বিশ্বের প্রথম বিদ্যুৎচালিত যাত্রীবাহী প্লেন উড়ল



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

চিরাচরিত জ্বালানির পরিবর্তে পুরোপুরি বিদ্যুৎচালিত যাত্রিবাহী বিমান উড়ল আমেরিকার ওয়াশিংটনের আকাশে।

মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় সকালে ওয়াশিংটনের গ্র্যান্ট কাউন্টি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে আট মিনিটের সংক্ষিপ্ত যাত্রা করে অ্যালিস নামের এই বিমানটি। যদিও উদ্বোধনী উড়ানে কোনও যাত্রী ছিল না।

অ্যাভিয়েশন এয়ারক্রাফ্ট নামে ইজ়রায়েলের এক বিমান সংস্থার পরিশ্রমের ফসল এই বিমানটি। প্রথম উড়ানে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৩ হাজার ৫০০ ফুট উপরে ওঠেছিল এটি।

সংস্থার সিইও গ্রেগরি ডেভিস এই উড়ানকে ‘ঐতিহাসিক’ অ্যাখ্যা দিয়েছেন। আমেরিকার সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে তিনি বলেন, পঞ্চাশের দশকের পর এই প্রথম বিমানে পুরোপুরি নতুন প্রযুক্তি ব্যবহৃত হল।

ইজ়রায়েল জানিয়েছে, বিদ্যুৎচালিত গাড়ি বা মোবাইল ফোনের মতোই মাত্র আধ ঘণ্টায় চার্জ দেওয়া যাবে এই বিমানটিতে। ন’জন যাত্রীকে নিয়ে তা এক ঘণ্টা আকাশে উড়তে পারবে। গতি, ঘণ্টা প্রতি প্রায় ৪৪০ নটিক্যাল মাইল। প্রতি ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২৫০ নটস বা ২৮৭ মাইল গতিবেগে এগোতে পারে অ্যালিস।

মঙ্গলবারের প্রথম উড়ানের পর এ সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করে পর্যালোচনা করবে অ্যাভিয়েশন। ২০১৫ সালের এই সংস্থার আশা, আর মাত্র কয়েক বছরের মধ্যে তা যাত্রী পরিবহনে সক্ষম করে তুলতে পারবে তারা। সবকিছু পরিকল্পনামাফিক চললে ২০২৭ সালের মধ্যেই এই বিমানটি যাত্রীদের নিয়ে যাতায়াত করতে পারবে বলে মনে করছে অ্যাভিয়েশন।

হিজাবহীন নারীকে সেবা, চাকরি গেল ব্যাংক ম্যানেজারের!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সরকারি নির্দেশ অমান্য করে হিজাববিহীন এক নারীকে ব্যাংকিং সেবা দেওয়ার ‘অপরাধে’ ইরানের এক ব্যাংক ম্যানেজারকে চাকরি থেকে ছাঁটাই করা হল।

রোববার (২৭ নভেম্বর) এ খবর জানিয়েছে সে ইরানের স্থানীয় সংবাদ সংস্থা।

ইরানের মেহর নিউজ় এজেন্সির প্রতিবেদন অনুযায়ী, রাজধানী তেহরানের অদূরে কোওম প্রদেশের একটি ব্যাংকে বৃহস্পতিবার হিজাব ছাড়াই ঢুকেছিলেন ওই গ্রাহক। তাকে সেবা দেন ওই ব্যাংকের ম্যানেজার। সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সে ছবি ছড়িয়ে পড়তেই তড়িঘড়ি ওই ম্যানেজারকে সরিয়ে দেওয়া হয়। কোওম প্রদেশের গর্ভনর আহমেদ হাজিজাদের নির্দেশেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ওই সংবাদ সংস্থা। প্রশাসনের দাবি, সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ওই হিজাবহীন নারীর ছবি ঘিরে বিরূপ প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের জুলাই থেকে ইরানের সব রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানে হিজাব পরা বাধ্যতামূলক বলে নির্দেশ দিয়েছিলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি। অতি রক্ষণশীল বলে পরিচিত রাইসির সেই নির্দেশ পালনে ইরানজুড়ে নীতি পুলিশদের চোখরাঙানি চলছে বলে অভিযোগ।

