অর্ধকোটি টাকা নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগে বিক্ষোভ, পরীক্ষা স্থগিত



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রংপুর
অর্ধকোটি টাকা নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগে বিক্ষোভ

অর্ধকোটি টাকা নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগে বিক্ষোভ

  • Font increase
  • Font Decrease

রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার শ্যামপুর সুগার মিলস স্কুলে ৪ পদে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগে বিক্ষোভ করেছেন ওই পদের জন্য আবেদনকারী ও স্থানীয় এলাকাবাসী। পরে বিক্ষোভের মুখে তড়িঘড়ি করে নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করেন বিদ্যালয়টির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি।

শুক্রবার (১৯ আগস্ট) সকালে নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করেন বিদ্যালয়ের সভাপতি শ্যামপুর সুগার মিলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহসান হাবীব।

এর আগে, বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) বিদ্যালয়টিতে ওই ৪ পদে নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও চাকরি প্রত্যাশীদের বিক্ষোভের মুখে পরীক্ষা স্থগিত করতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ।

বিক্ষোভকারীরা অভিযোগ করে বলেন, বিদ্যালয়ের সভাপতি এবং শ্যামপুর সুগার মিলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহসান হাবীবের ছত্রছায়ায় বর্তমান ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সালিয়ুর রহমান তার আপন বোন জুলেখা বেগম ও বর্তমানে নর্থবেঙ্গল সুগার মিলসে কর্মরত মোস্তফা সারওয়ারকে অভিভাবক সদস্য বানিয়ে সৃষ্ট পদে গত ৩০ জুন বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী, অফিস সহায়ক, নাইট গার্ড, নিরাপত্তা কর্মী পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির পর থেকে একাধিক চাকরি প্রত্যাশীর নিকট তিনি প্রতি পদের বিপরীতে ৮ থেকে ১২ লাখ টাকা দাবি করেন। এছাড়াও ম্যানেজিং কমিটির দুই সদস্য মোস্তফা সরোয়ার ও জুলেখা বেগমের কারও সন্তান বিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত না এবং তারা দুজনে বদলি হয়ে অন্য প্রতিষ্ঠানে চলে গিয়েছেন অথচ তাদের পদ বহাল রেখে নিয়োগ প্রক্রিয়া করা হয়েছে।

হাবীবুর নামে এক আবেদনকারী অভিযোগ করে বলেন, আমাকে অফিস সহায়ক পদে নিয়োগ দেওয়ার চুক্তিতে ৭ লাখ টাকার বিপরীতে আমার বাবার কাছে ২ লাখ ৩০ হাজার টাকা নেন বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি। কিন্তু পরবর্তীতে ৭ লাখের জায়গায় আরও ১ লাখ টাকা দাবি করেন তিনি। পরে দিতে অস্বীকৃতি জানালে আমার চাকরি হবে না বলে জানান তিনি এবং চাকরির জন্য দেয়া টাকা ফেরতও দিচ্ছেন না।

আরেক ভুক্তভোগী আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মিলে এখানে নিয়োগ বাণিজ্য শুরু করেছেন। তাই চলমান বিতর্কিত এই নিয়োগ পরীক্ষা সম্পূর্ণ হলে সঠিক চাকরি প্রত্যাশীরা বঞ্চিত হবেন।

স্থানীয় রাফি মিয়া বলেন, আমরা এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগীরা মিলে রংপুর জেলা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।চলমান এই নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ করে স্বচ্ছ কমিটি দ্বারা নিয়োগ প্রক্রিয়া বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছি।

অভিযোগের বিষয়ে শ্যামপুর সুগার মিলস স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সালিয়ুর রহমান বলেন, একজন অভিভাবক সদস্যের সন্তান কয়েক মাস আগে বিদ্যালয় থেকে চলে গেছে। তবে আরেক সদস্য জুলেখার সন্তান এই বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণিতে অধ্যায়নরত রয়েছেন।

