুখর করে তুলতে। সবাই এফডিসিতে আসবে, সবার সাথে সুসম্পর্ক থাকবে, এক পরিবারের মতো চলাফেরা করবে, এমন একটি নির্বাচন করতে চাই। গত বছর নির্বাচনে চলচ্চিত্রের অন্যান্য সংগঠনের সদস্যদের প্রবেশে বিধিনিষেধ ছিল, যা খুবই নিন্দনীয় ছিল। এবার আমরা সকল সংগঠনের জন্য উন্মুক্ত করে দেব, যাতে তারা নির্বাচনটি উপভোগ করতে পারে। নির্বাচনে আমি চলচ্চিত্রের সব সংগঠনের সহযোগিতা কামনা করি।

   

ঈদের ব্যান্ড শোতে চিরকুট, জলের গান ও অবসকিউর



বিনোদন প্রতিবেদক, বার্তা২৪.কম
বিটিভিতে ঈদের ব্যান্ড শো ‘মিউজিক্যাল এক্সপ্রেস’

বিটিভিতে ঈদের ব্যান্ড শো ‘মিউজিক্যাল এক্সপ্রেস’

  • Font increase
  • Font Decrease

ঈদ উপলক্ষে বাংলাদেশ টেলিভিশনে সন্ধ্যা ৭টায় প্রচারিত হয়েছে বিশেষ ব্যান্ড সংগীতের অনুষ্ঠান ‘মিউজিক্যাল এক্সপ্রেস’।

ব্যান্ড ‘চিরকুট’র একক পরিবেশনা

তিন দিনের এই আয়োজনে ঈদের দিন ছিল ব্যান্ড ‘চিরকুট’র একক পরিবেশনা। দ্বিতীয় দিন ‘অবসকিউর’, ‘নকশী কাঁথা’,‘বাউল এক্সপ্রেস’ ও ‘আর্বোভাইরাস’র পরিবেশনা।

ব্যান্ড ‘চিরকুট’র একক পরিবেশনা

তৃতীয় দিন গান পরিবেশনায় ছিল ‘জলের গান’। শাহজামান মিয়া ও নাসির উদ্দিনের প্রযোজনায় ‘মিউজিক্যাল এক্সপ্রেস’ উপস্থাপনা করেছেন কাজী মোমরেজ, শান্তা জাহান ও নাহিদ আফরোজ সুমী।

 

জলের গানের পরিবেশনা

 

;