এমনকি, হিজাব ছাড়া তেহরানের রাস্তায় নামায় ২২ বছরের মাহশা আমিনিকে থানায় তুলে নিয়ে গিয়ে অত্যাচার করা হয় বলেও দাবি। ১৬ সেপ্টেম্বর পুলিশি হেফাজতে থাকাকালীন তার মৃত্যুর পর প্রতিবাদের আগুন জ্বলে ওঠে ইরানসহ বিশ্বের নানা প্রান্তে। ইরানের রাস্তায় নেমে বোরখা, হিজাব পুড়িয়ে, চুল কেটে বিক্ষোভ দেখান প্রতিবাদীরা।

অভিযোগ, হিজাব-বিরোধীদের দমাতে দমননীতির প্রয়োগ করছে ইরান প্রশাসন। মানবাধিকার সংগঠন ‘ইন্টারন্যাশনাল হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট’ (আইএইচআরএম)-এর দাবি, পুলিশের দমননীতির জেরে ২ নভেম্বর পর্যন্ত ৭২৭ জন প্রাণ হারিয়েছেন। নিহতদের মধ্যে ৪০ জন শিশুও রয়েছে বলে দাবি আইএইচআরএম-এর।

;

নিরাপত্তার স্বার্থে চীনা টেলিকম সরঞ্জামে নিষেধাজ্ঞা বাইডেনের



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে কয়েকটি চীনা টেলিকম সংস্থার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে বাইডেন প্রশাসন। দেশটির কেন্দ্রীয় যোগাযোগ কমিশন জানিয়েছে, হুয়াওয়ে, জেডটিইসহ বেশ কয়েকটি চীনা ব্র্যান্ডের টেলিযোগাযোগ ও ভিডিও নজরদারি সরঞ্জাম আমদানি নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

এফসিসির কমিশনার ব্যান্ডন কর বলেন, এফসিসির পাঁচ সদস্যের অনুমোদন বিষয়ক কমিটি সর্বসম্মতিক্রমে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মার্কিন কংগ্রেসের সদস্যরাও এই সিদ্ধান্তের পক্ষে ইতিবাচক বার্তা দিয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এর আগে, যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম অভিযোগ তুলেছিল ৫-জি মোবাইল পরিষেবায় চীনা সরঞ্জামের ব্যবহারের ফলে জাতীয় নিরাপত্তা সংক্রান্ত স্পর্শকাতর তথ্য পাচার হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

হুয়াওয়ে এবং জেডটিই ছাড়াও নিষেধাজ্ঞার তালিকায় হাইতেরা কমিউনিকেশনস, হাংঝু হিকভিশন ডিজিটাল টেকনোলজি কোম্পানি এবং দাহুয়া টেকনোলজি কোম্পানি রয়েছে বলে এফসিসি সূত্রের খবর।

প্রসঙ্গত, ডোনাল্ড ট্রাম্পের জমানায় কার্যকর হওয়া ‘সিকিওর অ্যান্ড ট্রাস্টেড কমিউনিকেশনস নেটওয়ার্কস অ্যাক্ট’-কে হাতিয়ার করেই চীনা টেলিকম সরঞ্জামে নিষেধাজ্ঞা জারি করল বাইডেন সরকার।

ভারতসহ বিভিন্ন দেশ থেকে বিভিন্ন সময়ে হুয়াওয়ের বিরুদ্ধে টেলিকম সরঞ্জামের সাহায্যে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ উঠেছে।

২০২০ সালে বিএসএনএল এবং এমটিএনএল-এর মতো রাষ্ট্রায়ত্ত টেলি পরিষেবা সংস্থাগুলোকে চীনা টেলিকম সরঞ্জাম ও যন্ত্রাংশ ব্যবহার না করার নির্দেশ দিয়েছিল মোদি সরকার। বেসরকারি টেলি যোগাযোগ সংস্থাগুলোকেও এ বিষয়ে কিছু বিধিনিষেধ মেনে চলার কথা বলা হয়েছিল।

;

যুক্তরাষ্ট্রে 'থ্যাঙ্কস গিভিং' উদযাপনে ১০০ কোটি ডলারের টার্কি বিক্রি



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
যুক্তরাষ্ট্রে 'থ্যাঙ্কস গিভিং' উদযাপনে ১০০ কোটি ডলারের টার্কি বিক্রি

যুক্তরাষ্ট্রে 'থ্যাঙ্কস গিভিং' উদযাপনে ১০০ কোটি ডলারের টার্কি বিক্রি

  • Font increase
  • Font Decrease

যুক্তরাষ্ট্রে এবারের থ্যাঙ্কসগিভিংয়ে ১০০ কোটি ডলারের টার্কি বিক্রি হয়েছে। যা গত বছরের তুলনায় ১৫ কোটি ১ লাখ ডলার বেশি। বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রে কৃতজ্ঞতাজ্ঞাপন দিবস বা থ্যাঙ্কস গিভিং ডে উদযাপনের দুই সপ্তাহ আগে থেকেই টার্কির বেচাকেনা চালু হয়।

