পদ্মা সেতু: ইতিহাসের সাক্ষী হতে রাজবাড়ী ছাড়বেন লাখো মানুষ

  ‘স্বপ্ন ছুঁয়েছে’ পদ্মার এপার-ওপার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজবাড়ী
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

২৫ জুন (শনিবার) বাঙালি জাতির জন্য একটি স্মরণীয় ও স্মৃতিময় দিন। এই দিনটির জন্য কোটি মানুষ অপেক্ষায় রয়েছেন। অপেক্ষার পালা প্রায় শেষের পথে। আর মাত্র বাকি তিনদিন। তিনদিন পরেই উদ্বোধন হবে ১৭ কোটি মানুষের স্বপ্নের পদ্মা সেতু। আর এটি উদ্বোধন করবেন পদ্মা সেতু নির্মাণের স্বপ্নদ্রষ্টা বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরই মধ্যে উদ্বোধনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন সরকার ও সেতু কর্তৃপক্ষ।

ইতিহাসের সাক্ষী হতে এদিন রাজবাড়ী ছাড়বেন প্রায় লাখো মানুষ। পদ্মা সেতুর উদ্বোধনকে ঘিরে রাজবাড়ীর পাঁচটি উপজেলার শহর থেকে প্রত্যন্ত গ্রামঞ্চলে চলছে নানা হিসাব-নিকাশ। পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের দিনটি নিজেদের জীবনকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য সবাই নিচ্ছেন প্রস্তুতি। এদিন লাখো মানুষ রাজবাড়ী থেকে পদ্মা সেতুর উদ্দেশ্যে রওনা হবেন।

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের দিনটি রাজবাড়ীবাসীকে সম্পৃক্ত করতে দিনরাত কাজ করছেন জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ। এরই মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. জিল্লুল হাকিম নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে প্রতিনিয়ত মিটিং করে পরিকল্পনা করছেন কিভাবে সুন্দর ও সুষ্ঠুবে সবাইকে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের সাক্ষী করে রাখা যায়। সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে দলীয় সকল সংগঠনের নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় ও প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১৪ জুন বিকালে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের হলরুমে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. জিল্লুল হাকিমের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী বক্তব্য রাখেন।

প্রস্তুতিমূলক সভা

সংসদ সদস্য মো. জিল্লুল হাকিম বার্তা২৪.কম-কে বলেন, ২৫ জুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু উদ্বোধন করবেন। এ জন্য দেশের মানুষের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা বিরাজ করছে। আমার কাছে মনে হচ্ছে সেখানে ২০ থেকে ২৫ লাখ লোকের সমাগম ঘটবে। রাজবাড়ী থেকে আমরা বাসে করে ওই উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগদান করে ইতিহাসের সাক্ষী হবো। যারা যেতে পারবেন না তাদের জন্য প্রতিটি উপজেলায় বড় পর্দায় দেখানো হবে। কেউ মোটরসাইকেল নিয়ে যাবেন না। রাজবাড়ী থেকে যে গাড়িগুলো যাবে তার প্রতিটিতে ভলান্টিয়ার থাকবে । আমরা শান্তিপূর্ণভাবে ওই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবো। আশা করছি ওই দিন রাজবাড়ী থেকে লাখো মানুষ শরীক হবে প্রধানমন্ত্রীর জনসভায়।

সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী বলেন, স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আমরা রাজবাড়ী থেকে যোগদান করবো । এ উপলক্ষে প্রতিটি উপজেলা, পৌরসভা ও ইউনিয়নে বাস দেওয়া হবে । সবাই মিলে সুন্দরভাবে ওই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে আমরা ইতিহাসের সাক্ষী হবো।

  ‘স্বপ্ন ছুঁয়েছে’ পদ্মার এপার-ওপার

ট্রাভেল রাইটার্স এসোসিয়েশনকে কোরীয় দূতাবাসের প্রশংসাপত্র



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ট্রাভেল রাইটার্স এসোসিয়েশনকে কোরীয় দূতাবাসের প্রশংসাপত্র

ট্রাভেল রাইটার্স এসোসিয়েশনকে কোরীয় দূতাবাসের প্রশংসাপত্র

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশ ট্রাভেল রাইটার্স এসোসিয়েশনকে (বিটিডাব্লিউএ) বিশেষ প্রশংসাপত্র (লেটার অব অ্যাপ্রেসিয়েশন) দিয়েছে রিপাবলিক অব কোরিয়ার (দক্ষিণ কোরিয়া) বাংলাদেশ দূতাবাস।  গত বছরের ২৪ থেকে ২৬ নভেম্বর পর‌্যন্ত জাতীয় জাদুঘরে অনুষ্ঠিত কোরিয়ান ফিল্ম ও ট্রাভেল ফেস্টিভ্যালে সহযোগিতার জন্য এই প্রশংসাপত্র দেওয়া হয়।

