চার দেশে ইন্টার্নশিপ প্লেসমেন্ট পেয়েছে শেকৃবি শিক্ষার্থীরা



শেকৃবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা ২৪

ছবি: বার্তা ২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানী ঢাকায় অবস্থিত শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) এএসভিএম অনুষদের সপ্তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা পাচ্ছেন চারটি দেশে ইন্টার্নশিপ করার সুযোগ। এক্ষেত্রে ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রাম-২০২২ এর ইন্টারন্যাশনাল প্লেসমেন্ট হিসেবে চারটি দেশ মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, ভারত, নেপাল নিশ্চিত হয়েছে।

খোজ নিয়ে জানা যায়, এর আগে হওয়া অধিকাংশ ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রাম কার্যক্রম ভারতে হয়েছে। তাছাড়া ২০২০ সালে মালয়েশিয়াতে ইন্টার্নশিপ কার্যক্রমের সুযোগ আসলেও করোনা মহামারিতে আটকে যায় সেই সুযোগ। তবে এই প্রথম চারটি দেশে শিক্ষার্থীদের ইন্টার্নশিপ করার সুযোগ এসেছে। ইন্টার্নশিপ কার্যক্রমে অংশগ্রহণরত শিক্ষার্থীসহ অনুষদের বিভিন্ন লেভেলের শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন দেশে ইন্টার্ন করার এ ধরণের সুযোগ আসায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন।পরবর্তীতে ইউরোপ কিংবা উন্নত বিভিন্ন দেশে ইন্টার্ন করার সুযোগ আসবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রামের সঙ্গে সংযুক্ত সপ্তম ব্যাচের শিক্ষার্থী আবু হানিফ বলেন, 'আমরা ১ নভেম্বর থেকে ইন্টার্নশিপ শুরু করেছি। সবকিছু ভালোভাবে চলছে। এর মধ্যে চারটি দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ইন্টার্নশিপ প্লেসমেন্ট নিশ্চিত হওয়ার খবরে আমরা আনন্দিত। আশা করি আমরা ভালোকিছু শিখতে পারব। আমাদের ইন্টার্নশিপের জন্য দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম ও সময়োপযোগী পদক্ষেপের জন্য ডিন স্যারকে ধন্যবাদ জানাই। ইন্টার্নশিপ কো-অর্ডিনেটর, সকল বিভাগের চেয়ারম্যান এবং সুপারভাইজার শিক্ষকবৃন্দের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ।' 

এএসভিএম অনুষদের ডিন অধ্যাপক কে বি এম সাইফুল ইসলাম বলেন, 'ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রাম হলো হবু ভেটেরিনারিয়ানদের হাতেকলমে জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জন করার সর্বোচ্চ সুযোগ। আমাদের অনুষদের শিক্ষার্থীদের আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে যোগ্য করার লক্ষ্যে দেশে জ্ঞান অর্জনসহ দেশের বাইরে বিভিন্ন দেশে ইর্ন্টারশিপ প্রাগ্রামে প্রেরণ করার প্রচেষ্টা ছিল দীর্ঘ দিনের। দীর্ঘ ত্যাগ, অপেক্ষা এবং পরিশ্রমের অর্জন হিসেবে প্রথমত এখন চারটি দেশে ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রামে আমাদের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণের সুযোগ তৈরি করতে পেরেছি। তবে পরবর্তীতে ইনশাআল্লাহ ইউরোপ, আমেরিকার দেশগুলোতে যেতে পারবে সেই লক্ষ্যে আমরা অগ্রসর হচ্ছি। আমরা আমাদের অনুষদকে প্রাণী চিকিৎসা এবং প্রাণী উৎপাদন বিষয়ক শিক্ষা  ও গবেষণায় অনন্য প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। আমরা অনুষদের শিক্ষকগণ অনুষদের সর্বোচ্চ মানদণ্ড স্থাপনের লক্ষ্যে পরিশ্রম করে যাচ্ছি।'  

   

জবিতে ফ্যাকাল্টি ডেভেলপমেন্ট ফর হায়ার এডুকেশন শীর্ষক কর্মশালা 



জবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা ২৪

ছবি: বার্তা ২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) 'ফ্যাকাল্টি ডেভেলপমেন্ট ফর হায়ার এডুকেশন ইন জগন্নাথ ইউনিভার্সিটি' শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালা আয়োজন করেছে ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স সেল (আইকিউএসি)।

