Barta24

বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬

English

শার্শায় অজ্ঞাতপরিচয় যুবকের মরদেহ উদ্ধার

শার্শায় অজ্ঞাতপরিচয় যুবকের মরদেহ উদ্ধার
মরদেহ দেখতে উৎসুক জনতার ভিড়/ ছবি: বার্তা২৪.কম
আজিজুল হক
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
বেনাপোল (যশোর)


  • Font increase
  • Font Decrease

যশোরের শার্শা সীমান্ত থেকে অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তির (৩৫) মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রোববার (০৫ মে) সকাল ৯টার দিকে শার্শার আমড়াখালী ব্রিজের নিচের খাল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

শার্শা থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মোয়াজ্জেম হোসেন বার্তা২৪.কমকে জানান, সকালে স্থানীয়রা ব্রিজের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় খালের পানিতে মরদেহটি ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

তিনি আরও জানান, নিহতের নাম পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে তার মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

আপনার মতামত লিখুন :

জাল সনদ ও এনআইডি কার্ড তৈরির সঙ্গে জড়িত আটক ১

জাল সনদ ও এনআইডি কার্ড তৈরির সঙ্গে জড়িত আটক ১
আটক নুর আলম, ছবি: সংগৃহীত

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের জাল সার্টিফিকেট ও ভুয়া এনআইডি কার্ড তৈরির সঙ্গে জড়িত কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের পরিচালক নুর আলমকে (২৮) গ্রেফতার করেছে বগুড়া সদর থানা পুলিশ।

বুধবার (২১ আগস্ট) রাতে সদর থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে বিভিন্ন পর্যায়ের শিক্ষাগত যোগ্যতার জাল সার্টিফিকেট, অসংখ্য ভুয়া এনআইডি কার্ড ও ড্রাইভিং লাইসেন্স।

গ্রেফতারকৃত নুর আলম গাবতলী উপজেলার আটবাড়িয়া পশ্চিম পাড়ার মৃত সৈয়দ আলীর ছেলে। তিনি কম্পিউটার সায়েন্সে ডিপ্লোমা করে বগুড়া সদরের পীরগাছা বাজারে নুর ডিজিটাল স্টুডিও এ্যান্ড কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্র পরিচালনা করেন।

কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অন্তরালে নুর আলম বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ডের সার্টিফিকেট, এনআইডি কার্ড ও ড্রাইভিং লাইসেন্স জালিয়াতি করে আসছিলেন।

বগুড়া সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রহিম বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, 'নুর আলমকে গ্রেফতারের পর তার কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে তল্লাশি করে অসংখ্য জাল এনআইডি কার্ড কিছু জাল সার্টিফিকেট উদ্ধার করা হয়। এছাড়াও তার কম্পিউটারের হার্ড ডিক্স নিয়ে দেখা গেছে সেখানে বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ডের সার্টিফিকেটের ফরমেট পাওয়া গেছে। গ্রেফতারকৃত নুর আলমের নামে পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে।

রোহিঙ্গারা রাজি না হওয়ায় প্রত্যাবাসন স্থগিত

রোহিঙ্গারা রাজি না হওয়ায় প্রত্যাবাসন স্থগিত
ব্রিফিং করছেন শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার

মিয়ানমারের পাঠানো তালিকাভুক্তদের সাক্ষাৎকার নেওয়ার পর কেউ স্বদেশে ফিরতে রাজি না হওয়ায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন স্থগিত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মোহাম্মদ আবুল কালাম। তবে সাক্ষাৎকার গ্রহণ অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) টেকনাফের শালবাগান রোহিঙ্গা শিবিরে সাক্ষ্যৎকার দেওয়া রোহিঙ্গাদের সঙ্গে আলোচনার পর এ কথা জানান কমিশনার।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/22/1566457933821.jpg

মোহাম্মদ আবুল কালাম বলেন, মিয়ানমার ৩ হাজার ৫৪০ জন রোহিঙ্গার যে তালিকা পাঠিয়েছে সেই সব রোহিঙ্গার সাক্ষ্যৎকার নেওয়া অব্যাহত থাকবে। রোহিঙ্গাদের সাড়া না পাওয়ায় প্রত্যাবাসনের দিনক্ষণ সঠিকভাবে বলা যাচ্ছে না।

এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন, মিয়ানমার, চীন ও আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর প্রতিনিধিরা।

এর আগে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনকে ঘিরে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে জাদিমোড়া ক্যাম্প থেকে বাংলাদেশ-মিয়ানমার মৈত্রী সড়ক পর্যন্ত নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। কিন্তু রোহিঙ্গাদের শর্তের মুখে আবারও পিছিয়ে গেলো প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া।

আরও পড়ুন: প্রত্যাবাসনের প্রস্তুতি নিয়ে শালবাগান ক্যাম্পে কর্মকর্তারা

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র