Alexa

ডার্ক সার্কেলের সমস্যাকে দূরে রাখুন

ডার্ক সার্কেলের সমস্যাকে দূরে রাখুন

নিয়ম মেনে চললেই প্রতিরোধ করা সম্ভব ডার্ক সার্কেল। ছবি: সংগৃহীত

চোখের নিচের অংশে কালচে ছোপ দেখা দেওয়া খুবই সাধারণ একটি সমস্যা। যাকে বলা হয় ডার্ক সার্কেল। একটা বয়সের পর প্রায় প্রতিটি নারী-পুরুষের চোখের নিচেই ডার্ক সার্কেলের সমস্যা দেখা দেয়। অনিয়ম, পর্যাপ্ত ঘুমের অভাব সহ নানান কারণেই ডার্ক সার্কেল দেখা দেয়। তবে শুধু এই দুইটি কারণেই বিব্রতকর এই সমস্যা দেখা দেয় না, এর সাথে থাকে আরো বেশ কয়েকটি কারণ।

ডার্ক সার্কেল দেখা দেওয়ার কারণ

১. রোদের আলোতে বেশি সময় থাকার ফলে শুধু সানবার্ণ নয়, ডার্ক সার্কেলের সমস্যাও তৈরি হয়। রোদের আলোর এক্সপোজারের ফলে ত্বকে মেলানিনের পরিমাণ বেড়ে যায়। চোখের নিচের অংশের ত্বক তুলনামূলক নমনীয় হওয়ায় সেখানে মেলানিন তৈরির হার থাকে বেশি। ফলাফলে দেখা দেয় ডার্ক সার্কেলের সমস্যা।

২. অকারণে চোখ চুলকানোর কিংবা কচলানোর অভ্যাস থাকে অনেকের। এর ফলে চোখের নিচের অংশের চামড়ায় বাড়তি চাপ সৃষ্টি হয়। যা থেকে ধীরে ধীরে ডার্ক সার্কেল তৈরি হয়।

৩. অ্যালার্জি ও একজিমার সমস্যার ফলে ত্বকে প্রদাহের সৃষ্টি হয়। এই প্রদাহ থেকে দেখা দেয় ডার্ক সার্কেল।

৪. বয়সের সাথে সাথে ত্বকে ফ্যাট ও কোলাজেনের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে থাকে। এতেও দেখা দেয় ডার্ক সার্কেলের সমস্যা।

৫. অতিরিক্ত ধূমপান ও মদ্যপানও ডার্ক সার্কেল তৈরির জন্য দায়ী।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Sep/03/1535970134423.jpg

ডার্ক সার্কেল প্রতিরোধের উপায়

ডার্ক সার্কেল অবশ্যই অবশ্যই প্রতিরোধ যোগ্য। এর জন্য খুব সহজ কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে। সাথে নিতে হবে নিজের যত্ন

১. পর্যাপ্ত ঘুম হলো সবচেয়ে বেশি জরুরি ডার্ক সার্কেল প্রতিরোধ ও প্রতিকারের জন্য। নিয়মিত আট ঘন্টার ঘুম শুধু শরীরের জন্য নয়, চোখের বিশ্রামের জন্যেও জরুরি। সারাদিনের কাজের চাপ ও স্ক্রিন টাইমের জন্য চোখ ক্লান্ত হয়ে পড়ে। যে কারণে চোখ ও চোখের আশেপাশের অংশের উপর চাপ পড়ে। পর্যাপ্ত বিশ্রাম এই ক্লান্তিভাব ও চাপ দূর করে।

২. খেয়াল করেছেন কি, অতিরিক্ত লবণযুক্ত কোন খাবার তথা ফাস্ট ফুড খাওয়ার পরের দিন সকালে চোখমুখে ফোলাভাব দেখা দেয়। কারণ হলো অতিরিক্ত লবণ গ্রহণ। লবণে থাকে সোডিয়াম। যা চেহারার মাঝে ফোলাভাব তৈরি করে এবং ত্বক শুষ্ক ও অনমনীয় করে তোলে। ঠিক একইভাবে চোখের নিচে ডার্ক সার্কেল তৈরি করে সোডিয়াম।

৩. রাতে অবশ্যই মেকআপ ভালোমতো তুলে এরপর ঘুমাতে হবে। মেকআপের কেমিক্যাল প্রভাব ত্বকের উপর নেতিবাচক প্রভাব তৈরি করে। যা থেকেই দেখা দেয় ডার্ক সার্কেলের সমস্যা।

৪. যেহেতু অ্যালার্জির সমস্যা ডার্ক সার্কেলের সমস্যা তৈরি করে, তাই পরীক্ষা করে দেখতে হবে নিজের অ্যালার্জির সমস্যা আছে কিনা। যদি থাকে তবে চেষ্টা করতে হবে অ্যালার্জিকে নিয়ন্ত্রণে রাখার।

৫. ইউনিভার্সিটি অফ সাউদার্ন ক্যালিফর্নিয়ার ডার্মাটোলজি বিভাগের অ্যাসিস্টেন্ট ক্লিনিক্যাল প্রফেসর জেসিকা উ. জানান, ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধোয়ার ফলে ডার্ক সার্কেল কমে যায়। এমনকি ডার্ক সার্কেলের সমস্যা দেখা দেওয়ার সম্ভবনাও কমে যায় তুলনামূলক অনেকটা।

এছাড়াও প্রতিদিন পর্যাপ্ত (৮-১০ গ্লাস) পানি পান, ফ্রেশ সবজী ও ফল খাওয়ার চেষ্টা করতে হবে। মনে রাখতে হবে- কনসিলারের সাহায্যে চোখের নিচের ডার্ক সার্কেল সাময়িক সময়ের জন্য ঢেকে রাখা গেলেও, এই সমস্যাটি সম্পূর্ণভাবে দূর করার জন্য প্রয়োজন সঠিক নিয়ম ও খাদ্যাভাস।

আপনার মতামত লিখুন :