গত বুধবার (১০ আগস্ট) রাজধানীর বারিধারায় কোরীয় দূতাবাসে এসোসিয়েশন সভাপতি আশরাফুজ্জামান উজ্জ্বলকে ওই প্রশংসাপত্র দেন কোরীয়ান রাষ্ট্রদূত লি জঙ কেউন। উজ্বল ওই ফেস্টিভ্যালে দক্ষিণ কোরিয়া নিয়ে মালটিমিডিয়া প্রেজেন্টেশন দিয়েছিলেন। প্রশংসাপত্র হস্তান্তরের সময়ে সংগঠনের নির্বাহী সদস্য শাকিল বিন মুশতাক উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ ট্রাভেল ট্রাভেল রাইটার্স এসোসিয়েশন সভাপতি উজ্জ্বল জানান, আগামীতে দক্ষিণ কোরিয়া ও বাংলাদেশ নিয়ে আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্যোগ নেওয়া হবে। পাশাপাশি দক্ষিণ কোরিয়া নিয়ে একটি বই প্রকাশ করা হবে। বইটিতে কোরিয়ার ঐতিহ্য, পর‌্যটন স্থান, সাহিত্য, সিনেমা, খাবার, ভ্রমণ ইত্যাদি নিয়ে ১০টি লেখা থাকবে। বইটি হবে বাংলা ভাষায়। প্রতিটি লেখার কলেবর হবে ১২০০ থেকে ১৫০০ শব্দের মধ্যে। দক্ষিণ কোরিয়া নিয়ে যে কেউ লিখতে পারবেন। ২৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে লেখা পাঠানো যাবে এই ইমেইল ঠিকানায়-  [email protected] ও http://www.bdtwa.com.

  ‘স্বপ্ন ছুঁয়েছে’ পদ্মার এপার-ওপার

;

১০ টাকা দরে চাল, কার্ড নবায়নে ৫০০ টাকা নেওয়ার অভিযোগ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
১০ টাকা দরে চাল, কার্ড নবায়নে ৫০০ টাকা নেওয়ার অভিযোগ

১০ টাকা দরে চাল, কার্ড নবায়নে ৫০০ টাকা নেওয়ার অভিযোগ

  • Font increase
  • Font Decrease

নীলফামারী জলঢাকায় ডাউয়াবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম মুকুলের বিরুদ্ধে ১০ টাকা কেজি দরে চালের কার্ড নবায়ন করার জন্য কার্ড প্রতি ৫০০ টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) দুপুরে জলঢাকা উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে এই অভিযোগ জানাতে উপজেলা চত্বরে আসেন ডাউয়াবাড়ি ইউনিয়নের শতাধিক কার্ডধারী ভুক্তভোগী।

জানা যায়, ২০১৮ সাল থেকে বাংলাদেশ সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় ৫০ লাখ মানুষের মধ্যে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি করা হচ্ছিল। সাবেক চেয়ারম্যানের অবদানে ডাওয়াবাড়ি ইউনিয়নের শতাধিক মানুষ এসেছিল সরকারের সেই কর্মসূচির আওতায়। তবে সেই কার্ড নবায়নের জন্য গেলে করলে বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম (মুকুল) জন প্রতি ৫০০ টাকা দাবি করেন। এতে ভুক্তভোগীরা দিতে রাজি না হলে বাতিল করার কথা বলে। তাতে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রায় শতাধিক ভুক্তভোগী নারী পুরুষ জলঢাকা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহাবুব হাসানের কাছে আসে অভিযোগ জানাতে।

ডাওয়াবাড়ি নেকবক্ত এলাকার ভুক্তভোগী শরিফা খাতুন বলেন, চেয়ারম্যান আমাদের ফ্রি কার্ড করি দিছে। তা হামা ৫ বছর থাকি খাইনো। এখন এয় নয়া চেয়ারম্যান আসি ৫০০ টাকা করি চায়। নইলে বেলে কার্ড বাতিল হইবে। হামা ৫০০ টাকা কোটে পাই।

ষাটোর্ধ্ব মোয়াজ্জেম আলী বলেন, খোকন কার্ড আগোত হামাক ফ্রি করি দেল আগের চেয়ারম্যান। মুকুল আসি ৫০০ করি টাকা চায়।

