রামনাথ বিশ্বাসের বসতভিটা দখলমুক্তের দাবিতে সাইকেল র‍্যালি মঙ্গলবার



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
সংবাদ সম্মেলন

সংবাদ সম্মেলন

  • Font increase
  • Font Decrease

হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে ভূ-পর্যটক রামনাথ বিশ্বাসের বসতভিটা ওয়াহেদ মিয়া নামে এক ব্যক্তি দখল করে রেখেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। সেই বসতিভিটা দখলমুক্ত করে সেখানে পাঠাগার ও বাইসাইকেল মিউজিয়াম গড়ে তোলার দাবি জানিয়েছে রামনাথ বিশ্বাসের বসতভিটা পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষণ কমিটি।

রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে কমিটির নেতৃবৃন্দ বলেন, কলকাতায় রয়েছে ‘রামনাথ বিশ্বাস সড়ক’, অথচ নিজভূমে তিনি হয়ে গেছেন পরবাসী। বানিয়াচংয়ে রামনাথের স্মৃতিবিজড়িত বাড়িটি দখল করে রেখেছেন আবদুল ওয়াহেদ মিয়া নামে আল-বদর পরিবারের এক সদস্য।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন ‘ভূ-পর্যটক রামনাথ বিশ্বাসের বসতভিটা পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষণ কমিটি’র আহ্বায়ক ভূ-পর্যটক ও লেখক আশরাফুজ্জামান উজ্জ্বল, যুগ্ম-আহ্বায়ক কবি শাহেদ কায়েস ও রামনাথ বিশ্বাস ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক টিপু চৌধুরী। লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কমিটির যুগ্ম-আহ্বায়ক কথাসাহিত্যিক ও নাট্যকার রুমা মোদক ।

সংবাদ সম্মেলনে রুমা মোদক বলেন, হবিগঞ্জের মানুষের কাছে ভূ-পর্যটক রামনাথ বিশ্বাসকে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার কিছু নেই। তিনি আমাদের হবিগঞ্জের তো বটেই, বাংলাদেশের, গোটা বাংলার গর্ব। প্রায় শত বছর আগে হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার বিদ্যাভূষণ পাড়ার রামনাথ বিশ্বাস বাইসাইকেল নিয়ে বেরিয়েছিলেন ভূ-পর্যটনে। তিনি হিন্দু-মুসলিম নির্বিশেষে সকলকে ভালোবাসতেন। ১৯৪৬ সালের গ্রেট কলকাতা দাঙ্গায় নিজের জীবন বাজি রেখে বাঁচিয়েছিলেন ৩৯ জন মুসলিমের জীবন।

দখলদার ওয়াহেদ মিয়া এক সময় জামায়াত-বিএনপি করতেন উল্লেখ করে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, ওয়াহেদ মিয়া পরে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে রীতিমত ওয়ার্ড কমিটির সভাপতির পদও বাগিয়ে নিয়েছিলেন। দলীয় পরিচয়ের জোরে রামনাথের বাড়ি দেখতে যাওয়া পর্যটক, বাইসাইকেল রাইডার ও সাংবাদিকের ওপর বিভিন্ন সময় হামলা চালিয়েছেন। সর্বশেষ গত ১১ সেপ্টেম্বর বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের স্পেশাল অ্যাসাইনমেন্ট এডিটর রাজীব নূরসহ চার সাংবাদিক নিগৃহীত হয়েছেন দখলদার ওয়াহেদ ও তার পুত্রদের হাতে। রাজীব নূরের সঙ্গে নিগৃহীতদের মধ্যে ছিলেন সাংবাদিক মোশাহেদ মিয়া, তৌহিদ মিয়া ও আলমগীর রেজা।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনারও নিন্দা জানানো হয় এবং এই হামলার ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করা হয়।

আশরাফুজ্জামান উজ্জ্বল বলেন, রামনাথ বিশ্বাস সাইকেলে করে পৃথিবী ঘুরে বেড়িয়ে আসার পর বানিয়াচংয়ে এক সভায় বলেছিলেন, বাইন্ন্যাইচং আমার দুইন্ন্যাই'। অথচ বানিয়াচং এ রামনাথের বাড়িটি দখল করে রাখা হয়েছে। আসুন আমরা সবাই মিলে রামনাথের বসতভিটা দখলমুক্ত করে রামনাথকে তার বানিয়াচং ফিরিয়ে দেই, রামনাথকে তার দুনিয়া ফিরিয়ে দেই।