ঈদ উৎসবে ডিএমএস চমক



বিনোদন প্রতিবেদক, বার্তা২৪.কম
ঈদ উৎসবে ডিএমএস চমক

ঈদ উৎসবে ডিএমএস চমক

  • Font increase
  • Font Decrease

ঈদকে ঘিরে শ্রোতা-দর্শকদের জন্য বিভিন্ন ঘরনার গান ভিডিও নিয়ে হাজির হচ্ছে দেশের অন্যতম অডিও ভিডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ধ্রুব মিউজিক স্টেশন (ডিএমএস)।
২৯ মার্চ থেকে প্রকাশ পেতে শুরু করেছে ধ্রুব মিউজিক স্টেশন (ডিএমএস) এর ঈদ উৎসবকে ঘিরে তাদের আয়োজনের গানগুলো।
প্রতিষ্ঠানটির বর্ণিল ঈদ আয়োজনে এবার থাকছে বাংলা সঙ্গীতের দুই উজ্জ্বল নক্ষত্র শওকত আলী ইমন ও আঁখি আলমগীরের কন্ঠে ‘কফির পেয়ালা’। আশিক মাহমুদের কথায় গানটির সুর করেছেন আকাশ মাহমুদ। সঙ্গীতায়োজন করেছেন শওকত আলী ইমন নিজেই। গানের ভিডিও নির্মাণ করেছেন শিথিল রহমান।
এই প্রজন্মের জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী জিসান খান শুভ’র কন্ঠে শ্রোতারা শুনতে পাবেন ‘মেঘ ২’ শিরোনামের নতুন গান। শুভ’র কথা ও সুরে গানটির সঙ্গীতায়োজন করেছেন আমজাদ হোসেন। সুনামগঞ্জের মনোরম লোকেশনে চিত্রায়ন করে গানটির ভিডিও নির্মাণ করেছেন ফারহান আহমেদ রাফাত।
নাহিদ হাসানের কন্ঠে আসছে ‘তোমার ভেজাচুল’ শিরোনামের নতুন গান। মাহমুদ শাওনের অনবদ্য কাব্যমালায় সুর দিয়েছেন নাহিদ নিজেই। গানটির সঙ্গীতায়োজন করেছেন আমজাদ হোসেন। ভিডিও নির্মাণ করেছেন ফারহান আহমেদ রাফাত।
সামজ ভাই গেয়েছন ‘আঘাত’ শিরোনামের নতুন গান। জিসান খান শুভ’র কথা ও সুরে গানটির সঙ্গীতায়োজন করেছেন আমজাদ হোসেন। সুনামগঞ্জের মনোরম লোকেশনে চিত্রায়ন করে গানটির ভিডিও নির্মাণ করেছেন ফারহান আহমেদ রাফাত।
কন্ঠশিল্পী খালেদ মুন্না গেয়েছেন ‘তোমার নিষ্ঠুর আচরণে বুকে ধাক্কা লাগে’। প্রিন্স রুবেলের কথা ও সুরে গানটির সঙ্গীতায়োজন করেছেন রোজেন রহমান। ভিডিও নির্মাণ করেছেন ফারহান আহমেদ রাফাত।
আলোচিত কন্ঠশিল্পী সাথী খানের কন্ঠে প্রকাশ পাবে ‘বেশি কথা না বলিয়া’ শিরোনামের গান। সচল পাগল সুজনের কথা ও সুরে গানটির সঙ্গীতায়োজন করেছেন আদিব কবীর। ভিডিও নির্মাণ করেছেন রাজ বিশ্বাস শংকর।
জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী ঐশী দ্বৈত কন্ঠ দিয়েছেন এই প্রজন্মের কন্ঠশিল্পী জনি খানের সাথে। তাদের দু’জনের নতুন গান ‘বেসামাল’। মাহতাব হোসেনের গীতিকবিতায় সুর দিয়েছেন জনি খান। সঙ্গীতায়োজন করেছেন মুশফিক লিটু। গানটির ভিডিও নির্মাণ করেছেন রাহাত বাপ্পী।
প্রতিবারে মত এবারও ধ্রুব মিউজিক স্টেশন সুযোগ করে দিয়েছে নতুন প্রতিভাবানদের। নতুন একটি ব্যান্ডকে তারা তুলে এনেছে। নতুন এই ব্যান্ডের নাম ফড়িং ব্যান্ড। তাদের নতুন গান ‘সোনার ফড়িং’ প্রকাশ পা”েছ এবারের ঈদে। শেখ মোঃ পলাশের কথা ও সুরে গানটিতে কন্ঠ দিয়েছেন ব্যান্ডের ভোকাল রাছেল সিকদার। সঙ্গীতায়োজনে ছিলেন তরিক। গানটির ভিডিও নির্মাণ করেছেন ফারহান আহমেদ রাফাত।
এই প্রজন্মের কন্ঠশিল্পী এ আর টুটুলের কন্ঠে ‘নীলচে খামে’ প্রকাশ পাবে এবারের ঈদে। সালেহ আকরাম মেরিনের কাব্য মালায় সুর দিয়েছেন এ আর টুটুল নিজেই। সঙ্গীতায়োজন করেছেন মুশফিক লিটু ।
নিজের কথা, সুর ও কন্ঠে শ্রোতাদের জন্য নতুন গান নিয়ে আসছেন কন্ঠশিল্পী এহসান কবির। গানের শিরোনাম ‘মনটা আমার ভাড়া দেবো’। গানটির সঙ্গীতায়োজন করেছেন তমাল হাসান। ভিডিও নির্মাণ করেছেন মামুন রনি।

ধ্রুব মিউজিক স্টেশন (ডিএমএস) জানায়, ২৯ মার্চ থেকে প্রকাশ শুরু হওয়া এই ঈদ উৎসব চলবে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত। গানগুলো তাদের ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশের পাশাপাশি গানগুলো শুনতে পাওয়া যাবে দেশি ও আর্ন্তজাতিক একাধিক অ্যাপ এ।

;

