Barta24

সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

লম্বা ছুটির পর কাজে ফেরা  

লম্বা ছুটির পর কাজে ফেরা   
ছবি: সংগৃহীত
ফারজানা তাবাসসুম শীলা
কন্ট্রিবিউটর
লাইফস্টাইল


  • Font increase
  • Font Decrease

অফিসে তো যেতেই হবে লম্বা ছুটির পর কিন্তু ছুটির আমেজ এখনো কাটছে না, মনে হচ্ছে আরো দুদিন ছুটি থাকলে কি এমন হত? কিন্তু যেতে তো হবেই। আর গিয়ে ডুবে যেতে হবে কাজের মধ্যে। ভেবেই মন খারাপ হয়ে যাচ্ছে, তাই না? এটা একদমই অস্বাভাবিক না। পোস্ট-হলিডে ব্লু বা ছুটির পর কাজে ফেরার চাপ নিয়ে অস্বস্তিতে ভোগেন অনেকেই। তাহলে কিভাবে ফিরবেন স্বাভাবিক জীবনে?

ছুটির শেষ দিনটি মনের মত কাটান

কাজে ফেরার আগের দিনটি নিজের মনের মত কাটান। পছন্দের কোন বই পড়ুন বা মুভি দেখুন অথবা কাছের মানুষদের সাথে সময় কাটান। পরদিন থেকে করতে পারবেন না, অথচ খুব ইচ্ছে করছে অনেকদিন থেকেই করতে এমন কোন কাজ থাকলে করে ফেলুন। সবকিছুর শেষে আগের রাতেই পরের দিনের কাজের লিস্ট তৈরি করে রাখুন যাতে করে সকালে চাপ না পড়ে।

একটা প্ল্যান বানিয়ে ফেলুন আর সেটি মানতে চেষ্টা করুন

ফেরার পর পরই কাজে মনোযোগ দেয়াটা বেশ কঠিন মনে হতে পারে। হয়তো কোত্থেকে শুরু করবেন ভেবে পাচ্ছেন না বা কিছুতেই মনোযোগ ধরতে রাখতে পারছেন না। এসব সমস্যা থেকে বাঁচতে একটা প্ল্যান বানিয়ে নিন কোন কাজের পর কোনটি করবেন তার, আর মেনে চলুন সেই প্ল্যান।

সহকর্মীদের সঙ্গে কথা বলুন ছুটি নিয়ে

কার ছুটি কেমন কাটলো, কে কোথায় কাটিয়েছেন ছুটির দিনগুলো এসব নিয়ে কথা বলুন সহকর্মীদের সঙ্গে। নিজের ভালো লাগা মুহূর্তগুলো শেয়ার করুন। মজার কোন অভিজ্ঞতা হয়েছে হয়তো কারও। সেটা নিয়ে সবাই মিলে হাসুন। দেখবেন আস্তে আস্তে অফিসে ফেরার খারাপ লাগাটা আস্তে আস্তে কেটে যেতে শুরু করেছে।

একটু বেশি সময় নিয়ে লাঞ্চ করুন

এই কদিন খাওয়া-দাওয়ার বেশ অনিয়ম হয়েছে, সেই অভ্যাস থেকে রুটিনে ফেরা একটু কঠিন লাগতেই পারে। তাই একটু বেশি সময় নিয়ে লাঞ্চ করুন। নিজেকে সময় দিন অভ্যস্ত জীবনে ফিরে আসতে। সম্ভব হলে সহকর্মীদের সঙ্গে বাইরে লাঞ্চ করে আসুন। খোলা বাতাসে হইচই করে উড়িয়ে দিন মনের কোণায় জেঁকে বসা বিষণ্ণতার রেশটুকু।

কাজের ফাঁকে ছোট ব্রেক নিন

ফিরেই টানা কাজ করতে গিয়ে হাঁপিয়ে উঠতে পারেন। তা থেকে বাঁচতে ব্রেক নিয়ে একটু কফি খান বা গান শুনুন। ৫মিনিটের ছোট্ট বিরতি আপনার কর্মোদ্যম বাড়িয়ে দিতে পারে বেশ অনেকটা।

ফেরার পর প্রথম দিনটা ঠিকমত কাটিয়ে দিতে পারলেই মনে হবে, বাহ ফিরে আসাটা তো খারাপ না!

আপনার মতামত লিখুন :

ভিন্ন স্বাদে নারিকেল-ভ্যানিলা আইসক্রিম

ভিন্ন স্বাদে নারিকেল-ভ্যানিলা আইসক্রিম
নারিকেল-ভ্যানিলা আইসক্রিম, ছবি: সংগৃহীত

আইসক্রিমের মাঝে ভ্যানিলা ফ্লেভারটি সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় ও প্রচলিত। একদম সাদামাটা ভ্যানিলা ফ্লেভারের মাঝে টুইস্ট আনতে চাইলে এভারে যোগ করতে পারেন নারিকেলের ফ্লেভার। ভ্যানিলার সাথে নারিকেলের ফ্লেভারের সংমিশ্রণে ঘরে তৈরি আইসক্রিম খুব সহজেই এই গরমে রিফ্রেশিং ভাব তৈরি করবে।

