কিশোরগঞ্জের সৈয়দ নজরুল মেডিকেল হাসপাতালে রোগীর আর্তি!



কনক জ্যোতি, কন্ট্রিবিউটিং করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ, সংগৃহীত

শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ, সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

 

কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা ব্যবস্থার করুণ পরিস্থিতি জানিয়ে মর্মস্পর্শী আর্তি জানিয়েছেন একজন ভোক্তভোগী রোগী। কিশোরগঞ্জ শহরের ফিশারি রোডের বাসিন্দা ব্যবসায়ী খালেদ শামস তুষার নিজের চরম কষ্টকর ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার জানিয়ে বলেন, "আমাদের সকলের প্রাণের নেতা সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের অনেক স্বপ্ন নিয়ে গড়া এই হাসপাতালের এহেন অবস্থা দেখে কিশোরগঞ্জের একজন নাগরিক হিসাবে আমি লজ্জাবোধ করছি। আমি এই ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে করজোড়ে আবেদন করছিযেন সৈয়দ আশরাফ সাহেবের আত্মার প্রতি সন্মান জানিয়ে এই ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হয়।"

বার্তা২৪.কম'কে খালেদ শামস তুষার জানান, "গত রবিবার (১৯ জুন) বুকে ব্যথা নিয়ে আমি আত্মীয়-প্রতিবেশীদের সহায়তায় অত্যন্ত অসুস্থ অবস্থায় সৈয়দ নজরুল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কার্ডিয়াক সিসিসি'তে ভর্তি হই। কিন্তু আমার অভিজ্ঞতা অবর্ণীয়। সিসিইউ ইউনিটে না আছে বেড,  না আছে এসি সাপ্লাই, না আছে সিসিইউ'র জন্য উপযুক্ত নার্স। এমন কি সিসিইউ'র জন্য কোনও ইমারজেন্সি ডাক্তার পর্যন্ত নেই। আছে শুধু ২ টা স্ট্যানড পাখা। আর যে বেডগুলো আছে, তা মোটেও সিসিও'র উপযুক্ত নয়।"

তিনি বলেন, "সবচেয়ে আশ্চর্য ঘটনা হলো, একজন কার্ডিয়াক মুমূর্ষু রোগীকে বাথরুমে যাবার জন্য প্রায় ৫০০ মিটার হেঁটে যেতে হয়। আর এটাকে বাথরুম বলব না অন্য কিছু বলব আমার জানা নাই। এই হলো কার্ডিয়েক সিসিইউ ইউনিটের অবস্থা। অন্যান্য ইউনিটের কি অবস্থা আমার জানা নাই।"

খালেদ শামস তুষার বলেন, "বর্তমানে কিশোরগঞ্জের বেসরকারি ক্লিনিক ও চেম্বার যারা পরিচালনা করছেন, তারা চায় না সরকারি হাসপাতলে রোগী যাক। তাই তারা কিছু অসাধু ডাক্তার সিন্ডিকেটের সহযোগিতায় এই সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের এই অবস্থা করে রেখেছে।"

উল্লেখ্য, শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ কিশোরগঞ্জ জেলায় অবস্থিত চিকিৎসা বিষয়ক উচ্চশিক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবা দানকারী একটি প্রতিষ্ঠান। সরাসরি সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত এই প্রতিষ্ঠানটি ২০১১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। কিন্তু মহল বিশেষের নানা অসহযোগিতা ও ষড়যন্ত্রের কারণে প্রতিষ্ঠার ৯ বছর পর অবশেষে মুজিববর্ষের প্রথম দিনে পূর্ণাঙ্গভাবে চালু হয় বহুল প্রত্যাশিত শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল।