শ্যামপুর সুগার মিলসের ব্যবস্থপনা পরিচালক ও বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আহসান হাবীব বলেন, আমি আপনাদের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারলাম। নিয়োগ কমিটিতে ত্রুটির জন্য নিয়োগ প্রক্রিয়া স্থগিত করে দ্রুত সময়ের মধ্যে চিঠি ইস্যু করা হবে।।তবে চাকরি প্রত্যাশীদের নিকট টাকা নেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীকে কটুক্তি: রাজবাড়ীতে মহিলা দলের নেত্রী গ্রেফতার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজবাড়ী
সোনিয়া আক্তার স্মৃতি

সোনিয়া আক্তার স্মৃতি

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কটুক্তি করে নিজের ফেসবুক আইডিতে পোস্ট করার অভিযোগে সোনিয়া আক্তার স্মৃতি নামে রাজবাড়ী জেলা মহিলা দলের সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রাজবাড়ী সদর উপজেলার মিজানপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মো. সামসুল আরেফিন চৌধুরীর এজাহারের প্রেক্ষিতে রাজবাড়ী সদর থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

সোনিয়া আক্তার স্মৃতি রাজবাড়ী পৌরসভার ৩নং বেড়াডাঙ্গা এলাকার মো. খোকনের স্ত্রী। তিনি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘রাজবাড়ী ব্লাড ডোনার্স ক্লাব’ নামে একটি সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা। নিজের ফেসবুক আইডিতে বিভিন্ন সময় সরকারের বিপক্ষে লেখালেখি করেন বলে অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।। তার স্বামী মো. খোকন আহম্মেদ একজন প্রবাসী।

মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) দিবাগত মধ্যরাতে রাজবাড়ী পৌরসভার বেড়াডাঙ্গা এলাকার নিজ বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করেছে রাজবাড়ী সদর থানা পুলিশ।

মো: সামসুল আরেফিন চৌধুরীর এজাহারের প্রেক্ষিতে রাজবাড়ী সদর থানার পুলিশ দন্ডবিধি ১৫৩ ও ৫০৫ ধারায় মামলা গ্রহণ করে। রাজবাড়ী জেলা পুলিশের এক পরিদর্শক মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, আসামি উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সুনাম ও ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করিবার লক্ষ্যে উল্লেখিত মিথ্যা, বানোয়াট ও মানহানীকার ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত বক্তব্য সামজিক যোগাযোগ মাধ্যম/ডিজিটাল মাধ্যমে প্রচার করেন।

গ্রেফতারের আগে ফেসবুক লাইভে আসেন সোনিয়া আক্তার স্মৃতি। সেখানে পুলিশকে উদ্দেশ্যে করে তিনি বলেন, আমাকে মধ্যরাতে কেন ধরতে আসছেন? আমি তো পালিয়ে যাচ্ছি না। আমার ছোট ছোট দুইটা বাচ্চা আছে। আমি তাদের রেখে আসছি। আমাকে ১০-১৫ মিনিট সময় দেন। আমি স্বেচ্ছায় বের হচ্ছি। তিনি ভাল আছেন, সুস্থ্য আছেন বলে ফেসবুকে সবার উদ্দেশ্যে জানান।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রাজবাড়ী সদর থানার উপ-পরিদর্শক আলেয়া আক্তার বলেন, সদর থানায় মামলার প্রেক্ষিতে রাতে তাকে নিজ বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

জেলা মহিলা দলের এই সদস্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিএনপির পক্ষে লেখালেখি করেন এবং বিভিন্ন সময়ে সরকারের কঠোর সমালোচনা করেন। ফেসবুকে সরকারবিরোধী পোস্ট করার কারণে তিনি অনেক সময় প্রতিপক্ষের রোষাণলে পড়েছেন। সম্প্রতি রাজবাড়ী বিএনপির দলীয় কার্যালয় থেকে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে লাঞ্ছিত হয়েছিলেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সক্রিয় থাকা নারী সোনিয়া আক্তার স্মৃতি।

গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন রাজবাড়ী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন। তিনি বলেন, সোনিয়া আক্তারের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা রয়েছে। রাতেই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আজ বুধবার (৫ অক্টোবর) তাকে আদালতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

এর আগে গত সোমবার সন্ধ্যায় সামসুল আরেফিন চৌধুরী নামের স্থানীয় এক আওয়ামী লীগের নেতা ফেসবুক পোস্টের বিষয়ে রাজবাড়ী সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দেন। পরে অভিযোগটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়। প্রধানমন্ত্রীকে কটুক্তি করে প্রায় এক মাসে আগে ফেসবুকে ওই পোস্ট তিনি দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ সূত্রে জানা যায়।

 

;

চুয়াডাঙ্গায় মায়ের কোল থেকে ছিটকে পড়ে শিশুর মৃত্যু



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চুয়াডাঙ্গা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে মায়ের কোল থেকে ছিটকে পড়ে ৮ মাস বয়সী শিশু আব্দুর রহমানের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। 

বুধবার (০৫ অক্টোবর) সাড়ে ১১টার দিকে জীবননগর-তেতুলিয়া সড়কের একটি চালমিলের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত শিশুটির মা শান্তা খাতুনকে উদ্ধার করে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহত আব্দুর রহমান (৮) জীবননগর পৌর এলাকার শাপলাকলিপাড়ার রুবেল হোসেনের ছেলে।

স্থানীয়রা জানায়, সকালে শিশু আব্দুর রহমানকে নিয়ে পাখিভ্যানযোগে বাবার বাড়ি তেতুলিয়া গ্রামে যাচ্ছিলেন মা শান্তা খাতুন। এসময় জীবননগর-তেতুলিয়া সড়কের হাসেম মিয়ার চাতালের সামনে পৌঁছালে পাখিভ্যানটি ভেঙে যায়। এতে ভ্যান থেকে পাকা রাস্তার উপর ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হন মা শান্তা খাতুন ও শিশু আব্দুর রহমান। তাদের উদ্ধার করে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন। গুরুতর আহত মা শান্তা খাতুনকে হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. মোস্তাফিজুর রহমান জানান, শিশু আব্দুর রহমানের মাথায় প্রচণ্ড আঘাত লাগায় হাসপাতালে নেয়ার আগেই তার মৃত্যু হয়। মা শান্তা খাতুনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে।

জীবননগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল খালেক জানান, নিহত শিশুর মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। কোন অভিযোগ না থাকায় আবেদনের প্রেক্ষিতে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

;

মর্ত্যলোক ছেড়ে কৈলাসে ফিরলেন দেবী দুর্গা



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

ষষ্ঠী, সপ্তমী, মহাষ্টমী, মহানবমী পেরিয়ে দুর্গাপূজার আজ বিজয়া দশমী। প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শুক্রবার আনুষ্ঠানিকতা শেষ হচ্ছে বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় এ উৎসবের।

বুধবার (৫ অক্টোবর) সকাল ১০টায় যথারীতি দশমীবিহিত পূজা শুরু হয়, যা বিকাল পর্যন্ত অশ্রুসিক্ত দর্পণ বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে। প্রতিমা বিসর্জনের মাধ্যমে দেবী দুর্গা এই মর্ত্যলোক ছেড়ে কৈলাসে ফিরছেন।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ জানিয়েছে, আজ সকালে দশমীবিহিত পূজা শেষে দর্পণ বিসর্জন শুরু হয় সারা দেশে। বিজয়ার শোভাযাত্রা নিয়ে চলছে প্রতিমা বিসর্জনের পালা। বিসর্জন শেষে শান্তিজল নিয়ে ঘরে ফিরবেন হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ।

