Barta24

সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

ডাকে সাড়া দিচ্ছেন এরশাদ

ডাকে সাড়া দিচ্ছেন এরশাদ
সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন জিএম কাদের, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
ঢাকা


  • Font increase
  • Font Decrease

অন্য দিনের চেয়ে আজ জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের অবস্থা কিছুটা ভালো মনে হয়েছে। ডাক দিলে সাড়া দিচ্ছেন, চোখ মেলে তাকাচ্ছেন বলেন জানিয়েছেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) দুপুরে জাতীয় পার্টির বনানী কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে এ কথা জানান তিনি।

জিএম কাদের বলেন, ‘মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ওনাকে দেখতে গিয়েছিলাম। সে সময় চিকিৎসকরা ওনাকে ডাক দিলে উনি চোখ মেলে আমার দিকে তাকিয়েছেন। ওনার কিডনি ফাংশন করে কিনা দেখার জন্য আজ ডায়ালাইসিস বন্ধ করা হয়েছে। প্রধান ইনফেকশনগুলো কমে এসেছে। তবে হজম প্রক্রিয়া কাজ করছে না বলে ভেইনের মাধ্যমে খাবার দেওয়া হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘লিভারে বিলোরুবিনের মাত্রা কিছুটা বেড়েছে। রক্তে প্লাটিলেট দেওয়া হচ্ছে প্রতিদিনই। শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়নি বরং কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তবে শঙ্কামুক্ত বলা যাচ্ছে না।’

এরিক এরশাদকে হুমকি দেওয়া প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে জিএম কাদের বলেন, ‘এ বিষয়ে আমার খুব বেশি ভালো জানা নেই। সে কারণে বিস্তারিত বলতে পারব না। তবে কোনো হুমকির ঘটনা ঘটলে থানাকে অবহিত করতে হয়। আমরাও তাই করেছি।’

অনেক দিন ধরেই অসুস্থতার মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন এরশাদ। ঠিক মতো হাঁটাচলার শক্তি হারিয়ে ফেলেছেন। ২০ নভেম্বরের পর আর কোনো দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নেননি। হাসপাতাল-বাসার মধ্যেই আবদ্ধ ছিলেন। গত ২৬ জুন অসুস্থতা বেড়ে গেলে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি হন। প্রথমে ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে ভর্তি করা হয় এরশাদকে। অবস্থার আরও অবনতি হলে তাকে লাইফ সাপোর্ট দেওয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য মসিউর রহমান রাঙ্গা, এসএম ফয়সল চিশতী, আলমগীর শিকদার লোটন, উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য অধ্যাপক ইকবাল হোসেন রাজু প্রমুখ।

অনেক দিন ধরেই অসুস্থতার মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন এরশাদ। ঠিকমতো হাটা চলার শক্তি হারিয়ে ফেলেছেন। ২০ নভেম্বরের পর আর কোনো দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নিতে দেখা যায় নি।হাসপাতাল-বাসার মধ্যেই আবদ্ধ ছিলেন।গত ২৬ জুন অসুস্থতা বেড়ে গেলে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি হন। প্রথমে ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে ভর্তি করা হয়। অবস্থা আরও অবনতি হলে তাকে লাইফ সার্পোট দেওয়া হয়।

আরও  পড়ুন:


কৃত্রিম সাপোর্টে বেঁচে আছেন এরশাদ

এরশাদ ভালো আছেন, এ কথা বলব না

আপনার মতামত লিখুন :

দুঃশাসনের জবাবদিহিতার সময় সন্নিকটে: মির্জা ফখরুল

দুঃশাসনের জবাবদিহিতার সময় সন্নিকটে: মির্জা ফখরুল
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, 'সকল অপকর্ম ও দুঃশাসনের জন্য জনগণের নিকট সরকারের জবাবদিহি করার সময় অত্যন্ত সন্নিকটে।'