সরকারি সূত্রানুসারে, শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠার জন্য বাজেট হিসাবে আনুমানিক ৫.৪৫ বিলিয়ন টাকা ব্যয়ের অনুমোদন দেয়া হয়। প্রকল্পের মধ্যে ছয়তলা হাসপাতাল ভবন, একাডেমিক ভবনের জন্য পাঁচতলা কলেজ, নার্স প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, শিক্ষার্থী ছাত্রাবাস, ইন্টার্নি ডাক্তারদের হোস্টেল, ডাক্তারদের ছাত্রাবাস, স্টাফ নার্সদের ছাত্রাবাস, মসজিদ, মিলনায়তন, অধ্যক্ষ ও পরিচালকদের আবাসিক ভবন, জিমনেসিয়াম ইত্যাদি স্থাপনা তৈরিসহ সরঞ্জাম সংগ্রহ, একটি মাইক্রো-বাস, দুটি অ্যাম্বুলেন্স এবং আসবাবপত্র কেনার বিষয় অন্তর্ভুক্ত ছিল।

মাঙ্কিপক্স: যৌন সঙ্গীর সংখ্যা কমানোর পরামর্শ ডব্লিউএইচওর



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনা মহামারির পর বিশ্বজুড়ে এখন নতুন এক আতঙ্কের নাম 'মাঙ্কিপক্স’। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মাঙ্কিপক্সের সংক্রমণকে একটি ‘সতর্কবার্তা’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

এদিকে এক গবেষণায় দেখা গেছে, মাঙ্কিপক্সের ৯৫ শতাংশ সংক্রমণের ঘটনা যৌন ক্রিয়াকলাপের মাধ্যমে হয়। খবর এএফপির।

মাঙ্কিপক্স আক্রান্তদের মধ্যে ৯৮ শতাংশ পুরুষদের ক্ষেত্রে দেখা গেছে যে তারা অন্য পুরুষদের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক করে। তাই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান তেদরোস আধানোম গেব্রেয়াসুস যৌন সঙ্গীর সংখ্যা কমানোর পরামর্শ দিয়েছেন। তবে তিনি ওইসব মানুষের প্রতি কোনও বৈষম্য না করার গুরুত্বের ওপর জোর দিয়ে বলেন, সব রকম কলঙ্কলেপন বা ঘৃণা যে কোনও ভাইরাসের মতোই বিপজ্জনক হতে পারে এবং প্রাদুর্ভাবকে আরও উস্কে দিতে পারে।

বুধবার (২৭ জুলাই) মাঙ্কিপক্স নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। খবর: আল-জাজিরার।

তবে, মাঙ্কিপক্স যৌনবাহিত সংক্রমণ নয়। কিন্তু তা ঘনিষ্ঠ শারীরিক সংসর্গের মাধ্যমে হতে পারে। গবেষণা এই ইঙ্গিত দেয় যে এখন পর্যন্ত মাঙ্কিপক্সের সংক্রমণের বেশির ভাগ ঘটনা যৌন ক্রিয়াকলাপের সঙ্গে সম্পর্কিত। প্রধানত পুরুষের সঙ্গে পুরুষের যৌন সম্পর্ক স্থাপনকারী ব্যক্তিদের মধ্যে এমনটা হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, বিশ্বের ৭৮টি দেশে ১৮ হাজারের বেশি লোকের মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হবার খবর পাওয়া গেছে। আক্রান্তদের মধ্যে ৭০ শতাংশ ইউরোপে এবং ২৫ শতাংশ আমেরিকায় বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। গত মে মাস থেকে এখন পর্যন্ত মাঙ্কিপক্স আক্রান্ত পাঁচজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে এবং আক্রান্তদের মধ্যে প্রায় ১০ শতাংশ ব্যথা নিয়ন্ত্রণের জন্য হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

ডাব্লিউএইচও গত সপ্তাহে মাঙ্কিপক্সকে বিশ্বব্যাপী জরুরি স্বাস্থ্য সতর্কতা জারি করে। আন্তর্জাতিক এই স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, যৌন যোগাযোগ, চুম্বন, নিবিড় আলিঙ্গন, দূষিত পোশাক, তোয়ালে এবং বিছানার চাদরের মাধ্যমে একজন থেকে অন্য জনের শরীরে মাঙ্কিপক্স ছড়িয়ে পড়তে পারে।

