Barta24

রোববার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬

English

১৪২৬ বর্ষবরণের আয়োজন

এবারের বৈশাখে কোন মোটিফে কেমন পোশাক!

এবারের বৈশাখে কোন মোটিফে কেমন পোশাক!
ছবি: বার্তা২৪.কম
ফাওজিয়া ফারহাত অনীকা
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
লাইফস্টাইল


  • Font increase
  • Font Decrease

ফেব্রুয়ারির শুরু থেকেই চারপাশ জুড়ে বিরাজ করে সাজ সাজ রবে উৎসবের আমেজ। এই আমেজের পেছনের মূল উপলক্ষ হলো, বাঙালির অন্যতম বড় উৎসব পহেলা বৈশাখ। পহেলা বৈশাখকে ঘিরে লাল পেড়ে সাদা শাড়ির পাশাপাশি বর্তমান সময়ে আরামদায়ক পোশাকের দিকেও ঝুঁকছেন নারীরা।

কুর্তি, সালোয়ার-কামিজে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করায় এমন ধরনের আরামদায়ক পোশাকের চাহিদাও বৃদ্ধি পাচ্ছে উত্তোরত্তর। তারই ধারাবাহিকতায় পহেলা বৈশাখকে সামনে রেখে একেবারেই ভিন্ন মোটিফ ও ডিজাইনের কুর্তি, সালোয়ার-কামিজ ও শাড়ি নিয়ে এসেছে বেশ কিছু অনলাইনভিত্তিক প্রতিষ্ঠান।

অনলাইন ও অফলাইন জগতে রুচিশীল ক্রেতাদের কাছে পরিচিত হয়ে ওঠা ‘ওয়্যারহাউজ’, ‘শরদিন্দু’ ও ‘শুকশারী’র বৈশাখের সংগ্রহ নিয়ে আজকের বার্তা লাইফস্টাইলের পাতায় থাকছে বিশেষ আয়োজন। ফিচারে চোখ বুলিয়ে জেনে নিতে পারেন তিনটি ভিন্ন ব্র্যান্ডের ভিন্ন মোটিফের আয়োজন সম্পর্কে।

ওয়্যারহাউজ

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/02/1554202486031.jpg

রঙ নিয়ে কাজ করতে ভালোবাসেন বলে, তাসনিম ফেরদৌসের কাছে সবচেয়ে প্রিয় সময়টা হলো বৈশাখ। কারণ এ সময়ে মনের খেয়াল খুশি মতো রঙ নিয়ে কাজ করা যায়। এমন নয় যে অন্য সময় নকশা তৈরিতে ইচ্ছামতো রঙের ব্যবহার করা যায় না। কিন্তু এ সময়টাতে যেন রঙের ব্যবহারে কোন নির্দিষ্ট গন্ডি থাকে না।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/02/1554202556175.jpg

সে কারণে এ বছরের ওয়্যারহাউজের বৈশাখের সংগ্রহে প্রাধান্য পেয়েছে প্রায় সকল ধরণের রঙ। এমনটাই জানালেন প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা, কর্ণধার ও নকশাকার তাসনিম ফেরদৌস।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/02/1554202546220.jpg

সাধারণত পিওর খাদি ও সুতি তন্তু নিয়ে কাজ করা হলেও জর্জেট ও লিলেনের উপরেও কাজ করা হয়েছে বৈশাখের সংগ্রহে। নকশা ও মোটিফের ক্ষেত্রে চিরপরিচিত ‘হাতপাখা’, ‘ঘোড়া’, ‘মুখোশ’ এর পাশাপাশি গরমে প্রশান্তির আমেজ আনতে ‘ললি পপসিকল’ আইসক্রিমের আদলেও নকশা থাকছে ওয়্যারহাউজে। কুর্তি, কোটি, লঙ ড্রেস, শ্রাগের পাশাপাশি শাড়িও থাকবে তাদের সংগ্রহে। কুর্তি ও কোটির মূল্য হবে ১০০০-২১০০ টাকার মধ্যে। ১৫০০-২৫০০ টাকার মাঝে পাওয়া যাবে ওয়্যারহাউজের শাড়িগুলো। ক্রেতাদের সুবিধার কথা বিবেচনা করেই মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে বলে জানান তাসনিম।

