স্কুল নয়, যেন কোন শিশু পার্ক



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নীলফামারী
নীলফামারী জলঢাকা উপজেলার বালাগ্রাম সাউথ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

নীলফামারী জলঢাকা উপজেলার বালাগ্রাম সাউথ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

  • Font increase
  • Font Decrease

সারি সারি ফুলের গাছ, বিভিন্ন খেলার সরঞ্জাম ও শিশু বান্ধব মনোরম এক পরিবেশ প্রথম দেখায় যে কারো মনে হতে পারে এটি কোন শিশু পার্ক। তবে শিশু পার্ক নয়, এটি নীলফামারী জলঢাকা উপজেলার বালাগ্রাম সাউথ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চিত্র। শিক্ষার্থীদের জন্য মনোরম পরিবেশ আর পড়াশুনায় উদ্যম ফেরাতে এমন উদ্যোগ প্রতিষ্ঠানটির প্রধান শিক্ষকের।

সরেজমিনে দেখা যায়,  স্কুলের সামনের অংশে নানা জাতের ফুল গাছের মাধ্যমে করা হয়েছে সৌন্দর্য বর্ধন। পরিপূর্ণ পরিকল্পনার মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে একটি শিশু পার্কের মত। আর তারই মাঝে বসানো হয়েছে স্লাইড, স্লীপার, দোলনা, জঙ্গল জিম সহ শিশু পার্কের বিভিন্ন খেলার সরঞ্জাম। শুধু শিশুরা নয় এমন পরিবেশে মুগ্ধ হতে বাধ্য সব বয়সের মানুষ।

মনোরম এমন পরিবেশে এক সাথে শিক্ষার্থীদের পড়াশুনা খেলাধুলা ও শিশু পার্কের মত ঘুড়াঘুড়ি সুযোগ হওয়ায় স্কুল বিমুখ অনেক শিক্ষার্থী হয়েছে স্কুল মুখি।বেড়েছে শিক্ষার্থীদের তুলনা মুলক উপস্থিতি ও পড়াশুনার চাহিদা। এছাড়াও স্কুলের এমন নিরাপদ পরিবেশে নিশ্চিন্ত মনে বাচ্ছাদের স্কুলে পাঠানোর পাশাপাশি খুশি অভিভাবকরা।


বালাগ্রাম মন্তের ডাঙা এলাকার ছবিতা রানীর ছেলে বিমল বিদ্যালয়টির চতুর্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থী। আগে বিমলকে স্কুলে পাঠাতে অনেক কাঠখড় পুড়াতে হতো ছবিতা রানীকে।

তবে এখন স্কুলে যাওয়ার জন্য বিমল নিজেই উদ্যমী জানিয়ে ছবিতা রানী বলেন, বিমল আগে স্কুল যেতে চাইত না। সে অনেক ঝামেলা করত স্কুলে যেতে এখন তাকে আর বলা লাগেনা। সেদিন স্কুলে গেলাম স্কুলের পরিবেশ দেখে অবাগ হয়েছি। বিমল ও তার বন্ধুরা খেলছিল টিফিন টাইমে। এমন স্কুল সচারাচর দেখা যায় না ধন্যবাদ স্কুল কর্তৃপক্ষকে।

একই এলাকার বিপ্লব ঘোষ বলে, শুধু স্কুলের পরিবেশ নয়, পরিবেশের মতই সুন্দর স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকা। তারা ছেলে মেয়েদের এমন যত্ন নেয় শিক্ষকরা তা এখানে না দেখলে বুঝতাম না। স্কুলটির রেজাল্ট ও অনেক ভালো। আর পরিবেশ তো আপনারা দেখলেন।

পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী  ছামিয়া আক্তার বলে, আগে মাঠটা ফাঁকা ছিলো। কেমন দেখাতো সার পার্কের মত করে দিছে। এখন আমাদের খেলা ধুলা আর পরিবেশ টাও ভালো লাগে। আমি নিয়মিত স্কুলে আসি।


