বিএসইসির চেয়ারম্যান পদে পুনর্নিয়োগ পাচ্ছেন শিবলী রুবাইয়াত



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান হিসেবে পুনর্নিয়োগ পাচ্ছেন অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম। তাকে আরও চার বছরের জন্য চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেওয়া হয়। এছাড়া বিএসইসিতে আরও চারজন কমিশনার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

চলতি সপ্তাহে এ-সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হতে পারে বলে মন্ত্রণালয় সূত্রে তথ্য জানা গেছে।

এর আগে, ২০২০ সালের ১৭ মে বৈশ্বিক মহামারি করোনা পরিস্থিতির মধ্যে অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামকে ৪ বছরের জন্য বিএসইসির চেয়ারম্যান হিসেবে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ প্রদান করে সরকার। সে হিসেবে চলতি বছরের ১৬ মে তার মেয়াদ শেষ হচ্ছে।

সূত্রে জানা গেছে, ইতোমধ্যে অর্থমন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন আইন, ১৯৯৩ এর ধারা-৫(৬) অনুযায়ী আগামী ১৭ মে ২০২৪ তারিখ হতে পরবর্তী ৪ বছরের জন্য আরও এক মেয়াদের জন্য অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতকে বিএসইসি চেয়ারম্যান হিসেবে চুক্তিভিত্তিক পুনঃনিয়োগ দেওয়ার সুপারিশ করে সরকার প্রধানের দফতরে চিঠি পাঠিয়েছে। সেই দফতরের সম্মতি সাপেক্ষে তার পুনঃনিয়োগ চূড়ান্ত হয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। চলতি সপ্তাহের সোম-মঙ্গলবার প্রজ্ঞাপন জারি করতে পারে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ।

তথ্য মতে, ২০২০ সালের ১৭ মে বিএসইসির চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের নেতৃত্বাধীন কমিশন দেশের পুঁজিবাজারকে বিশ্বমানের পুঁজিবাজারে পরিণত করতে বেশকিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। পাশাপাশি পুঁজিবাজারে বিদেশি বিনিয়োগ টানতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রোড-শো করেছে বর্তমান কমিশন। দেশের পুঁজিবাজারকে বিদেশিদের কাছে তুলে ধরতে বিভিন্ন ধরনের সভা-সেমিনার করেছেন। এর মাধ্যমে তিনি বিশ্বের দরবারে দেশের অর্থনীতি ও পুঁজিবাজারকে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন।

অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোর আন্তর্জাতিক ফোরাম আইওস্কোর এশিয়া অঞ্চলের ভাইস-প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

   

গ্লোবাল ইসলামী ব্যাংকের দুটি উপশাখা উদ্বোধন



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আধুনিক ব্যাংকিং সেবার প্রতিশ্রুতি নিয়ে নারায়ণগঞ্জ ও কুমিল্লায় গ্লোবাল ইসলামী ব্যাংকের দুটি উপশাখা উদ্বোধন করা হয়েছে।

সোমবার (২০ মে) নারায়ণগঞ্জের সারুলিয়া এবং কুমিল্লার ধোড়করায় উপশাখা দুটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয় বলে সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে ব্যাংকের কমিউনিকেশনস অ্যান্ড ব্র্যান্ডিং ডিভিশনের এফএভিপি অ্যান্ড ইন-চার্জ সফিকুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, প্রধান অতিথি হিসেবে অনলাইন মাধ্যমে উপশাখাগুলোর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ হাবিব হাসনাত।

এ সময় ব্যাংকের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী মশিউর রহমান জেহাদ, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক সামি করিম, প্রধান কার্যালয়ের বিভাগীয় প্রধান, শাখা ব্যবস্থাপক, ব্যাংকের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তাসহ আমন্ত্রিত সম্মানিত অতিথি ও গ্রাহকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ও বিশ্বস্ত ব্যাংকিং সেবার মাধ্যমে ব্যাংকটি দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে স্বকীয়তা বজায় রেখে অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে শাখা ও উপশাখা সম্প্রসারণ করবে বলে অনুষ্ঠানে আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়।

;

এসএমই পণ্য মেলা-২০২৪ এ ইসলামী ব্যাংকের স্টল উদ্বোধন



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সাত দিনব্যাপী ১১তম জাতীয় ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) পণ্য মেলা- ২০২৪ এ ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ পিএলসির স্টল ঢাকার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে উদ্বোধন করা হয়।

রোববার (১৯ মে) ব্যাংকের অ্যাডিশনাল ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মো. আলতাফ হুসাইন প্রধান অতিথি হিসেবে এ স্টল উদ্বোধন করেন।

ব্যাংকের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট এএসএম রেজাউল করিম, এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ড. মুহাম্মদ সোলায়মান ও সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. শহিদুল ইসলামসহ ব্যাংকের নির্বাহী ও কর্মকর্তাগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

