চিরকুট লিখে রাবি ছাত্রীর আত্মহত্যা, সুষ্ঠু তদন্তের দাবি



রাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজশাহী
ছন্দা রায়

ছন্দা রায়

  • Font increase
  • Font Decrease

চিরকুট লিখে আত্মহত্যা করেছেন ছন্দা রায় নামের রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) অর্থনীতি বিভাগের এক ছাত্রী। গতকাল সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর মুগদা থানার মানিক নগর এলাকায় ভাড়া বাসা থেকে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানিয়েছে ছন্দার বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ছন্দার বাড়ি ঠাকুরগাঁও জেলায়। তিনি রাবির অর্থনীতি বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। তার স্বামীর নাম উত্তম কুমার। তার নিজের বাসা দিনাজপুরে। তিনি বাংলাদেশ ব্যাংকের উপ-পরিচালক হিসেবে কর্মরত। স্বামীর সঙ্গে ঢাকার মুগদায় ভাড়া বাসায় থাকতেন ছন্দা।

এ বিষয়ে ছন্দার সহপাঠী অনিক জানান, আমরা ছন্দার পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জেনেছি তিন মাস আগে ছন্দার বিয়ে হয়। স্বামীর চাকরি সূত্রে ছন্দা স্বামীর সঙ্গে ঢাকায় থাকতো। ছন্দার স্বামীর ভাষ্যমতে, গতকাল সোমবার দুপুর থেকে বিকেলের মধ্যবর্তী সময়ে নিজ কক্ষের ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে ছন্দা। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ছন্দার পরিবার জানিয়েছে, মৃত্যুর পূর্বে ছন্দা একটি সুইসাইট নোট লিখে গেছে। তাতে লিখা আছে- ‘আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়’ এবং ছন্দার হাতের লেখার সঙ্গে সেই লেখার মিল রয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মুগদা থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) নবেন্দ্র কুমার বলেন, প্রাথমিকভাবে আমরা এই মৃত্যুর ঘটনাটিকে আত্মহত্যা বলে বিবেচনা করছি। আমরা মরদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছি। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে এই মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। আর এ ঘটনায় নিহতের পারিবার কাউকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করেনি। তবে একটি অপমৃত্যুর মামলা করেছে। মামলা নথিভুক্ত হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে ছন্দার এই ‘আত্মহত্যা’র ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যারিস রোডে এই দাবিতে মানববন্ধন করেন তারা।

মানববন্ধনে অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী জাবেদুল ইসলামের সঞ্চালনায় একই বিভাগের শিক্ষার্থী রাজীব সরকার বলেন, আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ে গত পাঁচ বছরে উনাকে সদা হাস্যোজ্জ্বল এবং বন্ধুসুলভ মানুষ হিসেবে দেখেছি। একজন বন্ধুসুলভ মানুষ খুব সহজে এমন একটি সিদ্ধান্ত নিতে যাওয়ার কথা না। আমরা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছিনা যে তিনি আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন। হয়ত এটার পেছনে সামাজিক কোনো নিগ্রহ কিংবা পারিবারিক কোনো

নির্যাতনের কারণে এটা তিনি করতে পারেন। জানি তাকে আমরা আর ফিরে পাবো না, কিন্তু আমরা চাই ছন্দা রায়ের মতো আর কোনো বোন এমন মৃত্যুর শিকার না হোক এবং এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত হোক।

ছন্দা রায়ের সহপাঠী আয়রিন আক্তার বলেন, কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছিনা যে ছন্দা আর আমাদের মাঝে নেই। ও এমন কাজ করার মতো মেয়ে না। আরেক সহপাঠী আরিফা আক্তার মিলি বলেন, নিশ্চয়ই ছন্দার মনে কোনো মানসিক কষ্ট ছিলো। আর ও হয়ত কারও সঙ্গে সেটা শেয়ারও করতে পারে নি। এজন্যই আমরা চাচ্ছি এ ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্ত হোক।

বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন খান বলেন, ছন্দার আত্মহত্যার বিষয়টি আমরা কিছুতেই মেনে নিতে পারছিনা। সে অনেক নম্র, ভদ্র এবং মেধাবী শিক্ষার্থী ছিল। সে একজন প্রাপ্তবয়ষ্ক মেয়ে। কাজেই আমরা এটাকে আত্মহত্যা বলতে পারিনা। নিশ্চয়ই এর পিছনে অনেক গভীরতম বিষয় লুকিয়ে আছে। আমরা চাই এর সুষ্ঠু তদন্ত হোক এবং যারা এর পিছনে জড়িত তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি আমরা আশা করছি।

