Barta24

মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

বর্ষায় ভ্রমণে যা রাখবেন সাথে

বর্ষায় ভ্রমণে যা রাখবেন সাথে
বর্ষাকালে ঘুরাঘুরিতে কিছু অনুষঙ্গ অবশ্যই সাথে রাখতে হবে, ছবি: সংগৃহীত
লাইফস্টাইল ডেস্ক
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

বৃষ্টির সময় ঘুরতে যাওয়ার পরিকল্পনা করা হলে, মাথায় রাখতে হয় শতেক দরকারি জিনিসপত্রের হিসাব।

স্বাভাবিকভাবে সবাই চেষ্টা করে কম জিনিস বহন করার। কারণ এতে ঘুরতে সুবিধা হয়।

বৃষ্টিকালীন সময়ে বের হলে সাথে ছাতা তো থাকেই, তবে ছাতার সাথে আরও কয়েকটি প্রয়োজনীয় জিনিস রাখতে হবে। এ সময়ে কোন জিনিসগুলো সাথে রাখা প্রয়োজন জেনে রাখুন।

ছাতা

বৃষ্টি মানেই সাথে ছাতা বহন করা। অনেকের কাছে বিরক্তকর মনে হলেও ভিজতে না চাইলে ব্যাগে ছাতা রাখতে হবে। কম বৃষ্টি হলে হালকা ভারের ছাতা রাখা যায়, তবে ঝড়ো বৃষ্টি হলে অবশ্যই ভারী ছাতা প্রয়োজন হবে। তা না হলে, প্রবল বাতাসে ছাতার হুক ভেঙ্গে যেতে পারে।

রেইনকোট

শিশু থেকে বড় সকলের জন্যেই রেইনকোট ব্যবহার দারুণ উপযুক্ত। নিজেকে বৃষ্টির হাত থেকে সম্পূর্ণ শুষ্ক রাখতে রেইনকোট সবচেয়ে কার্যকরী। বাচ্চাদের কোথাও নিয়ে গেলে রেইনকোট সাথে রাখুন, বৃষ্টি হলে তা পরিয়ে বাইরে বের হোন, এতে তারা সহজে ভিজবে না। এছাড়া অনেকে বাইক বা সাইকেল চালান। তারাও প্যান্টসহ জ্যাকেট রেইনকোট পরতে পারেন। এতে জামার কোন অংশই ভিজবে না ও বৃষ্টি শেষে শুষ্ক থাকতে পারবেন।

জুতা

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/11/1562848722180.jpg

বৃষ্টিতে আরেকটি খুব দরকারি হল জুতা। কাদাযুক্ত রাস্তায় হাঁটাহাঁটি করা খুব অসহ্য হলেও সঠিক সময়ে গন্তব্যে পৌছাতে চাইলে, যানবাহনের পাশাপাশি হাঁটতেও হয়। এছাড়া বৃষ্টির সময় ঘুরতে গেলে, বিশেষ করে পাহাড়ি এলাকায় গেলে জুতা নিয়ে বেশ খেয়াল রাখতে হয়। পাহাড়ি অঞ্চলে গেলে শু বা কেডস জাতীয় জুতা, যেগুলো গ্রিপ্স রাখতে পারে সেগুলো ব্যবহার করা উচিৎ। এতে কাদাতে পা সহজে পিছলিয়ে যাবে না এবং বৃষ্টিতে যেসব পোকার পরিমাণ বেশি থাকে সেগুলো থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।

তবে আশেপাশে কোথাও বা নিচু স্থানে ঘুরতে গেলে প্লাস্টিক বা যেগুলো দ্রুতই শুকিয়ে যাবে এমন স্যান্ডেল বা জুতা পড়তে পারেন।