৮ নং ওয়ার্ডের মনোয়ারা বেগম বলেন, কার্ড নবায়ন করার জন্য কম্পিউটার অপেরাটর মৃনালের কাছে গেলে সে বলে মেম্বাররের অনুমতি লাগবে। নইলে কার্ড হবে না।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম মুকুলের সাথে ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তিনি ফোন ধরেননি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসানের সাথে ফোনে একাধিক বার কল দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

  ‘স্বপ্ন ছুঁয়েছে’ পদ্মার এপার-ওপার

;

আড়াই ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত মোংলার নিম্নাঞ্চল ও সুন্দরবন



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আড়াই ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত মোংলার নিম্নাঞ্চল ও সুন্দরবন

আড়াই ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত মোংলার নিম্নাঞ্চল ও সুন্দরবন

  • Font increase
  • Font Decrease

লঘুচাপের প্রভাবে বৃহস্পতিবারও স্বাভাবিকের তুলনায় অতিরিক্ত আড়াই ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হয়েছে মোংলার নিম্নাঞ্চলসহ পুরো সুন্দরবন এলাকা। অস্বাভাবিক জোয়ারে তলিয়ে গেছে পশুর নদীর পাড়ের বিভিন্ন এলাকার ঘরবাড়ী।

বিশেষ করে মোংলা বন্দর ও সুন্দরবনের পশুর নদীর পাড়ের এলাকার বাসিন্দাদের ঘরবাড়ী তলিয়ে যাওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষগুলো এখন আশপাশের অন্যের বাড়ীঘর ও রাস্তার উপর আশ্রয় নিয়েছেন। লঘুচাপের এ জলোচ্ছ্বাসে উপজেলার চিলা, চাঁদপাই ও বুড়িরডাঙ্গা ইউনিয়নের পশুর নদীর পাড়ের বাসিন্দারাই বেশি ক্ষতির মুখে রয়েছেন। চারিদিকে পানিতে প্লাবিত হওয়ায় অনেকেই তাদের গবাদী পশু নিয়ে এক ঘরেই বসবাস করছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার চাঁদপাই ইউনিয়নের কানাইনগর গ্রামে গিয়ে দেখা গেছে সেখানকার বাড়ীঘর পানিতে তলিয়ে রয়েছে। কানাইনগরের বাসিন্দা নার্গিস বেগম বলেন, আমরা পশুর নদীর পাড়ে বসবাস করি। কিন্তু আবহাওয়া খারাপ হওয়ায় এ নদীর পানি বাড়ায় চারপাশ পানিতে তলিয়ে গেছে। তাই গরু, ছাগল ও হাঁস-মুরগি নিয়ে এক ঘরেই থাকছি। কি করবো, গবাদী পশু কোথায় রাখবো আর আমরাও যাবো কোথায়।

একই এলাকার মনোনিত্য আদিত্য বলেন, জলোচ্ছ্বাসে আমার থাকার ঘরটি তলিয়ে গেছে। তাই দুইদিন ধরে বাচ্চাকাচ্চা নিয়ে রাস্তা ও অন্যের ঘরের বারান্দায় থাকছি। এছাড়া যাওয়া ও থাকার তো কোন জায়গা নেই। 

এছাড়া আড়াই ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হয়েছে পুরো সুন্দরবন এলাকা। পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের করমজল পর্যটন ও বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আজাদ কবির বলেন, চলমান বৈরী আবহাওয়ায় প্রচুর পরিমাণ পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। আড়াই ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে সুন্দরবনের সব জায়গা তলিয়ে গেছে। তিনি আরো বলেন, জলোচ্ছ্বাসে সুন্দরবন প্লাবিত হওয়ায় এখনও পর্যন্ত বন্যপ্রাণীর তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতি না হলেও তবে সম্ভাব্য ক্ষতির আশংকা রয়েছে। 

এদিকে বৃহস্পতিবারও মোংলাসহ সংলগ্ন উপকূলীয় এলাকায় তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত বহাল রয়েছে। মোংলা আহাওয়া অফিসের ইনচার্জ অমরেশ চন্দ্র ঢালী বলেন, লঘুচাপটি দুর্বল হয়ে ভারতের মধ্যপ্রদেশে অবস্থান করছে। এর প্রভাব ও বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া পূর্ণিমার গোনের কারণে স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে অতিরিক্ত ২ থেকে ৪ ফুট উচ্চতা কিংবা তারচেয়ে বেশি জলোচ্ছ্বাসে উপকূলীয় এলাকা প্লাবিত হবে। তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার ভোর ৬টা থেকে ৯টা পর্যন্ত মোংলায় ১৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। তিনি আরো বলেন, শুক্রবার বিকেল ৩ থেকে ৬টার পর থেকে এ বৈরী আবহাওয়া কেটে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। শনিবার থেকে আবহাওয়া স্বাভাবিক হয়ে আসবে বলেও জানান তিনি।

