Barta24

শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

বিএনপি বাংলাদেশের রাজনীতির কলঙ্ক

বিএনপি বাংলাদেশের রাজনীতির কলঙ্ক
কান্ট্রি ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন,‘সৎ রাজাকার বলে কোনো শব্দ নাই। পরহেজগার জঙ্গি বলে বাংলাদেশে কিছু নাই। রাজাকার ও জঙ্গিরা হল মানুষরূপী দানব। আর সেই দানবদের পৃষ্ঠপোষক হল বিএনপি ও খালেদা জিয়া। তারা বাংলাদেশের রাজনীতির কলঙ্ক।’

বৃহস্পতিবার (২৬ জুলাই) দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরের বড়াইল ইউনিয়নের খারঘর গণকবর স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের কাছে এসব কথা বলেন তিনি।

ইনু বলেন, ‘১৯৭৫ সালে জেনারেল জিয়ার হাত ধরে রাজনীতিতে খালেদা জিয়া ও বিএনপির বিষবৃক্ষ রোপণ হয়েছিল। সেই বিষবৃক্ষকে রাজনীতি ও ক্ষমতার বাইরে রাখতে হবে।’

মন্ত্রী আরও বলেন,‘৭৫-এর পর বিএনপির আমলে রাজাকার ও খুনিদের পুরস্কৃত করা হয়েছিল। আসুন রাজনীতির ময়দান থেকে রাজাকার ও অপরাধীদের আগাছা পরিষ্কার করি। অপরাধ, রাজাকার ও জঙ্গিমুক্ত করে শান্তির বাংলাদেশ গড়ে তুলি।’

নির্বাচন নিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘কে নির্বাচনে আসবে, কে আসবে না সেটি বিবেচ্য বিষয় না। বিবেচ্য বিষয় হল যথাসময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়া এবং সাংবিধানিক পদ্ধতি রক্ষা করা। বিএনপি একটি নিবন্ধিত দল। তারা নির্বাচন করলে করবে। তবে রাজাকার, জঙ্গি এবং দুর্নীতির সাজাপ্রাপ্ত অপরাধীদের নির্বাচন না করাই ভালো।’

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) ও আওয়ামী লীগের মধ্যে মহাঐক্য আছে এবং থাকবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘গত ১০ বছর ধরে জাসদ-আওয়ামী লীগ মহাঐক্যের মধ্যে রয়েছে। ভবিষ্যতেও থাকবে।’

এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় জাসদের স্থায়ী কমিটির সদস্য শাহ জিকরুল আহমেদ, নাট্য অভিনেতা নাদের চৌধুরী, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসাইন, নবীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মাসুম প্রমুখ।

খারঘর গণকবরের স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে বিকেলে মন্ত্রী নবীনগর সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উপজেলা জাসদের আয়োজিত এক জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নেন।

আপনার মতামত লিখুন :

৯৯ শতাংশ প্রেসিডিয়ামের সমর্থন পাচ্ছি: জিএম কাদের

৯৯ শতাংশ প্রেসিডিয়ামের সমর্থন পাচ্ছি: জিএম কাদের
পার্টির যৌথসভা শেষে জাপা চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের সংবাদ সম্মেলন/ ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

জাতীয় পার্টির (জাপা) ৯৯ শতাংশ প্রেসিডিয়াম সদস্যের সমর্থন পাচ্ছেন বলে মন্তব্য করেছেন পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

শনিবার (২০ জুলাই) জাতীয় পার্টির বনানী কার্যালয়ে পার্টির জরুরি যৌথসভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

জিএম কাদের বলেন, ‘বন্যার্তদের সহায়তার কর্মসূচি প্রণয়নের জন্য বৈঠক করা হয়েছে। মিটিংয়ে ৮০ শতাংশ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। আমি আগে থেকেই দায়িত্ব গ্রহণ করেছি। পার্টির চেয়ারম্যান জীবিত থাকা অবস্থায় আমাকে ভবিষ্যৎ চেয়ারম্যান ঘোষণা করেছেন। পার্টির গঠনতন্ত্র তাকে সেই ক্ষমতা দিয়েছে।’