ওয়াটারপ্রুফ ও জিপলক ব্যাগ

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/11/1562848698153.jpg

বৃষ্টির সময় প্রয়োজন এমন ব্যাগ যেটি পানিতে ভিজবে না, পানি প্রবেশ করবে না ও ভিতরের জিনিসপত্রগুলো সুরক্ষিত থাকবে। তাই ব্যাগ যখন কিনবেন দেখে নিন সেটি ওয়াটারপ্রুফ কিনা এবং সেটিতে চেইন ঠিকমত আছে নাকি, যেন খোলা না থাকে।

তোয়ালে বা রুমাল

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/11/1562848681028.jpg

বৃষ্টিতে ভিজে ঘুরাঘুরি করতে কমবেশি অনেকই করেন। তবে ভেজা অবস্থায় বেশিক্ষণ থাকা ঠিক নয়। ঠাণ্ডা, জ্বর, সর্দি এমন সময়ে খুব জলদি দেখা দেয়। তাই সাথে রাখুন ছোট তোয়ালে বা রুমাল, যেটি সহজেই পানি চুষে নিবে এবং দ্রুত বাতাসের সংস্পর্শে শুকিয়ে যাবে। এতে করে বৃষ্টিতে ভেজার পরপরই মাথার চুলসহ শরীর ভালোভাবে মুছে ফেলা যাবে।

হালকা পোশাক

বৃষ্টির দিন ভারী কাপড় পড়া উচিৎ নয়, কারণ এমন পোশাক বৃষ্টিতে ভিজলে সহজে শুকাতে চায় না। এমন সময় হালকা ধরণের জামা পরিধান করা উচিৎ যেগুলোতে পানি ঝরে যাবে, দাগ বসবে না, দ্রুত শুকিয়ে যাবে এবং পরে আরাম বোধ হবে। এ ধরণের জামা ব্যাগে বেশি জায়গাও নেয় না এবং ব্যাগ ভারীও হয়না।

টর্চলাইট

বৃষ্টির দিন কারেন্টের সমস্যাতো থাকেই, তবে এ সময় দিনভর অন্ধকার পরিবেশ হয়ে থাকে। এ সময়ে পাহাড়-জঙ্গলে ঘুরলে অন্ধকারে সহজে দেখা যায়না। এছাড়া রাতে দুর্ঘটনার প্রবণতা বেশি থাকে। তাই সাথে রাখুন ছোট টর্চলাইট বা এমন কোনো লাইট যেটির চার্জ অনেকক্ষণ থাকবে ও ভালো আলো দিতে পারবে।

স্মার্ট ওয়াচ

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/11/1562848621597.jpg

ডিজিটাল প্রযুক্তির যুগে সবকিছুই হাতের মুঠোয়। শুধু যে মোবাইল ফোনে সবকিছু করা হয়, তা নয়। এখন হাতে পড়া ঘড়িতেও রয়েছে মোবাইলের কিছু কার্যক্রম যেমন- ম্যাসেজ দেখা, কল ধরে কথা বলা, কত কিলোমিটার হেঁটেছেন সে হিসাব রাখা, মোবাইল ট্র্যাক করা, দিক নির্দেশনা ইত্যাদি। তাই সম্ভব হলে ঘুরতে যাওয়ার আগে সাথে রাখুন একটি ডিজিটাল ঘড়ি। চমৎকার বিষয়টি হল, স্মার্ট ওয়াচ বৃষ্টিতে ভিজলেও নষ্ট হওয়ার ভয় নেই। এতে বৃষ্টিতে আপনার মোবাইল বারাবার বের করার প্রয়োজন হবে।

পাওয়ার ব্যাংক

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/11/1562848603466.jpg

মোবাইল, লাইট, স্মার্ট ঘড়ি চার্জ দিতে যেখানে সেখানে বিদ্যুৎ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর হয়ে যাবে। তাই ডিভাইসগুলোর চার্জের জন্য সাথে রাখুন পাওয়ার ব্যাংক।

