অবরোধের সমর্থনে জবি ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল



জবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা ২৪

ছবি: বার্তা ২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপি ও সমমনা দলগুলোর ডাকা সারাদেশে ৮ম ধাপে অবরোধের সমর্থনে রাজধানী পুরান ঢাকায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।

বুধবার (২৯ নভেম্বর) সকাল ৭ টায় পুরান ঢাকার দয়াগঞ্জ সড়কে ছাত্রদলের সভাপতি মো. আসাদুজ্জামান আসলাম ও সাধারণ সম্পাদক সুজন মোল্লার নেতৃত্বে মিছিলটি কয়েকটি সড়ক প্রদক্ষিণ করে শেষ হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি বিএম মিলাদ উদ্দিন ভূইঁয়া, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সহ-সভাপতি জুলকার নাইন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুমন সর্দার, জাফর আহমেদ, প্রচার সম্পাদক (যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদমর্যাদা) মোস্তাফিজুর রহমান রুমি, ইয়াকুব শেখ অনিক, দপ্তর সম্পাদক (যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদমর্যাদা) সাখাওয়াতুল ইসলাম খান পরাগ, ইয়াসির আরাফাত, আসিফ আল ইমরান, মেহেদী হাসান অর্নব, আরিফুল ইসলাম আরিফ।

এ সময় বিক্ষোভ মিছিলে আরও উপস্থিত ছিলেন সমাজসেবা সম্পাদক রবিন মিয়া শাওন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক রবিউল ইসলাম শাওন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মিরাজ, আপ্যায়ন সম্পাদক মুজাম্মেল মামুন ডেনি, সহ প্রচার সম্পাদক মেহেদী হাসান, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক নাইমুর রহমান দুর্জয়, সাঈদুল হাসান, মাহবুব আলম, মামুন জামান, ফয়সাল, মাসফিক, মনিরুজ্জামান, আয়াত, সদস্য রায়হান, তাজুল, আনোয়ার সহ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা।

বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী সংক্ষিপ্ত সমাবেশে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সুজন মোল্লা বলেন, 'যেই দলের ইতিহাস ও ঐতিহ্যই হচ্ছে বাকশালী রাষ্ট্র তৈরি করা, সেই দলের কাছ থেকে গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র আশা করা, আর হিজড়ার কাছে বাচ্চা আশা করা এক-ই কথা। এক দফা দাবি আদায় তথা স্বৈরাচারী শেখ হাসিনার পদত্যাগ ও অবৈধ তফসিল বাতিল না হওয়া পর্যন্ত, ছাত্রদলের প্রতিটি নেতাকর্মী রাজপথে অবস্থান করবে। এই দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের একটি নেতাকর্মীও ঘরে ফিরে যাবে না ইনশাআল্লাহ।' 

এদিকে অবরোধ প্রতিরোধে সকাল থেকেই জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকসহ কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার ও ভাষা শহিদ রফিক ভবনের নিচে সতর্ক অবস্থান দেখা যায়।

   

জাবিতে ‘এ’ ইউনিটের পরীক্ষা সম্পন্ন, উপস্থিতি ৭৯.১৪ শতাংশ



জাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা ২৪.কম

ছবি: বার্তা ২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ৬টি শিফটে গাণিতিক ও পদার্থ বিষয়ক অনুষদ এবং ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজিভুক্ত (আইআইটি) ‘এ’ ইউনিটের পরীক্ষার মধ্য দিয়ে শেষ হলো ভর্তি পরীক্ষার প্রথম দিন। তবে ভর্তি পরীক্ষা চলবে আগামী ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টায় 'এ' ইউনিটের প্রথম শিফটের পরীক্ষা শুরু হয়ে বিকেল ৫টা ৪০ মিনিটে ৬ষ্ঠ শিফটের মধ্য দিয়ে শেষ হয়। এর মধ্যে প্রথম ২টি শিফটে ছাত্রীরা ও শেষের ৪টি শিফটে ছাত্ররা অংশ নেয়।

এ বছর ‘এ’ ইউনিটে মোট আসন সংখ্যা ৪৪৬টি, যার মধ্যে গাণিতিক ও পদার্থ বিষয়ক অনুষদে ৩৯৬টি এবং ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজিতে (আইআইটি) ৫০টি আসন রয়েছে। এতে ছেলেদের ২২৩টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছেন ৩৩ হাজার ৭০৫ জন ও মেয়েদের ২২৩টি আসনের বিপরীতে ১৬ হাজার ৭১১ জন আবেদন করেছেন। সে হিসেবে ৪৪৬টি সিটের প্রতিটির বিপরীতে লড়ছেন ১১৩ জন।