যারা মাঙ্কিপক্সে আক্রান্তদের সংস্পর্শে এসেছে এবং যাদের উচ্চ ঝুঁকি রয়েছে, যেমন স্বাস্থ্যসেবা কর্মী, পরীক্ষাগার কর্মী এবং একাধিক যৌন সঙ্গী আছে এমন ব্যক্তিদের টিকা দেওয়ার সুপারিশ দিয়েছে ডাব্লিউএইচও। তবে সংস্থাটি এই সময়ে গণ টিকা দেওয়ার পরিকল্পনার বিরুদ্ধে।

এমভিএ-বিএন নামে পরিচিত গুটিবসন্তের ভ্যাকসিন কানাডা, ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং যুক্তরাষ্ট্রে মাঙ্কিপক্সের বিরুদ্ধে ব্যবহারের জন্য অনুমোদিত হয়েছে। তা সত্ত্বেও, ডাব্লিউএইচও’র এখনও ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা সম্পর্কে যথেষ্ট তথ্য-উপাত্তের অভাব রয়েছে, তাই সমস্ত দেশকে তাদের ডেটা ভাগ করার জন্য ভ্যাকসিন ব্যবহার করার আহ্বান জানিয়েছে।

;

এবার বিচারক হলেন আলোকচিত্রী আরশান পারভেজ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
আরশান পারভেজ

আরশান পারভেজ

  • Font increase
  • Font Decrease

আরশান পারভেজ। এই প্রজন্মের জনপ্রিয় একজন আলোকচিত্রী। বিশেষ করে ফ্যাশন এবং ওয়েডিং ফটোগ্রাফিতে খুব অল্প সময়ে যে কয়েকজন নাম করেছেন তাঁর মধ্যে অন্যতম একজন তিনি। জনপ্রিয় তারকাদের ফটোগ্রাফি ছাড়াও বিভিন্ন সময় মানবজমিন, ইত্তেফাক, সময়ের আলো এবং বিনোদন বিচিত্রাতে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজ করেছেন ।

এবার আরশান পারভেজ ইয়াং ইনথুসিয়াসটিক Young Enthusiasts আয়োজিত (ছবি তুলি গল্প বলি তে) বিচারক এর ভূমিকা পালন করছেন । আরশান পারভেজ বলেন, ২০১৮ সাল থেকে ফটোগ্রাফি শুরু করি। শুরুতে শখ থাকলেও বর্তমানে এটাই আমার পেশা বলা যেতে পারে।

ফটোগ্রাফার হিসেবে ব্রিটিশ আমেরিকান টোবাকো, গান বাংলা, নেসলে বাংলাদেশ, বাংলালিংকসহ বেশ কয়েকটি স্বনামধন্য কোম্পানিতে কাজের সুযোগ হয়েছে আমার। ফটোগ্রাফির উপর ভালোবাসা আমার ছোটবেলা থেকে। এবারই প্রথম একটি ফটোর প্রতিযোগিতায় বিচারক হিসেবে কাজ করতে যাচ্ছি। বেশ ভালো লাগছে । পরিবার, বন্ধু ও শুভাকাঙ্খীদের উৎসাহে সামনে আরও এগিয়ে যেতে চাই।

;

