Alexa

প্রক্টরের অপসারণ চেয়ে ধর্মঘটে চবি ছাত্রলীগ

প্রক্টরের অপসারণ চেয়ে ধর্মঘটে চবি ছাত্রলীগ

চবির মূল ফটকে ছাত্রলীগের অবস্থান, ছবি: বার্তা২৪

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) প্রক্টর ও হাটহাজারী থানার ওসির প্রত্যাহারসহ চার দফা দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য ছাত্র ধর্মঘট পালন করছে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের একাংশ।

দাবি আদায়ে রোববার (৭ এপ্রিল) সকালে নগরীর বটতলী স্টেশনে বিশ্ববিদ্যালয়গামী শাটল ট্রেনের চালককে আটক ও ট্রেনের হুইস পাইপ কেটে দেয় বিক্ষুব্ধ ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

অপরদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে ছাত্রলীগ।

বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা প্রক্টরের অপসারণ এবং হাটহাজারী ওসির অপসারণ চেয়ে স্লোগান দেয়। তারা জানান, উপাচার্য স্বয়ং মূল ফটকে এসে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের মামলা প্রত্যাহারের কথা জানান।

আন্দোলনরত এক শিক্ষার্থী বার্তা২৪.কমকে জানান, আমাদের ছয় ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীর নামে মিথ্যা অস্ত্র মামলা প্রত্যাহার, প্রক্টর এবং ওসিকে অপসারণ করতে হবে। অন্যথায় আমরা আরো কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবো।

ছাত্র ধর্মঘটের ফলে বিশ্ববিদ্যালয় কার্যত অচল হয়ে পড়েছে। সকালে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পরিবহন ছেড়ে না যাওয়ায় এবং শাটল চলাচল বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীশূণ্য

ক্যাম্পাসে স্থবিরতা বিরাজ করছে।

ষোলশহর স্টেশন মাস্টার তন্ময় মজুমদার বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘সকালে শিক্ষার্থীরা শাটল চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন। নিরাপত্তার স্বার্থে শাটল বন্ধ রাখা হয়েছে।’

এদিকে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিশ্ববিদ্যালয়ে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ২ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এরপর আবাসিক হলে তল্লাশি চালিয়ে অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। এরপর ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীর নামে অস্ত্র  মামলা দায়ের করা হয়। দায়েরকৃতদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার অভিযোগ এনে আন্দোলনে নামে বিক্ষুব্ধ দলটির নেতা-কর্মীরা।

আপনার মতামত লিখুন :

ক্যাম্পাস এর আরও খবর