করোনা প্রতিরোধে ময়মনসিংহে ব্যাপক কর্মযজ্ঞ



উবায়দুল হক, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ময়মনসিংহ
করোনা প্রতিরোধে ময়মনসিংহে ব্যাপক কর্মযজ্ঞ ছবি: বার্তা২৪.কম

করোনা প্রতিরোধে ময়মনসিংহে ব্যাপক কর্মযজ্ঞ ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

এক সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে করোনা প্রতিরোধে ময়মনসিংহে নানা কাজ করে যাচ্ছে জেলা প্রশাসন, সিটি করপোরেশন, স্বাস্থ্য বিভাগ, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। করোনা মোকাবিলায় সেনা সদস্যরাও টহল দিয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধি ও সতর্ক করছেন। জেলা প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারাও মাঠে সার্বক্ষণিক তৎপর রয়েছেন। র‌্যাব, পুলিশ ও গোয়েন্দা শাখার সদস্যরাও সারাদিন ব্যস্ত সময় পার করেছেন। সর্বমহলের এমন ব্যাপক তৎপরতায় ইতিবাচক সাড়া পড়েছে জনজীবনে।

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সময় থেকেই সরকারি সকল অফিসের সামনে সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা চালু করে প্রশাসন। একইসাথে পুলিশ প্রশাসন, র‌্যাব, বনবিভাগসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানও সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধিতে পানির ড্রাম ও বেসিন বসিয়ে সাবান দিয়ে হাত ধোয়ায় উদ্বুদ্ধ করে সাধারণ মানুষদের। তথ্য অফিস নগরজুড়ে চালায় প্রচারণা কার্যক্রম।

সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ নগরের চরপাড়া, গাঙ্গিনারপার, টাউনহলসহ দুই শতাধিক পয়েন্টে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করে। প্যাডেল ও মটরচালিত রিকশা, ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইক চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও, ২০টি স্থানে সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন, ৫০টি স্প্রে মেশিনের মাধ্যমে জনসমাগম বেশি হয় এমন স্থানে জীবাণুনাশক স্প্রে ও ৪টি গাড়ির মাধ্যমে নগরের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা-ঘাট জীবাণুনাশক দিয়ে নিয়মিত ধৌতকরণ এবং ৭০টি স্থানে মাইকিং এর মধ্যমে করোনাভাইরাস নিয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে মসিক। প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত মেয়র ইকরামুল হক টিটু ঘুরে ঘুরে সকল কাজ তদারক করছেন।

করোনা প্রতিরোধে ময়মনসিংহে ব্যাপক কর্মযজ্ঞ 

বাজারের দরদাম নিয়ন্ত্রণে নিয়মিত বাজার অভিযান পরিচালনা করে যাচ্ছে জেলা প্রশাসন। অতিরিক্ত দামে পণ্য বিক্রি করায় জরিমানা করা হয়েছে অনেক প্রতিষ্ঠানকে। র‌্যাব, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, সিটি করপোরেশন প্রতিদিনই বিভিন্ন বাজারে গিয়ে অভিযান চালাচ্ছে। দোকানপাট বন্ধ রাখার নির্দেশনা বাস্তবায়নের ক্ষেত্রেও র‌্যাব, গোয়েন্দা পুলিশ ও জেলা পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের তৎপরতা চোখে পড়ার মত।

ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিও তাদেরকে সহায়তা করতে এগিয়ে এসেছে। বাজারদর সহনীয় পর্যায়ে রাখতে টিসিবি কর্তৃক খোলা বাজারে পিঁয়াজ, তেল, ডাল, চিনি বিক্রি করা হচ্ছে অপেক্ষাকৃত কম মূল্যে। নিন্ম আয়ের মানুষের সুবিধার কথা বিবেচনা করে খাদ্য অধিদপ্তর স্বল্প মূল্যে খোলা বাজারে চাল ও আটা বিক্রি করছে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ময়মনসিংহ বিভাগীয় কার্যালয়ে করোনা সম্পর্কিত একটি মনিটরিং সেল খোলা হয়েছে। তারা তাদের সমস্ত ছুটি বাতিল করে ফায়ার সার্ভিস স্টেশনে উপস্থিত থাকার নির্দেশনা জারি করেছে। যেকোনো দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতিতে কাজের জন্য প্রস্তুত রয়েছে অগ্নিনির্বাপণকারী সদস্যরা।

জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, র‌্যাব অধিনায়ক, সিটি মেয়রসহ অন্যান্য প্রশাসনিক কর্মকর্তা এবং স্থানীয় সরকারের প্রতিনিধিগণ তারা প্রতিনিয়ত করোনা মোকাবিলায় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। স্বাস্থ্য বিভাগও করোনা মোকাবিলায় তাদের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। দুটি হাসপাতালে ৬০ শয্যার আইসোলেশন ইউনিট চালু করেছেন এবং বিদেশফেরত প্রবাসীদের বাড়িতে সঙ্গরোধ নিশ্চিতকরণে প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে কঠোর ভূমিকা পালন করছেন।

এছাড়াও বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা সাধারণ মানুষকে সচেতনতার পাশাপাশি কর্মহীন মানুষদের মাঝে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করে যাচ্ছেন।

করোনা প্রতিরোধ নিয়ে মসিক মেয়র ইকরামুল হক টিটু বলেন, করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত হওয়া যাবেনা, গণসচেতনতা তৈরি করতে হবে। মসিক যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাচ্ছে, তবুও সকলের চেষ্টায় এ উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হবে।

পুলিশ সুপার মোহা. আহমার উজ্জামান বলেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে এবং মানুষের মাঝে জনসচেতনতা বৃদ্ধিও পাশাপাশি সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে পুলিশ প্রশাসন সবসময়ই তৎপরতার সাথে কাজ করে যাচ্ছে।