শরদিন্দু

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/02/1554202572804.jpg

ক্রেতাদের কাছে ইতোমধ্যে জনপ্রিয় হয়ে ওঠা প্রতিষ্ঠান শরদিন্দুর বৈশাখের সংগ্রহে থাকছে বেশ ভালো চমক। বেশ কয়েকটি ভিন্ন মোটিফ নিয়ে নকশা করা হয়েছে বৈশাখের পোশাক ও শাড়ির। ‘পোশাক নকশার সময় মাথায় রাখি, আমার নকশা করা পোশাক যেন একটি গল্প বলে। হতে পারে কোন ফিকশনের গল্প, কোন প্রাচীন পুঁথির গল্প অথবা গ্রামীণ কোন চিত্রগাথার গল্প’, বলেছেন শরদিন্দুর প্রতিষ্ঠাতা, কর্ণধার ও নকশাকার হাবিবা আক্তার সুরভী।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/02/1554202591013.jpg

সেই ধারাবাহিকতায় শরদিন্দুর বৈশাখের সংগ্রহে প্রাচীন তিব্বতের মন্ত্র থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে কিছু জামা নকশা করা হয়েছে। পাশাপাশি গ্রামীণ পটচিত্র, লোকচিত্র, দক্ষিনের মাধুবানী আর্ট, জয়পুরের হাওয়া মহল, মুঘল মিনিয়েচার আর্ট পদ্মপুরাণের বেহুলা লক্ষিন্দরের দৃশ্যপটও ফুটে উঠেছে শরদিন্দুর নকশায়।

গরমের দিকটি বিবেচনায় নিয়ে সুতি কাপড় প্রাধান্য পেলে জমকালো অনুষ্ঠানের জন্য সিল্ক, জর্জেটের পোশাকও থাকছে। এছাড়া সংযোজন হিসেবে শরদিন্দু এনেছে তাতীর হাতে বোনা শাড়িতে স্ক্রিনপ্রিন্টের নকশা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/02/1554202610608.jpg

সুরভী জানান, পোশাকের মূল্য নির্ধারণের সময় নিজেকে ক্রেতার স্থানে ভেবেই মূল্য নির্ধারণ করেন তিনি। তাই বেশ সুলভমূল্যেই পাওয়া যাবে ব্যতিক্রমী বৈশাখী সংগ্রহ। সুতির পোশাকগুলো ১০০০-২২০০ টাকা, সিল্ক ও জর্জেটের পোশাক ১৪০০-২৫০০ টাকা এবং শাড়ি পাওয়া যাবে ১৫০০-২৫০০ টাকার মাঝে।

শুকশারী

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/02/1554202748810.jpg

দুই বন্ধু আনন্দময়ী প্রমা ও মিথিলা কবির এর সম্মিলিত প্রচেষ্টায় গড়ে ওঠা অনলাইনভিত্তিক প্রতিষ্ঠান শুকশারী। পোশাকের নকশা করার ক্ষেত্রে স্ক্রিনপ্রিন্ট ও ডিজিটাল প্রিন্টের উপরেই বেশি কাজ করা হয় বলে জানান প্রতিষ্ঠানটির সহ-প্রতিষ্ঠাতা প্রমা।