কবি শাহেদ কায়েস বলেন, আমরা রামনাথ বিশ্বাসের বাড়ি দখলমুক্ত করার বিষয়টি সরকারের নজরে আনার জন্য বেশ কিছু কর্মসূচি করতে যাচ্ছি। আশা করবো সরকার এই বিষয়ে কার্যকর পদক্ষেপ নেবে।

নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করেন, আমরা সাইকেল র‍্যালি করার ঘোষণা তো আগেই করেছিলাম। সেই খবর গণমাধ্যমেও প্রকাশ হয়েছে। অথচ হবিগঞ্জে এসে জানতে পারলাম, স্থানীয় সড়ক ও জনপথ বিভাগ মঙ্গলবার বানিয়াচং যাওয়ার পথে একটি সেতুর সংস্কার কাজ করবে। এই ঘটনাটি উদ্দেশ্য প্রণোদিত কিনা? আমরা জানি না। তবে আমাদের সাইকেল র‍্যালি সুষ্ঠুভাবে করার জন্য স্থানীয় প্রশাসন সহযোগিতা করবে বলেও আশা করছি। আমরা রামনাথের বসতভিটায় দাঁড়িয়ে সেই বাড়িটি পুনরুদ্ধার করে সেখানে ভ্রমণ বিষয়ক বইয়ের বিশেষায়িত পাঠাগার এবং সাইকেল মিউজিয়াম করার দাবি জানাবো।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যের পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে কবি শাহেদ কায়েস বলেন, রামনাথের বসতভিটা উদ্ধারের জন্য আমাদের আন্দোলন চলমান থাকবে। আমাদের কমিটিতে কয়েকজন আইনজীবীও রয়েছেন, তারা বিষয়টির আইনি দিক নিয়ে কাজ করছেন। আমরা প্রয়োজনে উচ্চ আদালতের কাছে যাব। সবাইকে সঙ্গে নিয়ে রামনাথের বসতভিটা পুনরুদ্ধারের এই লড়াই অব্যহত রাখবো। আমাদের বিশ্বাস সরকার গুরুত্ব দিয়ে রামনাথের বসতভিটায় দ্রুত পাঠাগার এবং সাইকেল মিউজিয়াম করবে।

কর্মসূচি

নেতৃবৃন্দ জানান, সোমবার বিকেল ৪টায় বানিয়াচংয়ে ১ নম্বর ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে সাংবাদিক ও সুধীজনের সঙ্গে অনুষ্ঠিত হবে মতবিনিময়। পরদিন মঙ্গলবার সকাল ১১টায় হবিগঞ্জ টাউন হল থেকে রামনাথের বাড়ির পথে বাইসাইকেল শোভাযাত্রা হবে। ওইদিনই সকাল ১১টায় বানিয়াচং শহীদ মিনারে সাংবাদিক দেবব্রত চক্রবর্তী বিষ্ণু প্রতীকী অনশন করবেন। বাইসাইকেল শোভাযাত্রাটি রামনাথের বাড়ি বিদ্যাভূষণ পাড়া ঘুরে এসে বানিয়াচং শহীদ মিনারে বিকেল ৪টায় সমাবেশ শেষে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবে।

এ আন্দোলকে সচল রাখার লক্ষ্যে মূলত লেখক, সাংবাদিক ও সংস্কৃতিকর্মীরা মিলে গঠন করেছে ‘ভূ-পর্যটক রামনাথ বিশ্বাসের বসতভিটা পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষণ কমিটি’।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রাশেদ আহমদ খান, দৈনিক ইত্তেফাকের জেলা প্রতিনিধি মনসুর উদ্দিন আহমেদ ইকবাল, ডিবিসি নিউজ'র মো. ফজলুর রহমান, হবিগঞ্জ টিভি জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি আব্দুল হালীম, মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের প্রতিনিধি চৌধুরী মাসুদ আলী ফরহাদ, একাত্তর টেলিভিশনের প্রতিনিধি শাকিল চৌধুরী, দ্য ডেইলি স্টারের মাসুক হৃদয় ও দৈনিক ইত্তেফাক অনলাইনের প্রতিবেদক ইফতেয়ার রিফাত।

গণতন্ত্র সূচকে দুই ধাপ এগিয়ে ৭৩তম বাংলাদেশ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গণতন্ত্র সূচকে বাংলাদেশের উন্নতি হয়েছে। ২০২২ সালের গণতন্ত্র সূচকে দুই ধাপ এগিয়ে বাংলাদেশ এখন ৭৩তম।

বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) এ সূচক প্রকাশ করেছে যুক্তরাজ্যের লন্ডনভিত্তিক দ্য ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিট। ১৬৭টি দেশ ও ২টি অঞ্চল নিয়ে তৈরি করা হয়েছে ২০২২ সালের এই সূচক।

সূচকে ১০ এর মধ্যে বাংলাদেশের স্কোর ৫ দশমিক ৯৯। ২০২১ সালে একই স্কোর নিয়ে তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৭৫তম। এর আগের বছর ছিল ৭৬তম। এ হিসেবে সূচকে ধারাবাহিক উন্নতির পথে রয়েছে বাংলাদেশ।

সূচকে পাঁচটি মূল বিষয়ের আলোকে বিশ্বব্যাপী দেশগুলোর গণতন্ত্রের অবস্থা মূল্যায়ন করা হয়েছে। বিষয়গুলো হলো নির্বাচনী প্রক্রিয়া ও বহুত্ববাদ, সরকারের কার্যকারিতা, রাজনৈতিক অংশগ্রহণ, রাজনৈতিক সংস্কৃতি ও নাগরিক স্বাধীনতা।

সূচকে দেশ ও অঞ্চলগুলোকে চারটি বিভাগে ভাগ করা হয়েছে। পূর্ণ গণতন্ত্র, ত্রুটিপূর্ণ গণতন্ত্র, হাইব্রিড শাসনব্যবস্থা ও কর্তৃত্ববাদী শাসনব্যবস্থা।

এবারের সূচকে পূর্ণ গণতন্ত্র বিভাগে রয়েছে ২৪টি দেশ। ত্রুটিপূর্ণ গণতন্ত্র বিভাগে ৪৮টি দেশ। হাইব্রিড শাসনব্যবস্থায় ৩৬টি দেশ। কর্তৃত্ববাদী শাসনব্যবস্থায় ৫৯টি দেশ।

বাংলাদেশ এবারও হাইব্রিড শাসনব্যবস্থা বিভাগে রয়েছে। ১০-এর মধ্যে যেসব দেশের স্কোর ৪ থেকে ৬-এর মধ্যে, তারাই এই বিভাগে রয়েছে। এই বিভাগে সবার ওপরে বাংলাদেশ। সবার নিচে মৌরিতানিয়া। সূচকে দেশটির অবস্থান ১০৮তম, স্কোর ৪ দশমিক শূন্য ৩। এই বিভাগের অন্য দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে ভুটান (৮৪তম), ইউক্রেন (৮৭তম), উগান্ডা (৯৯তম), নেপাল (১০১তম), পাকিস্তান (১০৭তম)।

হাইব্রিড শাসনব্যবস্থা বলতে ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিট এমন ব্যবস্থাকে বোঝায়, যেখানে প্রায়ই অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনব্যবস্থা বাধাগ্রস্ত হয়। এ শাসনব্যবস্থায় বিরোধী দল ও বিরোধী প্রার্থীদের ওপর সরকারের নিয়মিত চাপ থাকে। এই বিভাগে থাকা দেশগুলোর বিচারব্যবস্থা স্বাধীন নয়। সাংবাদিকদের হয়রানি ও চাপ দেওয়া হয়। দুর্নীতির ব্যাপক বিস্তার, দুর্বল আইনের শাসন, দুর্বল নাগরিক সমাজ এই ধরনের শাসনব্যবস্থার বৈশিষ্ট্য।

এবারের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে নরওয়ে, স্কোর ৯ দশমিক ৮১ স্কোর। শীর্ষ দশে আরও আছে নিউজিল্যান্ড, আইসল্যান্ড, সুইডেন ও ফিনল্যান্ড।

গণতন্ত্র সূচকে সবার নিচে রয়েছে আফগানিস্তান (১৬৭তম)। কর্তৃত্ববাদী শাসনব্যবস্থা বিভাগের এই দেশের স্কোর শূন্য দশমিক ৩২। বিভাগটির অন্য দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে মিয়ানমার ১৬৬তম। দক্ষিণ এশিয়ার ভারত ৪৬তম ও শ্রীলঙ্কা ৬০তম অবস্থানে রয়েছে।

;

নোয়াখালী আগ্নেয়াস্ত্র-ককটেল সহ যুবক গ্রেফতার



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নোয়াখালী
নোয়াখালী আগ্নেয়াস্ত্র-ককটেল সহ যুবক গ্রেফতার

