Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

লাখাইয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১

লাখাইয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১
ছবি: বার্তা২৪.কম
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
হবিগঞ্জ


  • Font increase
  • Font Decrease

হবিগঞ্জের লাখাইয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে জহিরুল ইসলাম (৩৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন পুলিশসহ অন্তত ৩৫ জন। গুরুতর আহত অবস্থায় অন্তত ১৫ জনকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার (৬ জুন) সন্ধ্যা ৬টা থেকে ৭টা পর্যন্ত উপজেলার রূহিতনশী গ্রামে এ সংঘর্ষ চলে।

নিহত জহিরুল ইসলাম ওই গ্রামের ছমেদ মিয়ার ছেলে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে আহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/07/1559917490504.jpg

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, লাখাই উপজেলার রূহিতনশী গ্রামের আমিনুল হকের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে একই গ্রামের শরীফ তালুকদারের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এ বিরোধের জের ধরে শুক্রবার বিকেলে দু’পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে ঘটনাস্থলেই শরীফ তালুকদারের পক্ষের জহিরুল ইসলাম নিহত হন।

খবর পেয়ে লাখাই থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে আহতদের উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে পাঠায়।

এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন লাখাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এমরান আহমেদ।

আপনার মতামত লিখুন :

চাঁপাইনবাবগঞ্জে মা হত্যা মামলায় ছেলের যাবজ্জীবন

চাঁপাইনবাবগঞ্জে মা হত্যা মামলায় ছেলের যাবজ্জীবন
প্রতীকী

চাঁপাইনাবগঞ্জের শিবগঞ্জে মা হত্যা মামলায় ছেলের যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

দণ্ডিত ব্যক্তি হচ্ছে, শিবগঞ্জ উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামের মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে মো. হাফিজুর রহমান। বুধবার (১৭ জুলাই) দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোঃ শওকত আলী এ রায় প্রদান করেন।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ প্রকাশ, শিবগঞ্জ উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামের মৃত সিরাজুল ইসলাম তার জীবদ্দশায় স্ত্রী হাফিজাকে কিছু জমি লিখে দেন। এতে ছেলে ক্ষুব্ধ হয়ে তার মাকে প্রায় সময় মারধর করত। এরই জের ধরে ছেলে হাফিজুর কয়েকজনকে নিয়ে গত ২০১২ সালের ১২ এপ্রিল তার মা হাফিজাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় হাফিজার বাবা মো. আব্দুর রশিদ বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামি করে শিবগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক মো. মোয়াজ্জেম হোসেন হাফিজুরকে আসামি করে ২০১৩ সালের ১০ জানুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

গৌরীপুরে ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন

গৌরীপুরে ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা ও পৌরশাখা ছাত্রলীগের সদ্য ঘোষিত কমিটি বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন করা হয়েছে। বুধবার (১৭ জুলাই) বিকালে পৌর শহরের কৃষ্ণচূড়া চত্বরে ঘণ্টাব্যাপী এই কর্মসূচি পালন করেন সদ্য সাবেক কমিটির নেতাকর্মীরা।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন উপজেলা ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান, সাবেক সহ-সভাপতি নাজিমুল ইসলাম শুভ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এসএম জিল্লুর রহমান, পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি উত্তম সরকার, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ রিগান, গৌরীপুর সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ওয়াসিকুল ইসলাম রবিন, সহনাটী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি এস আলামিন পিন্টু, রামগোপালপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মুনসুর, গৌরীপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ফারুক আহমেদ, অচিন্তপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জুয়েল রানা প্রমুখ।

বক্তরা বলেন, গঠনতন্ত্র অমান্য করে বয়ষোর্ধ্ব, বিবাহিত, ইউনিয়নের বাসিন্দাকে পৌর কমিটিতে অর্ন্তভুক্ত করা হয়েছে। এছাড়া হত্যা মামলার আসামি দিয়ে ছাত্রলীগের উপজেলা ও পৌর শাখার দু’টি কমিটি গঠন করা হয়েছে। অচিরেই এই দুই কমিটি বাতিল না করলে কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি দেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গত ৯ জুলাই গৌরীপুর উপজেলা শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে সভাপতি পদে আল মুক্তাদির ও সাধারণ সম্পাদক পদে ইমতিয়াজ সুলতান জনি এবং পৌরশাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে সভাপতি পদে আল হোসাইন ও সাধারণ সম্পাদক পদে মোফাজ্জল হোসেনকে মনোনীত করে কমিটি ঘোষণা করে জেলা ছাত্রলীগ। তারপর থেকেই কমিটিকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রতি কমিটি বাতিলের দাবি জানিয়ে আসছে সদ্য সাবেক হওয়া নেতাকর্মীরা।

আরও পড়ুন: গৌরীপুরে ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে একাংশের অবস্থান

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র