;

অটোরিকশাচালকের দলকে নগদের জমি বুঝিয়ে দিলেন সাকিব



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস নগদের ঘোষণা করা দেশের ইতিহাসে সর্ববৃহৎ উপহার ক্যাম্পেইনে এবার জমি জিতে নিলেন ঢাকার সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক আকিজুল ইসলাম ও তার দল। সম্প্রতি প্রবাসী পল্লী গ্রুপের প্রজেক্টে এই জমি হস্তান্তর করেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার এবং বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক আকিজুলের এই বিজয়ী দলের অন্য দুই সদস্য হলেন আসলাম হোসেন ও মাসুম ইসলাম। নগদের ডেপুটি চিফ মার্কেটিং অফিসার মোহাম্মদ সোলায়মান বিজয়ী আকিজুলকে তাঁর সিএনজি করেই প্রবাসী পল্লীতে নিয়ে আসেন। আর পথে মাস্ক পরে কৌশলে সেই সিএনজিতে উঠে পড়েন সাকিব আল হাসান। জমিতে এসে সাকিবকে চিনতে পেরে আনন্দে আত্মহারা হয়ে পড়েন সিএনজিচালক আকিজুল। আর জমি জেতার খবরে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনিসহ অন্য বিজয়ীরা। এটি ছিল এই ক্যাম্পেইনের আওতায় চতুর্থ জমি হস্তান্তর।

পুরো ক্যাম্পেইন জুড়ে মোট আটটি জমি বিজয়ী গ্রাহকদের উপহার দেবে নগদ। ঈদ উৎসবকে সামনে রেখে দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো জমি জেতার অফার নিয়ে আসে নগদ। এই ক্যাম্পেইনে নগদের সাথে জমির জন্য ল্যান্ড পার্টনার হিসেবে যুক্ত হয়েছে পূর্বাচল প্রবাসী পল্লী লিমিটেড। এই ক্যাম্পেইনে মাত্র তিন ধাপে ঢাকায় জমি জেতার সুযোগ পাচ্ছে গ্রাহকেরা। এছাড়াও তালিকায় আছে শতাধিক মোটরবাইক, টেলিভিশন, ফ্রিজ, এসি, স্মার্টফোন, স্মার্ট ওয়াচসহ ২০ কোটি টাকার পুরস্কার।

এদিন আগেই দুই বিজয়ীকে নিয়ে আসা হয় প্রবাসী পল্লীতে। তবে তারা জানতেন না জমি জয়ের কথা। আর দলনেতা আকিজুলের সিএনজি ভাড়া করে প্রবাসী পল্লী রওনা দেন মোহাম্মদ সোলায়মান। পথিমধ্যে গাড়ি নষ্ট হওয়ার অজুহাতে মাস্ক পরে সিএনজিতে ওঠেন সাকিব আল হাসান। একেবারে বিজয়ীদের জমিতে এসে সিএনজি থেকে নামেন সাকিব।

প্রথমত সাকিবকে নিজের সিএনজিতে এনেছেন, এটাই জীবনের বড় প্রাপ্তি মনে করছিলেন আকিজুল। এরপর সাকিবের কাছ থেকে জমি পেয়ে আবেগ যেন আর বাঁধ মানছিল না। চোখ মুছতে মুছতে আকিজুল বললেন, ‘আল্লাহ আজকের দিনটা এইভাবে আমার নামে দিবে, আমি কখনো স্বপ্নও দেখি নাই। সাকিব আল হাসানের মতো বিখ্যাত মানুষকে সিএনজিতে তুলছি, এটাই তো বিশ্বাস করতে পারছি না। এখন জমিও জিতলাম। আমার নসিবে এসব ছিল, কোনোদিন ভাবতে পারিনি।’

সামান্য কিছু টাকা অ্যাড মানি করে দল গঠনের যোগ্য হন আকিজুল। এরপর তিনি আসলাম ও মাসুমকে নিয়ে দল গঠন করেন। আসলাম বলছিলেন, তারা এই ক্যাম্পেইনে বিশ্বাস করেননি। তিনিও আবেগী হয়ে বললেন, ‘আকিজুল ভাই বিজ্ঞাপন দেখে এই দল করছিল। তারপর আমাদের বলল, নগদ বেশি ব্যবহার করতে। নগদ আমরা সবসময় ব্যবহার করি, কিন্তু জমির ব্যাপারটা বিশ্বাস হয়নি। আজ সেই জমি হাতে পেয়ে গেলাম।’

