বিয়ে করলেন ডোয়াইন জনসন



বিনোদন ডেস্ক, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
ডোয়াইন জনসন ও লরেন হাসিয়ান

ডোয়াইন জনসন ও লরেন হাসিয়ান

  • Font increase
  • Font Decrease

১২ বছর মন দেওয়া-নেওয়ার পর অবশেষে প্রেমিকা সংগীতশিল্পী-গীতিকার লরেন হাসিয়ানের সঙ্গে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন ডোয়াইন জনসন।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/19/1566216416219.jpg

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে কয়েকটি ছবি শেয়ার করে বিয়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডোয়াইন জনসন।

শেয়ার করা ছবিগুলোর ক্যাপশনে ডোয়াইন লিখেছেন, ‘উই ডু’। সেই সঙ্গে জানিয়েছেন গত ১৮ আগস্ট হাওয়াইয়ে তাদের বিয়ের সকল আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছে।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/19/1566216028193.jpg

এটি ডোয়াইনের দ্বিতীয় বিয়ে। এর আগে ২০০৭ সালে প্রযোজক ড্যানি গ্রাসিয়ার সঙ্গে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন ৪৭ বছর বয়সী এই তারকা। পরে ২০০৭ সালে সংসারের ইতি টানেন তারা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/19/1566216380141.jpg
সাবেক স্ত্রী ড্যানি গ্রাসিয়ার সঙ্গে ডোয়াইন জনসন

 

বিচ্ছেদের পরপরই লরেন হাসিয়ানের সঙ্গে পরিচয় হয় ডোয়াইনের। সেখান থেকেই শুরু বন্ধুত্ব ও প্রেমের। জেসমিন ও তিয়ানা নামে তাদের দুটি কন্যা সন্তানও রয়েছে।

প্রকাশ্যে এলো সাব্বির নাসির-সম্পার ‘মনের ব্যথা'



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সাব্বির নাসির-সম্পার ‘মনের ব্যথা'

সাব্বির নাসির-সম্পার ‘মনের ব্যথা'

  • Font increase
  • Font Decrease

জনপ্রিয় গীতিকার গোলাম মোর্শেদ। নব্বইয়ের দশকে তার লেখা গানে কণ্ঠ দেন দেশের প্রথম সারির শিল্পীরা। সেই ধারাবাহিকতায় এবার জনপ্রিয় শিল্পী সাব্বির নাসির এবং সম্পা বিশ্বাসের জন্য প্রথমবার ফোক গান লিখেছেন। নতুন এ গানটি প্রকাশ পেয়েছে। গানের শিরোনাম ‘মনের ব্যথা’। রূপকের সুরে গানটির মিক্স, মাস্টারিং করেছেন সালমান জাইম । ভিডিও নির্মাণে কাজ করেছেন প্রীতুল, ইভান ও তাহসিন।

গানটি নিয়ে গোলাম মোর্শেদ‌ বলেন, একদিন হঠাৎ শিল্পী সাব্বির নাসির এসে আমাকে একটি‌ ফোক গান লেখার জন্য ধরলেন । আমি না করতে পারলাম না। এরপর প্রথমবারের মতো একটি ফোক গান লিখলাম। গান হিট করার জন্য লিখিনি, যদি দশজনও গানটি পছন্দ করেন তাহলে আমি স্বার্থক । তবে আমার বিশ্বাস গানটি অনেকেই পছন্দ করবেন।

শিল্পী সাব্বির নাসির জানান, মোর্শেদ ভাইয়ের কথায় এর আগে দুটি গান করেছি। এটা ভাইয়ের প্রথম লোকগান। মনের ব্যথা গভীর মরমী এক গান। রুপকের সুরে একটিমাত্র তারযন্ত্রে বাঁধা এ গান।গানের অধিকাংশ অংশ সম্পা বিশ্বাসের কন্ঠে গাওয়া । অসাধারণ গেয়েছেন উনি। আমি চেষ্টা করেছি সম্পার সাথে এ গানে সম্পূরক অংশ গুলোতে কন্ঠ দেবার। আশা করি লোকগানের শ্রোতা দের ভাল লাগবে গানটি।”

