‘আ.লীগে এখন রাজনীতি নেই, তাদের রাজনীতি হাইজ্যাক হয়ে গেছে’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নোয়াখালী
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক মন্ত্রী আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক মন্ত্রী আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক মন্ত্রী আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, আওয়ামী লীগে কোন রাজনীতি নেই। আওয়ামী লীগের রাজনীতি হাইজ্যাক হয়ে গেছে। এদের রাজনীতি হাইজ্যাক করছে কিছু গোষ্ঠী যারা এখন এই দেশকে চালাচ্ছে। আওয়ামী লীগ সরকার কিন্তু আজকে দেশ চালাচ্ছে না।

তিনি বলেন, শিগগিরই আন্দোলনের রূপরেখা ঘোষণা করা হবে। সেই রূপরেখা অনুযায়ী আগামী নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগ সরকারকে আন্দোলনের মাধ্যমে পতন ঘটানো হবে।

শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৪টার দিকে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ স্টেডিয়ামে উপজেলা যুবদলের উদ্যোগে কুমিল্লায় বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লা বুলু ও তার স্ত্রী শামীমা বরকত লাকি ওপর হামলার প্রতিবাদে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আমির খসরু বলেন, আগামী নির্বাচনে জনগণের কাছে জবাবদিহিমূলুক সরকার গঠন করা হবে। আন্দোলনে বিন্দুমাত্র ছাড় দেওয়া হবে না। জনগণ রাস্তায় নেমে এসেছে। তারা তাদের ভোটের অধিকার আদায় করা ছাড়া বাড়ি ফিরে যাবে না। রাজপথে আন্দোলন করেই এ সরকারের বিদায় ঘণ্টা বাঁজানো হবে। এ সময় তিনি প্রশাসনের কাছে অবিলম্বে বরকত উল্ল্যার ওপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

উপজেলা বিএনপির সভাপতি কামাখ্যা চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান আবেদের সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মো. শাহজাহান, বিএনপির উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, উপদেষ্টা জয়নুল আবেদিন ফারুক, বিএনপির চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শামীম প্রমুখ।

কথা শোনে না, এমন ছাত্রলীগ চাই না: কাদের



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
কথা শোনে না, এমন ছাত্রলীগ চাই না: কাদের

কথা শোনে না, এমন ছাত্রলীগ চাই না: কাদের

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির কারণে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ও উত্তর ছাত্রলীগের যৌথ বার্ষিক সম্মেলনে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। আজ শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) দুপুরে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বক্তব্যের সময় তার অসন্তুষ্টি ফুটে উঠে।

বক্তব্য দেয়ার সময় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের স্লোগান বন্ধ ও ব্যানার-প্ল্যাকার্ড নামাতে বলেন ওবায়দুল কাদের। তা সত্ত্বেও মাঠে উপস্থিতরা স্লোগান দিতে থাকে।

এ সময় আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিশৃঙ্খলার ছাত্রলীগ আমরা চাই না। কথা শোনে না, এমন ছাত্রলীগ চাই না। আমরা সুশৃঙ্খল ছাত্রলীগ চাই।

আরো বলেন, আমি স্লোগান বন্ধ এবং প্ল্যাকার্ড নামাতে বলার পরেও যারা স্লোগান দিচ্ছ, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যার নামে স্লোগান দেওয়া হচ্ছে, তাকে নেতা না বানাতে নেত্রীকে বলে দেবো। সে আর নেতা হতে পারবে না।

মঞ্চে ছাত্রলীগ নেতাদের ভিড় দেখেও বিরক্ত হন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘এত নেতা স্টেজে, কর্মী কোথায়? এ ছাত্রলীগ আর চাই না। শেখ হাসিনার ছাত্রলীগ, বঙ্গবন্ধুর ছাত্রলীগ, এই ছাত্রলীগ না। মুজিব কোট পরলেই মুজিব সৈনিক হওয়া যায় না। মুজিব সৈনিক হতে হলে মুজিবের আদর্শের সৈনিক হতে হবে। শেখ হাসিনার খাঁটি কর্মী হতে হবে। খাঁটি কর্মী বিশৃঙ্খলা করে না। সব নেতা হয়ে গেছে!

এদিকে জুমার নামাজের সময় হয়ে যাওয়ায় বক্তব্য রাখতে পারেননি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক৷ এ কারণে ছাত্রলীগ সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের উদ্দেশে ক্ষোভ প্রকাশ করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী।

তিনি বলেন, আজকে নানকের মতো, আপনাদের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা, সাবেক মন্ত্রী, যুবলীগের সাবেক চেয়ারম্যান সময়ের অভাবে বক্তৃতা দিতে পারল না। আপনারা মাইক ধরলে ছাড়েন না। পরে কে বলবে খেয়াল থাকে না। আজকে জুমার দিন খেয়াল থাকে না। এই ছাত্রলীগ আমরা চাই না। সুশৃঙ্খল করুন।

সম্মেলনে আয়োজকদের প্রতি ক্ষুব্ধ হয়ে মঞ্চ ছাড়েন ছাত্রলীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত চার নেতা আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম ও সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক। এছাড়া বক্তব্য দেয়ার সুযোগ পাননি আমন্ত্রিত অনেক অতিথি। সম্মেলনের প্রধান বক্তা লেখক ভট্টাচার্যও বক্তব্য দিতে পারেননি।

;

বিলবোর্ড দিয়ে মুক্তিযুদ্ধ হয়নি: হুইপ স্বপন



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নোয়াখালী
হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন

হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন

  • Font increase
  • Font Decrease

বিলবোর্ড দিয়ে মুক্তি যুদ্ধ হয়নি, হয়েছে বঙ্গবন্ধুর ডাকে ৷ তাই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ হৃদয়ে ধারণ করেই রাজনীতি করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন।

বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) দুপুরে নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, জনগণ সকল ক্ষমতার উৎস। কাজেই জনসম্পৃক্ততা বাড়াতে হবে। মানুষকে বঙ্গবন্ধু এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আদর্শ প্রচার করে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সরকার গঠন করার আহ্বান জানান তিনি।

এসময় সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হানিফ চৌধুরীর সঞ্চালনায় সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সানা উল্যাহ বিকমের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, নোয়াখালী-৫ (সদর-সুবর্ণচর) আসনের এমপি একরামুল করীম চৌধুরী, সংরক্ষিত মহিলা এমপি ফরিদা খানম সাকি, সাবেক সংসদ সদস্য মাহমুদুর রহমান বেলায়েত।

;

হাওয়া ভবন থেকে পাচার হওয়া টাকা ফেরত আনা হবে: কাদের



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, গোপালগঞ্জ
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

  • Font increase
  • Font Decrease

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, হাওয়া ভবন থেকে যত টাকা পাচার হয়েছে তা ফেরত আনা হবে।

তিনি বলেন, তারেক রহমান রাজনীতি করবেন না বলে লন্ডনে পাড়ি জমিয়েছে। মার্কিন তদন্ত সংস্থা 'ফেডারেল বুরো অফ ইনভেস্টিগেশনের (এফবিআই) কাছে ধরা খেয়েছে তারেক রহমান, সে সিঙ্গাপুরসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে অর্থ পাচার করেছে। হাওয়া ভবন থেকে কত টাকা পাচার হয়েছে তার হিসাব হচ্ছে, ফেরত আনা হবে।

বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) দুপুরে গোপালগঞ্জ শহরের পৌর পার্কে আয়োজিত জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী বক্তব্যে এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের ।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, তারেক লন্ডনে বসে শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে, মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। তাই তারেকের হাওয়া ভবনের অর্থ পাচারের বিরুদ্ধে খেলা হবে। সারা বাংলাদেশ থেকে কত টাকা পাচার করা হয়েছে শেখ হাসিনা তা খতিয়ে দেখছেন। সব টাকা উদ্ধার করা হবে। টাকা পাচারকারী তারেক রহমানসহ যারাই আছে প্রত্যেকের টাকা উদ্ধার করা হবে।

বিএনপিকে নির্বাচনে আসার আহবান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ফখরুল সাহেব বলেছেন, সরকারকে নিরাপদ প্রস্থান নিতে। আমি বলতে চাই নিরাপদ প্রস্থানের একমাত্র পথ হচ্ছে নির্বাচন। নির্বাচনেই প্রমাণ হবে, কারা বিজয়ী হবে আর কাদের পতন হবে। সরকার পতনের হাঁকডাক দিয়ে কোন লাভ নেই।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, নির্বাচনে খেলা হবে, ডিসেম্বরে খেলা হবে, বিএনপি'র আগুন আর লাঠির বিরুদ্ধে খেলা হবে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে, ভোট চুরির বিরুদ্ধে দশ তারিখে খেলা হবে। হাওয়া ভবনের বিরুদ্ধে খেলা হবে।

তিনি বলেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেয়া হয়েছে। কিন্তু উনারা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাচ্ছন্দবোধ করছেন না। ফখরুলের মুখে মধু আর অন্তরে বিষ। এরই নাম ফখরুল। ফখরুল সাহেব-অনুমতি দেয়া হয়েছে। আপনাদের মিটিংয়ে কেউ বাধা দেবে না।

ওবায়দুল কাদের হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, সমাবেশের অনুমতি দেয়ার পরেও যদি বাড়াবাড়ি করেন, লাফালাফি করেন, আগুন নিয়ে নামেন, লাঠির সঙ্গে জাতীয় পতাকা লাগিয়ে মাঠে নামেন তাহলে খবর আছে। আমরা শান্তি চাই। আমরা ক্ষমতায় আছি। ক্ষমতায় থেকে আমরা অশান্তি কেন করবো। মানুষকে কেন আতঙ্কে রাখবো। আমরা তো মানুষকে শান্তিতে রাখতে চাই।

বর্তমান পরিস্থিতি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিশ্বের কি অবস্থা। যুদ্ধের জন্য নিষেধাজ্ঞার জন্য আমরা আজকে একটু বিপদে আছি। মানুষ কষ্টে আছে। অভাবী মানুষ, সাধারণ মানুষ, স্বল্প আয়ের মানুষ কষ্টে আছে। এটা শেখ হাসিনা নিজেই স্বীকার করেন। চেষ্টা করছেন তিনি। এখানো বাংলাদেশে সোমালিয়া সুদানের মতো দুর্ভিক্ষ হয়নি। এখনো আমরা অনেক দেশের তুলনায় ভাল আছি। শেখ হাসিনা ভালো থাকলে বাংলাদেশ ভাল থাকবে।

;

আইজিপির সঙ্গে বিএনপি প্রতিনিধি দলের বৈঠক দুপুরে



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

আগামী ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশের বিষয়ে জটিলতা নিরসনে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুনের সঙ্গে বৈঠক করবে বিএনপি।

বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) দুপুর ১টায় পুলিশ সদর দফতরে যাবে বিএনপির একটি প্রতিনিধিদল।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী।

বিএনপি প্রতিনিধি দলে থাকবেন ভাইস-চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, বিএনপি প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানী, বিএনপি আইনবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল।

এ বিষয়ে এ্যানি বলেন, তারা ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশসহ সম্প্রতি দলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতরের বিষয় নিয়ে আইজিপির সঙ্গে আলোচনা করবেন।

;