প্রতিষ্ঠানটির প্রধান শিক্ষক আফজালুর রহমান বলেন, আসলে আমরা মনে করি যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা স্কুলে আসতে চায় না। যখন স্কুলে আসতে চায়না তখন তাদের স্কুলের প্রতি তত আগ্রহ থাকে না। তো আমাদের চিন্তা হয়েছে যে স্কুলের প্রতি কিভাবে তাদের আগ্রহ সৃষ্টি করা যায়। স্কুলে তারা নিয়মিত হলে তারা পড়ালেখার ক্ষেত্রে এমনিতে আগ্রহী হবে। এরই ধারাবাহিকতায় এই আমরা উদ্যোগ নেই যে স্কুলের পরিবেশ টা শিশু বান্ধব করি। পরিবেশ যখন শিশু বান্ধব হবে তখন শিক্ষার্থীদের পিছনে আমাদের ছুটতে হবেনা, শিক্ষার্থীরাই প্রতিদিন স্কুলে আসবে। সে যায়গা থেকে এই ব্যতিক্রম কিছু করা।  এতে আমার সহকর্মীরা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্যার আমাদের অনেক সাহায্য করেছে দিক নির্দেশনা দিয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান বলেন, শিক্ষাই জাতীর মেরুদণ্ড।যদি আমরা মান সম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে না পারি তাহলে জাতী অনেক টা পিছিয়ে থাকবে। দীর্ঘ ২ বছর করোনা মহামারীর কারনে আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে অনেকটাই ক্ষতি হয়েছে,শিক্ষার্থীরা স্কুল থেকে অনেক টা দূরে থাকার কারনে তারা স্কুল মুখী হন নাই। তাদের শিক্ষার পরিবেশ থেকে অনেকটাই তারা দূরে ছিল। এই ভিতি কাটিয়ে তোলার জন্য আমাদের মান সম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করা, তাদের স্কুল ভীতি কাটিয়ে পুনরায় তাদের স্কুলের পরিবেশে নিয়ে আসার জন্য পড়াশুনার পাশাপাশি মানবিক বিকাশে কোন বিকল্প নাই।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের কে স্কুলে ফিরে আনার জন্য বালাগ্রাম সাউথ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় যে উদ্যোগ নিয়েছে তা অত্যান্ত প্রশংসনীয়। এ ক্ষেত্র উপজেলা প্রশাসন, আমাদের মাননীয় সংসদ সদস্য আমাদের জন প্রতিনিধি দের আন্তরিক সহযোগিতা রয়েছে। এই পরিবেশ উপজেলার অনান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে ছরিয়ে দেওয়ার প্র‍য়াস অব্যাহত থাকবে।

মিছিল-সমাবেশে লাঠিসোঁটা আনা পুলিশের জন্য হুমকি: হাফিজ আক্তার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজনৈতিক দলের মিছিল-সমাবেশে লাঠিসোঁটা আনা পুলিশের জন্য হুমকিস্বরূপ বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস) এ কে এম হাফিজ আক্তার। তাই এগুলো রাজনৈতিক কর্মসূচিতে না আনার অনুরোধ করেছেন তিনি।

বুধবার (২৮ অক্টোবর) বিকেলে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন ডিএমপির এ অতিরিক্ত কমিশনার।

হাফিজ আক্তার বলেন, রাজনৈতিক দলের মিছিল-মিটিংয়ে লাঠিসোঁটা বা দেশীয় অস্ত্র আনা যাবে না। এগুলো আনার কোনো প্রয়োজন নেই। যারা সমাবেশ করবেন, তারা সমাবেশ করে চলে যাবেন।

বিভিন্ন জায়গায় রাজনৈতিক সমাবেশ করার অনুমতি না দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, পরিস্থিতি বুঝে ডিসিরা মতামত দেন। একাধিক সংগঠন সমাবেশ করার অনুমোদনের জন্য একসঙ্গে আবেদন করে। তখন আমরা নাগরিক সুরক্ষার জন্য অনুমোদন দেই না।

তিনি আরও বলেন, ডিএমপি থেকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে লাঠি এবং জাতীয় পতাকা নিয়ে যেন কেউ সমাবেশে না আসেন। পতাকা পড়ে গেলে এটা যেন অবমাননা না হয়। সমাবেশ করতে অনুমোদন দিতে আমাদের কোনো সমস্যা নেই। তবে যেটাতে শুধু সমস্যার সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা থাকে সেটা দেবে না। বাকি জায়গায় প্রতিনিয়তই প্রোগ্রাম হচ্ছে।

;

বগুড়ায় এক সন্ত্রাসীকে কুপিয়ে হত্যা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বগুড়া
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বগুড়ার শেরপুরে মর্তুজা কাওসার অভি (৩৮) নামের এক সন্ত্রাসীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে শেরপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে অভিকে কুপিয়ে ফেলে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা।