সম্পা বিশ্বাস বলেন, “ সাব্বির ভাইয়ের সাথে এর আগে চারটি ডুয়েট গান করেছি। বিনোদিনী রাই থেকেই শ্রোতা দর্শকদের ভালোবাসা পেয়েছে এই জুটি। গোলাম মোর্শেদ ভাইয়ের গীতিকবিতার সাথে সম্পৃক্ত হতে পেরে খুব ভাল লেগেছে।”

গানটি সাব্বির নাসিরের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ পেয়েছে ।

;

প্রযোজক জেনিফারের অনুদানের টাকায় শপিং করেছেন!



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সংবাদ সম্মেলনে মাহি ও রোশন

সংবাদ সম্মেলনে মাহি ও রোশন

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রযোজক জেনিফার ফেরদৌসের সঙ্গে অভিনেত্রী মাহিয়া মাহির ঝামেলা থামবার নাম নিচ্ছে না। প্রযোজকের বিরুদ্ধে এবার একরাশ বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী।

শুধু মাহিই নন, প্রযোজকের আচরণে বিরক্ত চিত্র নায়ক রোশানও। জেনিফার ফেরদৌসের প্রযোজনায় ‘আশীবার্দ’ ছবিতে অভিনয় করেছেন মাহি ও রোশান। গত সপ্তাহেই মাহির বিরুদ্ধে সংবাদমাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করেন এ প্রযোজক।

নবীন এই প্রযোজক গণমাধ্যমে কটু মন্তব্য করেন। এতে করে ভীষণ চটেছেন এই দুই তারকা।

বৃহস্পতিবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে জেনিফারের বিরুদ্ধে সরকারি অনুদান হিসাবে প্রাপ্ত টাকা ‘নয় ছয়’-এর অভিযোগ আনলেন মাহি। ৬০ লাখ টাকা সরকারি অনুদান নিয়ে তৈরি হয়েছে ‘আর্শীবাদ’ ছবিটি।

মাহি জানান, জেনিফার ফেরদৌস কোনো পেশাদার প্রযোজক নন। যেহেতু এটা সরকার ও জনগণের টাকার সিনেমা তাই জেনিফার ফেরদৌস এখানে লাইন প্রডিউসার। তাঁকে যে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল উনি বরং সেখান থেকে টাকা আত্মসাৎ করেছেন।

তিনি বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক ছবি এবং সরকারি অনুদানের ছবি বলেই ‘আশীর্বাদ’ করতে রাজি হয়েছিলাম। আরেকটি কারণ হচ্ছে এই ছবির পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান মানিক। তার সঙ্গে আমার এতো ভালো বোঝাপড়া যে ১০ লাখের জায়গায় ৫ লাখ টাকা পারিশ্রমিক নিয়েছি। আমি কিন্তু শুরু থেকে বলে আসছি জেনিফারকে দেখে আমি সিনেমাটি করিনি। কিন্তু জেনিফার শ্যুটিং এমন অপেশাদার আচরণ করবেন ভুলেও ভাবিনি। ছবি করতে গিয়ে যে তিক্ত অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয়েছি গত ১০ বছরের কেরিয়ারে কোনও প্রযোজকের সঙ্গে এমন বাজে অভিজ্ঞতা হয়নি।’

মাহিয়া মাহি জানান, তিনি কাউকে ছোট করে কথা বলছেন না। বাধ্য হয়েই আজ সত্যিটা সামনে আনছেন। খুব স্বপ্ন নিয়ে অনুদানের সিনেমাটি করতে চেয়েছিলাম। ভেবেছিলাম কোনোভাবে যদি প্রধানমন্ত্রী কাজটি দেখেন! ৬০ লাখ টাকায় অনেক ভালো সিনেমা বানানো সম্ভব। কিন্তু আমার অভিজ্ঞতার আলোকে বলছি, সর্বোচ্চ ২৫ লাখ টাকার মতো খরচ করেছেন প্রযোজক। বাকি টাকা প্রযোজক কোথায় খরচ করেছে সরকারের খতিয়ে দেখা উচিত। তার জবাবদিহি করা উচিত। এই টাকা ওনার নয়। সরকারি অনুদান দেওয়া হয় জনগণের ট্যাক্স থেকে।