সোমবার (২২ জুলাই) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেছেন তিনি। বান্দরবান পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আলীকে গ্রেফতারের ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দেন বিএনপির মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল বলেন, 'আওয়ামী সরকার ফ্যাসিবাদী আচরণের আশ্রয় নিয়ে, দেশকে ক্রমান্বয়ে ভয়াবহ নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিচ্ছে। সরকার মানুষের ভোটের অধিকার এবং গণতান্ত্রিক অধিকারকে পাত্তা না দিয়ে বাকশালী কায়দায় বিরোধী দল ও মত দমনে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। বিরামহীন গতিতে বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনগুলোর নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা-কাল্পনিক কাহিনী তৈরি করে মামলা দিচ্ছে। একই সঙ্গে কারান্তরীণ করা হচ্ছে।'

মোহাম্মদ আলীকে গ্রেফতার সরকারের ধারাবাহিক অপকর্ম ছাড়া বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। যা তাদের চলমান দমন নীতিরই ধারাবাহিকতা বলেও জানান তিনি।

৫ বিভাগে বিএনপির ত্রাণ কমিটি গঠন

৫ বিভাগে বিএনপির ত্রাণ কমিটি গঠন
ছবি: সংগৃহীত

দেশের বিভিন্ন স্থানে বন্যায় কবলিত মানুষের পাশে দাঁড়াতে পাঁচটি পৃথক ত্রাণ কমিটি গঠন করেছে বিএনপি। রাজশাহী, রংপুর, সিলেট, ময়মনসিংহ ও ফরিদপুর বিভাগে গঠিত এসব কমিটি আগামী মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) থেকেই কার্যক্রম শুরু করবে।

সোমবার (২২ জুলাই) বিকেলে রাজধানীর গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে দলটির ২১ সদস্যের কেন্দ্রীয় ত্রাণ কমিটির বৈঠক হয়। বৈঠকের পর বিএনপির কেন্দ্রীয় ত্রাণ কমিটির আহ্বায়ক ও স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু এসব তথ্য জানান।
বৈঠকে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল এবং লন্ডন থেকে স্কাইপে যুক্ত ছিলেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। যথাযথভাবে ত্রাণ কার্যক্রম চালাতে তিনি নির্দেশ দিয়েছেন বলেও জানা গেছে।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেনকে ময়মনসিংহে, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য মিজানুর রহমান মিনুকে রাজশাহী ও খন্দকার মোক্তাদিরকে সিলেটে, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে রংপুরে ও খায়রুর কবির খোকনকে ফরিদপুর বিভাগের বিভাগীয় ত্রাণ কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে।

ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, ‘প্রতিটি বিভাগের ত্রাণ পরিচালনার জন্য একটি করে কমিটি গঠন করেছি। কমিটিগুলোর নেতৃত্ব দেবেন দলের সিনিয়ন নেতৃবৃন্দ এবং তাদের সঙ্গে সমন্বয়কারী হিসেবে থাকবেন সাংগঠনিক সম্পাদকবৃন্দ। এছাড়া প্রতিটি জেলায় একটি করে ত্রাণ কমিটি থাকবে। আগামী মঙ্গলবার থেকে রিলিফ কমিটি কাজ শুরু করবে। এই টিমের সঙ্গে একটি করে মেডিকেল টিম থাকবে, আমরা ভ্রামমাণ মেডিকেল ক্যাম্প করব।’

কেন্দ্রীয় ত্রাণ কমিটির বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ বুলু, মোহাম্মদ শাহজাহান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মনিরুল হক চৌধুরী, জয়নুল আবদিন ফারুক, যুগ্ম মহাসচিব মজিবুর রহমান সারোয়ার, হারুনুর রশীদ, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, আসাদুল হাবিব দুলু, সাখাওয়াত হাসান জীবন, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, বিলকিস জাহান শিরিন, শামা ওবায়েদ, দলটির কেন্দ্রীয় নেতা মীর সরাফত আলী সপু, আবদুল লতিফ জনি, হালিমা নেওয়াজ আরলি, রফিকুল ইসলাম, আমিরুল ইসলাম আলীম, মইনুল হাসান সাদী, আমিনুল ইসলাম, তাজভীরুল ইসলাম, রিয়াজউদ্দিন নসু, আবদুল খালেক, জাকির হোসেন বাবু, রাবিকুল করীম পাপু প্রমুখ।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র