Barta24

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

জামিন পেলেন হিরো আলম

জামিন পেলেন হিরো আলম
হিরো আলম / ছবি: বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বগুড়া
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

স্ত্রী পেটানোর মামলায় বহুল আলোচিত আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলমকে জামিন দিয়েছেন আদালত। হিরো আলমের শ্বশুর (বাদী) মামলায় আপস করায় এবং তার স্ত্রী সুমি বেগম স্বামীর সঙ্গে সংসার করতে চাওয়ায় এ আদেশ দেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) দুপুরে বগুড়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক নরেশ চন্দ্র সরকার হিরো আলমের জামিন মঞ্জুর করেন। জামিন আবেদন শুনানিকালে হিরো আলমকে আদালতে হাজির করা হয়। সুমি বেগমও আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

হিরো আলমের আইনজীবী মাসুদার রহমান স্বপন বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘হিরো আলমের জামিন শুনানিকালে তার স্ত্রী কোনো আপত্তি জানায়নি। বরং আদালতকে বলেছেন নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির কারণে মামলা করেছেন। এখন তিনি হিরো আলমের সঙ্গে সংসার করবেন। আদালতে হিরো আলম উপস্থিত থাকলেও তার কোনো বক্তব্য আদালত শোনেননি।’

উল্লেখ্য, যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে মারধর এবং নির্যাতনের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ৬ মার্চ হিরো আলমকে পুলিশ গ্রেফতার করে। ২৫ মার্চ হিরো আলমের জামিন শুনানিকালে বাদী তার শ্বশুর মামলা আপোষ করেছে মর্মে আদালতকে জানায়। এ সময় হিরো আলমের স্ত্রী সুমি বেগম আদালতে উপস্থিত থেকে স্বামীর জামিন প্রার্থনা করেন। আদালত তাদের বক্তব্য শুনে মামলার বাদী ও হিরো আলমের স্ত্রীকে ভৎসনা করেন। পরে আদালত হিরো আলমের জামিন না মঞ্জুর করে ১৮ এপ্রিল হিরো আলমকে আদালতে হাজির করার নির্দেশ দেন।

আপনার মতামত লিখুন :

ঘুরে আসুন সাগরের তলদেশ থেকে!

ঘুরে আসুন সাগরের তলদেশ থেকে!
পটকা জাতীয় সামুদ্রিক মাছ, ছবি: বার্তা২৪

চলার পথে চারপাশে ঘুরছে নানা প্রজাতির মাছ। যার মধ্যে হাঙর ও পিরানহাও আছে। এর মধ্য দিয়েই হেঁটে চলেছেন পর্যটকরা। পর্যটকদের অ্যাডভেঞ্চার ভ্রমণ বিনোদন দিতে সাগরের তলদেশের আদলে দেশে প্রথমবারের মতো গড়ে উঠেছে রেডিয়েন্ট ফিস ওয়ার্ল্ড, যা কক্সবাজারের পর্যটন শিল্পে সংযোজন করেছে নতুন মাত্রা। ফলে ছুটিতে যে কেউ ঘুরে আসতে পারেন এই কৃত্রিম সাগর তলদেশ থেকে।

জানা গেছে, মালয়েশিয়ার প্রকৌশলীদের সহায়তায় কক্সবাজারে নির্মাণ করা হয়েছে আন্তর্জাতিক মানের এই অ্যাকুরিয়াম। নির্মাণে সময় লেগেছে দুই বছর। ২০১৭ সালে এই অ্যাকুরিয়াম উদ্বোধন করা হয়। এটি শুধু কক্সবাজারের জন্য নয়, বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পে বড় ভূমিকা রাখছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561555737557.JPG

অ্যাকুরিয়ামে বঙ্গোপসাগর থেকে নানান প্রজাতির সামুদ্রিক মাছ সংরক্ষণ করা হয়েছে। যাদের মধ্যে অচেনা ও বিলুপ্তপ্রায় অনেক মাছও রয়েছে। সাগরের বিলুপ্ত মাছ বিভিন্ন প্রাণী সংরক্ষণে একটি জাদুঘরও করা হচ্ছে। এটা শুধু বিনোদনের জন্য নয়, সাগরের জীববৈচিত্র ও প্রাণী সম্পর্কে জানার শিক্ষাকেন্দ্র বলেও মনে করেন পর্যটকরা।