আর জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান বলেন, করোনাভাইরাস যেন ছড়াতে না পারে সেজন্য সকল মহলকে সম্পৃক্ত করে কাজ করে যাচ্ছে জেলা প্রশাসন। এজন্য সাধারণ নাগরিকদের সচেতন থেকে সরকারি নির্দেশনা মেনে চলার আহ্বান জানান তিনি।

বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনিদের শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন

  • Font increase
  • Font Decrease

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, বিদেশে পলাতক বঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। এ লক্ষে সরকারের প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে।

শুক্রবার (১১ আগস্ট) বিকেলে সিলেট নগরীর জিন্দাবাজারস্থ এলিগ্যান্ড শপিং কমপ্লেক্সে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সিলেট অফিস পরিদর্শনকালে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

ড. মোমেন বলেন, যারা গণতন্ত্র এবং মানবাধিকারের কথা বলে তারাই বঙ্গবন্ধুর খুনিদের জামাই আদরে রেখেছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার দেশের উন্নয়নের নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তারই অংশ হিসেবে সিলেটের উন্নয়নের জন্য ও জনগণের সেবা দিতে আমরা এই অফিস চালু করেছি এবং মানুষকে সেবা দিয়ে যাচ্ছি। আমি না থাকলেও এই অফিসের মাধ্যমে তারা সেবা পাবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তা শফিউল আলম জুয়েলের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- সিলেটের পুলিশ কমিশনার মো. নিশারুল আরিফ, সিলেটের জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান, সিলেট মহানগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার আজবাহার আলী শেখ।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও জিপি এডভোকেট রাজ উদ্দিন, জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক জগলু চৌধুরী, সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি মুহিত চৌধুরী, সিলেট মহানগর যুবলীগের সভাপতি আলম খান মুক্তি, সাধারণ সম্পাদক মুশফিক জায়গীরদার, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম, মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাঈম আহমদ প্রমুখ।

;

দেশের মানুষ শান্তি ও স্বস্তির মধ্যে আছে: রেলমন্ত্রী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশের মানুষ শান্তি ও স্বস্তির মধ্যে আছে বলে মন্তব্য করেছেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।

তিনি বলেন, চলমান করোনা মহামারির মধ্যে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে অর্থনৈতিকভাবে সারা বিশ্ব অস্বস্তিতে রয়েছে, শুধু বাংলাদেশ নয়। কিন্তু এই সুযোগটা কাজে লাগিয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরির জন্য একটি দল ষড়যন্ত্র করছে।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) সন্ধ্যায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে মহাকাল নাট্য সম্প্রদায় আয়োজিত ‘প্রাণ হরণ করা যায়, চেতনা নয়’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

রেলমন্ত্রী বলেন, ১৯৭৫ সালে বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্র তৈরি করে বঙ্গবন্ধু হত্যার ক্ষেত্র তৈরি করেছিলেন আ স ম আবদুর রবরা। গণতন্ত্র মঞ্চের নামে তারা আবারও ষড়যন্ত্র করছেন। ৭ দলীয় জোটের নামে তারা ও তাদের দোসররা এক হচ্ছেন।

তিনি আরও বলেন, স্বাধীনতার পর বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্রের নামে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিভক্ত করার চেষ্টা করা হয়েছে। পাটের গুদামে আগুন দেওয়া, গণবাহিনী প্রস্তুত, রেললাইন উপড়ে ফেলা, ঈদের ময়দানে গুলি করে সংসদ সদস্যকে হত্যা করে ক্ষেত্র প্রস্তুত করেছিলেন।

;

কুষ্টিয়ায় ফিলিং স্টেশনে অগ্নিকাণ্ড, নিহত ২



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুষ্টিয়া
কুষ্টিয়ায় ফিলিং স্টেশনে অগ্নিকাণ্ড

কুষ্টিয়ায় ফিলিং স্টেশনে অগ্নিকাণ্ড

  • Font increase
  • Font Decrease

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় ফিলিং স্টেশনে আগুন লেগে দুই জন দগ্ধ হয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) সন্ধ্যায় কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার সাতবাড়িয়া এলাকার দফাদার ফিলিং স্টেশনে এ আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আরও একজন আহত হয়েছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ভেড়ামারা থানার অফিসার ইনচার্জ মজিবুর রহমান বলেন, সন্ধ্যার পরে দফাদার ফিলিং স্টেশনে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় ঘটনাস্থলেই দুজন নিহত হয়েছেন। লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

কুষ্টিয়া ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপপরিচালক জানে আলম জানান, সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে জ্বালানি তেলবাহী ট্যাংকার পাম্পে তেল আনলোড করার সময় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ভেড়ামারা ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা গিয়ে দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

;

ফেনীতে আ.লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ, আহত ১০



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ফেনী
ফেনীতে আ.লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ, আহত ১০

ফেনীতে আ.লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ, আহত ১০

  • Font increase
  • Font Decrease

জ্বালানি তেলসহ নিত্যপণ্যের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে ফেনী জেলা বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ২০ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এ ঘটনায় পথচারীসহ উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়। আটক করা হয় তিন জনকে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার দুপুর সাড়ে ৩টার দিকে শহরের ইসলাম রোড থেকে ফেনী জেলা বিএনপির একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে ট্রাংক রোডস্থ জিরো পয়েন্টের দিকে এগোতে থাকে। এ সময় মিছিলটি জিরোপয়েন্ট এলাকায় পৌঁছালে ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীরা তাদের ধাওয়া করে। এক পর্যায় সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য পুলিশ ২০ রাউন্ড ফাঁকাগুলি ও রাবারবুলেট নিক্ষেপ করে।

ফেনী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিজাম উদ্দিন জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনায় এ পর্যন্ত ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

 

;