শুকশারীতে পোশাকের তন্তু নির্বাচনের ক্ষেত্রে ক্রেতার আরামের বিষয়টি সবসময় গুরুত্ব দেওয়া বলে সুতি ও লিলেনের উপরেই বেশি কাজ করা হয়। মূলত একটি নির্দিষ্ট থিম বা গল্পকে কেন্দ্র করেই পোশাকের নকশা করা হয়। তাই বৈশাখের জন্য একটু ভিন্ন মোটিফ নিয়ে কাজ করার চেষ্টায় শুকশারী নিয়ে এসেছে ‘রবী-পত্র’। যেখানে পোশাক জুড়ে বিশ্বকবীর হাতে লেখা চিঠিকে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। সাথে রয়েছে বিখ্যাত ‘গুপী গাইন বাঘা বাইন’ চলচিত্রের পোস্টারে নিয়ে তৈরি করা নশকাদার পোশাক।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/02/1554202766702.jpg

এছাড়াও দেশীয় মোটিফের ছিমছাম নকশা ও হালকা ঘরানার রঙের কাজও রয়েছে শুকশারীর বৈশাখের সংগ্রহে। এখানে সিংগেল কুর্তি ১২৫০-১৪০০ টাকা ও থ্রি-পিস ১৭০০-২৪৫০ টাকার মাঝেই পাওয়া যাবে।

আরও পড়ুন: সাজ-পোশাকে দ্যুতি ছড়াচ্ছে ‘দেবী’

আরও পড়ুন: শারদ সাজে থাকুক হাতে তৈরি নান্দনিক টিপ

আপনার মতামত লিখুন :

কোন জিনিস কতদিন পর পরিষ্কার করতে হবে?

কোন জিনিস কতদিন পর পরিষ্কার করতে হবে?
ছবি: সংগৃহীত

নিজের আশেপাশের সবকিছু তথা ঘর ও ঘরের জিনিসপত্র যতবেশি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা সম্ভব হবে, নিজেকে ও পরিবারের সবাইকে ততবেশি সুস্থ রাখা সম্ভব হবে। শারীরিক সুস্থতা ও মানসিক প্রফুল্লতার সাথে সাথে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার সংযোগটা বহু পুরনো। এ কারণে পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে ছাড় দেওয়ার উপায় নেই।

পরিধেয় পোশাক কিংবা অপরিষ্কার থালাবাসন যে প্রতিদিন পরিষ্কার করতে হয়, সেটা নতুন করে বলে দেওয়ার প্রয়োজন নেই। কিন্তু ঘরে থাকা আয়না কতদিন পর পরিষ্কার করা প্রয়োজন সেটা অনেকেই বুঝতে পারেন না। তবে বাসার অবস্থান ও এলাকাভেদে জিনিসপত্রে ধুলাময়লা জমার ক্ষেত্রে রকমফের দেখা দিতে পারে। সেক্ষেত্রে কোন আসবাবে ধুলা জমে থাকতে দেখলে দ্রুত পরিষ্কার করে ফেলতে হবে।

প্রতি সপ্তাহে, প্রতি মাসে কিংবা ৩-৫ মাস অন্তর কোন জিনিসগুলো পরিষ্কার করা প্রয়োজন সে সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা থাকলে জিনিসপত্র পরিষ্কার রাখা বেশ অনেকটা সহজ হয়। যে কারণে আজকের ফিচারে খুব গুছিয়ে তালিকা তৈরি করা হয়েছে, যা থেকে জানা যাবে কতদিন পর কোন জিনিসটি পরিষ্কার করা প্রয়োজন।

প্রতিদিন যা পরিষ্কার করতে হবে

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/18/1566123957938.jpg

১. বিছানা গুছিয়ে ঝাড়তে হবে।

২. নোংরা ও এঁটো থালাবাসন জমিয়ে রাখা যাবে না। প্রতিদিনেরটা প্রতিদিন ধুয়ে ফেলতে হবে।