নারিকেল-ভ্যানিলা আইসক্রিম তৈরিতে যা লাগবে

১. দুই কাপ নারিকেল দুধ।

২. দুই কাপ পনির।

৩. আধা কাপ চিনি।

৪. ১/৪ কাপ নারিকেল কুঁচি।

৫. দুই টেবিল চামচ নারিকেল কুঁচি ভাজা।

৬. দুই চা চামচ ভ্যানিলা এসেন্স।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/22/1563804441997.JPG

নারিকেল-ভ্যানিলা আইসক্রিম যেভাবে তৈরি করতে হবে

১. একটি পাত্রে নারিকেল দুধ, চিনি, ও পনির কুঁচি একসাথে ভালোভাবে হুইস্ক তথা ফেটাতে হবে। সকল উপাদান মিশে ঘন ক্রিমি মিশ্রণ তৈরি হবে।

২. ক্রিমি মিশ্রণে ভ্যানিলাক এসেন্স যোগ করে পুনরায় মিনিট পাঁচেকের জন্য মিশ্রণটি হুইস্ক করতে হবে। এতে করে পুরো মিশ্রণে ভ্যানিলা এসেন্স মিশে যাবে।

৩. মিশ্রণ তৈরি হয়ে গেলে বাটিতে ঢেলে ডিপ ফ্রিজে তিন ঘণ্টার জন্য রেখে দিতে হবে। তিন ঘণ্টা পর ফ্রিজ থেকে বের করে এতে নারিকেলের কুঁচি মিশিয়ে পুনরায় ডিপ ফ্রিজে রেখে দিতে হবে সারারাতের জন্য।

পরদিন ফ্রিজ থেকে জমাটবাধা নারিকেল-ভ্যানিলা আইসক্রিম বের করে উপরে নারিকেল কুঁচি ভাজা ছড়িয়ে দিয়ে পরিবেশন করতে হবে।

আরও পড়ুন: চার উপাদানে খেজুর গুড়ের আইসক্রিম

আরও পড়ুন: এই গরমে আমের লাচ্ছি

দুই মিনিটে চোখের সাজ!

দুই মিনিটে চোখের সাজ!
সহজ নিয়মে অল্প সময়েই সাজিয়ে নেওয়া যাবে চোখকে, ছবি: সংগৃহীত

মুখের মাধুর্যের মাঝে চোখ জোড়া সবচেয়ে বেশি আকর্ষণীয়।

আর তাইতো সাজের মাঝে চোখের সাজটাই সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পায়। বড় ধরনের কোন অনুষ্ঠান হোক কিংবা সাধারণ ক্লাস, শপিং কিংবা অফিসের জন্য বের হওয়া হোক, চোখে কাজল বা আইলাইনারের প্রলেপ থাকা চাই-ই চাই। আইলাইনের চাইতেও কাজলের চাহিদা ও ব্যবহার অনেক বেশি। কাজল ব্যবহারেই চোখের সাজের পরিপূর্ণতা প্রকাশ পায়।

কাজল ব্যবহারের ক্ষেত্রে ক্যাটস আই স্টাইলটি সবচেয়ে বেশি প্রচলিত। ড্রামাটিক ঘরানার এই স্টাইলে যেন চোখের সৌন্দর্যটি আরও ভালোভাবে ফুটে ওঠে। কিন্তু সমস্যা হলো সময়ে!

ক্যাটস আই স্টাইলে কাজল দেওয়ার জন্য হাতে বেশ অনেকখানি সময় রাখা প্রয়োজন হয়। ফলে নিত্যদিন বাইরে বের হওয়ার আগে সময় করে কাজল দেওয়া হয়ে ওঠে না। কিন্তু চোখ একেবারেই কাজলবিহীন রাখতে না চাইলে সহজ সমাধানও রয়েছে। যার জন্য ব্যয় হবে মাত্র দুই মিনিট।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/22/1563797724291.jpg

দুই মিনিটের ভেতর চোখে কাজল দিতে চাইলে চোখের পাতার উপরে নয়, দিতে হবে চোখের পাতার নিচের অংশে, যেখানে চোখের পাপড়িগুলোর মূল থাকে। চোখের পাতা আঙ্গুলের সাহায্যে কিছুটা টেনে ধরে কাজলের তীক্ষ্ণ অংশটি পাতার নিচের অংশে টেনে দিতে হবে। একইভাবে চোখের নিচের পাতাতেও পাতার ভেতরের অংশতে কাজল দিতে হবে।

এতে করে চোখ আগের চাইতে অনেক বেশি ওয়েল ডিফাইন্ডড বা আঁকানো মনে হবে। এবারে কাজলের সাহায্যে চোখের উপরের পাপড়ির একদম শেষ অংশে কিছুটা টেনে নিতে হবে। এতে করে চোখ বড় ও টানটান মনে হবে।

এভাবে কাজল ব্যবহারের ক্ষেত্রে অবশ্যই যত্নশীল ও সতর্ক হতে হবে। চোখে যেন আজলের খোঁচা না লাগে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। এছাড়া ভালোমানের কাজল ব্যতীত সস্তা কাজল ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে হবে।

আরও পড়ুন: পারফেক্ট সাজে আকর্ষণীয় আপনি!

আরও পড়ুন: গুছিয়ে রাখুন মেকআপ সামগ্রী

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র