নোয়াখালী আগ্নেয়াস্ত্র-ককটেল সহ যুবক গ্রেফতার

  • Font increase
  • Font Decrease

 

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলা থেকে দুটি পাইপগান ও চারটি ককটেল সহ এক যুবককে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব।

গ্রেফতারকৃত মো. সাকিব (২৩) উপজেলার ৫নং ছয়ানী ইউনিয়নের দোয়ালিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল খালেকের ছেলে।

বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) রাতে এক বিজ্ঞপ্তিতে র‍্যাব-১১ এর সিপিসি-৩ নোয়াখালী ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার মাহমুদুল হাসান এ তথ্য নিশ্চিত করেন। এর আগে, একই দিন রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার আলাইয়ারপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গ্রেফতারকৃত আসামির এলাকায় মারামারি, দাঙ্গাহাঙ্গামা সহ বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত। তথ্য সংগ্রহ পূর্বক একটি বিশেষ অভিযান চালিয়ে ওই অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার থেকে ২ টি দেশীয় তৈরি পাইপগান ও ৪ টি
ককটেল উদ্ধার করা হয়। আসামির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

;

‘বই পৌঁছতে দেরি হলে ওয়েবসাইট থেকে নিয়ে পড়াবেন’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠ্যবই পাওয়া না গেলে শিক্ষকরা ওয়েবসাইট থাকা বই ডাউনলোড করে পড়াতে পারবেন বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

তিনি বলেছেন, “যেসব শিক্ষার্থীদের বই দেওয়া বাকি ছিল, তাদের ২৫ জানুয়ারির মধ্যে দেওয়ার কথা ছিল। কাজেই কোথাও যদি বই পৌঁছতে দেরি হয়ে থাকে অবশ্যই আমি তা দেখবো। ওয়েবসাইটে প্রতিটি বই দেওয়া আছে, যদি বই পাওয়ার ক্ষেত্রে কোনো ব্যত্যয় ঘটে থাকে, তাহলে শিক্ষকরা সেখান থেকে শিক্ষার্থীদের পড়াতে পারেন।”

শুক্রবার (৩ ফেব্রুয়ারি) সকালে চাঁদপুর সার্কিট হাউসে এলে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

দীপু মনি বলেন, “শুধু জ্ঞানভিত্তিক নয়, দক্ষতাভিত্তিক, সফট স্কিল ও মূল্যবোধ শেখার মধ্য দিয়ে শিক্ষার্থীরা স্মার্ট নাগরিক হয়ে উঠবে।”

২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ একটি উন্নত সমৃদ্ধশালী সুখি রাষ্ট্র হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, “সেটি হবে স্মার্ট বাংলাদেশ। আমাদের সমস্ত সেবা, সমস্ত কাজ এবং বিজ্ঞান-প্রযুক্তি যা কিছু আছে সকল প্রযুক্তি নিয়ে মানুষ দক্ষ হয়ে উঠবে। যত স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা আছে, যত সেবার মান আছে, তা নিশ্চিত হবে। কাজেই স্মার্ট বাংলাদেশ মানে সেই বাংলাদেশ, যেখানে প্রত্যেকটি নাগরিক এই স্মার্ট নাগরিক হবেন।”

এ সময় উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান, পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তফাজ্জল হোসেন (এসডু) পাটওয়ারী, অ্যাড. মজিবুর রহমান ভূইয়া, চাঁদপুর কোর্টের পিপি অ্যাড. রনজিত রায় চৌধুরী প্রমুখ।

;

সারাদিনের আবহাওয়া যেমন থাকবে



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সারা দেশে দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকলেও রাতের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

শুক্রবার (৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, শ্রীলঙ্কা এবং তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত নিম্নচাপটি দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে অগ্রসর ও দুর্বল হয়ে প্রথমে সুস্পষ্ট লঘুচাপ এবং পরবর্তিতে লঘুচাপে পরিণত হয়ে গুরুত্বহীন হয়ে পড়েছে। উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের উত্তর-পশ্চিমাংশ পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।

এ অবস্থায় আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। শেষরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের নদী অববাহিকার কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা এবং দেশের অন্যত্র কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।

এ ছাড়া কুড়িগ্রাম ও মৌলভীবাজার জেলার ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। পরবর্তী ৭২ ঘণ্টায় তাপমাত্রা ‍বৃদ্ধি পেতে পারে।

;