গত বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রে কৃতজ্ঞতাজ্ঞাপন দিবস বা থ্যাঙ্কস গিভিং ডে'তে ২৯ কোটি ৩০ লাখ টার্কি প্রেমী মার্কিনী বাৎসরিক ভোজ উপভোগ করতে পরিবারের সদস্যদের সাথে জড়ো হয়েছিল। যা গত বছব্রের তুলনায় প্রায় ২০ লাখ মার্কিনী বেশি। ২০২১ সালে বাৎসরিক ভোজ উপভোগে জড়ো হওয়া মার্কিনীর সংখ্যা ছিল ২৯ কোটি ২০ লাখ।

যুক্তরাষ্ট্রে বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) পালিত হয়েছে কৃতজ্ঞতাজ্ঞাপন দিবস বা থ্যাঙ্কস গিভিং ডে। থ্যাঙ্কস গিভিং ডে'র অর্থ কৃতজ্ঞতাজ্ঞাপন বা ঈশ্বরকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন দিবস। প্রতিবছর নভেম্বর মাসের চতুর্থ বা শেষ বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রে সরকারিভাবে থ্যাংকস গিভিং ডে উদযাপন করা হয়। দিবসটিতে ধনী-গরিব সবাই মেতে ওঠে ঐতিহ্যবাহী টার্কি ভোজে। পারিবারিকভাবে প্রতিটি ঘরেই টার্কি দিয়েই চলে দুপুর ও রাতের খাবারের ব্যবস্থা। এবারের থ্যাঙ্কস গিভিং ডেতে যুক্তরাষ্ট্রের ৩৩ কোটি ৩৭ লাখ মানুষের জন্য ১০০ কোটি ১ লাখ  ডলার মুল্যের টার্কি বিক্রি হয়েছে। যা গত বছরের তুলনায় ১৫ কোটি ১ লাখ ডলার বেশি।

ন্যাশনাল টার্কি ফেডারেশনের তথ্য অনুসারে থ্যাঙ্কস গিভিংয়ে শতকরা ৮৯% শতাংশ মার্কিনীদের ঘরেই টার্কি দিয়ে দুপুর ও রাতের খাবারের ব্যবস্থা হয়ে থাকে। গত দুই বছর করোনা মহামারিতেও ২৯ কোটি ২০ লাখ মার্কিনী এই বার্ষিক ভোজ উপভোগ করতে সমবেত হয়েছিল। চলতি বছরে আরও ১০ লাখ টার্কি প্রেমীর বৃদ্ধি পেয়েছে। গত বছর থ্যাঙ্কস গিভিংয়ে মোট ৯২ কোটি ৭০ লাখ ডলারের টার্কি বেচাকেনা হয়েছিল। এ বছর ৮ কোটি ১ লাখ বৃদ্ধি পেয়ে মোট ১০০ কোটি ১ লাখ ডলারের টার্কি বেচাকেনা হয়েছে। গত বছরের তুলনায় এবারে থ্যাঙ্কসগিভিং-এ টার্কির প্রতি পাউন্ড মূল্য কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে ১৫ দশমিক ৩ শতাংশ। এবারে  ১৬ পাউন্ড টার্কি বিক্রি হয়েছে ২৪.৬৯ ডলারে, যা গত বছরে ছিল ২১ দশমিক ৪১ ডলার।

১৬২১ সালের এক হেমন্তে আমেরিকার আদি জনগোষ্ঠীর সঙ্গে প্রধানত ইংল্যান্ড থেকে আগত যাজকদের এক শুভক্ষণে পরস্পরের মধ্যে উৎপাদিত শষ্য এবং পণ্য বিনিময়ের মধ্য দিয়ে 'থ্যাংকস গিভিং' উৎসবের সূত্রপাত হয়। এর ধারাবাহিকতায় ১৮৬৩ সালে প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিংকন সেদিনের সেই বন্ধুত্ব এবং শান্তির অমিয়বাণী আমেরিকাবাসীর অন্তরে ধারণ করতে রাষ্ট্রীয়ভাবে দিনটিকে 'থ্যাংকস গিভিং হলি ডে' হিসেবে ঘোষণা করেন। সেই থেকে প্রতিবছর বন্ধুত্ব ও সংহতি প্রকাশের ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটকে স্মরণীয় বরণীয় করে তুলতে নানা আয়োজনে মেতে উঠে সমগ্র যুক্তরাষ্ট্র। দিনটি আমেরিকায় সরকারি ছুটির দিন। একই আমেজে পার্শ্ববর্তী দেশ কানাডায় এ দিনটি পালন করা হয় প্রতিবছর অক্টোবর মাসের দ্বিতীয় সোমবার।