নিহত অভি শেরপুর রেজিস্ট্রি অফিস সংলগ্ন খন্দকার পাড়ার মৃত ফুয়া সরকারের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, অভি সরকারি দলের ছত্রছায়ায় থেকে শেরপুর পৌর শহরে বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করতেন। দুই সপ্তাহ আগে সোহাগ নামের এক যুবককে অভি ছুরিকাঘাত করে। সে ঘটনায় অভির বিরুদ্ধে শেরপুর থানায় মামলা হয়।এরপর অভি আত্মগোপনে থেকে উচ্চ আদালত থেকে জামিন পেয়ে শেরপুরে আসেন।

বুধবার সন্ধ্যার পর শেরপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে দুর্বৃত্তরা অভিকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ফেলে রেখে যায়। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আতাউর রহমান বলেন, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে অভিকে কুপিয়ে হত্যা করা হয় বলে প্রাথমিকভাবে জানাগেছে। হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতার করতে অভিযান শুরু হয়েছে।

অভির নামে শেরপুর থানায় একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানান তিনি।

;

এসএসসির নির্বাচনী পরীক্ষার ফল ৩০ নভেম্বরের মধ্যে



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

২০২৩ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের নির্বাচনী পরীক্ষার ফল আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশনা দিয়েছে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড।

বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) কমিটির আহ্বায়ক ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক মো. আবুল বাশারের স্বাক্ষর করা অফিস আদেশ থেকে এ তথ্য জানা যায়।

এতে বলা হয়, ২০২৩ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের নির্বাচনী পরীক্ষা নিয়ে আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে ফল প্রকাশের জন্য অনুরোধ করা হলো।

চলতি বছরের ১৯ জুন পরীক্ষা শুরুর কথা থাকলেও সিলেটসহ দেশের অন্যান্য অঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির কারণে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা পিছিয়ে যায়। পরে ১৫ সেপ্টেম্বর সারাদেশে একযোগে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু হয়েছে। ১ অক্টোবর পর্যন্ত তত্ত্বীয় পরীক্ষা চলবে।

;

পুলিশের হাতে কামড় দিয়ে হ্যান্ডকাপসহ পালাল আসামি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নোয়াখালী
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে হ্যান্ডকাপসহ এক মাদক মামলার আসামি পালিয়ে গেছে। ওই আসামির নারী স্বজনেরা পুলিশের ওপর হামলাও চালিয়েছে।

পালিয়ে যাওয়া আসামির নাম ইসমাইল হোসেন বয়াতি (৪৫)। তিনি উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের জামাইয়ের টেক এলাকার আলী আজমের ছেলে।

বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিকেল সোয়া ৪টার দিকে উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার ৮নম্বর ওয়ার্ডের জামাইয়ের টেক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। কামড়ে আহত কোম্পানীগঞ্জ থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. রবিউল প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মাদক কারবারি বয়াতি পেশায় একজন ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চালক। তিনি দীর্ঘ তিন বছর যাবত রিকশা চালানো ছেড়ে দিয়ে বসুরহাট পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডে এক স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতার মদদে মাদক কারবার চালিয়ে আসছে। বুধবার দুপুরের দিকে জামাইয়েরক টেক এলাকায় মাদকবিক্রি হচ্ছে এমন গোপন খবর পেয়ে এএসআই রবিউলের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ওই এলাকায় অভিযান চালায়। অভিযানে গাঁজাসহ তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে বয়াতিকে ছাড়িয়ে নিতে তার পরিবারের কয়েকজন এসে উপস্থিত হন।

একপর্যায়ে আসামিকে নিয়ে পুলিশ সদস্যরা থানায় আসার পথে উদ্যত হলে ঘটনাস্থলে একজন নারী পুলিশের হাতে কামড় দিয়ে আসামিকে ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় পুলিশ ঘটনাস্থলে দফায় দফায় অভিযান চালিয়ে মাদক কারবারি বয়াতির মামা মোশারেফ (১৯), সৌরভ (২৪), মামাতো ভাই কালা (১৯) ও প্রতিবেশী ইমনসহ (২৪) কয়েকজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। রাত ৮টা পর্যন্ত পালিয়ে যাওয়া মাদক কারবারি বয়াতি ও তার নিজ পরিবারের কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

জানতে চাইলে সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো.রবিউল বলেন, ঘটনাস্থলে আমরা ৪-৫ জন পুলিশ ছিলাম। নারী হওয়ায় আমরা কিছু করতে পারিনি।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাদেকুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পালিয়ে যাওয়া বয়াতিকে গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তিনি এলাকার চিহিৃত মাদক কারবারি। তার বিরুদ্ধে কোম্পানীগঞ্জ থানায় একাধিক মাদক মামলা রয়েছে।

;