Alexa

ওজন কমাতে সহায়ক লো-কার্ব ফল

ওজন কমাতে সহায়ক লো-কার্ব ফল

মেটাবলিজম বৃদ্ধিতে সহায়ক লেবু। ছবি: আসিফ

স্বাস্থ্যকর খাদ্য উপাদানের ভেতর প্রথম সারিতেই থাকবে নানান ধরণের ফল।

ফলে থাকা বিভিন্ন ধরণের ভিটামিন, মিনারেল ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট শরীরের জন্য যেমন গুরুত্বপূর্ণ তেমনই প্রয়োজনীয়। তবে এখানেও রয়েছে একটি কিন্তু। কিছু ফলে থাকে অনেক উচ্চ মাত্রার চিনি ও হাই-কার্ব। যা পরোক্ষভাবে ওজন বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। উচ্চমাত্রার চিনিযুক্ত ফলের পাশাপাশি একেবারেই লো-কার্বযুক্ত কিছু ফলও রয়েছে হাতের নাগালে। যা একইসাথে উপকারি ও ওজন কমাতে সহায়ক।

জেনে নিন এমনই কয়েকটি ফলের নাম।

পেয়ারা

পেয়ারা হলো পুষ্টিগুণ ও ডায়েটারি আঁশ সমৃদ্ধ একটি ফল। এতে আরও থাকে পটাশিয়াম, ভিটামিন ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট সমূহ। পেয়ারা খাওয়ার ফলে মেটাবলিজমের মাত্রা বৃদ্ধি পায়, যা ওজন কমাতে সাহায্য করে। ১০০ গ্রাম পরিমাণ পেয়ারাতে থাকে ১৪ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট ও ৬৮ ক্যালরি।

স্ট্রবেরি

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Sep/25/1537857665761.jpeg

ওজন কমানোর জন্য কোন ডায়েট ফলো করলে তাতে স্বাচ্ছন্দ্যে রাখতে পারেন লো-কার্বোহাইড্রেট যুক্ত স্ট্রবেরি। ১০০ গ্রাম স্ট্রবেরি থেকে পাওয়া যাবে মাত্র ৮ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট ও ৩৩ ক্যালোরি। এছাড়া পেয়ারার মতো এই ফলটিও মেটাবলিজমের মাত্রা বৃদ্ধি করে। এছাড়া স্ট্রবেরি খাওয়ার ফলে ক্ষুধাভাব কমে যায়। কারণ এতে আছে দ্রবণীয় আঁশ, যাকে বলা হয় পেকটিন। এর ফলে ওজন কমানো অনেকটাই সহজ হয়ে যায়।

তরমুজ

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Sep/25/1537857686048.jpeg

মৌসুমি এই ফলের আবেদন কখনোই কমে না। দারুন লো-কার্ব যুক্ত এই ফলটির ১০০ গ্রাম খাওয়ার ফলে ১০ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট ও ৩৫ ক্যালোরি পাওয়া যাবে। তরমুজের প্রায় ৯২ শতাংশ পানি হবার কারণে পেট ভরা থাকে অনেকক্ষণ। ফলে ঘনঘন ক্ষুধাভাব দেখা দেয় না।

লেবু

ওজন কমাতে লেবুকে ধরা হয় সবচেয়ে কার্যকরি ফল। শরীরের মেটাবোলিজমের মাত্রা বৃদ্ধিতে ও ফ্যাট বার্ণ করতে লেবু সবচেয়ে বেশি উপকারি। শুধু ওজন কমাতেই নয়, পেট ভরা রাখতে ও সুস্বাস্থ্যের জন্যেও লেবু চমৎকার একটি ফল।

১০০ গ্রাম লেবু থেকে পাওয়া যায় ৯ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট ও ২৯ ক্যালোরি।

অ্যাভোকাডো

অ্যাভোকাডোকে বলা হয়ে থাকে সুপারফুড। এছাড়াও বাটার ফ্রুট হিসেবেও পরিচিত অ্যাভোকাডো। অন্যান্য ফলের তুলনায় অনেক কম কার্বোহাইড্রেট থাকার ফলে স্বাস্থ্যকর ফলের খাতায় সহজেই নাম লিখিয়ে ফেলতে পেরেছে এই ফলটি। ১০০ গ্রাম পরিমাণ অ্যাভোকাডো থেকে পাওয়া যাবে ৯ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট ও ১৬০ ক্যালোরি। তবে রক্তে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে ও ভালো কোলেস্টেরলের মাত্রা বৃদ্ধির জন্য অ্যাভোকাডো বিশেষভাবে উপকারি।  

আপনার মতামত লিখুন :