মাহির অভিযোগ সরকারি অনুদানের টাকায় প্রযোজক জেনিফার ফেরদৌস শপিং করেছেন কিনা খতিয়ে দেখা দরকার।

মাহি আরও বলেন, ‘আমি নাকি ২৫ লিটার পানি দিয়ে গোসল করেছি। ওনার শুটিংয়ে আউটডোরেই তো যাইনি, উনি পানি কি বাসায় পাঠিয়েছিলেন?

সংবাদ সম্মেলনে রোশান বলেন, আমি মাত্র একলাখ টাকা পারিশ্রমিক নিয়েছি। বলেছি আমার বাকি টাকা সিনেমাটির ভালোর জন্য খরচ করতে। কিন্তু জেনিফার তা করেনি। বরং নিজের মন মতো যা ইচ্ছে তাই করছেন। আমাদের না জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করছেন যাতে তার ব্যক্তিগত প্রচার বাড়ে। আমাকে মিথ্যে অভিযোগ দিয়ে নিজের কাটতি বাড়াচ্ছেন। যা আমি কোনোভাবে আশা করিনি। বাধ্য হয়েই আজ সবাইকে কথাগুলো জানাতে হলো।

রোশান-মাহি ছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে ছিলেন ছবির পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান মানিক। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্ত এই পরিচালক বলেন, প্রযোজক জেনিফার যেসব অভিযোগ তুলেছেন সবটাই অবান্তর। রোশান-মাহি যা বলেছেন একেবারেই ঠিক। তারা দুজনেই ভীষণ পেশাদারিত্বের পরিচয় দিয়েছেন।

;

ভালো ছবি ভালো ব্যবসা করবেই- বলিউড নিয়ে আলিয়া ভাট



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
আলিয়া ভাট

আলিয়া ভাট

  • Font increase
  • Font Decrease

২০২২ সালটা মোটেও ভালো যাচ্ছে না বলিউডের। একের পর এক বড় বাজেটের ছবি মুখ থুবরে পড়ছে। রণবীর কাপুর, কঙ্গনা রানাওয়াত, হৃতিক রোশন, আমির খানদের মতো তারকারাও সিনেমা বাঁচাতে পারেননি। বক্স অফিস ভরাডুবি যাকে বলে। চলতি বছরে মাত্র তিনটে সিনেমা ব্যবসা করেছে-- ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’, ‘গঙ্গুবাই কাথিয়াওয়াড়ি’ আর ‘ভুল ভুলাইয়া ২’। বলিউডের এই খারাপ হাল নিয়ে মুখ খুলেছেন অনেক তারকাই। এবার সেই দলে নাম লেখালেন আলিয়া ভাট।

বলিউডকে কি একটু দয়ার নজরে দেখা উচিত এখন প্রশ্ন করা হলে তিনি জবাব দেন, ‘আমরা সবাই বলছি বছরটা বলিউডের জন্য শক্তি ছিল কিন্তু কেউ কি আমরা কতগুলো সিনেমা ভালো ব্যবসা করেছে সেটা দেখছি। সাউথেও কিন্তু সব ছবি ভালো চলে না। সেরকমই কিছু ছবি বলিউডের, আমার গঙ্গুবাই-সহ ভালো আয় করেছে। ভালো ছবি ভালো ফল করবেই।’

আলিয়া আরও মনে করেন করোনা মহামারীর কারণে প্রায় ২ বছর বন্ধ রাখা হয়েছিল সিনেমাহল। আর করোনা পরবর্তী সময়ে সেই রেশ কাটিয়ে ওঠা একটু মুশকিলের হয়ে পড়ছে বলিউডের পক্ষে। তাই এখন মূল্যায়ন করার সময় সাধারণ মানুষ কোন ধরনের সিনেমা হলে গিয়ে বা ওটিটিতে দেখতে চাইছে। তবে গল্প ভালো হলে দর্শক তা দেখতে আসবেই।