এরশাদ সব সময় নিজেকে শৃঙ্খলিত বলে মন্তব্য করতেন। আপনিও কি তেমন অবস্থার মধ্যে আছেন কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে জিএম কাদের বলেন, ‘দায়িত্বটাই একটা শৃঙ্খল। অনেক কিছু চাইলেই করা যায় না। আপনি যদি বিয়েও করেন তখনও কিন্তু কিছু শৃঙ্খল তৈরি হয়।’

দেশের বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় কর্মসূচি গ্রহণের জন্য ডাকা এই সভায় কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, অঙ্গ, সহযোগী সংগঠনের সভাপতি, সম্পাদক ও মহানগর জাতীয় পার্টির থানা সমুহের সভাপতি, সম্পাদকদের ডাকা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা, প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাড. সিরাজুল ইসলাম, অ্যাড. সালমা ইসলাম, সহিদুর রহমান টেপা, সুনীল শুভরায়, হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী, ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারি, ছাত্র সমাজ নেতা ফয়সাল দিদার দীপু প্রমুখ।

জিএম কাদের চেয়ারম্যান হওয়ার পর এটাই প্রথম যৌথসভা। সভার শুরুতে জিএম কাদেরকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

ত্রাণ নিয়ে বন্যার্তদের কাছে যাবে জাতীয় পার্টি

ত্রাণ নিয়ে বন্যার্তদের কাছে যাবে জাতীয় পার্টি
জাতীয় পার্টির জরুরি যৌথসভায় বক্তব্য রাখেন পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

বন্যা কবলিত এলাকায় ত্রাণ নিয়ে যাবে জাতীয় পার্টি। দ্রুত সময়ের মধ্যে টিম পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানা গেছে।

শনিবার (২০ জুলাই) জাতীয় পার্টির বনানী কার্যালয়ে পার্টির জরুরি যৌথসভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। সভায় কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যদের সর্বনিম্ন দুই মাসের চাঁদার সমপরিমাণ টাকা ত্রাণ ফান্ডে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

সভায় মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা দলের সংসদ সদস্যদের এক লাখ টাকা করে দেওয়ার অনুরোধ করেন। তার এ প্রস্তাবে অন্যরা সমর্থন জানান। যমুনা গ্রুপের কর্ণধার সংসদ সদস্য সালমা ইসলাম পাঁচ লাখ টাকা এবং প্রেসিডিয়াম সদস্য এমএ মান্নান, সোলায়মান আলম শেঠসহ অনেকে এক লাখ টাকা করে দেওয়ার ঘোষণা দেন।

সভায় অনেকে ১৯৮৮ সালের বন্যায় হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের বন্যা দুর্গতের পাশে দাঁড়ানোর সেই প্রশংসনীয় উদ্যোগ স্মরণ করেন। তারা এবারও তেমন জোরালো উদ্যোগ নেওয়ার সুপারিশ করেন।

s
জাতীয় পার্টির জরুরি যৌথসভা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

 

দেশের বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় কর্মসূচি গ্রহণের জন্য ডাকা এ সভায় কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, অঙ্গ, সহযোগী সংগঠনের সভাপতি, সম্পাদক ও মহানগর জাতীয় পার্টির থানাগুলোর সভাপতি, সম্পাদকদের ডাকা হয়েছে।

সিনিয়র নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত আছেন পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা, প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম, সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম, সংসদ সদস্য সহিদুর রহমান টেপা, সংসদ সদস্য সুনীল শুভরায়, সংসদ সদস্য সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, সংসদ সদস্য মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী, সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারি, ছাত্র সমাজ নেতা ফয়সাল দিদার দীপু প্রমুখ।

জিএম কাদের চেয়ারম্যান হওয়ার পর এটাই প্রথম যৌথসভা। সভার শুরুতে জিএম কাদেরকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র