ঈদ ইত্যাদিতে ইমরানের স্বপ্ন পূরণ, ফারিণের গায়িকা হিসাবে আত্মপ্রকাশ



বিনোদন প্রতিবেদক, বার্তা২৪.কম
ঈদ ইত্যাদিতে ফারিণ, তাহসান, ইরমান এবং বাপ্পা

ঈদ ইত্যাদিতে ফারিণ, তাহসান, ইরমান এবং বাপ্পা

  • Font increase
  • Font Decrease

ঈদ ইত্যাদির বিশেষ আয়োজনের একটি হচ্ছে সংগীতে চমক। যে কারণে ঈদ ইত্যাদির গানগুলির কথা, সুর, শিল্পী নির্বাচন ও চিত্রায়ণ বেশ ব্যতিক্রমী হয়। তারই ধারাবাহিকতায় এবারের ঈদের ইত্যাদিতেও শিল্পী নির্বাচনে রয়েছে বড় চমক।
এবারের অনুষ্ঠানে একটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন দুই ভুবনের দুই তারকা জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী তাহসান খান এবং অভিনেত্রী তাসনিয়া ফারিণ। পেশাদার সংগীতশিল্পী না হয়েও খুব চমৎকারভাবেই গানটি গেয়েছেন ফারিণ। উল্লেখ্য অভিনয়ে জনপ্রিয় ফারিণের টিভিতে গাওয়া এটিই প্রথম গান। বলা যায় এই গানটির মাধ্যমেই ফারিণের গায়িকা হিসেবে আত্মপ্রকাশ ঘটলো।

গায়িকা হিসেবে ফারিণের আত্মপ্রকাশ

এ প্রসঙ্গে ফারিণ বলেন, ‘ইত্যাদি ছোটবেলা থেকেই আমার প্রিয় অনুষ্ঠান। আমার প্রিয় অনুষ্ঠানে গান গাইতে পেরে খুবই ভালো লাগছে। গানটি ভালো হয়েছে। শোনার পর মনে হয়েছে, ভিন্ন ধরনের গান হয়েছে। আমার বিশ্বাস, সব শ্রেণির শ্রোতা-দর্শকের কাছে ভালো লাগবে এটি। আমাকে সুযোগ দেয়ার জন্য ইত্যাদির প্রতি কৃতজ্ঞ।’ গানটি নিয়ে তাহসান বলেন, ‘এ ধরনের গান আগে করিনি। খুবই উৎসবের আমেজ নিয়ে, আনন্দময় একটি গান হয়েছে। ফারিণও খুব ভালো গেয়েছে।’ গানটির কথা লিখেছেন কবির বকুল। সুর ও সংগীত করেছেন ইমরান মাহমুদুল। তাহসান ও ফারিণের এই দ্বৈত সংগীতটি দর্শকরা দারুণ উপভোগ করবেন।
এবারের অনুষ্ঠানে আর একটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী বাপ্পা মজুমদার এবং তার সঙ্গে গেয়েছেন এ প্রজন্মের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী ইমরান মাহমুদুল। উল্লেখ্য ‘গাড়ি চলে না, চলে না’ গানটি গেয়ে বাপ্পা মজুমদারের দলছুট দলের প্রথম টিভিতে আত্মপ্রকাশ ঘটে ইত্যাদির মাধ্যমে, আর এই প্রজন্মের জনপ্রিয় শিল্পী ইমরান মাহমুদুল এই প্রথম গাইলেন ইত্যাদিতে। এ প্রসঙ্গে ইমরান বলেন, ‘ইত্যাদি অনুষ্ঠানের জন্য প্রথম গান গাইতে পেরে খুব ভালো লাগছে। আমার কাছে ইত্যাদি একটি আবেগের নাম। তখনো বিনোদন জগতে গান গাইতে আসিনি। সেই ছোটবেলা থেকে ইত্যাদি দেখতাম।

ইত্যাদির মঞ্চে ইমরান

স্বপ্ন দেখতাম, একদিন ইত্যাদিতে গান করব। তখন ইত্যাদিতে একটা গান গাওয়ার সুযোগ পেলেই হিট হয়ে যেতেন শিল্পী। ভাবতাম, কোনো দিন আমি যদি ইত্যাদিতে একটা গান গাইতে পারতাম!’ এত দীর্ঘ সময় এসে ইত্যাদি অনুষ্ঠানে গান করার সুযোগে স্মৃতিকাতর হওয়ার কথা জানালেন ইমরান।

এই সংগীতশিল্পী আরও বলেন, ‘আমার জন্য এটি একটি বিরাট ব্যাপার। ইত্যাদি আমার জন্য একটি অনুপ্রেরণা, আবেগ। আজ ইত্যাদিতে গাইতে পেরে আমার স্বপ্ন পূরণ হলো।’ গানটির কথা লিখেছেন লিটন অধিকারী রিন্টু, সুর ও সংগীত করেছেন ইমরান মাহমুদুল।
গত ০২ মার্চ মিরপুর ইনডোর স্টেডিয়ামে ইত্যাদির বিশাল সেটে গান দুটির চিত্রধারণ করা হয়।
প্রতিবারের মত এবারও ঈদের বিশেষ ইত্যাদি একযোগে বিটিভি ও বিটিভি ওয়ার্ল্ডে প্রচারিত হবে ঈদের পরদিন রাত ০৮টার বাংলা সংবাদের পর। ইত্যাদি রচনা, পরিচালনা ও উপ্নারে করেছেন হানিফ সংকেত। নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিও ভিশন। স্পন্সর করেছে কেয়া কসমেটিকস লিমিটেড।