এখন যেমন ওটিটি-তে বেশ ভালোই চলছে আলিয় ভাটের ‘ডার্লিংস’। ছবিখানা যেমন চলচ্চিত্র সমালোচকদের দ্বারা প্রশংসিত হয়েছে তেমনই নেটফ্লিক্সের ‘টপ চার্ট’-এও জায়গা করে নিয়েছে।

সেপ্টেম্বরে মুক্তি পাওয়ার কথা আলিয়া ভাট আর রণবীর কাপুরের ব্রহ্মাস্ত্রর। এই সাই-ফাই ট্রিলজি পরিচালক অয়ন মুখোপাধ্যায়ের স্বপ্ন। যার পিছনে ৩০০ কোটির বেশি ঢেলেছেন করণ জোহর। ছবিতে রয়েছেন অমিতাভ বচ্চন, নাগার্জুনা, মৌনি রায়। কেমিও করার কথা রয়েছে শাহরুখ খানেরও।

;

আমেরিকায় নয় মাস থাকার পরেও শাকিব খানের ইংরেজির এই হাল!



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
আমেরিকায় নয় মাস থাকার পরেও শাকিব খানের ইংরেজির হাল!

আমেরিকায় নয় মাস থাকার পরেও শাকিব খানের ইংরেজির হাল!

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেতা শাকিব খান দীর্ঘ নয় মাস পর ফিরলেন দেশে। কিন্তু দেশে পা রাখা মাত্রই তাকে নিয়ে শুরু হয়েছে আলোচনা-সমালোচনা। ভুল ইংরেজি বলার কারণে ট্রলের মুখে পড়তে হয় তাকে। দীর্ঘ নয় মাস আমেরিকাতে কাটানোর পরেও ভুল ইংরেজি শোনা গেল তার মুখে। এরপরই সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয় সমালোচনা।

বুধবার তিনি বাংলাদেশের মাটিতে পা রাখেন বেলা ১২টা ৩৮ মিনিটে। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমাবন্দর থেকে বাইরে আসেন দেড়টা নাগাদ। তখনই তাকে তার ভক্তরা এবং সাংবাদিকরা ঘিরে ধরেন।


তখনই এক সংবাদকর্মী তাকে জিজ্ঞেস করেন দেশে ফিরে কেমন লাগছে- উত্তরে শাকিব জানান, আমি খুব এক্সাইটমেন্ট। ব্যাস এরপরই শুরু হয় সমালোচনা। এই ভুল ইংরেজি সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই মানতে পারছেন না। তাদের প্রশ্ন এতদিন আমেরিকায় থেকেও ভুল!

তিনি আরও জানান, সকলের ভালোবাসা পেয়ে তিনি মুগ্ধ। তিনি এতদিন সবাইকে মিস করেছেন বলেও স্পষ্ট করেন। তিনি নাকি ফ্লাইটে উঠেই কেবিন ক্ ‍ক্রুকে জিজ্ঞেস করেন কতক্ষণ লাগবে পৌঁছতে। এতটাই অস্থির হয়ে পড়েছিলেন দেশে ফেরার জন্য।


বুধবার সকাল থেকে বিমানবন্দরে তার ভক্তরা অপেক্ষা করছিলেন। তাদের হাতে দেখা যায় প্ল্যাকার্ড, ব্যানার যেখানে ছিল শাকিব বন্দনা। তিনি বিমানবন্দর থেকে যখন বেরোন তখন তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান অনেকে। শাকিবও তার ভক্তদের উদ্দেশ্যে হুডখোলা গাড়ি থেকে হাত নেড়ে ফ্লাইং কিস দেন। সেলফিও তোলেন।

 মাত্র তিন মাসের জন্য দেশে ফিরছেন শাকিব। নভেম্বরে ফিরে যাবেন আমেরিকা। এ বছর তিনি কাজ করবেন ‘রাজকুমার’ ও ‘মায়া’ নামের নতুন দুটি ছবিতে। এগুলোর প্রযোজক শাকিব নিজেই।

;