এর আগে ক্যাম্পেইনের প্রথম জমি জিতেছিলেন রাসেল আহমেদ, মোহাম্মদ রুবেল ও মোহাম্মদ রাজীব। প্রথম জমিটি হস্তান্তর করেন সাবেক জাতীয় ক্রিকেট দল অধিনায়ক তামিম ইকবাল। পরের সপ্তাহে জমি জেতেন নড়াইলের দেবাশিষ ভৌমিক, পিন্টু ভৌমিক ও সোমা ভৌমিক। এই জমিটির কাগজপত্র বিজয়ীদের হাতে তুলে দেন আরেক সাবেক অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এরপর তৃতীয় জমিটি জেতেন মোঃ হাবিবুর রহমান, তার স্ত্রী ও সন্তানের দল। এই জমিটি হস্তান্তর করেন অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ।

জমি জেতার এই ক্যাম্পেইনে অংশ নিতে তিনটি কাজ করতে হবে। প্রথমত নগদে কমপক্ষে ৫০০ টাকার লেনদেন অথবা কমপক্ষে ১০০ টাকার মোবাইল রিচার্জ বা ব্যাংক থেকে নগদে ১,০০০ টাকা অ্যাড মানি করতে হবে। এ ছাড়া বিদেশ থেকে পাঠানো ৫,০০০ টাকা বা তার বেশি (সরকারি প্রণোদনা ব্যতীত) রেমিট্যান্স নগদে গ্রহণ করেও এই ক্যাম্পেইনে অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবেন। সাথে সাথে এই ব্যবহারকারী এই ক্যাম্পেইনে অংশ নেওয়ার উপযুক্ত হয়েছেন বলে একটি মেসেজ পাবেন। সে ক্ষেত্রে তাকে তিনজনের একটি দল গঠন করতে হবে। এদের সবার নগদ অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে। এরপর দলের সবাই ক্যাম্পেইন জুড়ে নগদে নিয়মিত লেনদেন করলেই জমি জেতার সুযোগ পাবেন।

;

সিটি ব্যাংকের নতুন অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক আজিজুর রহমান



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সিটি ব্যাংক সম্প্রতি কাজী আজিজুর রহমানকে অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এএমডি) হিসেবে পদোন্নতি প্রদান করেছে। তিনি এর আগে একই ব্যাংকের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ডিএমডি) ও চিফ ইনফরমেশন অফিসার (সিআইও) হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

সোমবার (২০ মে) সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে ব্যাংকের জনসংযোগ প্রধান ইয়াহিয়া মির্জা এ তথ্য জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০০৭ সালে কাজী আজিজুর রহমান এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে সিটি ব্যাংকে যোগদান করেন এবং ২০১৯ সাল পর্যন্ত ব্যাংকটির ডিএমডি ও সিআইও হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০২১ সালে তিনি কিছু সময় মেঘনা ব্যাংকে কাটিয়ে আবার সিটি ব্যাংকে ফিরে আসেন।

৩৪ বছরের কর্মজীবনে কাজী আজিজুর রহমান বহুজাতিক কর্পোরেশন, স্বাস্থ্যসেবা এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানসহ বিদেশে গ্রবোস্কি অ্যান্ড পুওরট বি.ভি. নেদারল্যান্ডস-এর মতো বৃহৎ কোম্পানিতে প্রযুক্তি উন্নয়ন বিভাগে কাজ করেছেন।

২০০৭ সালে একটি ‘প্রবলেম ব্যাংক’ থেকে সিটি ব্যাংকের যে রূপান্তর বা ট্রান্সফরমেশন প্রজেক্ট শুরু হয়, সেই ট্রান্সফরমেশন টিমের অন্যতম শীর্ষ সদস্য হিসেবে ব্যাংকটিতে যোগদান করে আজিজ রহমান এ ব্যাংকের বর্তমান উৎকর্ষে পৌঁছানোর ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। তিনি সিটি ব্যাংককে একটি পূর্ণাঙ্গ অনলাইন ব্যাংকে রূপান্তর করাসহ ২০১৩ সালে ‘সিটিটাচ’ ইন্টারনেট ব্যাংকিং চালু করার মাধ্যমে ব্যাংকটির ডিজিটাল মাধ্যমে যাত্রা শুরুর পেছনে প্রধান ভূমিকা রাখেন। সিটি ব্যাংকের ‘সিটিটাচ’ বর্তমানে দেশের সবচাইতে জনপ্রিয় ইন্টারনেট ও ডিজিটাল ব্যাংকিং অ্যাপ হিসেবে স্বীকৃত।

আজিজ রহমানের নেতৃত্বে সিটি ব্যাংকে এ মুহূর্তে একটি পূর্ণাঙ্গ ডিজিটাল ব্যাংক প্রতিষ্ঠার কাজ চলছে। তিনি ভারতের নিউপোর্ট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইলেকট্রনিকস ও কমিউনিকেশনসে মেজরসহ ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে স্নাতক এবং প্রযুক্তি বিষয়ে বিভিন্ন দেশ থেকে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত।

;