মশার ঔষধ 

বৃষ্টিতে মশার উৎপাত চারিদিকে বেশি থাকে। তাই যেখানেই ঘুরতে যাওয়া হোক না কেনো সাথে রাখুন মশার ঔষধ, ক্রিম বা স্প্রে। এছাড়াও সাথে মশার কয়েল বা মশা মারার উপাদান রাখুন।

খাওয়ার ঔষধ

ব্যাগে প্রাথমিক চিকিৎসার প্রয়োজনীয় ঔষধ যেমন: জ্বরের জন্য প্যারাসিটামল, নাপা বা এইস প্লাস, এলার্জির ঔষধ, গ্যাস্ট্রিকের ঔষধ, পোকামাকড়, মশা কামড়ানোর ক্রিম, ব্যান্ডেজ, কেটে গেলে ক্ষত পরিষ্কারের জন্য অ্যান্টিসেপটিক ইত্যাদি রেখে দিন।

প্লাস্টিক বা পলিথিন

বৃষ্টিতে আপনার জিনিসগুলো ভিজে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করার জন্য সাথে রাখুন প্লাস্টিকের ব্যাগ বা পলিথিন। আপনার বহনের ব্যাগটি ওয়াটারপ্রুফ হলেও, বেশিভাগ জিনিসপত্র প্লাস্টিকে মুড়িয়ে ব্যাগে রাখুন। বিশেষ করে ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস, ঔষধ, পরিধেয় পোশাক। এতে কোনোভাবে ব্যাগে পানি ঢুকলে জিনিসগুলো ভিজে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা পাবে। এছাড়াও ভিজে যাওয়া জামা-জুতা পলিথিনে মুড়িয়ে ব্যাগে নিতে পারবেন, এতে পানি ছড়িয়ে যাবেনা।

আপনার মতামত লিখুন :

ভিন্ন স্বাদে নারিকেল-ভ্যানিলা আইসক্রিম

ভিন্ন স্বাদে নারিকেল-ভ্যানিলা আইসক্রিম
নারিকেল-ভ্যানিলা আইসক্রিম, ছবি: সংগৃহীত

আইসক্রিমের মাঝে ভ্যানিলা ফ্লেভারটি সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় ও প্রচলিত। একদম সাদামাটা ভ্যানিলা ফ্লেভারের মাঝে টুইস্ট আনতে চাইলে এভারে যোগ করতে পারেন নারিকেলের ফ্লেভার। ভ্যানিলার সাথে নারিকেলের ফ্লেভারের সংমিশ্রণে ঘরে তৈরি আইসক্রিম খুব সহজেই এই গরমে রিফ্রেশিং ভাব তৈরি করবে।

নারিকেল-ভ্যানিলা আইসক্রিম তৈরিতে যা লাগবে

১. দুই কাপ নারিকেল দুধ।

২. দুই কাপ পনির।

৩. আধা কাপ চিনি।

৪. ১/৪ কাপ নারিকেল কুঁচি।

৫. দুই টেবিল চামচ নারিকেল কুঁচি ভাজা।

৬. দুই চা চামচ ভ্যানিলা এসেন্স।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/22/1563804441997.JPG

নারিকেল-ভ্যানিলা আইসক্রিম যেভাবে তৈরি করতে হবে

১. একটি পাত্রে নারিকেল দুধ, চিনি, ও পনির কুঁচি একসাথে ভালোভাবে হুইস্ক তথা ফেটাতে হবে। সকল উপাদান মিশে ঘন ক্রিমি মিশ্রণ তৈরি হবে।

২. ক্রিমি মিশ্রণে ভ্যানিলাক এসেন্স যোগ করে পুনরায় মিনিট পাঁচেকের জন্য মিশ্রণটি হুইস্ক করতে হবে। এতে করে পুরো মিশ্রণে ভ্যানিলা এসেন্স মিশে যাবে।

৩. মিশ্রণ তৈরি হয়ে গেলে বাটিতে ঢেলে ডিপ ফ্রিজে তিন ঘণ্টার জন্য রেখে দিতে হবে। তিন ঘণ্টা পর ফ্রিজ থেকে বের করে এতে নারিকেলের কুঁচি মিশিয়ে পুনরায় ডিপ ফ্রিজে রেখে দিতে হবে সারারাতের জন্য।

