Barta24

শনিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৯, ২ ভাদ্র ১৪২৬

English

নরেন্দ্র মোদিকে ওমর ফারুক চৌধুরীর অভিনন্দন

নরেন্দ্র মোদিকে ওমর ফারুক চৌধুরীর অভিনন্দন
ছবি: সংগৃহীত
সেন্ট্রাল ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ভারতের লোকসভা নির্বাচনে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) টানা দ্বিতীয়বারের মতো জয় পাওয়ায় দলটির নেতা ও দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে অভিনন্দন জানিয়েছেন আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী। এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, নরেন্দ্র মোদি ক্ষমতায় আসার পর ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্কে যে উষ্ণতার সূচনা হয়েছিল, এবারের বিজয়ের ফলে তা নতুন মাত্রা পাবে।

ওমর ফারুক চৌধুরী আশা করেন, দ্বিতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হয়ে নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ককে এগিয়ে নিয়ে যাবেন। বিশেষ করে উপমহাদেশের তরুণদের উন্নয়নে তিনি বাস্তবানুগ পদক্ষেপ এবং কর্মসূচি গ্রহণ করবেন।

যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের গণতন্ত্রের প্রবর্তক। উন্নয়ন এবং উন্নয়নের গণতন্ত্রের মাধ্যমেই একটা দেশকে এগিয়ে নেওয়া যায়। নরেন্দ্র মোদি এই উন্নয়নের গণতন্ত্রের অন্যতম ধারক। তিনি তার একাধিক বক্তৃতায় বলেছেন যে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের গণতন্ত্রের চেতনাকে তিনি লালন করেন। ভারতে যে এবার নরেন্দ্র মোদির বিজেপি বিজয়ী হয়েছে, সেটা উন্নয়নের গণতন্ত্রের নীতি-কৌশলের কারণেই সম্ভব হয়েছে।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা যেমন এই অঞ্চলে জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাসবাদ নিরসন ও যুবক-তরুণদের মেধা-মননের বিকাশের জন্য কাজ করছেন, ঠিক তেমনি নরেন্দ্র মোদিও যুবক-তরুণদের উৎকর্ষতা সাধনের জন্য কাজ করে যাবেন। একই সঙ্গে এই উপমহাদেশকে শান্তির অঞ্চল হিসেবে গড়ে তুলতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করবেন নরেন্দ্র মোদি।

আপনার মতামত লিখুন :

বস্তির আগুনে জড়িতদের শাস্তি চান ড. কামাল

বস্তির আগুনে জড়িতদের শাস্তি চান ড. কামাল
আগুনে পুড়ে যাওয়া ঝিলপাড় বস্তি পরিদর্শনে যান ড. কামাল হোসেন

রাজধানীর মিরপুর-৭ নম্বর সেকশনের ঝিলপাড় বস্তিতে অগ্নিকাণ্ড নিয়ে সন্দেহের তীর ছুড়েছেন গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন। তিনি বলেন, আগুন লাগার সঙ্গে যে বা যারা জড়িত তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতেই হবে।

শনিবার (১৭ আগস্ট) বিকেলে আগুনে পুড়ে যাওয়া ঝিলপাড় বস্তি পরিদর্শন শেষে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় ড. কামালের সঙ্গে ছিলেন গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়া, কার্যকরী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত রায় চৌধুরী, অধ্যাপক আবু সাইয়িদ, সংসদ সদস্য মোকাব্বির খান প্রমুখ।

ঘটনাস্থলে পৌঁছে গাড়ি থেকে নেমে দলের সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়ার কাঁধে ভর দিয়ে পোড়া বস্তির পাশে গিয়ে দাঁড়ান ড. কামাল হোসেন। সেখানে কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকার পর ফেরার পথে গণমাধ্যমকর্মীদের তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করি গভীরভাবে তদন্ত করা উচিত। যে বা যারা আগুন লাগানোর সঙ্গে জড়িত তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতেই হবে।’
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/17/1566040108478.jpg
তিনি বলেন, ‘ক্ষতিগ্রস্তদের সহযোগিতার জন্য সরকারি উদ্যোগও নিতে হবে, স্থানীয় জনগণের কাছেও আবেদন সবাই সাহায্য করেন। এভাবে ঘটনা ঘটা খুবই নিন্দনীয়। ঈদের সময় মানুষ অন্য চিন্তা না করে জায়গা খালি করার জন্য কিভাবে এমন করতে পারে চিন্তার মধ্যে আসে না।’

গণফোরাম সভাপতি বলেন, ‘সরকারের উচিত যাদের দায়িত্ব ছিল তারা সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করছে কি না ক্ষতিয়ে দেখা।’

ছাত্রদলের কাউন্সিলের মনোনয়ন ফরম বিতরণ শুরু

ছাত্রদলের কাউন্সিলের মনোনয়ন ফরম বিতরণ শুরু
বিএনপি নেতাদের কাছ থেকে মনোনয়ন ফরম নিচ্ছেন ছাত্রদলের এক নেতা

বিএনপির সহযোগী সংগঠন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ষষ্ঠ কাউন্সিলের নির্বাচনের মনোনয়ন ফরম বিতরণ শুরু হয়েছে।

শনিবার (১৭ আগস্ট) দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মনোনয়ন ফরম বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন নির্বাচনের আপিল কমিটির প্রধান ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু।

নতুন তারিখ অনুযায়ী আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত কাউন্সিলরদের ভোটে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শামসুজ্জামান দুদু বলেন, যারা এই দুঃসময়ে ছাত্রদলকে এগিয়ে নিতে শত নির্যাতন উপেক্ষা করে, কারাবরণ করে, হামলা-মামলা সহ্য করে তারেক রহমানের চিন্তা ও পরামর্শে একত্রিত হচ্ছেন তাদের অভিনন্দন জানাই।

তিনি বলেন, আমাদের ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে বীরের বেশে দেশে ফিরিয়ে আনতে এবং আমাদের জনপ্রিয় নেত্রী চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে মুক্ত করতে ছাত্রদলের আগামী নেতৃত্ব সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে বলে আশা প্রকাশ করছি।

উদ্বোধনের পর মনোয়নপত্র সংগ্রহ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের যুগ্ম-সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, ছাত্রদলের বিলুপ্ত কমিটির তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সহ-সম্পাদক মামুন খান এবং ছাত্রদল নেতা আলিমুল হাকিম মুন্সি।

নতুন ঘোষণা অনুযায়ী, সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে মনোনয়নপত্র বিতরণ ১৭ ও ১৮ আগস্ট। জমা দেওয়া যাবে ১৯ ও ২০ আগস্ট। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৩১ আগস্ট। ২২-২৬ আগস্ট যাচাই-বাছাই শেষে ২ সেপ্টেম্বর চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হবে।

এরপর ১২ সেপ্টেম্বর মধ্যরাত পর্যন্ত প্রার্থীরা ভোটের জন্য প্রচার চালাতে পারবেন। ১৪ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে ভোটগ্রহণ হবে।

মনোনয়ন ফরম বিতরণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ড. আসাদুজ্জামান রিপন, ফজলুল হক মিলন, অ্যাড. রুহুল কবির রিজভী, সভাপতি আজিজুল বারী হেলাল,আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, রাজিব আহসান, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, ডাকসুর সাবেক জিএস খায়রুল কবির খোকন, সভাপতি সাবেক ছাত্রনেতা এবি এম মোশাররফ হোসেন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিউল বারী বাবু, হাবিবুর রশিদ হাবিব, আকরামুল হাসান প্রমুখ।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র