ব্যস্ত বিউটিশিয়ান মারিয়া মৃত্তিকের জন্মদিন আজ



কন্ট্রিবিউটিং এডিটর, বার্তা২৪.কম
মারিয়া মৃত্তিক

মারিয়া মৃত্তিক

  • Font increase
  • Font Decrease

বর্তমান সময়ের অন্যতম ব্যস্ত বিউটিশিয়ান ও উদ্যোক্তা ইসরাত জাহান মারিয়া। এ অঙ্গনে মারিয়া মৃত্তিক নামে তিনি পরিচিত। আজ তার জন্মদিন। জন্মদিন প্রসঙ্গে মারিয়া মৃত্তিক বলেন, জন্মদিন মানেই প্রতিটি মানুষের জীবনে বিশেষ একটি দিন। আজকের দিনটি পরিবারকে ঘিরে নিজের মত করেই কাটাতে চাই। আমার আগামী দিনগুলো উজ্জ্বল ও সাফল্যমন্ডিত যেন হয় সকলে দোয়া করবেন।

বেশ কয়েক বছর ধরে মারিয়া মেকআপ নিয়ে কাজ করছেন। কয়েকদিন আগেই তিনি ভারতের নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত ‘কেনেডি হফম্যান মাস্টার ক্লাস’ থেকে জিতে এসেছেন সেরা বিউটিশিয়ানের পুরস্কার । এছাড়া বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মাধুরী দীক্ষিত -এর হাত থেকেও নারী লিডারশিপ উদ্যোক্তা বিষয়ক পুরস্কার পান।

এবার বাংলাদেশের প্রথম নারী মেকআপ আর্টিস্ট হিসেবে স্কিন কেয়ার কসমোটোলজিস্ট লাইসেন্সও পেয়েছেন মারিয়া মৃত্তিক । আমেরিকার পাঁচটা স্টেটে মোট ৮০ জন শিক্ষার্থীকে ওয়ার্কশপ করান তিনি। দুবাই, লন্ডন এবং কানাডায় আছে তাঁর পরবর্তী ওয়ার্কশপ ।

মারিয়া তার সেলুন ‘গ্লো বাই মারিয়া মৃত্তিক’-এ মেকআপ, স্কিন কেয়ার ও হেয়ার ট্রিটমেন্ট নিয়ে কাজ করেন। এ সময়ে ব্রাইডাল মেকআপে তার বেশি সময় কাটছে। তিনি নিজ উদ্যোগে গড়ে তুলেছেন ব্রাইডাল ফ্যাশন হাউস ‘জেকে ফরেন ব্র্যান্ড’।

;

রোজিনা, মাহির হাত থেকে পুরস্কার পেলেন সাকিব মুহতাসিম



লাইফস্টাইল ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
রোজিনা, মাহির হাত থেকে পুরস্কার পেলেন সাকিব মুহতাসিন

রোজিনা, মাহির হাত থেকে পুরস্কার পেলেন সাকিব মুহতাসিন

  • Font increase
  • Font Decrease

২০১২ সাল থেকে শােবিজে ফ্যাশন ফটোগ্রাফি শুরু করেন। এরপর অল্প সময়ে আলোচনায় আসেন সাকিব মুহতাসিম।তার কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ সম্প্রতি চিত্রনায়িকা রোজিনা, মাহির হাত থেকে পুরস্কার পেলেন তরুণ এই আলোকচিত্রী।

সম্প্রতি রাজধানীর যমুনা ফিউচার পার্কে হয়ে গেল ফ্যাশনবিষয়ক ‘আইকনিক অ্যাওয়ার্ড ২০২২’ অনুষ্ঠান । আর এই অনুষ্ঠানে ফ্যাশন ফটোগ্রাফার হিসেবে পুরস্কার গ্রহণ করেন তরুণ আলোকচিত্রী সাকিব মুহতাসিম ।

পুরস্কার পাওয়ায় সাকিব মুহতাসিম বলেন, ক্যামেরার পেছনের মানুষ হিসেবে পুরস্কার পাওয়াটা সত্যিই আনন্দের বিষয়। আর পুরস্কার পেয়ে সামনে আরও ভালো কাজ করার অনুপ্রেরণা পেলাম । আইকনিক ফ্যাশন অ্যাওয়ার্ডের আয়োজকদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

;