মানববন্ধনে বিভাগটির শতাধিক শিক্ষক-শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

‘নিজের ঘরে গণতন্ত্র নাই, গণতন্ত্র দেশে কিভাবে করবেন’



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
নিজের ঘরে গণতন্ত্র নাই, গণতন্ত্র দেশে কিভাবে করবেন

নিজের ঘরে গণতন্ত্র নাই, গণতন্ত্র দেশে কিভাবে করবেন

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নাম টেনে এনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, নিজের ঘরে গণতন্ত্র নাই, গণতন্ত্র দেশে কিভাবে করবেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, কবে সম্মেলন করে জানে না। কোন শাখায় একটা সম্মেলনেও যান নি। ওয়ার্কিং কমিটির মিটিং কখনো করে নি। ৫০০-৬০০ লোকের জাম্বু-জেড মার্কা কমিটি ; বসবে কোথায়? লা মেরিডিয়ানে না’কি একটি মিটিং হয়েছে। ফখরুল, নিজের ঘরে গণতন্ত্র নাই, গণতন্ত্র দেশে কিভাবে করবেন। এ প্রশ্নের জবাব পাই না। কবে সম্মেলন হয়েছে ফখরুল জানে না।

শনিবার (৩ ডিসেম্বর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে অনুষ্ঠিত ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, তত্ত্বাবধায়ক আর হবে না। সংবিধান পরিবর্তন হওয়ার কোন সুযোগ নেই। সংবিধানকে অনেক কচু কাটা করেছেন। আইন করে বঙ্গবন্ধু হত্যাকারীদের বিচার বন্ধ করেছিলেন। এটাও সেই রকম আইন; সেই আইন আর হবে না। সংবিধানে হাত দেয়ার অধিকার কারো নেই। তাই তত্ত্বাবধায়ক নিয়ে দিবাস্বপ্ন ও রঙিন খোয়াব দেখে লাভ নেই।

তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ পল্টনকে ভয় পায় না, পায় আপনাদের আগুন সন্ত্রাসকে। আগুন সন্ত্রাস, লাঠি নিয়ে খেলাধুলা সেই বদ মতলব আপনাদের আছে। সেজন্য পল্টন দরকার; ওখানে সব মজুদ করবেন। আর সারা দেশ থেকে নেতা-কর্মী আনবেন।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলাম কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়, সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস, সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনসহ ১৮টি হলের নেতাকর্মীরাসহ বিভিন্ন অনুষদ এবং ইনস্টিটিউট নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বেলা দুপুর সাড়ে ৩ টায় শুরু হয় জাতীয় সংগীত ও দলীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে বার্ষিক সম্মেলন উদ্বোধন করা হয়।

;

জাফরু'র সভাপতি রুহুল কুদ্দুস, সাধারণ সম্পাদক মাহফুজ মিশু



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
জাফরু'র সভাপতি রুহুল কুদ্দুস, সাধারণ সম্পাদক মাহফুজ মিশু

জাফরু'র সভাপতি রুহুল কুদ্দুস, সাধারণ সম্পাদক মাহফুজ মিশু

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থীদের সংগঠন জার্নালিজম অ্যালামনাই ফোরাম অব রাজশাহী ইউনিভার্সিটি-জাফরু এর নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এতে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন রুহুল কুদ্দুস খান সুমন (প্রথম ব্যাচ)। সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন মাহফুজ মিশু (নবম ব্যাচ)।

শুক্রবার ২ ডিসেম্বর রাজধানীর পল্টন টাওয়ারে ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরাম-ইআরএফ কার্যালয়ে জাফরু'র বার্ষিক সাধারণ সভায় এই নতুন কমিটি গঠন করা হয়।

এসময় সংগঠনটির ২৩ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থীদের নাম ঘোষণা করা হয়। কমিটির সহ-সভাপতি পদে শাহনাজ সিদ্দিকী সোমা ও আরেফিন অডেন; যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সরদার মহিউদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক এম এরশাদ আলী, অর্থ সম্পাদক আইনুদ বিন্থ জুবাইর সনি, মানবসম্পদ ও প্রশাসন বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আনিসুল আশেকীন রাসেল, যোগাযোগ ও উন্নয়ন সম্পাদক জুয়েল কিবরিয়া, ক্রীড়া সম্পাদক যোবায়ের শাওন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক শাহ আলী জয় এবং মানবকল্যাণ সম্পাদক হিসেবে ইমরান খান নাহিদ নির্বাচিত হয়েছেন।

কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন- সাজ্জাদ আলম শাহীন, সাজেদুল ইসলাম খান, হুমায়ুন কবির নয়ন, মঈনুদ্দীন মিয়া নয়ন, আকতারুল ইসলাম, মো. আখতারুজ্জামান, পারভেজ হাসান তরফদার, খায়রুল আলম মনি, ফেরদাউস মোবারক এবং দেবাশীষ রায়।

কমিটি গঠনের আগে জাফরুর বিদায়ী কমিটির সভাপতি সাজেদুল ইসলাম রুবেলের সভাপতিত্বে বার্ষিক সাধারণ সভা হয়। পারভেজ হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের বিভিন্ন ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থীরা।

;

ঢাবি ছাত্রলীগের সম্মেলন আজ



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রায় সাড়ে চার বছর পর আজ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন। শনিবার (৩ ডিসেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে এ সম্মেলন বেলা ৩টা নাগাদ শুরু হবার কথা রয়েছে।

এতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সম্মেলনে প্রধান অতিথি থাকবেন। ছাত্রলীগ সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক পরিবেশ সমুন্নত, পরিচ্ছন্ন ও নান্দনিক ক্যাম্পাসের স্বার্থে শাখা ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন উপলক্ষ্যে লাগানো সকল ব্যানার-ফেস্টুন সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) শাখা ছাত্রলীগ।

উল্লেখ্য, সোমবার (২১ নভেম্বর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় ৩০তম জাতীয় সম্মেলন সফলভাবে আয়োজন ও প্রস্তুতি উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে আগামী ৩ ডিসেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার বিষয়টি ঘোষণা করা হয়।

২০১৮ সালের ২৯ এপ্রিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মেলন হয়। সম্মেলনের আড়াই মাস পর ৩১ জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়।

২০১৮ সালের ৩১ জুলাই এক বছর মেয়াদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের দায়িত্ব নেওয়ার পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি করতেই প্রায় ১০ মাস সময় নিয়েছেন সনজিত-সাদ্দাম। হল কমিটিগুলো করেছেন মেয়াদ শেষ হওয়ার আড়াই বছর পর।

;

ঢাবির সাবেক শিক্ষকের গাড়িচাপায় নারীর মৃত্যু



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সাবেক সহযোগী অধ্যাপকের গাড়ির নিচে চাপা পড়া এক নারীর মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) বেলা ৩টার দিকে শাহবাগ মোড়ে এই ঘটনা ঘটে।

মৃত ওই নারীর নাম রুবিনা আক্তার (৪৫)। তিনি রাজধানীর হাজারীবাগের সেকশন এলাকার বাসিন্দা।

বিষয়টি ঢামেক পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপ-পরিদর্শক মাসুদ মিয়া নিশ্চিত করেছেন।

প্রাইভেটকারের ওই চালক সম্পর্কে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) প্রক্টর অধ্যাপক ড. গোলাম রব্বানী বলেন, ওই শিক্ষক চাকরিচ্যুত। তিনি আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগে সাবেক শিক্ষক।

ওই নারীর দেবর নুরুল আমিন জানান, তেজগাঁও থেকে তিনি ভাবিকে নিয়ে মোটরসাইকেলযোগে সেকশন এলাকায় যাচ্ছিলেন। শাহবাগ মোড় পার হওয়ার পর একটি প্রাইভেটকার পেছন থেকে তাদের মোটরসাইকেলে ধাক্কা দেয়। ওই সময় তার ভাবি ছিটকে পড়েন এবং প্রাইভেটকারের বাম্পারের সঙ্গে আটকে যান। তবে প্রাইভেটকারটি এরপরও না থেমে তার ভাবিকে টেনেহিঁচড়ে প্রায় নীলক্ষেত পর্যন্ত নিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা প্রাইভেটকারটিকে আটক করে এবং তিনি ভাবিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে যান।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, চাপা দেওয়ার পর ওই নারীকে কয়েকশ গজ দূর পর্যন্ত টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যায় প্রাইভেটকারটি। এ ঘটনার পর প্রাইভেটকারটি নিউমার্কেটের দিকে পালিয়ে যেতে চাইলে শিক্ষার্থীরা সেটিকে আটক করে চালককে মারধর করেন।

;