৩. খাবার টেবিল গুছিয়ে পরিষ্কার করতে হবে।

৪. বাথরুমের মেঝে ঝাঁট দিতে হবে।

৫. রান্নাঘরের থাক ও মেঝে মুছতে হবে।

৬. রান্নাঘরের সিংক পরিষ্কার করতে হবে।

৭ নোংরা পোশাক ধুতে হবে।

৮. ঘর ও বারান্দার মেঝে ঝাড়ু দিতে হবে। মুছতে পারলে সবচেয়ে ভালো।

প্রতি সপ্তাহে যা পরিষ্কার করতে হবে

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/18/1566123762608.jpg

১. বিছানা ও বালিশের কভার বদলাতে হবে।

২. রান্নাঘর ও রেফ্রিজারেটরে থাকা পুরনো ও মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার ফেলে দিতে হবে।

৩. ঘরের সকল আসবাবের আয়না মুছতে হবে।

৪. বুকশেফলে থাকা বইপত্র থেকে ধুলা ঝাড়তে হবে।

৫. শোকেসের জিনিসপত্র পরিষ্কার করতে হবে।

৬. আসবাবপত্র থেকে ধুলাবালি সরাতে হালকা ভেজা কাপড়ের সাহায্যে মুছতে হবে।

৭. মাইক্রোওয়েভ ওভেনের ভেতরের ও বাইরের অংশ পরিষ্কার করতে হবে।

৮. গোসল করার লোফাহ বা স্পন্স পরিষ্কার করতে হবে।

প্রতি মাসে যা পরিষ্কার করতে হবে

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/18/1566123841141.jpg

১. ঘরের কোন ও ছাদের অংশের ধুলাময়লা ঝাড়তে হবে।

২. লাইট ও বাল্বে জমে থাকা ময়লা পরিষ্কার করতে হবে।

৩ সোফার কভার ও দরজা, জানালার পর্দা পরিষ্কার করতে হবে।

৪. ডিশওয়াশার ও ওয়াশিং মেশিন পরিষ্কার করতে হবে।

৫. ফ্রিজের ভেতর ও বাইরের অংশ ভালোভাবে পরিষ্কার করতে হবে।

৬. টিভি থেকে ধুলাবালি সরাতে পরিষ্কার করতে হবে।

৭. দেয়াল ঘড়ি, ওয়ালম্যাট, বড় ছবির ফ্রেম নামিয়ে মুছে নিতে হবে।

৮. নিত্য ব্যবহারের ব্যাকপ্যাক ধুয়ে নিতে হবে।

৩-৫ মাস পরপর যা পরিষ্কার করতে হবে

১. আসবাবপত্রের নিচের অংশ থেকে ধুলাময়লা বের করতে হবে।

২. কার্পেট পরিষ্কার করতে হবে।

আরও পড়ুন: রোদ কিংবা বৃষ্টি, ছাতা হোক সঙ্গী

আরও পড়ুন: প্রয়োজন কিংবা ফ্যাশনে চাই রোদচশমা!

টি ট্রি অয়েল ব্যবহারে সুরক্ষিত ত্বক

টি ট্রি অয়েল ব্যবহারে সুরক্ষিত ত্বক
টি ট্রি অয়েল

বিভিন্ন ধরনের এসেনশিয়াল অয়েলের মাঝে টি ট্রি অয়েল সবচেয়ে পরিচিত ও প্রচলিত একটি।

এই এসেনশিয়াল অয়েলের অসংখ্য উপকারিতার মাঝে ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা সমাধান সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পায়। শুধু ত্বক নয়, চুলের যত্নেও সমানভাবে ব্যবহৃত হয় টি ট্রি অয়েল। এছাড়াও ডিওডরেন্ট, পোকামাকড় দূর করতে ও মাউথওয়াশ হিসেবেও কার্যকর এই এসেনশিয়াল অয়েল।

টি ট্রি অয়েল ব্যবহার বিধি

টি ট্রি অয়েল ব্যবহারের ক্ষেত্রে খুব কঠিন কোন বিধিনিষেধ নেই। তবে মনে রাখতে হবে, ত্বকে বা চুলে ব্যবহারের ক্ষেত্রে সরাসরি এই তেল ব্যবহার করা যাবে না। ক্যারিয়ার তেল তথা নারিকেল তেল অথবা অলিভ অয়েলের সাথে মিশিয়ে তবেই ব্যবহার করতে হবে এই এসেনশিয়াল অয়েল।