  ‘স্বপ্ন ছুঁয়েছে’ পদ্মার এপার-ওপার

;

‘বিশ্বের ১৭০ দেশ দেউলিয়া হলে তবেই বাংলাদেশ হবে’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজশাহী
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম

  • Font increase
  • Font Decrease

 

বিশ্বের ১৭০টি দেশ দেউলিয়া হলে তবেই বাংলাদেশ দেউলিয়া হবে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

বৃহস্পতিবার সকালে নিজের নির্বাচনি এলাকা রাজশাহীর বাঘা উপজেলার অমরপুর ধন্দহ উচ্চ বিদ্যালয়ের নবনির্মিত চারতলা একাডেমিক ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শাহরিয়ার আলম এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ‘পৃথিবীর ১৭০টি দেশ দেউলিয়া হলে তবেই বাংলাদেশ দেউলিয়া হবে, যা অসম্ভব। এতগুলো দেশ একসঙ্গে দেউলিয়া হলে পৃথিবীই টিকে থাকবে না। বাংলাদেশকে যারা পেছনে টেনে নিতে চায়, তারাই এসব বলে জনমনে আতঙ্ক ছড়ানোর চেষ্টা করছে। আসলে বাংলাদেশকে পেছন থেকে টেনে ধরাই সমালোচনাকারীদের উদ্দেশ্য।’

শাহরিয়ার আলম বলেন, ‘বর্তমানে দেশে রিজার্ভ ৪২ বিলিয়ন ডলার। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে রিজার্ভ ছিল সাড়ে ৬ বিলিয়ন। শেখ হাসিনার দূরদর্শী চিন্তাভাবনা ও নেতৃত্বের ফলে রিজার্ভ এই পর্যায়ে উন্নীত হয়েছে। আমাদের রেমিটেন্সও ভাল। গত বছরের জুলাই থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত যে রেমিটেন্স এসেছে, এ বছর ওই সময়ে তা ২০ শতাংশ বেশি হবে। গত বছর আমাদের রপ্তানি আয় ছিল ৫২ বিলিয়ন ডলার, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি। এবার লক্ষ্যমাত্রা ৬০ বিলিয়ন ডলার। এবারও  আমরা লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করব।’

রাজশাহী-৬ (বাঘা-চারঘাট) আসনের এই সংসদ সদস্য বলেন,  ‘আমরা সময় নষ্ট করতে চাই না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সময় নষ্ট করতে চান না। ২০৪১ সালের মধ্যে আমাদেরকে উন্নত দেশে রূপান্তর হতে হবে। এ জন্য আমাদের শিক্ষার উন্নয়ন করতে হবে, দক্ষতা বাড়াতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষাবান্ধব, ছাত্র-ছাত্রীবান্ধব যে পরিকল্পনা তার-ই অংশ হিসেবে অমরপুর-ধন্দহ উচ্চ বিদ্যালয়ের চারতলা ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।’

এদিকে দুপুরে বাঘা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ক্যান্সার, কিডনী, লিভার সিরোসিস, স্ট্রোকে প্যারালাইজড, জন্মগত হৃদরোগ ও থ্যালাসেমিয়া রোগীর অনুদানের ও যুব ঋণের চেক বিতরণ বিষয়ক অপর এক অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে ১৪ জন রোগীকে ৫০ হাজার টাকার ১৪টি ও ১৫ লাখ ৭০ হাজার টাকার ৩৭টি যুব ঋণের চেক বিতরণ করা হয়।

উপজেলা সমাজসেবা অফিস ও উপজেলা যুব উন্নয়ন অফিসের সার্বিক সহযোগিতায় বাঘা উপজেলা প্রশাসন এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে সভাপতিত্ব করেন  উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শারমিন আক্তার। অনুষ্ঠানে উপজেলা চেয়ারম্যান লায়েব উদ্দীন লাভলু উপস্থিত ছিলেন।

  ‘স্বপ্ন ছুঁয়েছে’ পদ্মার এপার-ওপার

;