পরীক্ষায় উপস্থিতির বিষয়ে গাণিতিক ও পদার্থ বিষয়ক অনুষদের ডিন অধ্যাপক ফরিদ আহমদ বার্তা২৪.কমকে জানান, আজকের পরীক্ষায় ছাত্রদের মাঝে উপস্থিত ছিল ২৮৪০৯ জন। সে হিসেবে ছাত্রদের উপস্থিতির হার ৮৪.২৯ শতাংশ এবং ছাত্রীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ১২৩৮৬ জন। সে হিসেবে ছাত্রীদের উপস্থিতির হার ৭৪ শতাংশ। পরীক্ষায় সর্বমোট উপস্থিতি ৭৯.১৪ শতাংশ।

এর আগে, সকালের প্রথম শিফটে সমাজবিজ্ঞান অনুষদে ভর্তি পরীক্ষা পরিদর্শনে আসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. নূরুল আলম। এ সময় উপাচার্যের সাথে উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক শেখ মো. মনজুরুল হক, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক মোহাম্মদ মোস্তফা ফিরোজ, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক রাশেদা আখতার, সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক বশির আহমেদ, রেজিস্ট্রার মো. আবু হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ায় উপাচার্য সন্তোষ প্রকাশ করেন।

ভর্তি পরীক্ষার প্রথম শিফটের পরিদর্শনের প্রাক্কালে উপাচার্য ড. মো. নূরুল আলম সাংবাদিকদের বলেন, সুন্দর পরিবেশে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। উপস্থিতির হার ৭০-৮০ শতাংশ। আমরা এ বছর ভাসমান কোনো দোকান বসতে দেইনি। সে জন্য ভিড়ও কম আছে। নির্বিঘ্নে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

এছাড়া আগামী রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টায় প্রথম শিফটে নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগ এবং চারুকলা বিভাগভুক্ত 'সি১' ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। একইদিন কলা ও মানবিক অনুষদ এবং বঙ্গবন্ধু তুলনামূলক সাহিত্য ও সংস্কৃতি ইন্সটিউটভুক্ত 'সি' ইউনিটের পরীক্ষা ২য় শিফটে সকাল ১০টা ২৫ মিনিটে শুরু হয়ে বিকেল ৫টা ৪০ মিনিটে শেষ হবে।

'সি১' ইউনিটে ৩২টি ছাত্র এবং ৩২টি ছাত্রী আসনের বিপরীতে ১ হাজার ৮৯৫ জন ছাত্র এবং ২ হাজার ৩৩৪ জন ছাত্রী আবেদন করেছেন। অন্যদিকে 'সি’ ইউনিটে ছাত্রদের ১৯৪টি এবং ছাত্রীদের ১৯৪টি আসনের বিপরীতে ১৮ হাজার ৬৬ জন ছাত্র এবং ২১ হাজার ৭৭৯ জন ছাত্র আবেদন করেছে।

উল্লেখ্য, ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে ১ হাজার ৮৪৪টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে ১ লাখ ৯৭ হাজার ৩৫৯টি। সে হিসেবে এ বছর প্রতি আসনের বিপরীতে লড়বেন প্রায় ১০৮ জন ভর্তিচ্ছু।

ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য এবং ফলাফল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি সম্পর্কিত ওয়েবসাইট ju-admission.org এ পাওয়া যাবে।

;

সংসদ সদস্য চুন্নুর মন্তব্যের প্রতিবাদে চবি ছাত্রলীগের মানববন্ধন



চবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা ২৪.কম

ছবি: বার্তা ২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও বিরোধী দলের চিফ হুইপ সংসদ সদস্য মুজিবুল হক চুন্নু চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ছাত্রলীগকে নিয়ে জাতীয় সংসদে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বক্তব্যের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে চবি ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে দুপুর আড়াইটার দিকে শুরু হয় এ মানববন্ধন।

শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, পার্থ প্রতিম বড়ুয়া বলেন, বাংলাদেশের প্রত্যেকটি আন্দোলনে ছাত্রলীগ অবদান রেখে এসেছে। কিন্তু মুজিবুল হক চুন্নু যেই মন্তব্য করেছেন সেটির কোনো ভিত্তি নেই। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। চুন্নুকে বলতে চাই আপনি আপনার বক্তব্য মহান জাতীয় সংসদে দাঁড়িয়ে প্রত্যাহার করবেন এবং ছাত্রলীগের কাছে ক্ষমা চাইবেন।

চবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিক্সটি নাইন গ্রুপের নেতা সাইদুল ইসলাম সাইদ বলেন, সেই ৫২ সাল থেকে শুরু করে ৭১ পর্যন্ত যতগুলো আন্দোলন হয়েছে সবগুলোতে ছাত্রলীগ অনেক বড় ভূমিকা পালন করেছে। চুন্নু সাহেব কোনো তথ্য প্রমাণ ছাড়া কিভাবে সামান্য পত্রিকার উপর নির্ভর করে এমন মন্তব্য করতে পারেন। ছাত্রলীগ এটি কখনোই মেনে নেবে না। আপনি যদি আপনার মন্তব্য পরিহার না করেন তাহলে আমরা আপনার বিরুদ্ধে গণআন্দোলন গড়ে তুলবো।

ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি মিজান শাইখ বলেন, ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে বিরোধী দলের চিফ হুইপ সাংসদ মুজিবুল হক চুন্নু যেই মন্তব্য করেছেন সেটি ভিত্তিহীন।

উল্লেখ্য, গত ১৮ ফেব্রুয়ারি জাতীয় সংসদের অধিবেশনে সংসদ সদস্য মুজিবুল হক চুন্নু ছাত্রলীগের অর্থ কেলেঙ্কারির বিষয় তুলে ধরেন। এ সময় তিনি বলেন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এ বছর (২০২৪) ভর্তি ফরম বিক্রি করে ২১ কোটি ৯১ লাখ টাকা আয় হয়েছে। সার্ভিস চার্জসহ মোট আয় ২৩ কোটি টাকা। গত বছর এ আয় ছিল ১৭ কোটি ১৪ লাখ টাকা। ফরম বিক্রির এ টাকা উপাচার্য, উপ-উপাচার্যসহ শিক্ষকরা ভাগ বাটোয়ারা করে নেন। ছাত্রলীগও অতীতের মতো এ টাকা ২ শতাংশ ভাগ চেয়েছে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য শিরীন আখতারের দায়িত্ব ৪ বছর পূর্ণ হয়েছে, যে কোনো সময় উপাচার্য পদে পরিবর্তন আসতে পারে। ছাত্রলীগের ধারণা, উপাচার্য পরিবর্তন হলে ফরম বিক্রির টাকার ভাগ পাওয়া অনিশ্চিত হয়ে যাবে। তাই তারাও টানা সংগ্রামে মনোযোগী হয়েছে।

;

কুবির ৭ শিক্ষকের বিরুদ্ধে জিডি



কুবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য দপ্তরে বাকবিতণ্ডার ঘটনায় সাত জন শিক্ষকের নামে সাধারণ ডায়েরি করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি ডেপুটি রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ জাকির হোসেন। এছাড়া আরো ১৫ থেকে ২০ অজ্ঞাতনামাকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিষয়টি নিশ্চিত করেন মোহাম্মদ জাকির হোসেন।

সাধারণ ডায়েরিতে বলা হয়, দাপ্তরিক কাজে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি পূর্ব অনুমতিক্রমে উপাচার্য কক্ষে গেলে ভিতরে অবস্থানরত শিক্ষকেরা অফিসারদের এখানে কেন এসেছো বলে অশ্লীল গালাগালি ও মারমুখী ভঙ্গীতে শারীরিকভাবে নাজেহাল করে এবং ধাক্কা দিয়ে জোর করে উপাচার্যের কক্ষ থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করে। তখন আমি বলি স্যার আমরা দাপ্তরিক কাজে ভিসি স্যারের কাছে এসেছি। আপনারা আমাদের সাথে এমন আচরণ কেন করছেন, 'আমরা কি মানুষ নই?' পরবর্তীতে ভিতরে থাকা শিক্ষকবৃন্দ আমাদের দিকে তেড়ে এসে টানা হেচড়া করে উপাচার্য স্যারের কক্ষ থেকে আমাকে এবং আমার সাথে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিকল্পনা ও উন্নয়ন দপ্তরের পরিচালক মো. দেলোয়ার হোসেন স্যারকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করে। ভিসি স্যারের সাথে আমরা কথা বলতে চাইলে উপস্থিত শিক্ষকবৃন্দ আমাদের সাথে আরও বেশি খারাপ আচরণ করেন।

