Barta24

সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬

English

‘রবীন্দ্রনাথের আদর্শ ধারণ করে জঙ্গিবাদমুক্ত দেশ গড়তে হবে’

‘রবীন্দ্রনাথের আদর্শ ধারণ করে জঙ্গিবাদমুক্ত দেশ গড়তে হবে’
রবীন্দ্র জন্মজয়ন্তী উৎসবের উদ্বোধনকালে বক্তব্য দেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক / ছবি: বার্তা২৪
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
সিরাজগঞ্জ


  • Font increase
  • Font Decrease

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ‘বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আদর্শ ধারণ করে মাদক-জঙ্গিবাদমুক্ত সুখী সমৃদ্ধ দেশ গড়ে তুলতে হবে। রবীন্দ্রনাথের মানবতা, সাম্য ও শান্তির দর্শন নতুন প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দিতে পারলেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তোলা সম্ভব হবে।’

বুধবার (৮ মে) দুপুর সাড়ে ১২টায় সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর কাছারিবাড়ি মিলনায়তনে দু’দিনব্যাপী রবীন্দ্র জন্মজয়ন্তী উৎসবে তিনি এসব কথা বলেন। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৮তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এ উৎসবের আয়োজন করা হয়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/08/1557306500062.jpg

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর একটি পরাধীন রাষ্ট্রে জন্ম নিয়েছিলেন, সে সময় বাঙালি ও বাংলা ভাষাকে সারা বিশ্বের কেউ চিনতো না। নোবেল বিজয়ের মধ্য দিয়েই তিনি প্রথম বাংলা সাহিত্যকে বিশ্বের দরবারে পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন।’

সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসন আয়োজিত দু’দিনব্যাপী রবীন্দ্র জন্মজয়ন্তী উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ইফতেখান উদ্দিন শামীম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন- সিরাজগঞ্জ-৬ আসনের সংসদ সদস্য হাসিবুর রহমান স্বপন, পুলিশ সুপা জৈর টুটুল চক্রবর্তী, ডিজেএফআই বগুড়া অঞ্চলের প্রধান কর্ণেল মুজিবুল হক শিকদার, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবু জাফর, শাহজাদপুর উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আজাদ রহমান, ভারপ্রাপ্ত পৌর মেয়র নাসির উদ্দিন ও ড. জান্নাত আরা হেনরী প্রমুখ।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/08/1557306548455.jpg

দু’দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার মধ্যে রয়েছে, শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কন ও আবৃত্তি প্রতিযোগীতা, আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং দু’দিনব্যাপী রবীন্দ্রমেলা।

আপনার মতামত লিখুন :

‘পত্রিকায় শুধু লিখে দিয়েন, আমরা কষ্টে আছি’

‘পত্রিকায় শুধু লিখে দিয়েন, আমরা কষ্টে আছি’
অনীল কান্ত বিশ্বাস, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

‘মুক্তিযুদ্ধে হানাদার বাহিনী বাড়িঘর লুটপাট করে জ্বালিয়ে দেয়। গুলি করে হত্যা করে আমার মাকে। দেশের জন্য মা প্রাণ দিলেও দেশ স্বাধীন হওয়ার পর আমরা কোনো সুযোগ-সুবিধা পাইনি। অভাবের তাড়নায় ভিক্ষাবৃত্তি করে সংসার চালালেও একটা বয়স্ক ভাতার কার্ড ভাগ্যে জোটেনি। শহীদের সন্তান হয়ে এর চেয়ে বেদনা আমার জন্য আর কি হতে পারে।’

বার্তা২৪.কমকে কথাগুলো বলার সময় বারবার চোখ ভিজে আসছিল অনীল কান্ত বিশ্বাসের। তার বাড়ি ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার শালীহর গ্রামে। বাবা রজনী কান্ত বিশ্বাস মারা গেছেন মুক্তিযুদ্ধের আগেই। ১৯৭১ সালের ২১ আগস্ট শালীহর গ্রামে পাকবাহিনীর গণহত্যায় অনিলের মা খীরদা সুন্দরী শহীদ হন।

আরও পড়ুন: গৌরীপুরে বাস-প্রাইভেটকার সংঘর্ষ: নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫

অনিলের বয়স এখন ৭২। বয়সের ভারে নুয়ে পড়েছেন তিনি। ভুগছেন বার্ধক্যজনিত রোগে। কিন্তু তারপরও থেমে নেই তার পথচলা। জীবিকার তাগিদে প্রতিদিন ভিক্ষাবৃত্তি করতে হয়ে এ পাড়া থেকে ও পাড়া। গ্রামের একখণ্ড জমিতে ছোট্ট কুঁড়েঘরে অনিলের বসবাস। দাম্পত্য জীবনে তার স্ত্রী ও এক মেয়ে রয়েছে। মেয়েটি নবম শ্রেণিতে পড়ে। তার লেখাপড়ার জন্য অন্যের কাছে হাত পাততে হয়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/19/1566217034304.jpg

সোমবার (১৯ আগস্ট) দুপুরে শালীহর গ্রামে বাড়ির সামনে দেখা মিলে অনীল কান্ত বিশ্বাসের। সেখানে বসেই জীবনের পাওয়া না পাওয়া গল্প তুলে ধরেন বার্তা২৪.কমের কাছে। তিনি বলেন, ‘আগে দিনমজুরি করে সংসার চালাতাম। কিন্তু এখন বয়স হওয়ায় আগের মতো খাটা-খাটনি করতে পারি না। বৃদ্ধ বলে কেউ কাজে নেয় না। তাই ভিক্ষাবৃত্তি করি। দিন শেষে শ খানেক টাকা আয় হয়। এটা দিয়ে সংসার চলে।’

আরও পড়ুন: মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে শিশু নাহিদ

১৯৭১ সালের ২১ আগস্ট গণহত্যার স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে অনিল বলেন, ‘সেদিন পাকবাহিনী গ্রামে হানা দিয়ে আমাদের বাড়িঘর লুটপাট শেষে জ্বালিয়ে দেয়। জীবন বাঁচাতে যে যেদিক পারি পালিয়ে যাই। মা দৌড়ে আশ্রয় নেন মুসলমানপাড়ায় এক বাড়িতে। পাকবাহিনী সেখানে গিয়ে মাকে গুলি করে। অনেকক্ষণ যন্ত্রণায় ছটফট করে মা মারা যান। সেদিন মায়ের মরদেহ সৎকার করতে না পেরে মাটিতে পুতে রাখি।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/19/1566217046875.jpg

অনিলের সঙ্গে গল্প করতে করতে দুপুর গড়িয়ে বিকেল, এমন সময় আগমন ঘটে তার স্ত্রী সুধা রানী বিশ্বাসের। আক্ষেপ নিয়ে তিনি বলেন, ‘আগস্ট মাস এলেই সাংবাদিকরা শুধু ছবি তুলে নিয়ে যায়। কিন্ত ছবির মানুষগুলো যে মানবেতর জীবনযাপন করে তাদের পাশে তো কেউ দাঁড়ায় না। এবারই শেষ ছবি আর নাহ।’

কথার মাঝে স্ত্রীকে থামিয়ে দিয়ে অনিল বলেন, ‘ওর (স্ত্রীর) কথায় কিছু মনে করবেন না। পত্রিকায় শুধু লিখে দিয়েন, আমরা কষ্টে আছি। সরকারের কাছে ঘর ও একটা ভাতার কার্ড চাই। শহীদ পরিবারের সদস্য হিসেবে আমার দাবি এতটুকুই।’

উপজেলা সমাজসেবা অফিসার ইসতিয়াক আহমেদ বলেন, ‘অনিল কান্ত বিশ্বাস যেন ভাতা পায় সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’

মানিকগঞ্জে মাদকবিরোধী অভিযানে ৫ মাদকসেবীর কারাদণ্ড

মানিকগঞ্জে মাদকবিরোধী অভিযানে ৫ মাদকসেবীর কারাদণ্ড
মানিকগঞ্জ, ছবি: সংগৃহীত

মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার বান্দুটিয়া এবং ঘুনটিপাড়া এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান চালিয়ে ৫ মাদকসেবীকে আটক করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। আটকের পর তিন মাস করে কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সোমবার (১৯ আগস্ট) দুপুরে জেলা প্রশাসনের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মো. বিল্লাল হোসেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এই কারাদণ্ড প্রদাণ করেন।

কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, সোহরাব হোসেন (৪৫), রিপন মিয়া (৩৪), জাকির হোসেন (৩১), মো. আরিফ (২৮)  এবং মো. লোটাস (২৮)। দণ্ডপ্রাপ্তরা মানিকগঞ্জ সদর এবং শিবালয় উপজেলার বাসিন্দা।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর মানিকগঞ্জ জেলা শাখার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম ভূইয়া ও তার সহকর্মীরা এই অভিযান পরিচালনায় সহায়তা করেন বলে জানান ম্যাজিস্ট্রেট বিল্লাল হোসেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র