অনেকেই টি ট্রি অয়েল পরিমাণে অনেক বেশি নিয়ে ফেলে। এক্ষেত্রে ১-৩ ফোঁটা ব্যবহার করাই যথেষ্ট। অল্প পরিমাণ এসেনশিয়াল অয়েল থেকেও সম্পূর্ণ উপকারিতা পাওয়া যাবে।

তবে টি ট্রি অয়েল ব্যবহারের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় মনে রাখতে হবে অবশ্য। এই তেল চোখের আশেপাশের অংশ ব্যবহার না করাই শ্রেয়। এতে চোখের আশেপাশের অংশের ত্বকে জ্বালাপোড়া দেখা দেয়। কারণ মুখমণ্ডলের এ অংশের ত্বক তুলনামূলক বেশি পাতলা হয়ে থাকে।

এছাড়া টি ট্রি অয়েল ব্যবহার পূর্বে পরীক্ষামূলকভাবে ব্যবহার করে নিশ্চিত হয়ে নেওয়া ভালো, এই তেল ব্যবহারে ত্বকে কোন সমস্যা দেখা দেয় কিনা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/18/1566115011865.jpg

টি ট্রি অয়েলের উপকারিতা

এই এসেনশিয়াল অয়েলের বিবিধ উপকারিতার মাঝে মূল ও প্রধান কয়েকটি উপকারিতা তুলে ধরা হলো।

শুষ্ক ত্বকের সমস্যা কমায়

যাদের ত্বক খুব শুষ্ক, তাদের জন্য টি ট্রি অয়েল খুব ভালো কাজ করবে। এই তেলটি শুষ্ক ত্বকের জ্বালাপোড়াভাব ও চুলকানির প্রাদুর্ভাব কমায়। বিশেষত এতে থাকা জিংক অক্সাইড শুষ্ক ত্বক ও একজিমার সমস্যা কমাতে কাজ করে।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্ন

টি ট্রি অয়েলের অ্যান্টিসেপটিক উপাদান তৈলাক্ত ত্বকের জন্য উপকারী। একটি গবেষণা জানাচ্ছে,  সানস্ক্রিনের সাথে টি ট্রি অয়েল মিশ্রিত থাকলে ত্বকের তৈলাক্ততা কমে যায় অনেকখানি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/18/1566115031078.jpg

ত্বকের প্রদাহ

উপকারী এই এসেনশিয়াল অয়েলের অ্যান্ট-ইনফ্ল্যামেটরি প্রভাব ত্বকের প্রদাহ, ব্যথা ও জ্বালাপোড়ার সমস্যাকে কমিয়ে এনে আরাম প্রদান করে। এমনকি ত্বকের কোন অংশ ফুলে গেলে বা ত্বকে লালচে ভাব দেখা দিলে সেটা কমাতেও কাজ করে টি ট্রি অয়েল।

ক্ষত সারাতে টি ট্রি অয়েল

টি ট্রি অয়েলের অ্যান্টিসেপটিক, অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি ও অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল ধর্ম ত্বকের কাটাছেঁড়া ও ক্ষত সারাতে খুব চমৎকার কাজ করে। ২০১৩ সালের একটি গবেষণা থেকে দেখা গেছে প্রতি ১০ জনের মাঝে ৯ জনের টি ট্রি অয়েল ব্যবহারে ক্ষত দ্রুত ও অল্প সময়ের মাঝে ভালো হয়েছে।

আরও পড়ুন: ব্রণের প্রাদুর্ভাব কমবে ক্যাস্টর অয়েল ব্যবহারে

আরও পড়ুন: ত্বকের ফাটা দাগ কমাতে ক্যাস্টর অয়েল

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র