প্রতিমা বিসর্জন দিতে ঢাকেশ্বরী মন্দির থেকে বিকাল ৪টায় কেন্দ্রীয় বিজয়া শোভাযাত্রা বের হয়। এতে যোগ দেয় ঢাকার ২৪১টি মণ্ডপ থেকে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষজন। তারা ঢাকঢোল পিটিয়ে পলাশীর মোড়ে জড়ো হন। এখান থেকে সম্মিলিতভাবে বিজয়ার শোভাযাত্রা যাবে সদরঘাটের ওয়াইজঘাটের বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে। এরপর চলছে প্রতিমা বিসর্জন।

এ সময় শঙ্খ আর উলুধ্বনি, খোল-করতাল-ঢাকঢোলের সনাতনী বাজনা বাজিয়ে মানুষ উৎসবে মেতে উঠেন। এদিকে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ওয়াইজঘাটে ব্যাপক পুলিশ, র‌্যাব ও নৌ পুলিশ বাহিনীর সদস্য মোতায়েন ছিল।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি জে এল ভৌমিক বলেন, ‘ঢাকা ও ঢাকার বাইরে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা নিয়ে এবারের দুর্গোৎসব হচ্ছে। আজ বিসর্জনের মধ্য দিয়ে আয়োজন শেষ হবে। এখন পর্যন্ত কোথাও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। আমরা আনন্দমুখর পরিবেশে পূজা উদযাপন করছি। শেষ সময়ে মণ্ডপগুলোতে বিদায়ের সুর লক্ষ করা যাচ্ছে।’

এ বছর সারাদেশের ৩২ হাজার ১৬৮টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা উদযাপন করা হচ্ছে। গত বছর সারা দেশের পূজামণ্ডপের সংখ্যা ছিল ৩২ হাজার ১১৮টি; যা গত বছরের থেকে ৫০টি বেশি। আর ঢাকা মহানগরে মণ্ডপের সংখ্যা ২৪১টি; যা গত বছরের থেকে ছয়টি বেশি।

;

বিয়ে বাড়িতে কিশোরীকে ধর্ষণ



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নোয়াখালী
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলায় বাড়ির পাশের দূর সম্পর্কের চাচাতো বোনের বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়ে এক কিশোরী (১৫) ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ঘটনার পর পরই অভিযুক্ত যুবক সপরিবারে পলাতক রয়েছে।

মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) রাত ১১টার উপজেলার কবিরহাট পৌরসভার ৬নম্বর ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। পরে দিবাগত রাত ২টার দিকে নির্যাতিত কিশোরীকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে পুলিশ।

অভিযুক্ত যুবকের নাম টিপু (২৫)। সে উপজেলার সুন্দলপুর ইউনিয়নের কালামুন্সি বাজার সংলগ্ন মালি পাড়া এলাকার নুরনবী মেম্বার বাড়ির রফিকের ছেলে।

পুলিশ ও এবং নির্যাতিত কিশোরীর পরিবার জানায়, অভিযুক্ত যুবক ও নির্যাতিত কিশোরী দূর সম্পর্কের মামাতো-ফুফাতো ভাই বোন। গতকাল মঙ্গলবার ওই কিশোরী তার পরিবারের সদস্যদের সাথে বাড়ির পাশে আরেক আত্মীয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে যায়। একপর্যায়ে ওই কিশোরের মা-বাবা বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে তাদের বাড়িতে চলে যায়। পরে অভিযুক্ত টিপু কৌশলে ওই কিশোরীকে বিয়ে বাড়ির একটি বিল্ডিংয়ের ছাদে নিয়ে ধর্ষণ করে। তারপর কিশোরী অসুস্থ হয়ে পড়লে ওই ধর্ষক ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।

কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, পুলিশ রাত ২টার দিকে খবর পেয়ে ভুক্তভোগী কিশোরীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। ভুক্তভোগী কিশোরের পিতা থানায় এসেছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। অভিযুক্ত যুবক ও তার পরিবারের সদস্যরা পলাতক রয়েছে। পুলিশ আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছে।

;