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের টিচার লাউঞ্জে এ কর্মশালাটি অনুষ্ঠিত হয়।

আইকিউএসি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক অধ্যাপক ড. আইন-উল হুদার সভাপতিত্বে কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. মো. হুমায়ুন কবীর চৌধুরী।

এসময় স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন আইকিউএসি'র অতিরিক্ত পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. সরোয়ার আলম এবং মডারেটর হিসেবে ছিলেন সংস্থাটির অতিরিক্ত পরিচালক ড. মো. রফিকুল ইসলাম।

কর্মশালায় টেকনিক্যাল সেশনে 'ফ্যাকাল্টি ডেভেলপমেন্ট ফর হায়ার এডুকেশন ইন জগন্নাথ ইউনিভার্সিটি' শীর্ষক উপস্থাপনা করেন সেন্ট্রাল উইমেন্স ইউনিভার্সিটির সিএসই বিভাগের চেয়ারম্যান ও সংস্থাটির অতিরিক্ত পরিচালক শাহনাজ পারভিন।

কর্মশালায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও প্রভাষকবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

;

জাবিতে ভর্তি পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বন, আটক ১



জাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষায় 'ডি' ইউনিটের ছাত্রদের পরীক্ষা চলাকালীন মোবাইলে গুগল করে উত্তর প্রদানের সময় একজনকে আটক করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। অসদুপায় অবলম্বনকারী ঐ ছাত্রের নাম সাজ্জাদ হোসেন মিরাজ।

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) 'ডি' ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার দ্বিতীয় শিফটে সকাল ১০টা ২৫ মিনিটে পরীক্ষা চলাকালীন নিয়ম বহির্ভূত অসদুপায় অবলম্বন করে সাজ্জাদ হোসেন মিরাজ নামের এক ছাত্র। তার বাড়ি লক্ষীপুর জেলায়।

এ সময় পরীক্ষার হলে দায়িত্বরত শিক্ষক অধ্যাপক ড. নজরুল ইসলাম জানান, সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের দ্বিতীয় তলায় ২৮২ নম্বর কক্ষে পরীক্ষার শুরুতে সবাইকে মোবাইল ফোন সামনে রেখে যাওয়ার কথা বললেও, ঐ ছাত্রের কাছে কোনো মোবাইল ফোন নেই বলে অস্বীকার করেন। এরপর পরীক্ষা শুরু হলে ঐ ছাত্র প্রবেশপত্রের নিচে মোবাইল রেখে গুগলে সার্চ করে উত্তর লিখছিলেন। বিষয়টি দায়িত্বরত শিক্ষকের নজরে আসলে তার খাতা নিয়ে তাকে প্রক্টোরিয়াল টিমের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এ বিষয়ে প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসান বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসায় ঐ ছাত্র অপরাধ স্বীকার করেছেন। ইতোমধ্যে আমরা ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট ঢাকার আশুলিয়া সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আশরাফুর রহমানকে জানিয়েছি। পরীক্ষা শেষে ভ্রাম্যমাণ আদালত তার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিবেন।

এছাড়াও একই ইউনিটে ৪র্থ শিফটের এক পরীক্ষার্থী দ্বিতীয় শিফটে গণিত ও পরিসংখ্যান বিভাগে পরীক্ষা দিতে যাওয়ায় তার পরীক্ষা বাতিল ঘোষণা করা হয়।

;

জাবিতে চলছে 'ডি' ইউনিটে ভর্তিচ্ছু ছাত্রদের পরীক্ষা



জাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা ২৪

ছবি: বার্তা ২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) ভর্তি পরীক্ষার চতুর্থ দিন 'ডি' ইউনিটের অধীনে জীববিজ্ঞান অনুষদে ভর্তিচ্ছু ছাত্রদের পরীক্ষা চলমান। এর আগে গতকাল একই ইউনিটে ছাত্রীদের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) 'ডি' ইউনিটের ভর্তি পরিক্ষা প্রথম শিফটে সকাল ৯টা হতে শুরু হয়েছে এবং ৪র্থ শিফটে বেলা ২ টা ৫০ মিনিটে শেষ হবে।