পরদিন ফ্রিজ থেকে জমাটবাধা নারিকেল-ভ্যানিলা আইসক্রিম বের করে উপরে নারিকেল কুঁচি ভাজা ছড়িয়ে দিয়ে পরিবেশন করতে হবে।

আরও পড়ুন: চার উপাদানে খেজুর গুড়ের আইসক্রিম

আরও পড়ুন: এই গরমে আমের লাচ্ছি

দুই মিনিটে চোখের সাজ!

দুই মিনিটে চোখের সাজ!
সহজ নিয়মে অল্প সময়েই সাজিয়ে নেওয়া যাবে চোখকে, ছবি: সংগৃহীত

মুখের মাধুর্যের মাঝে চোখ জোড়া সবচেয়ে বেশি আকর্ষণীয়।

আর তাইতো সাজের মাঝে চোখের সাজটাই সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পায়। বড় ধরনের কোন অনুষ্ঠান হোক কিংবা সাধারণ ক্লাস, শপিং কিংবা অফিসের জন্য বের হওয়া হোক, চোখে কাজল বা আইলাইনারের প্রলেপ থাকা চাই-ই চাই। আইলাইনের চাইতেও কাজলের চাহিদা ও ব্যবহার অনেক বেশি। কাজল ব্যবহারেই চোখের সাজের পরিপূর্ণতা প্রকাশ পায়।

কাজল ব্যবহারের ক্ষেত্রে ক্যাটস আই স্টাইলটি সবচেয়ে বেশি প্রচলিত। ড্রামাটিক ঘরানার এই স্টাইলে যেন চোখের সৌন্দর্যটি আরও ভালোভাবে ফুটে ওঠে। কিন্তু সমস্যা হলো সময়ে!

ক্যাটস আই স্টাইলে কাজল দেওয়ার জন্য হাতে বেশ অনেকখানি সময় রাখা প্রয়োজন হয়। ফলে নিত্যদিন বাইরে বের হওয়ার আগে সময় করে কাজল দেওয়া হয়ে ওঠে না। কিন্তু চোখ একেবারেই কাজলবিহীন রাখতে না চাইলে সহজ সমাধানও রয়েছে। যার জন্য ব্যয় হবে মাত্র দুই মিনিট।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/22/1563797724291.jpg

দুই মিনিটের ভেতর চোখে কাজল দিতে চাইলে চোখের পাতার উপরে নয়, দিতে হবে চোখের পাতার নিচের অংশে, যেখানে চোখের পাপড়িগুলোর মূল থাকে। চোখের পাতা আঙ্গুলের সাহায্যে কিছুটা টেনে ধরে কাজলের তীক্ষ্ণ অংশটি পাতার নিচের অংশে টেনে দিতে হবে। একইভাবে চোখের নিচের পাতাতেও পাতার ভেতরের অংশতে কাজল দিতে হবে।

এতে করে চোখ আগের চাইতে অনেক বেশি ওয়েল ডিফাইন্ডড বা আঁকানো মনে হবে। এবারে কাজলের সাহায্যে চোখের উপরের পাপড়ির একদম শেষ অংশে কিছুটা টেনে নিতে হবে। এতে করে চোখ বড় ও টানটান মনে হবে।

এভাবে কাজল ব্যবহারের ক্ষেত্রে অবশ্যই যত্নশীল ও সতর্ক হতে হবে। চোখে যেন আজলের খোঁচা না লাগে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। এছাড়া ভালোমানের কাজল ব্যতীত সস্তা কাজল ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে হবে।

আরও পড়ুন: পারফেক্ট সাজে আকর্ষণীয় আপনি!

আরও পড়ুন: গুছিয়ে রাখুন মেকআপ সামগ্রী

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র