সিলেট থেকে আসা আরিফুল ইসলাম বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘আগে অনেকের মুখে এ অ্যাকুরিয়ামের কথা শুনেছি। কিন্তু আজ বাস্তবে দেখলাম। এখান থেকে জীববৈচিত্র ও নানান প্রজাতীর প্রাণি সম্পর্কে অনেক কিছু শেখার আছে।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561555757095.JPG

নড়াইল থেকে আসা মুরাদ হোসেন বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘অ্যাকুরিয়ামে প্রবেশের সময়ই মনে হয়েছে গুহায় প্রবেশ করছি। কিন্তু ভেতরে আসার পর সেটা অনেকটা সাগরের তলদেশের মতো। উপরে নিচে পানি আর পানি। আর সেই পানিতে খেলা করছে নানান প্রজাতির মাছ।’

ঢাকা থেকে আসা আরিফা ইসলাম রাখি বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘এক সঙ্গে এতো প্রজাতীর মাছ আমরা আগে কখনো দেখিনি। অ্যাকুরিয়ামটা আসলে খুবই সুন্দর। সাগরের তলদেশের আদলে তৈরি করায় সেখানে পাহাড় ও উঁচু-নিচু পথ আছে।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561555773332.JPG

অ্যাকুরিয়ামে রাখা হয়েছে সামুদ্রিক শৈল মাছ, হাঙর, পিতম্বরী, আউস, শাপলা, পাতা, সাগর কুচিয়া, বোল, পানপাতা, পাংগাস, চেওয়া, কাছিম, কাঁকড়া, জেলি ফিসসহ অর্ধশতাধিক প্রজাতির মাছ। কিছু বিরল প্রজাতির মাছও এখানে রয়েছে।

কক্সবাজার রেডিয়েন্ট ফিস ওয়ার্ল্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) শফিকুর রহমান চৌধুরী বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘ধীরে ধীরে পরিচিতি লাভ করছে রেডিয়েন্ট ফিস ওয়ার্ল্ড। মাছও যে একটা বিনোদন উপাদন হতে পারে সেটা আমাদের দেশের মানুষের আগে জানা ছিল না। আশা করছি, সামনে দেশের পর্যটন শিল্পে এটা বড় অবদান রাখতে পারবে।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561555797532.jpg

তিনি আরও বলেন, ‘কক্সবাজারে প্রতি বছর লাখ লাখ পর্যটক আসেন। তবে যারা রেডিয়েন্ট ফিস ওয়ার্ল্ডের কথা জানেন তারা এখানে আসেন। এখানে নিরাপত্তাসহ গাড়ি পার্কিংয়ের সু-ব্যবস্থা আছে।’

টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় চালক নিহত

টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় চালক নিহত
ছবি: বার্তা২৪.কম

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে সিএনজি চালিত অটোরিকশা ও ব্যাটারি চালিত অটো রিকশার সংঘর্ষে এক চালক নিহত হ‌য়ে‌ছেন। এ ঘটনায় আহত হ‌য়ে‌ছেন আরও পাঁচজন। নিহত চালক আব্দুর রাজ্জাক (৩৫) গোপালপুর উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের বর্শিলা গ্রামের ভাজন আলীর ছেলে।

বুধবার (২৬ জুন) দুপুরে টাঙ্গাইল-ভূঞাপুর সড়কের উপজেলার ফুলতলায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গে‌ছে, দুর্ঘটনায় নিহত চালকের মুখ থেঁতলে যাওয়ায় লাশের পরিচয় শনাক্ত করা কঠিন হয়ে পড়ে।

জানা যায়, নিহত ব্যক্তি উপজেলার নারান্দিয়া গ্রা‌মের বারু মিয়ার ছেলে সিএনজি চালক সাগর। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে সাগরের বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে আসে। পড়ে স্থানীয়রা জানতে পারেন এটি সাগর নয় রাজ্জাকের মরদেহ।

কালিহাতী থানার উপপ‌রিদর্শক (এসআই) ওহাব মিয়া বলেন, 'লাশের পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পর নিহত চালক আব্দুর রাজ্জাকের পরিবারের সদস্যরা সাগরদের বাড়ি থেকে লাশটি নিয়ে গে‌ছে।'

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র