;

জীবনের সবচেয়ে কঠিন সময়ে পার করছি: ঈদে ফারিয়ার পোস্ট



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
নুসরাত  ফারিয়া

নুসরাত ফারিয়া

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢালিউডের জনপ্রিয় অবিনেত্রী নুসরাত ফারিয়া মাহজার। অন্যান্য তারকাদের মতো ঈদ কাটেনি তার। প্রায় একমাস ধরে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন তার বাবা মাজহারুল ইসলাম। ঈদের দিন বাবার কাছেই ছিলেন ফারিয়া। হাসপাতাল থেকেই ভক্তদের উদ্দেশ্যে ঈদের শুভেচ্ছা পাঠিয়েছেন নায়িকা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লম্বা পোস্ট দিয়েছেন তিনি। ফারিয়া লিখেছেন-

আমার আব্বুর হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার ২৮ দিন পূরণ হলো। দুটি স্ট্রোক এবং একটি অপারেশনের পরও, তিনি প্রতিদিন একাধিক স্বাস্থ্য সমস্যার সাথে লড়াই করছেন। অন্যান্য বিষয় বিবেচনা করলে আমি সম্ভবত আমার জীবনের সবচেয়ে কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। এটি অত্যন্ত হতাশাজনক। যদিও কিছুই আপনার নিয়ন্ত্রণে নেই। একমাত্র উপায় হলো প্রার্থনা করা এবং আল্লাহর উপর বিশ্বাস রাখা...

সম্প্রতি, প্রেসের সাথে এক প্রেসমিটিংয়ে আমি কান্নায় ভেঙে পড়েছিলাম। বর্তমানে আমায় জীবনের সবচেয়ে বড় মানসিক অস্থিরতার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। অনেককে মন্তব্য করতে শুনি, ‘আপনার বাবার এরকম শারীরিক অবস্থা। তার মধ্যেও আপনি কীভাবে ছবি পোস্ট করতে পারেন? ইভেন্টে যেতে পারেন বা এরকমভাবে পরিপাটি করে নিজেকে উপস্থাপন করতে পারেন?

কি করব বলুন? এটাই আমাদের পেশার কঠিন বাস্তবতা। কখনও কখনও আমরা আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া এবং সামাজিক জীবনের সাথে এতটাই বিভ্রান্ত হয়ে পড়ি যে লোকেরা ভুলে যায়, আমরাও মানুষ। এটাই এখন আমার জীবন। মানুষ আমার দিকে যতই নুড়ি ছুঁড়ুক না কেন, হাসিমুখে মেনে নিয়ে আমার কাজ করে যেতে হবে। আমি এত মানুষের ভালবাসা, যত্ন এবং আশীর্বাদ পেয়ে অত্যন্ত খুশি। সকলকে ধন্যবাদ জানানোর ভাষা জানা নেই। এই কঠিন সময়ে যারা আমার পাশে এসেছিলেন তাদের সকলের প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা। এই ঈদ আপনার জীবনে বয়ে আনুক শান্তি ও সমৃদ্ধি।

আমাদের পক্ষ থেকে আপনাকে ঈদ মোবারক।

পোস্টের নিচে ভক্তরা কমেন্ট করেছেন। অভিনেত্রীর বাবার সুস্থতা কামনা করেছেন অনেকেই।

বহুগুণ সম্পূর্ণা অভিনেত্রী নুসরাত ফারিয়া। যেমন অভিনয়ে পারদর্শী, তেমনে নাচ, মডেলিং এবং গানেও। শুধু তাই নয়, পর্দার সামনে কাজ শুরু করেছিলেন আরজে এবং টেলিভিশন উপস্থাপিকা হিসেবেই। কম বয়সে ছিলেন অত্যন্ত ভালো বিতার্কিক। দেশের বাইরেও একাধিকবার অভিনয় করেছেন তিনি। ভারতীয় বাংলার অভিনেতাদের সাথে যৌথ প্রযোজনার সিনেমা করে ওপার বাংলায়ও পরিচিতি লাভ করেছেন।  

;