থ্যাংকস গিভিং ডে'র পরের দিনকেই 'ব্লাক ফ্রাইডে' বলা হয়ে থাকে। এ দিনের জন্যও মানুষের অপেক্ষার কমতি নেই। একবছর ধরেই অপেক্ষার প্রহর গুণতে থাকে আমেরিকার দুই তৃতীয়াংশ মানুষ। বিশেষ করে নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষজন কম দামে ভালো একটা কিছু কেনার জন্য দিন অপেক্ষায় থাকে। প্রায় দুই সপ্তাহ আগে থেকেই টিভি ও সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন দিয়ে জানিয়ে দেওয়া তাদের পণ্যের মূল্যহ্রাসের তালিকা। শতকরা ৫০ থেকে ৭০ শতাংশ মুল্যহ্রাস করা হয় নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির। তবে এই দিনে অনেকের চাহিদা ইলেক্ট্রোনিক্স দ্রব্য। এর মধ্যে টিভি, ফ্রিজ,‌ ল্যাপটপ, কম্পিউটার, আইফোন, আইপ্যাড ইত্যাদি দ্রব্যের প্রতি মানুষের বেশি চাহিদা। বৃহস্পতিবার রাত ১২টা থেকে দোকানের সামনে লাইন ধরে অপেক্ষা করে ভোর ৬টায় পর্যন্ত অপেক্ষা করেন দোকানে প্রবেশের জন্য। কিন্তু প্রতিবছরই ঘটে ব্যতিক্রম ঘটনা। বৃহস্পতিবার রাত ১২টার পরিবর্তে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৮/৯ টায় থেকেই লাইনে দাঁড়িয়ে যান হাজার হাজার মানুষ।

;

একজনকে হত্যার দায়ে ৪৯ জনের মৃত্যুদণ্ড



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
একজনকে হত্যার দায়ে ৪৯ জনের মৃত্যুদণ্ড

একজনকে হত্যার দায়ে ৪৯ জনের মৃত্যুদণ্ড

  • Font increase
  • Font Decrease

একজনকে হত্যার দায়ে ৪৯ জনকে মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছেন উত্তর আফ্রিকার দেশ আলজেরিয়ার একটি আদালত। গত বছর এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যার জন্য দোষী সাব্যস্ত করে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে তাদের।

শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) উত্তর আফ্রিকার এই দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থার বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

গত বছর দেশটিতে ভয়াবহ দাবানল ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় জঙ্গলে আগুন দেয়ার জন্য ভুলভাবে সন্দেহভাজন একজনকে পিটিয়ে ও আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করে দণ্ডপ্রাপ্তরা।

এদিকে আলজেরিয়ায় বর্তমানে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ওপর স্থগিতাদেশ থাকার কারণে দণ্ডপ্রাপ্তদের সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়ে কারাগারে পাঠানোর সম্ভাবনা রয়েছে।

গত বছর আলজেরিয়ার ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ দাবানল হয়। ওই বছর একাধিক দাবানলে দেশটিতে ৯০ জনের মৃত্যু হয়। দাবানল শুরু হওয়ার পেছনে জঙ্গলে আগুন লাগিয়ে দেয়ার দাবিতে স্থানীয়দের ভুল সন্দেহে পিটুনিতে মৃত্যু হয় জামেল বেন ইসমাইলের। কিন্তু তিনি আগুন ছড়িয়ে দেয়ার জন্য নয়, দাবানল মোকাবিলায় অন্যদের সহায়তা করার জন্য ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন।

এ ঘটনায় গত বছরের ১১ আগস্ট সহিংসতার গ্রাফিক ফুটেজ ছড়াতে শুরু করে। যেখানে দেখা যায়, আক্রমণ করা হয়েছে বেন ইসমাইলকে। তাকে নির্যাতন ও পুড়িয়ে হত্যার পরে মরদেহ গ্রামে নিয়ে যায় লোকজন।

সংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছে, বেন ইসমাইলকে হত্যা সম্পর্কিত অন্যসব অপরাধে আরও ২৮ জনকে দুই থেকে দশ বছরের মধ্যে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

;