Alexa

কেন মানুষ আপনার উপর থেকে আগ্রহ হারিয়ে ফেলে?

কেন মানুষ আপনার উপর থেকে আগ্রহ হারিয়ে ফেলে?

ছবি: সংগৃহীত

নতুন মানুষের সাথে পরিচয় হলো ও বন্ধুত্ব গড়ে উঠলো।

দুজনে খুব আনন্দ নিয়ে কথাবার্তা শুরু করলেন। প্রথম থেকে আগ্রহটা দু’পক্ষ থেকেই সমান। কিন্তু একটা সময় পর অবাক হয়ে খেয়াল করলেন, ওদিক থেকে আগের মতো সাড়া পাচ্ছেন না। কথা বলার, যোগাযোগ রাখার আগ্রহ ও স্পৃহা হারিয়ে ফেলেছে অপরপক্ষ। এমন ঘটনা শুধু আপনার সাথেই নয়, অহরহ ঘটে থাকে আরও হাজারো মানুষের সাথেও।

এমন আচরণকে কী বলা হয়?

এই ধরণের ঘটনার ক্ষেত্রে দুইটি টার্ম ব্যবহার করা হয়- ঘোস্টিং ও বেঞ্চিং। অর্থাৎ অপরপক্ষ আপনার উপর থেকে আগ্রহ হারিয়ে ফেলার ফলে হুট করেই যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। অথবা ধীরে ধীরে যোগাযোগের মাত্রা কমিয়ে দিয়ে বন্ধ করেন। যে কারণে বলা হয় ঘোস্টিং, যার অর্থ ভূতের মতো আপনাকে অদৃশ্য করে ফেলা। বেঞ্চিং, অর্থাৎ আপনাকে এককোনে ঠেলে দেওয়া।

কেন হয় এমনটা?

এমন অদ্ভুত আচরণের জন্য অপরপক্ষকে দোষী ভাবলেও আদতে সমস্যার শুরু হয় নিজের দিক থেকেই। যা পরোক্ষভাবে অপরপক্ষকে দূরে সরে যেতে প্রণোদিত করে। নিজের দিকের সেই সমস্যাগুলো তুলে ধরা হলো এখানে।

আত্মবিশ্বাসের অভাব

একজন মানুষের মাঝে আত্মবিশ্বাসের অভাব খুব সহজেই চোখে পড়ে। কথোপকথনের মাধ্যমে গড়ে ওঠা যেকোন ধরণের সম্পর্কের ক্ষেত্রেই অপরপক্ষ থেকে একজন আত্মবিশ্বাসী মানুষকেই খুঁজবে। ভরাট গলা কিংবা ভীষণ ফ্যাশনেবল নয়, ছোট-বড় যেকোন কিছুতে নিজের আত্মবিশ্বাসকে ফুটিয়ে তুলতে পারা জরুরী। কিন্তু পরিচয়ের পর থেকেই যদি নিজের ইনসিকিউরিটিগুলো প্রকাশ পেতে শুরু করে, স্বাভাবিকভাবেই অপরপক্ষ যোগাযোগ রাখার আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে।

অতিরিক্ত কেয়ার করা

কেয়ারিং মানুষকে সকলেই পছন্দ করে। কিন্তু এটাও নিশ্চয় জানা আছে, অতিরিক্ত কোন কিছুই ভালো নয়। স্বাভাবিক মাত্রার কুশলাদি সম্পর্ককে ভালো রাখতে ও মজবুত করতে সাহায্য করলেও, প্রয়োজনের অধিক আগ্রহী হয়ে ওঠা ও কেয়ার করা অপরপক্ষকে বিরক্ত করে তোলে। এই বিরক্তি থেকেই একটা সময় পড়ে দূরে সরে যায় বা যেতে বাধ্য হয় অপরপক্ষ।

ব্যাড টাইমিং

উপরের কোন পয়েন্ট যদি না মিলে থাকে, তবে এই পয়েন্টে এসে হোঁচট খাবেন অনেকেই। সম্পর্কের প্রতিটা ধাপে পা রাখার জন্য নির্দিষ্ট ও সঠিক সময়ের প্রয়োজন। সেই সময়ে গড়মিল দেখা দিলে অপরপক্ষ বিরক্ত, বিব্রত ও ক্ষেত্র বিশেষে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। ফলাফল স্বরূপ দেখা দেয় যোগাযোগ ও সম্পর্কের দূরত্ব।

খুব বেশি তাড়াহুড়া করা

হয়তো অপরপক্ষের সাথে আপনার পরিচয় হয়েছে অনলাইনের জগতে। নিয়মিত কথাবার্তা চলছে, সময় দেওয়া হচ্ছে একে-অপরকে। হুট করেই আপনি খুব বেশি আগ্রহী হয়ে উঠলেন সামনাসামনি দেখা করার জন্য। কিন্তু অপরপক্ষ এখনও দেখা করতে ইচ্ছুক ও প্রস্তুত নয়। আপনার বারংবার অনুরোধের মুখে এক সময় দেখা করার জন্য রাজি হয়ে গেলেও, এমন তাড়াহুড়ার কারণে স্বভাবিকভাবেই আপনার প্রতি আগ্রহের স্থানটা নষ্ট হয়ে যাবে তার।

যেকোন সম্পর্ক ও যোগাযোগের ক্ষেত্রে কোন একটা ছোট ভুল কিংবা সমস্যা থেকেই কিন্তু দুরত্বের সৃষ্টি হয়। চেষ্টা করতে হবে নিজের ভুলগুলোকে বোঝার ও শুধরে নেওয়ার।

আপনার মতামত লিখুন :