Barta24

রোববার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

জেল ভেঙে খালেদাকে মুক্ত করা হবে

জেল ভেঙে খালেদাকে মুক্ত করা হবে
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু।

তিনি বলেন, ‘সময় চলে গেলে আলোচনার সুযোগ থাকবে না। তখন আন্দোলনের মধ্য দিয়ে জেল ভেঙে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে।’

সোমবার (৩০ জুলাই) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ‘দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও’ আন্দোলন আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন নিয়ে আপনারা সিপিবি-বাসদসহ অন্যান্য দলগুলোর সঙ্গে আলোচনায় বসেছেন এ কারণে আপনাদেরকে ধন্যবাদ। কিন্তু বিএনপির সঙ্গে যদি আলোচনায় না বসেন তাহলে ৮ নাম্বার ১০ নাম্বার দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা করে লাভ হবে না।’

শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘দেশের স্বাভাবিক অবস্থা যদি ফিরিয়ে আনতে চান তাহলে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন। তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনুন। বিএনপি নেতাকর্মীসহ সকল রাজবন্দীদের মুক্তির ব্যবস্থা করুন। তারপর আলোচনায় বসেন। ভাবুন কীভাবে একটি নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন পরিচালনা করা যায়।’

তিনি বলেন, ‘আজকে আন্দোলনের কথা বলছি। এক সময় জেল ভেঙে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে। নির্বাচন করার জন্য প্রধানমন্ত্রী দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিচ্ছেন। সুষ্ঠু নির্বাচনের দিকে তিনি যাচ্ছেন না। আমরা এখন ভালো মানুষের মতো কথা বলছি, আপনাদের সুযোগ দিচ্ছি, আলোচনার কথা বলছি। যদি তারা তা না করে তাহলে আমরা বাধ্য হয়ে রাজপথে নামব। রাজপথে নামলে ডিসেম্বরের আগে যে পরিস্থিতির মুখোমুখি আপনারা হবেন তার দায় আপনাদেরই নিতে হবে। সেই আন্দোলনের মধ্য দিয়ে যদি সরকারের পতন ঘটে তাহলে শেখ হাসিনা আপনি আলোচনার সুযোগ পাবেন না।’

তিনি আরও বলেন, ‘শেখ হাসিনা আপনাকে আমরা আলোচনার কথা বলেছি, শেখ মুজিবের কন্যা হিসেবে এটা মাথায় নেন। খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন, পুলিশ প্রশাসনকে বিতর্কিত করা বন্ধ করুন। নির্বাচন কমিশনকে পুনর্গঠন করুন। আলোচনার মাধ্যমে সুষ্ঠু নির্বাচনের পথে ফিরে আসুন।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি রফিকুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক কাদের গণি চৌধুরী, সহশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যক্ষ সেলিম ভূঁইয়া প্রমুখ।

আপনার মতামত লিখুন :

জাতীয় ছাত্র সমাজের ১৫৩ সদস্য বিশিষ্ট সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি

জাতীয় ছাত্র সমাজের ১৫৩ সদস্য বিশিষ্ট সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি
জাতীয় ছাত্র সমাজ

 

জামাল উদ্দিন আহবায়ক ও ফয়সাল দিদার দিপুকে সদস্য সচিব করে জাতীয় ছাত্র সমাজ কেন্দ্রীয় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় পাটির চেয়ারম্যান জিএম কাদের কাদের।

রোববার (২১ জুলাই) জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গার সুপারিশে ১৫৩ সদস্য বিশিষ্ট সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির অনুমোদন করা হয় বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি আগামী ৩ মাসের মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ ইউনিট কমিটি গঠন করে কেন্দ্রীয় সম্মেলন আয়োজন করবে।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের ও মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান নব গঠিত ছাত্র সমাজ নেতৃবৃন্দ।

অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, প্রেসিডিয়াম সদস্য রেজাউল ইসলাম ভূইয়া, আলমগীর সিকদার লোটন, যুগ্ম মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ্-ই-আজম, নির্মল চন্দ্র দাশ, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ ইফতেখার আহসান হাসান, যুগ্ম ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান মিরু প্রমুখ।

সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা হচ্ছেন রওশন এরশাদ

সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা হচ্ছেন রওশন এরশাদ
জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ/ ছবি: সংগৃহীত

জাতীয় পার্টির (জাপা) সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা হচ্ছেন। বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন জাপা মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা।

জাপা মহাসচিব বলেন, ‘রওশন এরশাদ বিরোধীদলীয় নেতা হচ্ছেন এখন পর্যন্ত এমন সিদ্ধান্ত রয়েছে বলে জানি। ম্যাডাম (রওশন এরশাদ) সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা আর জিএম কাদের পার্টি পরিচালনা করবেন।’

রওশন এরশাদ বর্তমান সংসদে বিরোধীদলীয় উপনেতা হিসেবে রয়েছেন। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ছিলেন বিরোধীদলীয় নেতা। এরশাদের মৃত্যূতে বিরোধীদলীয় নেতার পদ শূন্য হয়েছে।

একাদশ সংসদে প্রথমে বিরোধীদলীয় উপনেতা ছিলেন জিএম কাদের। হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ গত ৭ এপ্রিল চিঠি দিয়ে ছোট ভাই জিএম কাদেরকে সংসদে উপনেতার পদ থেকে সরিয়ে দেন। সেই পদে বসান স্ত্রী রওশন এরশাদকে।

পার্টির অপর একটি সূত্র জানিয়েছে, শনিবার (২০ জুলাই) দুপুরে রওশনের বাসায় গিয়ে বৈঠক করেন জিএম কাদের। সেই বৈঠকে রওশন জিএম কাদেরকে পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে আশির্বাদ করেন। পাশাপাশি তিনি নিজে (রওশন) বিরোধীদলীয় নেতা হওয়ার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন।

জিএম কাদেরকে রওশন বলেছেন, ‘তুমি পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে দলকে শক্তিশালী কর। আর আমি সংসদীয় দলের নেতা হিসেবে থাকি।’

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র