সাধারণ ডায়েরিতে আরো উল্লেখ করা হয়, উপাচার্যের কক্ষে বিকট শব্দ ও হট্টগোল শুনে অন্যান্য অফিসারগণ ভিসি স্যারের রুমের সামনে আসেন। আমাদের সহকর্মীগণ আসলে শিক্ষকরা তাদের সাথেও খারাপ আচরণ করেন। পরবর্তীতে আমি ও আমার সিনিয়র অফিসারগণসহ প্রক্টরিয়াল বডি ও উপাচার্যের সহযোগিতায় কোনো রকমে আত্মরক্ষা করে বের হয়ে আসি। তখন ভিতরে থাকা শিক্ষকরা আমাদেরকে চাকরি কিভাবে করি, বাহিরে বের হলে দেখে নিবে বলে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। বর্তমানে আমি ও কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত অফিসারগণ আমাদের চাকরি ও ব্যক্তিগত নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত। এমতাবস্থায় ভবিষ্যতে বিবাদীগণ কর্তৃক আমাদের চাকরি ও ব্যক্তিগত ক্ষতির আশংকা করছি।

সাধারণ ডায়েরিতে মোট সাত জনের নাম উল্লেখ করা হয়। এছাড়া আরো পনেরো থেকে বিশ জনকে অজ্ঞাতনামা হিসেবে অভিযুক্ত করা হয়েছে। জিডিতে উল্লেখিত নামগুলো হলো- বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক নূর মোহাম্মদ রাজু, ফার্মেসি বিভাগের প্রভাষক মো. কামরুল হাসান, অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন, বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. মোকাদ্দেস-উল-ইসলাম, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের, মার্কেটিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মেহেদী হাসান, ইনফরমেশন এন্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি বিভাগের প্রভাষক আলীমুল রাজী।

জিডির বিষয়ে সদর দক্ষিণ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ‘একটা অভিযোগ পাওয়া গেছে। আমরা তদন্ত করছি।'

;

ঢাবির ‘খ’ ইউনিটের প্রতি আসনে লড়বেন ৩৮ জন



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে আন্ডারগ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রামে 'কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিটে' ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) থেকে শুরু হচ্ছে এবারের ভর্তিযুদ্ধ। এবার প্রতি আসনের বিপরীতে লড়বেন ৩৮ জন পরীক্ষার্থী ।

জানা যায়, কলা অনুষদ, আইন আইন অনুষদ ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিটে মোট আসন সংখ্যা ২৯৪৪টি। এর বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে ১ লক্ষ ১২ হাজার ২৭৮টি। এর মধ্যে বিজ্ঞান শাখায় ৪৮ হাজার ৮৩৭ জন, মানবিক শাখায় ৫১ হাজার ৩৯২ জন এবং ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় ১২ হাজার ৪৯ জন পরীক্ষার্থী আবেদন করেছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতর থেকে এ তথ্য জানা যায়।

জনসংযোগ দফতর থেকে জানানো হয়, ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা ঢাকাসহ ৮টি বিভাগীয় শহরে অনুষ্ঠিত হবে। বিভাগীয় কেন্দ্রসমূহ হচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়।

এই ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ৬০ নম্বরের এমসিকিউ এবং ৪০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এই ইউনিটের বহু নির্বাচনি পরীক্ষার জন্য ৪৫ মিনিট এবং লিখিত পরীক্ষার জন্য ৪৫ মিনিট সময় নির্ধারিত থাকবে। ভর্তি পরীক্ষায় মোট ১২০ নম্বরের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা হবে। এর মধ্যে ভর্তি পরীক্ষায় ১০০ এবং মাধ্যমিক/সমমান এবং উচ্চ মাধ্যমিক/সমমান পরীক্ষার ফলাফলের উপর থাকবে ২০ নম্বর।

এর আগে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে আন্ডারগ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রামে ভর্তির জন্য অনলাইনে আবেদন কার্যক্রম গত ১৮ ডিসেম্বর দুপুর ১২টায় শুরু হয়ে ৫ জানুয়ারি রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত চলে। এছাড়াও ভর্তি পরীক্ষার এক ঘণ্টা আগে প্রবেশ পত্র ডাউনলোড করতে পারবে পরীক্ষার্থীরা।

উল্লেখ্য, কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিটের' ভর্তি পরীক্ষা শুক্রবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১২:৩০টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে।

;