'ডি' ইউনিটে ছাত্রদের আসন সংখ্যা ১৫৫টি এবং ছাত্রীদের আসন সংখ্যা ১৫৫টি। সর্বমোট ৩১০টি আসনের বিপরীতে আবেদনকারীর সংখ্যা ছাত্র ৩২ হাজার ৯৫ জন এবং ছাত্রী ৩৭ হাজার ৩২১ জন। সে হিসেবে ছাত্রদের প্রতি আসনের বিপরীতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ২৪১ জন। অন্যদিকে ছাত্রীদের প্রতি আসনের বিপরীতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন ২০৮ জন ভর্তিচ্ছু।

এর আগে, সকালের দ্বিতীয় শিফটে নতুন কলা ভবনে ভর্তি পরীক্ষা পরিদর্শনে আসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. নূরুল আলম। এ সময় উপাচার্যের সাথে উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক শেখ মো. মনজুরুল হক, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক মোহাম্মদ মোস্তফা ফিরোজ, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক রাশেদা আখতার, সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক বশির আহমেদ, রেজিস্ট্রার মো. আবু হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ায় উপাচার্য সন্তোষ প্রকাশ করেন।

এছাড়া আগামীকাল (২৯ ফেব্রুয়ারি) ‘বি’ ইউনিট (সমাজবিজ্ঞান অনুষদ ও আইন অনুষদ), আইবিএ-জেইউ এবং ‘ই’ ইউনিট (বিজনেস স্টাডিজ অনুষদ)-এর ভর্তি পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে ভর্তি পরীক্ষা শেষ হবে।

;

কুবিতে চার দফা দাবিতে ক্লাসে নীরবতা পালন কর্মসূচি



কুবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) শিক্ষক সমিতি চার দফা দাবিতে আগামী রোববার পর্যন্ত শ্রেণীকক্ষে ক্লাসের শুরুতে পাঁচ মিনিট নীরবতা পালনের মাধ্যমে মৌন প্রতিবাদ কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের শিক্ষক মিলনায়তনে হওয়া এক জরুরি সাধারণ সভার সভা বিবরণী থেকে বিষয়টি জানা যায়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের ও সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান স্বাক্ষরিত সভা বিবরণী থেকে জানা যায়, গত ১৯ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য কার্যালয়ে শিক্ষকদের উপর প্রাণনাশের হামলার নিন্দা, প্রতিকার ও বিচারের দাবি জানানো হয়। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে আগামী ৩ মার্চ চার দফা দাবির পরিপ্রেক্ষিতে প্রত্যেক শিক্ষক প্রতি ক্লাসের শুরুতেই ৫ (পাঁচ) মিনিট নিরবতা পালনের মাধ্যমে মৌন প্রতিবাদ কর্মসূচী পালনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

চার দফা দাবিগুলো হলো- কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের দৃশ্যমান নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিতকরণ, বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার জাকির হোসেন এবং পরিকল্পনা ও উন্নয়ন দপ্তরের পরিচালক (চুক্তিভিত্তিক নিয়োগপ্রাপ্ত) দেলোয়ার হোসেনসহ অন্যান্য উচ্ছৃঙ্খল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন পূর্বক যথাযথ শান্তি নিশ্চিতকরণ, ক্যাম্পাস থেকে হামলাকারী বহিরাগত সন্ত্রাসী ও অছাত্রদের চিহ্নিত করে গ্রেফতারপূর্বক বিচার নিশ্চিত করা, নিরাপত্তা রক্ষায় ব্যর্থ ও মদদদাতা প্রক্টর জনাব কাজী ওমর সিদ্দিকী'র অপসারণ ও ক্যাম্পাস থেকে হামলাকারী বহিরাগত সন্ত্রাসী ও অছাত্রদের চিহ্নিত করে গ্রেফতারপূর্বক বিচার নিশ্চিত করা।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান বলেন, 'গত ১৯ ফেব্রুয়ারি উপাচার্য দপ্তরে শিক্ষকদের উপর যে হামলা হলো সে বিষয়ে প্রশাসন এখনো কোন দৃশ্যমান পদক্ষেপ নেয়নি। স্বয়ং মাননীয় উপাচার্যকে হামলাকারীদের সাথে বিভিন্ন সময় একসঙ্গে মিটিং করতে দেখা গিয়েছে। সেই পরিপ্রেক্ষিতে সকল শিক্ষক ক্লাস শুরুর পাঁচ মিনিট নীরবতা পালনের মাধ্যমে মৌন প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করবে। তারপরেও উক্ত ঘটনার কোন বিচারের ব্যবস্থা না করা হলে আমরা আরো কঠোর আন্দোলনে যাব।'

;